Logo
আজঃ Wednesday ২৬ January ২০২২
শিরোনাম
অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সহ-শিল্পীদের নগ্ন ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিদেশের মাটিতে কৃষিপণ্য সরবরাহ বাড়াণোর লক্ষ্যে : ইরান রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল স্বপ্নের মেট্রোরেল রওনা হলো আগারগাঁওয়ের উদ্দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণে ভারতে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ মুরাদ হাসান এমিরেটসের ফ্লাইটে কানাডা গেলেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু বিশ্বের ৪৩তম ক্ষমতাধর নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

গাজীপুরে ৩০ সেকেন্ডেই মা-মেয়ের জীবন শেষ করল দুই খুনি

প্রকাশিত:Saturday ২৭ November ২০২১ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৪২৯জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image

 

 

 গাজীপুরে মা-মেয়েকে গলা কেটে হত্যার রহস্য ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে উদঘাটন করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে দুই খুনিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মাত্র ৩০-৪০ সেকেন্ডেই মা-মেয়েকে হত্যা করা হয় বলে জানিয়েছেন তারা।

 

জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার সালদিয়া গ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা হলেন- একই গ্রামের সাত্তার খানের ছেলে জাহিদুল ইসলাম ও মনির হোসেনের ছেলে মহিউদ্দিন ওরফে বাবু।

শনিবার দুপুরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর দফতরে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) মো. জাকির হাসান।

তিনি জানান, ১২ বছর আগে রাজশাহী জেলার বাসিন্দা জয়নাল আবেদীনের সঙ্গে ফেরদৌসীর বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ১১ বছরের মেয়ে হাফসা ও চার বছরের তাসমিয়া রয়েছে। কিন্তু বনিবনা না হওয়ায় স্বামীকে তালাক দিয়ে বাবার বাড়িতে চলে আসেন ফেরদৌসী। এরপর মোবাইল ফোনে পরিচয়ের মাধ্যমে তিন বছর আগে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রবিউল ইসলামের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। রবিউলেরও আরেক সংসার ছিল। কিন্তু দুই বছর আগে তার সঙ্গেও ফেরদৌসীর ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

 

এরপর দুই মেয়েকে নিয়ে হাড়িনাল এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে গার্ডিয়ান লাইফ ইনস্যুরেন্স লিমিটেডে চাকরি করেন। এছাড়া তিন মাস আগে স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয় বাবুর। পরে ফেরদৌসীর সহায়তায় একই কোম্পানিতে চাকরি নেন বাবু। কিন্তু বিচ্ছেদের ঘটনায় ফেরদৌসীকেই দায়ী মনে করেন তিনি। আর এ প্রতিশোধ নিতেই হত্যার পরিকল্পনা।

 

পরিকল্পনা অনুযায়ী বুধবার সন্ধ্যায় ইনস্যুরেন্সের টাকা দেওয়ার কথা বলে মোবাইল ফোনে ফেরদৌসীকে ডাকেন বাবুর বন্ধু জাহিদুল। ফোন পেয়ে মেয়ে তাসমিয়াকে নিয়ে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের দেশীপাড়া এলাকায় যান ফেরদৌসী। সেখানে যেতেই তাকে ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কাটেন জাহিদুল ও বাবু। মাকে রক্তাক্ত দেখে চিৎকার করলে মেয়েকেও গলা কেটে হত্যা করেন তারা। দুটি খুন করতে তারা সময় নেন মাত্র ৩০-৪০ সেকেন্ড। এরপর তারা মোটরসাইকেলে পালিয়ে যান।

বুধবার রাতে দেশীপাড়া এলাকায় সড়কের পাশে মা-মেয়ের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন এক কেয়ারটেকার। পরে লাশ দুটি উদ্ধার করে পুলিশ।

 

নিহতরা হলেন- গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার জাঙ্গালীয়া ইউনিয়নের বড়াইয়া গ্রামের বাছির উদ্দিন বছুর মেয়ে ফেরদৌসী আক্তার ও তার চার বছর বয়সী মেয়ে তাসমিয়া আক্তার। ফেরদৌসী স্থানীয় চান্দনা চৌরাস্তার এলাকার গার্ডিয়ান লাইফ ইনস্যুরেন্স লিমিটেডের মাঠকর্মী হিসেবে কাজ করতেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর



ওমিক্রন প্রতিরোধে নির্দেশনা জারি করলেন পুলিশ সদস্যদের

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১৬৫জন দেখেছেন
Image

করোনাভাইরাসের এর নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও এর প্রাদুর্ভাব দেখা যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ পুলিশ সদস্যদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এবং করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন প্রতিরোধে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বাংলাদেশ পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এআইজি (অপারেশনস-২) মোহাম্মদ উল্ল্যা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নির্দেশনাগুলো হলো

১. প্রত্যেক পুলিশ সদস্য ডিউটি পালনের সময় অবশ্যই মাস্ক, গ্ল্যাভস, হেডকভার, ফেসশিল্ড প্রভৃতি পরিধান করবেন।

২. ডিউটি পালনকালে কিছু সময় পর পর হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে এবং নিয়মিত ডিউটি শেষে সাবান/হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে।

৩. কোডিড-১৯ (ওমিক্রন) উপসর্গ দেখা দিলে আইসোলেশন সেন্টারে রেখে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।

৪. প্রত্যেক পুলিশ সদস্যকে দ্রুত সময়ের মধ্যে কোডিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে হবে। এক্ষেত্রে ইউনিট ইনচার্জ কর্তৃক অধীন পুলিশ ও নন-পুলিশ সদস্যদের ভ্যাকসিন গ্রহণ নিশ্চিত করা।

৫. পুলিশের সব ইউনিটে ‘No Mask No Service’ এবং ’No Mask No Entry’ নির্দেশনা প্রতিপালন করা এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে মাস্কের ব্যবস্থা রাখা।

৬. ডিউটিরত সব ক্ষেত্রে শারীরিক দূরত্ব (কমপক্ষে ৩ ফুট বা ১ মিটার), হাঁচি-কাশির শিষ্টাচার ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

৭. সেবা গ্রহীতা ও দর্শনার্থীদের পুলিশ স্থাপনায় প্রবেশের ক্ষেত্রে শরীরের তাপমাত্রা নির্ণয় ও হাত ধোয়া/স্যানিটাইজ নিশ্চিত করা।

৮. প্রত্যেক পুলিশ সদস্যের ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রী (মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ইত্যাদি) ব্যবহার নিশ্চিত করা।

৯. অপারেশনাল কাজে ব্যবহৃত অস্ত্র, হ্যান্ডকাফ, রায়ট গিয়ার, হ্যান্ডমাইক, মেটাল ডিটেক্টর, আর্চওয়ে ইত্যাদি যথাযথভাবে জীবাণুমুক্ত করা।

১০. ডিউটি শেষে আবাসস্থলে প্রবেশের আগে ইউনিফর্ম ও জুতা ভালোভাবে জীবাণুমুক্ত করা এবং সাবান দিয়ে গোসল করা।

১১. ডাইনিং রুম, ক্যান্টিন, বিনোদন কক্ষ, রোল কল, ডিউটিতে যাবার পূর্বে ও ডিউটি হতে ফেরার পরে, সমাবেশস্থলে সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রীর ব্যবহার নিশ্চিত করা।

১২. কোভিড-১৯ উপসর্গ দেখা দিলে কিংবা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে ছিল বা এসেছে এমন পুলিশ সদস্যদের দ্রুততম সময়ের মধ্যে কোভিড পরীক্ষার ব্যবস্থা করা।

১৩. কোভিড-১৯ পজেটিভ সদস্যদের ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী কেন্দ্রীয়/বিভাগীয়/জেলা পুলিশ দাসপাতাল ও স্থানীয় হাসপাতালে রেখে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা।

১৪. জরুরি প্রয়োজনে রোগীকে অন্যত্র স্থানান্তরের ক্ষেত্রে ইউনিট ইনচার্জ কর্তৃক তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

১৫. ইউনিট ইনচার্জ ও অন্যান্য কর্মকর্তাদের নিজ ইউনিটের আক্রান্ত সদস্য ও তার পরিবারের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখা এবং সার্বিক সহায়তা প্রদান করা।

১৬. হাজতখানা সর্বদা জীবাণুমুক্ত রাখা এবং হাজতে থাকাকালীন কোন ব্যক্তির কোডিড-১৯ এর লক্ষণ প্রকাশ পেলে অবিলম্বে তাকে পৃথক করে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া।

১৭. রেশন সামগ্রী, ওষুধ ইত্যাদি সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও বিতরণের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করা।

১৮. কোডিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স কর্তৃক প্রণীত এসওপি এর নির্দেশনাসমূহ অনুসরণ এবং রোলকলে সচেতনতামূলক ব্রিফিং প্রদান করা।

১৯. কোডিড-১৯ সংক্রাতে ইতিপূর্বে প্রেরিত নির্দেশনা যথাযথ ও আন্তরিকভাবে প্রতিপালন করবেন।

২০. প্রত্যেক পুলিশ ইউনিটে কর্মরত সব সদস্যদের স্থানীয় স্বাস্থ্য প্রশাসনের সঙ্গেসমন্বয়পূর্বক কোভিড-১৯ (বুস্টার ডোজ) ভ্যাকসিন গ্রহণে নিশ্চিত করতে হবে।

২১. কোভিড-১৯ সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী বিধায় সব পুলিশ সদস্য ও তাদের পরিবারবর্গকে অবশ্যই যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিশ্চিত করতে হবে


আরও খবর



নাসিরনগরের প্রতারক লিটনের বিরোদ্ধে সেলিম চৌধুরীর ১০ লক্ষ টাকা আত্মসাতের মামলা

প্রকাশিত:Sunday ২৩ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৮৪জন দেখেছেন
Image


পর্ব-৪

মোঃ আব্দুল হান্নানঃ 

ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলা সদরের আব্দুল গাফ্ফারের ছেলে জধন এর হাতে গ্রেপ্তার হওয়া প্রতারক মোঃ লিটন মিয়া(৩৫) এর বিরোদ্ধে ১০ লক্ষ টাকা আত্মসাতের বিষয়ে আশুরাইল বেণীপাড়া গ্রামের আজব আলী চৌধুরীর ছেলে মোঃ সেলিম চৌধুরী বাদি হয়ে ব্রাক্ষণবাড়িয়ার বিজ্ঞ আদালতে এন,আই  এ্যাক্টের ১৩৮ বিধান মতে আরো একটি চেক জালিয়াতির মামলা করার খবর পাওয়া গেছে।


জানা গেছে বাদী সেলিম চৌধুরী একজন ইট,বালু,পাথর সালপ্লাইয়ার ও আসামী লিটন মিয়া একজন ঠিকাদার।ঠিকাদারী কাজের কথা বলে আসামী লিটন মিয়া বাদী সেলিম চৌধুরীর নিকট থেকে গত ২০১৯ সালের ৯ অক্টোবর নাসিরনগর সোনালী ব্যাংকের ১২১৩০ নম্ভর সঞ্চয়ী হিসাবের ৪২০৪৭৯৭ নম্ভরের একটি চেক প্রদান করে ১০ লক্ষ টাকা গ্রহন করে।ওই তারিখে বাদী সেলিম চৌধুরী নাসিরসগর সোনালী ব্যাংকে গিয়ে চেকটি নগদায়নের চেষ্টা করে।


কিন্তু লিটনের হিসাব নাম্ভারে কোন টাকা না থাকায় চেকটি ডিজনার হয়ে আসে।পরবর্তীতে বাদী সেলিম চৌধুরী আসামী প্রতারক লিটনের কাছ থেকে তার পাওনা টাকা আদায় করতে না পেরে ব্রাক্ষণবাড়িয়ার বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করে।বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে বলে বাদী সেলিম চৌধুরী জানিয়েছে।


-খবর প্রতিদিন/ সি.বা 


আরও খবর



কাল জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১২৬জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল শুক্রবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন।

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৭ জানুয়ারি (শুক্রবার) সন্ধ্যা সাতটায় আওয়ামী লীগ সরকারের বর্তমান মেয়াদের তিন বছর পূর্তি ও চতুর্থ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন।


আরও খবর



মাতুয়াইলের নাইয়ুম মিয়া রাজনৈতিক জীবনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন বলিষ্ঠ সৈনিক

প্রকাশিত:Sunday ০৯ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১৭০জন দেখেছেন
Image


বজলুর রহমানঃ

ত্যাগী নেতা-কর্মীদের জন্যই টিকে আছে আওয়ামী লীগ।আওয়ামী লীগ অনেক ত্যাগী ও অঙ্গীকারবদ্ধ নেতা তৈরি করেছে তার মধ্যে মাতুয়াইলের মোঃ নাইয়ুম মিয়া অন্যতম, রাজনৈতিক জীবনে তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন বলিষ্ঠ সৈনিক ও জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে সকলের নিকট পরিচিত।তিনি ছিলেন সাবেক ছাত্রলীগের পরীক্ষীত একজন নেতা।


মাতুয়াইল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক।এছারাও মোঃ নাইয়ুম মিয়া ছিলেন বৃহত্তর মাতুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামীযুবলীগ এর সাবেক সাধারন সম্পাদক,সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ঢাকা-মহানগর দক্ষিন।বর্তমানে মোঃ নাইয়ুম মিয়া ৬৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিন এর সক্রিয় একজন কর্মী।


তার নেতৃত্বের গুনাবলী তাকে অনন্য এক উচ্চতায় পৌছে দিয়েছে।তিনি জয় করতে পেরেছেন নেতা-কর্মীদের মন।ঢাকা মহানগর দক্ষিন আওয়ামীলীগ নেতাদের কাছে নাইয়ুম মিয়া একজন আস্থাভাজন কর্মী হিসেবে পরিচিত।আওয়ামীলীগ কে আরও সুসংগঠিত ও শক্তিশালী করতে এবং জনসমর্থনও বাড়াতে তিনি এলাকায় নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন।


তৃণমূল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করতেও  তিনি দিনরাত পরিশ্রম করে চলেছেন।নাইয়ুম মিয়ার বিষয়ে জানতে এলাকাবাসী অনেকের সাথেই কথা বলে জানা যায়,বিগত সময়ে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার জন্য, ঘরে ঘরে গিয়ে সরকারের উন্নয়নের কথা তুলে ধরে তিনি ভোটারদের নানা ভাবে অনুপ্রনীত করেছেন।


তৃণমূলের এই নেতা যেভাবে এলাকায় আওয়ামীলীগের ভাবমুর্তি উজ্জল করতে কাজ করে চলেছেন সত্যিই তা প্রশংসার দাবী রাখে।



আরও খবর



পুলিশে ও প্রাইমারী স্কুলে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে সাড়ে ১১লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছে প্রতারক লিটন

প্রকাশিত:Tuesday ২৫ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

পর্ব-৬

মোঃ আব্দুল হান্নান,নাসিরনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া),

প্রতারনার মামলায় এক বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া নাসিরনগর সদরের মৃত আব্দুল গাফ্ফারের ছেলে প্রতারক লিটন (৩৫), পুলিশে  চাকুরী দেওয়ার নাম করে ৫ লক্ষ লক্ষ টাকা ও প্রাইমারী স্কুলে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে ৩ লক্ষ টাকা  দুইজনের নিকট থেকে  ৮ লক্ষ টাকা । তাছাড়াও দাঁতমন্ডল গ্রামের চাঁন মিয়ার নিকট থেকে ২ লক্ষ টাকা ও প্রতারক লিটনের আপন চাচা নাছির মিয়ার কাছ থেকে দেড় লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছে প্রতারক লিটন।


জানা গেছে দাঁতমন্ডল গ্রামের আব্দুল্লাহর মেয়ে রুনা বেগমকে প্রাইমারী স্কুলে সহকারী শিক্ষক পদে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে রুনার কাছ থেকে নগদ ৩ লক্ষ টাকা, বুড়িশ্বরগ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলেআমিনুল  ইসলামকে পুলিশে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে ৫ লক্ষ টাকা নেয় প্রতারক লিটন। তাদেরকে চাকুরী দিতে না পারায় টাকা ফেরত চাইতে গেলে উল্টো হুমকি দেয় প্রতারক লিটন।


তাছাড়াও দাঁতমন্ডল গ্রামের চাঁন মিয়ার লিটন থেকে ব্যবসায়িক কাজে ব্যবহারের জন্য ননজুডিসিয়াল ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর প্রদান করে ২ লক্ষ টাকা ও লিটনের আপন চাচা  পান সিগারেট ব্যবসায়ী নাছির মিয়ার নিকট দেড় লক্ষ টাকা নিয়ে আত্মসাৎ তরে প্রতারক লিটন। প্রতারক লিটনের প্রতারনার স্বীকার হয়ে এই পরিবারগুলো আজ রাস্তায় বসার উপক্রম হয়েছে বলে জানায় ভূক্তভোগীরা। 



আরও খবর