Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

গাড়ি চালক হুমায়ুন কবিরের গানের প্রতিভা

প্রকাশিত:Friday ২০ May ২০22 | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২৯৯জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায়ই নানা ভিডিও ভাইরাল হয়। কখনও নাচ, গান, কখনও বা পশু পাখির ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা যায়। বহু মানুষের সুপ্ত প্রতিভাও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রতিভার যোগ্য সম্মানও পেয়েছেন অনেকেই। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতেই রাতারাতি ভাইরাল হয়ে গেছেন অনেকেই।



ফের এক প্রতিভা প্রকাশ পেয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তিনি পেশায় একজন গাড়ি চালক।পেশায় একজন গাড়ি চালক হয়েও গান লিখেছেন ৫০ টির মতো।তার নাম হুমায়ুন কবির একাধারে কণ্ঠশিল্পী, গীতিকার, সুরকার। দিন নেই রাত নেই, ডাক আসলেই ছুটতে হয় তাঁকে। মানুষকে সঠিক গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়াই তাঁর কাজ। এর জন্য দিন রাত এক করে খাটতে হয় তাঁকে। তবেই জোটে পেটের ভাত। 



কিন্তু এসব খাটনি দমাতে পারেনি তাঁর গানের সত্ত্বাকে। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া ইউটিউবে এইচ কে মিউজিক নামক চ্যানেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে তার গাওয়া গান মুক্তি পেয়েছে।


তার শৈশব কেটেছে বরিশাল বিভাগের পটুয়াখালীতে।তিনি পেশায় একজন গাড়ি চালক হলেও তার প্রতিভা অসাধারন।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কে  নিয়ে গান লিখেছেন।বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান কে নিয়ে গান লিখেছেন।সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা কে নিয়েও তিনি গান লিখেছেন।সরকারের উন্নয়ন,শেখহাসিনাকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান বানিয়ে নিজেই তাতে কন্ঠ দেন।তার গাওয়া গান সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যানে ইউটিউবে প্রচারিত হচ্ছে।অনেকেই তাকে নিয়ে প্রশংসা করেছে।



গন মানুষের কাছে তিনি আজ সমাদৃত একজন শিল্পী।গীতিকার হুমায়ুন কবির প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চান।তিনি বলেন নিজের ব্যাক্তিগত তাগিদেই তিনি গান লিখেন নিজের গানে নিজেই সুর করেন নিজেইতাতে কন্ঠ দেন।পেশা যাই হোক না কেন, তার গানে জাদু আছে যা সহজেই শ্রোতাদের মনকে আকৃষ্ট করতেপারে।



তিনিজানান,"আমাদের বাংলাদেশের মানুষের মুক্তির জন্য কাজ করতে গিয়ে বঙ্গবন্ধুকে প্রান দিতে হয়েছে, তার কন্যা বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য কাজ করছেন,দেশে আজ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমুল উন্নয়ন সাধিত হয়েছে এসব কিছু আমাকে ভাবায়,আমি সরকারের উন্নয়ন নিয়ে গানের মাধ্যমে তা মানুষ কে জানান দেই,বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান করি"। গানের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকে মানুষের অন্তরে চিরদিন জাগ্রত করে রাখতে আমি গান করি।



হুমায়ুন কবির এর গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালী জেলার বাউফল উপজেলার পোনাপুরা গ্রামে।বর্তমানে স্ব-স্ত্রীক বসবাস করেন রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ি থানা মাতুয়াইল আদর্শবাগ এলাকায়।ব্যাক্তি জীবনে তিনি চার কন্যা সন্তানের জনক।



গানটির লিংক দেয়া হলো https://www.youtube.com/watch?v=t2Qy3p7I-ko&ab_channel=HKMusic শুনে কমেন্ট ও শেয়ার করুন


আরও খবর



আন্দোলনের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে: খসরু

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে গণতন্ত্রের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবের মাওলানা আকরাম খাঁ হলে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

সুশীল ফোরাম আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মো. জাহিদ।

খসরু বলেন, এই ভোটারবিহীন সরকারের আমলে এবং গণতান্ত্রিকভাবে সরকার প্রতিষ্ঠা না করা হলে জনগণ মুক্তি পাবে না। গণতন্ত্র উদ্ধারে দলমত নির্বিশেষ ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। মানুষের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েছে বর্তমান ক্ষমতাসীন দল। দেশের মুক্তিকামী মানুষ এ পরিস্থিতি আর সহ্য করবে না। তাই গণতন্ত্রকে ফিরে পেতে দলমতের ঊর্ধ্বে উঠে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। গণবিরোধী সরকারকে মনে রাখতে হবে, প্রশাসন যন্ত্রকে ব্যবহার করে রাতের আঁধারের বিনা ভোটের সরকারের গদি রক্ষা করা যাবে না। তাই খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে গণতন্ত্রের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

তিনি বলেন, দেশের জনগণ এই সরকারকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না। তাই জনগণের বাকস্বাধীনতা ও ভোটের অধিকার, ভাতের অধিকার ফিরিয়ে আনতে আন্দোলনের বিকল্প নেই।

তিনি আরও বলেন, সিলেটসহ সারাদেশে যেসব জায়গা বন্যাকবলিত, সেসব এলাকায় সবাইকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, জাগপার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লুৎফর রহমান, বিএনপির সমাজ কল্যাণবিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, যুব জাগপার সভাপতি মীর আমির হোসেন আমু, কৃষকদল নেতা রমিজ উদ্দিন রুমি প্রমুখ।


আরও খবর



‘উন্নয়ন চোখে পড়ে না এমন অন্ধরা যাতে ক্ষমতায় না আসে’

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন চোখে পড়ে না এ জাতীয় অন্ধ মানুষরা যাতে চোরা বালুর পথ সৃষ্টি করে ক্ষমতায় আসতে না পারে, সেদিকে খেয়াল রাখার পরামর্শ দিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

শুক্রবার (৩ জুন) সকাল ১০টায় পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার কুয়াকাটায় সীউইড মেলা উদ্বোদন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ পরামর্শ দেন। কুয়াকাটা পর্যটন হলিডে কমপ্লেক্সে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট এ মেলার আয়োজন করে।

মন্ত্রী বলেন, তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা নেতৃত্ব দিয়ে দেশের যে উন্নয়ন হয়েছে, তা অনেকের চোখেও পড়ে না। এ জাতীয় কিছু অন্ধ মানুষ আছে তারা উন্নয়নের সুযোগ সুবিধা নিবে কিন্তু উন্নয়নের প্রশংসা করতে জানে না। তারা আবার কোনো রকম চোরা বালুর পথ সৃষ্টি করে ক্ষমতায় আসার নীল নকশা করে যাতে সফল হতে না পারে সেই দিকে সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, নিজের এবং এলাকার উন্নয়ন যদি চান শেখ হাসিনার সঙ্গে থাকতে হবে। সরকার আপনাদের পাশে আছে।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী, মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মাহবুবুল হক, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তৌফিকুল ইসলাম।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন- কলাপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম রাকিবুল আহসান, উপজেলা মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান শাহিনা পারভীন, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক প্যানেল, স্থানীয় মৎস্যজীবী সংগঠনের নেতারা।


আরও খবর



সঠিক তথ্য দিয়ে সব নাগরিককে জনশুমারিতে অংশ নেওয়ার আহ্বান

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

সব নাগরিককে সঠিক তথ্য প্রদানের মাধ্যমে জনশুমারি ও গৃহগণনা-২০২২ এ অংশগ্রহণ করার আহ্বান জানিয়েছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) স্পিকার তথ্য সংগ্রহকারী দলের কাছে নিজের এবং পরিবারের তথ্য প্রদানের মাধ্যমে জনশুমারি ও গৃহগণনায় অংশগ্রহণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্পিকারের স্বামী সৈয়দ ইশতিয়াক হোসেন।

তথ্য প্রদান শেষে স্পিকার বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী পরিকল্পনায় এদেশের জনগণ ডিজিটাল বাংলাদেশের সব সুযোগ সুবিধা উপভোগ করছে। এবারই প্রথম ডিজিটাল পদ্ধতিতে জনশুমারি কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এ সময় তিনি জনশুমারি ও গৃহগণনা-২০২২ এর সফলতা কামনা করেন।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর জনশুমারি ও গৃহগণনা-২০২২ প্রকল্পের পরিচালক মো. দিলদার হোসেনের নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দল স্পিকার এবং তার পরিবারের তথ্য সংগ্রহ করেন।

সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে ১৫ জুন শুরু হওয়া জনশুমারি আগামী ২১ জুন পর্যন্ত পরিচালিত হবে। এতে একজন নাগরিকের নিকট হতে মোট ৪৫ ধরনের তথ্য নেওয়া হবে।


আরও খবর



মালয়েশিয়ার বিপক্ষে শেষটা ভালো চায় বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Monday ১৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

এক এক করে দুটি ম্যাচ খেলা হয়ে গেছে বাংলাদেশের। এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের ঠিক শেষ পর্যায়ে দাঁড়িয়ে জামাল ভূঁইয়ারা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মালয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মিশন শেষ করবে হ্যাভিয়ের ক্যাবরেরার শিষ্যরা। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায় দুই দেশের ম্যাচটি শুরু হবে। বেসরকারি টেলিভিশন টি-স্পোর্টস ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে।

আগের ম্যাচে তুর্কমেনিস্তানের বিপক্ষে লড়াকু ফুটবল খেলে বাংলাদেশ ২-১ গোলে হেরেছে। তার আগে প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ ২-০ গোলে হেরেছে বাহরাইনের বিপক্ষে। শেষ ম্যাচটায় কি করবে বাংলাদেশ?

আন্তর্জাতিক ফুটবলে নিকট অতীতে বাংলাদেশ সেরা ম্যাচটি খেলেছে তুর্কমেনিস্তানের বিপক্ষে। ম্যাচটি বাংলাদেশ ড্র করতে পারতো। ভাগ্য বেশি সহায় থাকলে জিতলেও অবাক হওয়ার ছিল না। কিন্তু ফুটবল কখনো কখনো আপনাকে দুহাত ভরে দেবে, কখনো বঞ্চিত করবে। ওই দিন আসলে বাংলাদেশের বঞ্চিত হওয়ার দিনই ছিল। নাহলে এত সুন্দর ফুটবল খেলেও হেরে যাবে কেন?

তিন ম্যাচের দুটি হেরে যাওয়ার পর আক্ষরিক অর্থে বাংলাদেশের আর কোন সুযোগ নেই। গাণিতিক হিসেব যে সম্ভাবনা আছে সেটা পূরণ হওয়া কঠিন। তাই বাংলদেশ দল চাইবে অনন্ত একটি জয় বা একটি পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে। সে লক্ষ্যটা পূরণ হবে কি?

আমরা যদি দুই দলের শক্তির পার্থক্য দেখি তাহলে পরিষ্কার ফেবারিট হয়েই মাঠে নামবে স্বাগতিকরা। শক্তির মাপকাঠি যদি ফিফা র‌্যাংকিং হয় তাহলে বাংলাদেশের চেয়ে ৩৪ ধাপ এগিয়ে মালয়েশিয়া। এই পার্থক্যটা বলে দিচ্ছে বাংলাদেশ যদি একটি পয়েন্টও অর্জন করতে পারে সেটা হবে বিশাল কৃতিত্বের।

আগের ম্যাচের প্রতিপক্ষ বাংলাদেশের সামনে অনেকটাই অপরিচিত হলেও মালয়েশিয়া তা নয়। এর আগে ৯ বার মুখোমুখি হয়েছে দুই দেশ। যার মধ্যে ৬ ম্যাচই জিতেছে মালয়েশিয়া। বাংলাদেশের একটি ম্যাচ জয় আছে মালয়েশিয়ার বিপক্ষে।

১৯৮২ সালে দিল্লি এশিয়ান গেমসে ২-১ গোলের জয় ছিল একমাত্র পুরো পয়েন্ট পাওয়ার। দুই ম্যাচ ড্র করেছে বাংলাদেশ। সর্বশেষ ম্যাচ ছিল ২০১৫ সালের আগস্টে ফিফা ফ্রেন্ডলিতে। ম্যাচটি ড্র হয়েছিল গোলশূন্যভাবে।


আরও খবর



যে আমলে মিলবে গুনাহ ও আজাব থেকে মুক্তি

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন, ‘নিশ্চয়ই দান-সাদকাহ (মানুষের) পাপাচারের কারণে আল্লাহর গজবের যে আগুন সৃষ্টি হয় তাকে নিভিয়ে দেয়; যেভাবে আগুন পানিকে নিভিয়ে দেয়।’ (তিরমিজি)

আল্লাহ তাআলা মানুষকে দান-সাদকার ফলে কৃত অপরাধের গুনাহ মাফ করে দেবেন। জাহান্নামের আগুন থেকে সুরক্ষা দেবেন। কেয়ামতের দিন আল্লাহর আরশের ছায়া দিয়ে সম্মানিত করবেন। শারীরিক ও আত্মিক রোগমুক্ত করবেন। এমনকি সম্পদের বরকত দান করবেন। হাদিসে এসেছে-

নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘সাদকার মাধ্যমে তোমাদের রোগীদের চিকিৎসা কর’ (আবু দাউদ, সহিহ জামে)

সর্বোত্তম দান

দান-সাদকার মধ্যে সর্বোত্তম দান হলো সম্পদের সল্পতা সত্ত্বেও যে ব্যক্তি অভাবগ্রস্ত লোকদের মধ্যে গোপনে দান করে। হাদিসে এসেছে-

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেছেন, নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন, ‘৩ ব্যক্তি আল্লাহর অত্যন্ত প্রিয়-

১. যে ব্যক্তি রাতে জেগে কোরআনুল কারিম তেলাওয়াত করে;

২. যে ব্যক্তি ডান হাতে আল্লাহর পথে ব্যয় করে অথচ বাম হাত তা জানে না এবং

৩. সে ব্যক্তি যে জেহাদে অংশগ্রহণ করে তার সঙ্গী পরাজিত হয়ে পলায়ন করে কিন্তু সে দুশমনের মোকাবেলায় সুদৃঢ় থাকে।’ (তিরমিজি)

অন্য হাদিসে এসেছে, নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আলাদা আলাদাভাবে এমন ৩ (আমলকারী) ব্যক্তির বর্ণনা দিয়েছেন যাদেরকে আল্লাহ পছন্দ করে; আবার ৩ শ্রেণির ব্যক্তিকে অপছন্দ করেন। হাদিসে এসেছে-

হজরত আবু জর রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেছেন, ‘আল্লাহ তাআলা ৩ ব্যক্তিকে পছন্দ করেন আর ৩ ব্যক্তিকে অপছন্দ করেন। তারা হলো-

যাদেরকে পছন্দ করেন

১. একজন সাহায্য প্রার্থী আল্লাহর ওয়াস্তে কিছু লোকের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করে, যাদের সঙ্গে তার আত্মীয়তার বন্ধন নেই মজলিশের কেউ তাকে সাহায্য করে না এমন অবস্থায় এক ব্যক্তি মজলিশ থেকে ওঠে গিয়ে এমন গোপনীয়তার সঙ্গে ওই ব্যক্তিকে সাহায্য করে যে, আল্লাহ ছাড়া অন্য কেউ তা জানেন না

২. মুসলমানদের একটি দল শত্রুর সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত। রাতের শেষ প্রহরে মানুষ যখন ঘুমে মগ্ন; সে সময় যে ব্যক্তি জেগে থেকে আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করে ও কোরআন তেলাওয়াত করতে থাকে।

৩. সে ব্যক্তি, যে জেহাদে অংশ গ্রহণ করে, জেহাদে পরাজিত হয়ে তার সঙ্গীরা পলায়ন করলেও সে শত্রুর মোকাবেলায় শাহাদাত বরণ করার আগ পর্যন্ত কিংবা বিজয় লাভ করা পর্যন্ত জেহাদে রত থাকে।

যে ৩ ব্যক্তিকে আল্লাহর অপছন্দ করেন

১. বৃদ্ধ ব্যভিচারী;

২. অহংকারি ভিক্ষুক এবং

৩. অত্যাচারী সম্পদশালী ব্যক্তি।

উল্লেখিত হাদিসগুলোর আলোকেও বুঝা যায় যে, দানের গুরুত্ব অপরিসীম। যে কাজ অর্থ-সম্পদ ও সময় ব্যয় করে অর্জন করা সম্ভব নয়; শুধুমাত্র দান-সাদকার মাধ্যমে আল্লাহ তাআলা মানুষকে তা দান করেন।

মানুষের উচিত চরম অর্থাভাবেও আল্লাহর রাস্তায় দান করা। দ্বীন ও ইসলামের পথে অকাতরে দান করা। যে কারণে ইসলামের প্রাথমিক যুগে দান-সাদকার প্রতিযোগিতা করেছিলেন হজরত আবু বকর, ওমর, ওসমান রাদিয়াল্লাহু আনহুমসহ অগণিত সাহাবায়ে কেরাম। মুসলিম উম্মাহর শিক্ষা গ্রহণের লক্ষ্যে যা ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লিখা রয়েছে।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে সুখ-দুঃখ, স্বচ্ছল ও অস্বচ্ছল অবস্থায় গরিব দুঃখীর মাঝে আল্লাহর ওয়াস্তে অকাতরে দান করার তাওফিক দান করুন। দান-সাদকার মাধ্যমে সুস্থতা, গুনাহ ও আল্লাহর কঠিন পরীক্ষা ও আজাব থেকে মুক্ত থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর