Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ফুলবাড়ীতে ১০ শতক জমির শাক-সবজির গাছ কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে রাতের অন্ধকারে ১০ শতাংশ জমিতে লাগানো পটল, ঢেড়স, করলা, বরবটি, পুুঁইশাকসহ বিভিন্ন প্রকার শাক সবজির গাছ কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে পথে বসেছেন বর্গাচাষি দিনমজুর লাল বাবু রায়।

ঘটনাটি ঘটেছে, গত বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) দিবাগত রাতের কোনো এক সময়ে ফুলবাড়ী উপজেলার ৭নং শিবনগর ইউনিয়নের বহিলহারপুর গ্রামে। 

বর্গাচাষি দিনমজুর লাল বাবু রায় বলেন, খেতখামারে দিনমজুরির পাশাপাশি বাড়তি আয়ের আশায় গ্রামের মধ্যে থাকা ফুলবাড়ী পৌরশহরের শিবু দত্ত নামের এক ব্যক্তি ১০ শতাংশ জমি ১৬ হাজার টাকা বছর চুক্তিতে বর্গা নিয়েছেন। বর্গা নেওয়া ১০ শতাংশ জমিতে জমিতে লাগানো পটল, ঢেড়স, করলা, বরবটি, পুুঁইশাকসহ বিভিন্ন প্রকার শাক সবজি আবাদ করেছেন। ইতোমধ্যে গাছে পটল, বরবটি, করলা, পুঁইশাক ধরেছে। বাবু লাল রায় প্রতিদিন মজুরি দিতে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে যান। এ সময় বর্গা নেওয়া ওই জমির শাক-সবজির আবাদ দেখাশুনা করেন তার মা কল্যাণী রানী রায়। কিন্তু কারো সাথে কোনো প্রকার শত্রুতা না থাকলেও কে বা কারা গত বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) দিবাগত রাতের কোনো এক সময়ে শত্রুতা করে পুরো ১০ শতাংশ জমিতে আবাদ করা শাক-সবজির গাছ কেটে দিয়েছে। এতে বর্গার জন্য দেওয়া ১৬ হাজার টাকার সঙ্গে আবাদের খরচ প্রায় ২০ হাজার টাকা পুরোটাই লোকসানে পড়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। 

বাবু লাল রায়ের মা কল্যাণী রানী রায় বলেন, এতোদিন শরীরের পরিশ্রম ধারদেনা করে টাকা জোগান দিয়ে আবাদ করা হয়েছিল। আশা ছিল আবাদ করে কিছু লাভ হলে সেই লাভের টাকা দিয়ে চাল কিনে রাখবেন পরিবারের লোকের খাবার জন্য। কিন্তু শত্রুতা করে খেতের সব গাছে কেটে দেওয়ায় বড় ধরনের ঋণদেনায় পড়ে গেছে পুরো পরিবার।

প্রতিবেশি ভাদু চন্দ্র রায় (৭০) ও কলেজ ছাত্র তনু রানী রায় (২২) বলেন, বাবু লাল রায়ের কারো সাথে কোনো শত্রুতা নেই, তারপরও যারা তার আবাদ নষ্ট করে দিয়েছে তাদের কখনো ভালো হবে না। 

শিবনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ছামেদুল ইসলাম মাস্টার বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই, তবে ওই গ্রামে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত বাবু লাল রায়ের পরিবারকে কিছু সহায়তা করার চেষ্টা করবেন। 

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান বলেন, শাক-সবজি নষ্ট করার ঘটনার কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পাওয়া গেছে তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 


আরও খবর



তানোরে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের শুভ উদ্ধোধন

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১৪জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে আন্ত উপজেলা বালক অনুর্ধ্ব ১৭  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের শুভ উদ্ধোধন করা হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম মাঠে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নির্বাহী অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান। প্রধান অতিথি হিসেবে বেলুন উড়িয়ে উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন, টিএইচও বার্নাবাস হাসদাক, কৃষি অফিসার সাইফুল্লাহ আহম্মেদ, উপজেলা প্রকৌশলী সাইদুর রহমান,  উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান তানভীর রেজা,  বাঁধাইড় ইউপি চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, পাঁচন্দর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন,  জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী জাকির হোসেন, সমাজ সেবা অফিসার মোহাম্মদ হোসেন, মৎস্য কর্মকর্তা বাবুল হোসেন, পারিশো দূর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাম কমল সাহা, আওয়ামী লীগ নেতা সুফি কামাল মিন্টু প্রমুখ । 

উদ্বোধনী খেলায় বাঁধাইড় ইউনিয়ন বনাম চান্দুড়িয়া ইউনিয়নের খেলা অনুষ্ঠিত হয়। নির্ধারিত সময়ে গোলশূন্য ড্র থাকায় টাইবেকারে ২-১ গোলে বাঁধাইড় ইউনিয়ন বিজয়ী হয়। দ্বিতীয় উদ্বোধনী ম্যাচে তানোর পৌরসভা বনাম মুন্ডুমালা পৌরসভা অংশ গ্রহন করেন।  নির্ধারিত সময়ে গোলশূন্য ড্র থাকায় টাইবেকারে ৫-৩ গোলে তানোর পৌরসভা বিজয়ী হয়।খেলার রেফারির দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, শরীর চর্চা শিক্ষক আব্দুল বারি, সোহরাব হোসেন, হাফিজুর রহমান, খাইরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম এবং কামরুজ্জামান। এসময় উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী এবং বিপুল সংখ্যাক ক্রীড়া প্রেমীরা উপস্থিত থেকে খেলা উপভোগ করেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



চলে গেলেন জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা হিরাম কেস্টেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৮৭জন দেখেছেন

Image

বিনোদন প্রতিবেদক:ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা হিরাম কেস্টেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে প্রস্টেট ক্যানসারে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।

দীর্ঘ ৭ বছর ধরে ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করছিলেন এই কৌতুক অভিনেতা। নিজ বাড়িতে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন।

কৌতুক অভিনেতা হিরাম কেস্টেনের মৃত্যুর সংবাদটি মেনে নিতে পারছেন না ভক্তরা। তার চলে যাওয়ায় বিনোদন জগতে শোকের ছায়া নেমেছে ৷

কৌতুক অভিনেতা হিসেবে হিরাম কেস্টেন দর্শকদের মন খুব তাড়াতাড়ি জয় করে নিয়েছিলেন। একাধিক চরিত্রে অভিনয় করে খুব সহজেই সবার মনে তিনি স্থায়ী আসন করে নিয়েছিলেন।


আরও খবর



খাগড়াছড়িতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের বিশেষ অভিযানে গাঁজা সহ মাদক কারবারি গ্রেফতার

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১১জন দেখেছেন

Image
জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:খাগড়াছড়ি জেলা গোয়েন্দা পুলিশের বিশেষ অভিযানে  খাগড়াছড়ি শান্তি কাউন্টার এর সামনে অবৈধ মাদকদ্রব্য গাঁজা সহ মো: সুলতান(৭০)নামের এক মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করেছেন জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) রাত ৯টার দিকে জেলা গোয়েন্দা শাখার একটি চৌকস আভিযানিক দল খাগড়াছড়ি সদর থানা এলাকায় মাদকদ্রব্য ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার অভিযান ডিউটিতে নিয়োজিত থাকা অবস্থায় শাপলা চত্তর নামক এলাকায় অবস্থানকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, খাগড়াছড়ি সদর থানাধীন  খাগড়াছড়ি পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের শান্তি কাউন্টার এর সামনে থেকে মো.সুলতান ( ৭০)এর কাছে থাকা পলিথিনে মোড়ানো  প্লাস্টিকের বস্তা  তল্লাশী ছালিয়ে বস্তার ভিতরে থাকা লাল সুতা দ্বারা বাধা ২৭টি লম্বা গাঁজার রোল যাহার প্রতিটির ওজন ৫৬০ গ্রাম করিয়া সর্ব মোট পরিমান ১৫.১২০ কেজি সহ তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামী  মো:সুলতান(৭০) দিঘীনালা উপজেলার  মেরুং ইউপি,র ৭নং ওয়াডের মৃত.এরশাদ আলীর ছেলে।পলাতক আসামী আসাদুল হক(৪৩), দিঘীনালা উপজেলার মেরুং ইউপি,র  ছোট মেরুং বাজার এলাকার  মোঃ আফাজ মুন্সী, ছেলে।এর নিকট থেকে পাইকারী দামে ক্রয় করিয়া গ্রেফতারকৃত আসামী অবৈধ মাদক দ্রব্য (গাঁজা) ঢাকা বিত্রুয়ের উদেশ্যে নিয়ে যায়।  গ্রেফতারকৃত আসামী ও পলাতক আসামীর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে এবং আসামীকে বিধি মোতাবেক বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হইবে।

আরও খবর



তানোরে বিদ্যুৎ মিটার স্থানান্তর থানায় অভিযোগ, গায়েব

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৮৩জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর প্রতিনিধি:রাজশাহীর তানোরে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের সিল কেটে অবৈধ মিটার স্থানান্তর চক্রের মুলহোতা জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ। উপজেলার কামারগাঁ ইউনিয়নের (ইউপি) মাদারিপুর গ্রামের বাসিন্দা জয়মতুল্লাহর পুত্র জাহাঙ্গীর আলম। এদিকে দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ এবিষয়ে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করে, উল্টো ঘটনা ধাঁমাচাপা দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। কারণ পল্লী বিদ্যুৎ অভিযোগ করেছেন অপরাধীর শাস্তির জন্য। কিন্ত্ত পুলিশ এখানো কোনো তদন্তই করেনি বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, চলতি বছরের  গত ২৪ মার্চ অভিযোগ করা হলেও রহস্যজনক কারনে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করে উল্টো গ্রাহককে মিমাংসা করার নির্দেশ দেন মামলার তদন্ত কারী কর্মকর্তা এসআই মজিবুর বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ। এতে দুই গ্রাহক বিচার তো পাইনি উল্টো চরম বেকায়দায় পড়েছেন। ফলে অবিলম্বে অভিযুক্তকে গ্রেফতারের জোর দাবি তুলেছেন ভুক্তভোগী দুই গ্রাহকসহ পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ।

অভিযোগে বলা হয়েছে, রাজশাহী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্যাডে ১৯৬ নম্বর স্বারকের প্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে, জাহাঙ্গীর পিতা জয়মতুল্লাহ সাং মাদারিপুর, উক্ত ব্যক্তি তানোর জোনাল অফিসের আওতাধীন বিভিন্ন এলাকায় অর্থের বিনিময়ে অবৈ ভাবে বৈদ্যুতিক মিটার এক স্থান থেকে অন্য স্থানে স্থানান্তর করে দিচ্ছেন। যেমন হিসাব নম্বর ৪৬৪-২৬২০ গ্রাহকের নাম আব্দুর রশিদ পিতা বদের আলী ও হিসাব নম্বর  ৪৬৪-২৬৫০ গ্রাহক বদের আলী পিতা মাশি উভয়ের গ্রাম, ধানোরা। এদুজন গ্রাহকের আবাসিক মিটার অফিসকে অবহিত না করে অবৈধভাবে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে স্থানান্তর করে দিয়েছেন। যা বিদ্যুৎ আইন ২০১৮ অনুযায়ী কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ব্যতিত বৈদ্যুতিক স্থাপনা/ইক্যুইপমেন্টে দন্ডনীয় অপরাধ।  

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার কামারগাঁ ইউপির ধানোরা গ্রামের রশিদ ও তার পিতা বদের আলীর ঘর ওয়ারিং শেষে মিটারের সিল কেটে অন্যত্র স্থানান্তর করেন জাহাঙ্গীর। বিদ্যুৎ বিল দেয়ার জন্য মিটার রিডার এসে এঅবস্থা দেখে গ্রাহককে জিজ্ঞেস করেন কে করেছে মিটারের এঅবস্থা। গ্রাহকরা বলেন জাহাঙ্গীর। মিটার রিডার বিষয়টি পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। বিষয়টি জানার পর ডিজিএম ওই দুজন গ্রাহককে অফিসে তলব করেন এবং মিটারের সিল কাটার বিষয়টি ডিজিএমকে খুলে বলেন। এসময় দুজন গ্রাহকক লিখিত অভিযোগ দেন ডিজিএম বরাবর। অভিযোগের প্রেক্ষিতে ডিজিএম থানায় লিখিত অভিযোগ  করেন জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে।এছাড়াও জাহাঙ্গীরের ছোট ভাই তানোর পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ইলেক্ট্রিশিয়ান  লিটন অধিক টাকার বিনিময়ে এবং কর্তৃপক্ষের নাম করে আর্থিক সুবিধা নিয়ে বিদ্যুৎ লাইন পাইয়ে দিতেন। ঘটনা বুঝতে পেরে এবং টাকার বিষয়টি প্রমান পাওয়ায় তাকে পল্লী বিদ্যুৎ তানোর জোনাল অফিস থেকে বহিষ্কার করেন । লিটন এখনো বহিষ্কার অবস্থায় আছেন। সে সুযোগ কাজে লাগিয়ে তার বড় ভাই একই কায়দায় বৈদ্যুতিক মিটার টাকার বিনিময়ে স্থানান্তর করে থাকেন। স্থানীয়রা জানান, জাহাঙ্গীর ও লিটন তারা দুই ভাই পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহকের কাছে এখন মুর্তিমান আতঙ্ক। তারা আরো বলেন, তাদের কথা মতো তাদের দিয়ে কাজ না করালে তারা গোপণে রাঁতের আঁধারে মিটারের সিলকাটা, সংযোগ বিচ্ছিন্নসহ নানাভাবে সাধারণ গ্রাহকদের হয়রানি করে। এবিষয়ে 
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মজিবুর রহমান বলেন, বিষয়টি তারা আপোষ-মিমাংসা করে নিয়েছেন। তবে পুলিশ তদন্ত করে কি পেয়েছেন জানতে চাইলে তিনি কোনো সদোত্তর না দিয়ে এড়িয়ে গেছেন।

এবিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রহিম বলেন, মামলার তদন্ত কারী কর্মকর্তাকে বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।এবিষয়ে জানতে চাইলে জাহাঙ্গীর আলম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তারা দুই ভাই ষড়যন্ত্রের শিকার। এবিষয়ে জানতে চাইলে তানোর পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তা (ডিজিএম) জহুরুল ইসলাম বলেন, তারা থানায় অভিযোগ করেছেন অপরাধীর শাস্তির জন্য, এখানে আপোষের কথা আসছে কেন ? আর বাদি পল্লী বিদ্যুৎ তারা আপোষ করলো কার সঙ্গে।

আরও খবর



বৃষ্টি থাকবে সপ্তাহজুড়ে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ জুলাই 2০২4 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১৩৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সারাদেশে কমবেশি বৃষ্টি হচ্ছে বর্ষা মৌসুম ও মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকার কারণে। সকাল থেকে ঢাকায় মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। এদিকে, বৃষ্টির কারণে দুর্ভোগে পড়েছেন এইচএসসি পরীক্ষার্থী ও অফিসগামী মানুষজন। সপ্তাহজুড়ে ঢাকায় বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

মঙ্গলবার (২ জুলাই) আবহাওয়াবিদ খো. হাফিজুর রহমান জানিয়েছেন, সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। একই সময় রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে।

হাফিজুর রহমান আরও জানান, আগামী বুধবার ও বৃহস্পতিবার দেশের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। সারাদেশের অধিকাংশ জায়গায় বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে।

এদিকে, মৌসুমি বায়ুর অক্ষ পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে প্রবল অবস্থায় রয়েছে।

সোমবার সারাদেশে সর্বোচ্চ ২৯৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে সিলেটে। এছাড়া তুলনামূলক কম বৃষ্টি হয়েছে খুলনা ও ঢাকা বিভাগে। সোমবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল চুয়াডাঙ্গায়।


আরও খবর