Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

গাইবান্ধার তিন কন্যার বাড়িতে উপহার পাঠালেন পুলিশ সুপার

প্রকাশিত:Tuesday ২৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
Image

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে সেই তিন নবজাতকদের বাড়িতে উপহার পাঠিয়েছেন গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম। একইসঙ্গে দরিদ্র পরিবারটিকে আর্থিক সহযোগিতাও করেছেন তিনি।

সোমবার (২৭ জুন) বিকেলে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ওই নবজাকতদের বাড়িতে যান পুলিশ সুপারের প্রতিনিধি ট্রাফিক ইন্সেপেক্টর (টিআই) নুর আলম সিদ্দিক। এ সময় ফুল, ফল, শিশুদের খাদ্য ও নগদ অর্থ রুমা-আশাদুল দম্পতির হাতে তুলে দেয় পুলিশের টিম।

এ সময় সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মশিউর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, পুলিশ সদস্যসহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন।

নবজাতকদের বাবা আশাদুল ইসলাম বলেন, বাড়িতে কাজ করছিলাম। হঠাৎ পুলিশ হাজির। প্রথমে চমকে গিয়েছিলাম। পরে জানতে পারলাম পুলিশ সুপার স্যার বাচ্চাদের জন্য ফুল, ফল ও টাকা পাঠিয়েছেন।

তিনি বলেন, টাকার অভাবে স্ত্রীকে হাসপাতালে নিয়ে সুচিকিৎসা করাতে পারিনি। এখন পুলিশ সুপার স্যার টাকা দিয়েছেন। এটি দিয়ে প্রসূতি ও সন্তানদের চিকিৎসা করাতে পারবো।

এই তিন সন্তানের জন্মের আগেও এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে ওই দম্পতির। সকালে স্ত্রীর প্রসব বেদনা উঠলে হাসপাতালে নেওয়ার জন্য টাকা সংগ্রহ করতে ব্যস্ত ছিলেন আশাদুল ইসলাম। পরে জানতে পারেন তিনটি কন্যা সন্তান হয়েছে তাদের। প্রসূতি ও নবজাতকরা সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন আশাদুল ইসলাম।

গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, সাদুল্লাপুর উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের মধ্য ভাঙ্গা মোড়ের টুবরিপাড়া গ্রামের দারিদ্র কৃষকের ঘরে একসঙ্গে তিন নবজাতকের জন্মের খবর বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়া ও ফেসবুকের মাধ্যমে জানতে পারি। জানার পরপরই জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করেছি। মানবিক আর আন্তরিকতাই বড় বিষয়। ওই নবজাতকদের পরবর্তীতে সুচিকিৎসার জন্য বিভিন্ন সহযোগিতা করা হবে।

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের মধ্য ভাঙ্গা মোড়ের টুবরিপাড়া গ্রামে সোমবার (২৭ জুন) একসঙ্গে তিন সন্তানের জন্ম দেন রুমা বেগম নামে এক নারী।


আরও খবর



হবিগঞ্জে ওষুধের দোকান থেকে কর্মচারীর মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

হবিগঞ্জ পৌর শহরে একটি ওষুধের দোকান থেকে স্বপন বৈষ্ণব নামের এক কর্মচারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২৫ জুলাই) দুপুরে পুরাতন হাসপাতাল এলাকার আল সেফা ফার্মেসির পেছনের কক্ষ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। স্বপন বৈষ্ণব কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলার ভাটুরা গ্রামের গোপেন্দ্র বৈষ্ণবের ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন ওই ফার্মেসিতে কর্মচারী হিসেবে কাজ করে আসছিলেন।

jagonews24

পুলিশ জানায়, স্বপন বৈষ্ণব ফার্মেসির পেছনের একটি কক্ষে রাত যাপন করতেন। সোমবার সকালে দোকান না খোলায় মালিকপক্ষের লোকজন অনেক ডাকাডাকির পর ব্যর্থ হয়ে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে শাটারের তালা ভেঙে খাটের ওপর তার মরদেহ দেখতে পায়। পরে মরদেহটি উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) দৌস মোহাম্মদ জাগো নিউজকে বলেন, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যাবে কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জে অর্ধেকে নেমেছে ডিম বিক্রি

প্রকাশিত:Thursday ১৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

অস্বাভাবিকভাবে দাম বেড়ে যাওয়ায় নারায়ণগঞ্জে ডিমের চাহিদা প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছে। যে ক্রেতা আগে ৫০টি ডিম কিনতেন তিনি এখন ৩০টি করে ডিম কিনছেন। একইভাবে যে মুদি দোকানদার আগে ৩০০ ডিম বিক্রি করতেন তিনি এখন ১০০-১২০টি ডিম বিক্রি করতে পারছেন।

চাহিদা কমায় ডিমের দামও কমতে শুরু করেছে। আগে ১০০ পিস ডিম ১২০০ টাকা দরে বিক্রি হলেও এখন বিক্রি হচ্ছে ১১০০ টাকায়। আগামী কয়েকদিনে সেটা আরও কমে ১ হাজার থেকে ৯০০ টাকায় নেমে আসতে পারে বলে জানিয়েছেন ডিম ব্যবসায়ীরা।

দাম কমতে থাকায় লোকসান গুনতে হচ্ছে ডিম ব্যবসায়ীদের। তারা বলছেন, বেশি দামে ডিম কিনে কম দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। ক্রেতার সংখ্যা অনেক কমে গেছে। এতে লোকসান হচ্ছে তাদের।

বৃহস্পতিবার (১৮ আগস্ট) নারায়ণগঞ্জ শহরের বাজার ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।

শহরের প্রধান পাইকারি বাজার দিগুবাবুর বাজারের ডিম আড়তদার মো. হাসান জাগো নিউজকে বলেন, ডিমের দাম বাড়ার কারণে চাহিদা অনেক কমে গেছে। আগে যে ক্রেতা ১০০টি ডিম নিতেন দাম বাড়ার পর থেকে তিনি এখন ৫০টি করে ডিম নিচ্ছেন। আর আগে যে ক্রেতা ৫০টি ডিম নিতেন তিনি এখন ২০টি করে ডিম নিচ্ছেন।

হঠাৎ করে দাম বৃদ্ধি, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচারণা ও গরম বেড়ে যাওয়ার কারণেই চাহিদার পরিমাণ কমে গেছে বলে মনে করেন এই ব্যবসায়ী।

jagonews24

আড়তদার মো. হাসান আরও বলেন, সরকারের ডিম আমদানি করার ঘোষণা দেওয়া ও চাহিদা কমে যাওয়ার কারণে ডিমের দামও কমতে শুরু করছে। যে কারণে আমরা লোকাল ডিম ব্যবসায়ীরা বিপাকে পড়েছি। আমাদের এখন লোকসান দিয়ে ডিম বিক্রি করতে হচ্ছে। এই কয়দিনে লাভ করেছেন ডিলার আর খামারিরা।

ইকবাল হোসেন নামে আরেক ডিম ব্যবসায়ী জাগো নিউজকে বলেন, ‘ডিমের দাম বাড়ার কারণে আগের চেয়ে চাহিদা অনেক কমে গেছে। অস্বাভাবিকভাবে ডিমের দাম বাড়ানো ও গরম বেড়ে যাওয়ার কারণে চাহিদা কমে গেছে। তবে ডিমের দাম বাড়া-কমায় আমাদের কোনো লাভ হয় না। আমরা সবসময় সমান লাভেই ব্যবসা করে থাকি।’

মুদি দোকানদার মো. জনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘ডিমের দাম বাড়ার কারণে চাহিদা অনেক কমে গেছে। আগে প্রতিদিন ৩০০-৩৫০টি ডিম বিক্রি করেছি। এখন ১০০-১৫০টি ডিম বিক্রি করা কষ্ট হয়ে যায়।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের তো ডিমের দাম বাড়লেও যে লাভ কমলেও একই লাভ। দাম বাড়ার কারণে আমার ব্যবসার ক্ষতি হয়ে গেলো।’

আরেক মুদি দোকানদার জাকির হোসেন বলেন, ‘আমি একটি ছোটখাটো দোকান চালাই। আমার এখানে আগে প্রতিদিন ১০০টি ডিম বিক্রি করতে পারতাম। এখন বিক্রি অর্ধেকে নেমেছে।’

তবে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে প্রতি ১০০টি ডিম ৯০০ টাকায় নেমে আসতে পারে বলে ধারণা করছেন ভাই ভাই ডিমের আড়তদার লিটন।

তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘প্রতি ঈদুল আজহার পর ডিমের দাম কিছুটা বাড়ে। এবার ঈদের পর ডিমের দাম বাড়ে নাই। কিন্তু জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সুযোগে অস্বাভাবিকভাবে ডিমের দাম বেড়ে যায়। তবে এত বাড়ার কথা ছিল না। এখন আবার ডিমের দাম কমতে শুরু করছে।’


আরও খবর



‘অর্জন ও বিজয়োল্লাস’ বিজয়ী ডিএসওদের সম্মাননা দিলো ‘নগদ’

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
Image

উদ্যোক্তাদের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধির মাধ্যমে টেকসই প্রবৃদ্ধি বাড়াতে চালু হওয়া ‘অর্জন ও বিজয়োল্লাস’ ক্যাম্পেইনের সর্বোচ্চ লক্ষ্য অর্জনকারী ২৮ জন ডিএসওকে (ডিসট্রিবিউটর সেলস অফিসার) সম্মাননা দিয়েছে মোবাইল ফোনভিত্তিক ডিজিটাল আর্থিক সেবা প্রতিষ্ঠান ‘নগদ’।

এ উপলক্ষে সম্প্রতি রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ডাক বিভাগের এ ডিজিটাল আর্থিক সেবা প্রতিষ্ঠান। সেরা ডিএসওেদের হাতে সম্মাননা পুরস্কার, ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট তুলে দেন নগদের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক।

সম্মাননাপ্রাপ্ত ২৮ জন ডিএসওর মধ্যে রয়েছেন- ঢাকা উত্তরের মো. সাব্বির আহমেদ, ফয়েজ আহমেদ, মো. মাহমুদুল হাসান, ঢাকা দক্ষিণের মোহাম্মাদ শান্ত, মো. রাশেদুল ইসলাম, আকরাম হোসেন, চট্টগ্রামের মো. সাদমান, জীব সাধন চাকমা, মো. রায়হান, খুলনার আসলাম হোসেন, মো. মিরাজুল ইসলাম, মো. রানা হামিদ, বরিশালের মো. এনায়েত, জহিরুল ও মীর হৃদয় আলী, ।

আরও রয়েছেন- সিলেটের সোহেল মিয়া, বগুড়ার রাজন কুমার দাস রনি, পারভেজ আহমেদ, মো. গোলাম মোস্তফা, কুমিল্লার মমিন মিয়া, মো. ইয়াসিন আরাফাত, আরিফ হোসেন, ময়মনসিংহের মো. সুজা, জিহাদ হাসান সানি, আতাউর রহমান শান্ত, রংপুরের শুভ রায়, মো. রায়হানুল হক ও তাপস চন্দ্র রায়।

পুরো দেশে ছড়িয়ে থাকা ডিএসও এবং উদ্যোক্তাদের নগদের সেবা বিস্তারের জন্য অনুপ্রাণিত করার মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ে পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীকে আর্থিক অন্তর্ভুক্তিতে নিয়ে আসাই ছিল ক্যাম্পেইনটির মূল লক্ষ্য।

দেশের মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) ইন্ডাস্ট্রির ইতিহাসে ডিএসওদের জন্য প্রথমবারের মতো ভিন্নধর্মী এমন জমকালো আয়োজন করেছে নগদ।

এ সময় নগদের নির্বাহী পরিচালকদের মাঝ থেকে উপস্থিত ছিলেন নিয়াজ মোর্শেদ এলিট, মো. সাফায়েত আলম, মারুফুল ইসলাম ঝলক ও মোহাম্মদ আমিনুল হক। এ সময় নগদের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

সারাদিন ধরে চলা এ অনুষ্ঠানের মূল অংশের আগে নগদের প্রধান কার্যালয়ে ডিএসওদের জন্য মধ্যাহ্নভোজ ও মতবিনিময় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে চালু হয় ‘অর্জন ও বিজয়োল্লাস’ ক্যাম্পেইনটি। ক্যাম্পেইন চলাকালীন প্রতি ১০ দিন পরপর ধারাবাহিকভাবে অঞ্চলভিত্তিক মোট ৭৫০ জন সেরা ডিএসও ও প্রায় ৫ হাজারেরও বেশি সেরা উদ্যোক্তাদের কাছে আকর্ষণীয় উপহার পৌঁছে দেয় নগদ।

অনুষ্ঠানে নগদের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক বলেন মাত্র তিনবছরেই নগদ সাড়ে ছয় কোটি গ্রাহক অর্জনে সক্ষম হয়েছে। এ সাফল্যের পেছনে আমাদের তৃণমূল পর্যায়ের কর্মীদের অবদান সবচেয়ে বেশি।

‘তাদের নিরলস প্রচেষ্টার জন্যই নগদ আজকে দেশসেরা এমএফএস সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আজকের এ অনুষ্ঠানে তাদের অবদানের স্বীকৃতি দিতে পেরে আমি গর্বিত।’

পুরষ্কার বিতরণ শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নৈশভোজের আয়োজন করা হয়।


আরও খবর



গুচ্ছ ভর্তিপরীক্ষার ‘ক’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

প্রকাশিত:Thursday ০৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ১৬ August ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের গুচ্ছ ২২ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। পরীক্ষায় পাসের হার ৫৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) গুচ্ছ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি ওয়েবসাইটে এ ফল প্রকাশ করা হয়। ওয়েবসাইটে এ ফল দেখতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার টেকনিক্যাল কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার টেকনিক্যাল কমিটি সূত্রে জানা যায়, ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ৫৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন। অর্থাৎ ৮৫ হাজার ৫৮২ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। অকৃতকার্য হয়েছে ৪৩ দশমিক ৩৭ শতাংশ, অর্থাৎ ৬৬ হাজার ৭৭১ জন।

জানা যায়, গত শনিবার (৩০ জুলাই) বেলা ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত সারাদেশের ১৯ কেন্দ্রের ৫৭টি ভেন্যুতে একযোগে গুচ্ছের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ‘ক’ ইউনিটের পরীক্ষায় সারাদেশে ১ লাখ ৫৩ হাজার ৮৪৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেন।


আরও খবর



আরও ৩২ হাজার টন চাল আমদানির অনুমতি

প্রকাশিত:Thursday ১৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

চালের দামের ঊর্ধ্বগতি রোধে বেসরকারিভাবে আরও ৩২ হাজার মেট্রিক টন সিদ্ধ ও আতপ চাল আমদানির জন্য ৬টি প্রতিষ্ঠান অনুমতি পাচ্ছে।

এ প্রতিষ্ঠানগুলোর অনুকূলে আমদানির অনুমতি দেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বুধবার (১৭ আগস্ট) খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের কাছে দুটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। এরমধ্যে নন বাসমতি সিদ্ধ চাল ২০ হাজার টন এবং আতপ চাল ১২ হাজার টন। চালে সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ ভাঙা দানা থাকতে পারবে।

অন্যদিকে এর আগে যাদের চাল আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছিল, তাদের এলসি খোলার সময় আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

এর আগে গত ৩০ জুন বেসরকারিভাবে চার লাখ নয় হাজার টন চাল আমদানির জন্য ৯৫টি প্রতিষ্ঠান, ৪ জুলাই ২ লাখ ৪৬ হাজার চাল আমদানির জন্য ১২৫টি প্রতিষ্ঠান, ৭ জুলাই এক লাখ ৮২ হাজার টন চাল আমদানির জন্য ৬২টি প্রতিষ্ঠান, ১৩ জুলাই ৭৩ হাজার চাল আমদানির জন্য ৪৭টি প্রতিষ্ঠান ও ২০ জুলাই ৯০ হাজার টন সিদ্ধ ও আতপ চাল আমদানির জন্য ৫৭টি প্রতিষ্ঠানকে অনুমতি দিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছিল।

চাল আমদানি শর্তে বলা হয়েছে, আগামী ২৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বরাদ্দ পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোকে এলসি (লেটার অব ক্রেডিট-ঋণপত্র) খুলতে হবে এবং এ সংক্রান্ত তথ্য (বিল অব এন্ট্রিসহ) খাদ্য মন্ত্রণালয়কে ই-মেইলে তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে হবে।

বরাদ্দ পাওয়া আমদানিকারকদের আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে পুরো চাল বাংলাদেশের বাজারজাতকরণ করতে হবে। আমদানি করা চালের পরিমাণ গুদামজাত ও বাজারজাত করার তথ্য সংশ্লিষ্ট জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রককে জানাতে হবে।

বরাদ্দের অতিরিক্ত আইপি (ইমপোর্ট পারমিট) ইস্যু/জারি করা যাবে না। আমদানি করা চাল স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান নামে ফের প্যাকেটজাত করা যাবে না। আমদানি করা বস্তায় চাল বিক্রি করতে হবে বলেও শর্তে উল্লেখ করা হয়েছে।

এছাড়া নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ব্যাংকে এলসি খুলতে ব্যর্থ হলে বরাদ্দ বাতিল হয়ে যাবে বলেও শর্ত দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।

অনেকদিন ধরেই অস্থিতিশীল চালের বাজার। ভরা বোরো মৌসুমেও চালের বাজার ঊর্ধ্বমুখী। গরিবের মোটা চালের কেজি প্রতি দাম ৫০ টাকা ছাড়িয়েছে। চিকন চালের কেজি ৬৫ থেকে ৮০ টাকা।

এ প্রেক্ষাপটে দাম স্থিতিশীল রাখতে শুল্ক কমিয়ে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। গত ২৩ জুন চালের আমদানি শুল্ক কমিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। চালের আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে শূন্য করা হয়েছে। এর পাশাপাশি নিয়ন্ত্রকমূলক শুল্ক ২৫ থেকে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে। এর ফলে চাল আমদানিতে মোট করভার ৬২ শতাংশ থেকে কমে ২৫ শতাংশে নেমেছে।

নতুন শুল্ক ছাড়ের মেয়াদ আগামী ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত বহাল থাকবে। এ শুল্ক ছাড়ের অনুমোদন পেতে আমদানিকারককে অবশ্যই খাদ্য মন্ত্রণালয় অনুমতি নেওয়ার শর্ত জুড়ে দিয়েছে এনবিআর।

চাল আমদানি অনুমতি পেলো যেসব প্রতিষ্ঠান

তালিকা ১

তালিকা ২


আরও খবর