Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ফিটনেসবিহীন বাসের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ২৭৮জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হাসানঃমহাসড়কে এবং মহানগরীর প্রধান সড়কে গাড়ির চাপ কমিয়ে আনার জন্য কাজ করছে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ। যানজটকে সহনীয় মাত্রায় রেখে ঢাকা মহানগরবাসির  চলাচল আরো বেশি নির্বিঘ্ন করার লক্ষ্যে এই পদক্ষেপ। বিশেষ করে ফিটনেসবিহীন যে বাস রাস্তায় ট্রাফিক প্রেসার সৃষ্টি করে সে সকল বাসের বিরুদ্ধে।

ডিসি (ট্রাফিক-ওয়ারী) বিভাগ মোহাম্মদ আশরাফ ইমাম জানান, ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের মধ্য দিয়ে প্রায় ২৫০টি ব্যানারের বাস যাতায়াত করে। অনেক বাসের ফিটনেস নেই। অনেক বাসে রোড পারমিট নেই। আবার এক রুটের বাস অন্যরুটে যাতায়াত করে। এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণের লক্ষ্যে সার্বিক অপারেশন চালানো হচ্ছে। 

তথ্যমতে, গত এক সপ্তাহে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ কর্তৃক মামলা, রেকার এবং আটকসহ মোট ২৯১টি বাসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। বর্তমানে ৩১টি বাস ডাম্পিং গ্রাউন্ডে আটক আছে। ডিসি (ট্রাফিক-ওয়ারী) বিভাগ আরো জানান, ডাম্পিং গ্রাউন্ডের জায়গা সীমিত হওয়ায় আপাতত কোন ফিটনেসবিহীন বাস আটক করা সম্ভব হচ্ছে না। এখন আবার মামলায় যেতে হবে। অনেক বড় পরিসরের ডাম্পিং গ্রাউন্ড থাকলে ফিটনেসবিহীন বাসের বিরুদ্ধে ড্রাস্টিক অ্যাকশান নেয়া সম্ভব। কারণ, রাস্তায় যানবাহনের প্রেসার থাকাকালীন রাস্তার সাইডে বাস থামিয়ে কাগজপত্র চেক করার ক্ষেত্রে যানজট আরও বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই রাস্তায় যখন প্রেসার থাকেনা, তখনই বাস এর কাগজপত্র চেক করা যায়। 

ডাম্পিং গ্রাউন্ডে পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় এবং রাস্তায় ট্রাফিকের চাপ থাকা অবস্থায় গাড়ির কাগজপত্র চেক করার সুযোগ কম থাকায় বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ। 

সায়দাবাদ, যাত্রাবাড়ী ও ধোলাইপাড় এর সকল বাস কাউন্টার ম্যানেজারদেরকে ফিটনেস আছে এরকম সকল বাসের তালিকা দেওয়ার জন্য নোটিশ করা হয়েছে। 

ফিটনেস ব্যতীত অন্যান্য বাসগুলোর বিরুদ্ধে স্থায়ীভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ফিটনেসবিহীন বাসের বিরুদ্ধে চলমান এই অভিযান ডিসি ট্রাফিক ওয়ারী মোহাম্মদ আশরাফ ইমাম এর নেতৃত্বে এডিসি ট্রাফিক ওয়ারী সুলতানা ইশরাত জাহানের টিম পরিচালনা করছে ।


আরও খবর

রাজধানীতে তাজিয়া মিছিল শুরু

বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪




মির্জাপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২, আহত ২

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪৭জন দেখেছেন

Image

লুৎফর অরেঞ্জ,মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই মিলগেট এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে এক সড়ক দুর্ঘটনায় এক নারী যাত্রীসহ দু'জন নিয়ত হয়েছে এবং দু'জন আহত হয়েছে। ৩ জুলাই বুধবার ভোর ৪ টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার রামডাঙ্গা গ্রামের মৃত দুলাল হোসেনের স্ত্রী ফরিনা বেগম (৫৫) এবং বাসের সুপারভাইজার একই জেলার বাবুরহাট গ্রামের আব্দুল খালেক এর ছেলে মুগনী মিয়া (৩৫)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, নীলফামারী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা অনিতা নামের একটি বাস ( ঢাকা মেট্রো ব ১৯- ০০২৯ ) বুধবার ভোরে গোড়াই মিলগেট এলাকায় পৌঁছালে সেখানে থেমে থাকা পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি বোঝাই একটি ট্রাকের সাথে ধাক্কা লাগে। এতে বাসের সম্মুখ ভাগের বাম পাশের অংশ ভেঙে খুঁটিগুলো ভেতরে ঢুকে যায়। ঘটনাস্থলেই দুজন যাত্রী নিহত হয় এবং আরো দুজন আহত হয়।

মির্জাপুরের গোড়াই হাইওয়ে থানার এসআই আনিসুজ্জামান জানান, ঘটনাস্থল থেকে বাস ও ট্রাক আটক করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে নিহতদের তাদের পরিবারে নিকট হস্তান্তর করা হবে।


আরও খবর



১০ বছরেও সংস্কার হয়নি সড়ক খানাখন্দে দুর্ভোগ চরমে

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৫২জন দেখেছেন

Image

জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:প্রায় ১০ বছর হয় সড়কের ইট ও উঠে গেছে। সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্ত। কয়েকদিনের বৃষ্টিতে গর্তে পানি জমে ডোবায় পরিনত হয়েছে। একারনে দুর্ঘটনার কবলে পড়ছেন যাত্রী ও পথচারী। এ দুর্ভোগের চিত্র সৈয়দপুর শহরের প্রায় প্রতিটি সড়কের।

সরেজমিনে দেখা যায়, সৈয়দপুর পৌর শহরের তামান্না সিনেমা হল মোড় থেকে ওয়াবদা মোড় পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার সড়ক, পৌর সবজি বাজার থেকে মিস্ত্রি পাড়া হয়ে বাইপাস সড়ক পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার সড়ক,শহীদ ডাক্তার জিকরুল হক সড়ক,শহীদ ডাক্তার সামসুল হক সড়ক ও জহুরুল হক সড়ক সহ প্রায় ১২ টি সড়ক বেহাল অবস্থায় রয়েছে। পৌর পরিষদ প্রতিবছর বাজেটে সড়ক সংস্কারে কোটি টাকা বরাদ্দ দিলেও সংস্কার হয়নি বিগত ১০ বছর। একারনে সড়কে গর্তের কারনে সামান্য বৃষ্টিতে গর্তে পরে অটোরিকশা উল্টে যায়। আহত হয় যাত্রীরা।

তামান্না সিনেমা হল মোড় থেকে ওয়াবদা হয়ে নীলফামারী যাওয়ার যাত্রী রেবেকা বলেন,এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত করা খুব কষ্টকর।অটোরিকশা সড়কের গর্তে পড়ে গিয়ে ঝাকুনিতে শরীর ব্যাথা হয়ে যায়। গত কয়েকদিন আগে এই সড়কের গর্তে অটোরিকশা উল্টে হাটু ও বুকে প্রচন্ড ব্যাথা অনুভব করছি।গোলাহাট থেকে কোন এক ডেলিভারি নারীকে স্হানীয় ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় অটোরিকশা উল্টে সড়কেই বাচ্চা প্রসব হয়ে গেছে। 
গোলাহাট ক্যাম্পের অটোরিকশা চালক মাইনুল বলেন,এই সড়কে যাত্রী নিয়ে চলাচল ভিষণ কষ্টকর। অনেক সময় অটোরিকশা উল্টে সড়কেই গাড়ির চাকা খুলে যায়। একারনে কামাই রোজগার করতে পারি না।

শহরের শহীদ ডাক্তার জিকরুল হক সড়ক সহ অন্যান্য সড়কের ব্যবসায়িরা বলেন,আমরা জানি প্রথম শ্রেনীর পৌরসভা হলো নীলফামারীর সৈয়দপুর। প্রতি বছর বাজেট ও দেড়শ কোটি টাকারও উর্ধে।এছাড়া ট্যাক্স ও টোলের টাকা প্রতিমাসে আদায় হয় কয়েক কোটি টাকা। কিন্তু সড়ক সহ ড্রেনের কোন উন্নয়ন নেই।তারা বলেন,বর্তমান মেয়র পৌরসভার দায়িত্বে আছেন প্রায় ৪ বছর।এই ৪ বছরে তিনি প্রায় ৬ শত কোটি টাকা বাজেট ঘোষণা করেছেন কিন্তু ৬ কোটি টাকারও উন্নয়ন করেন নি তিনি। অনেক মহল্লায় ড্রেন না থাকা এবং যেসব মহল্লায় ড্রেন আছে সেগুলো নিয়মিত পরিস্কার না হওয়ার ফলে সামান্য বৃষ্টিতে তলিয়ে যাচ্ছে সড়ক সহ ঘরবাড়ি।সৈয়দপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু বলেন,বিগত ৪ বছরে কয়েকশত কোটি টাকা বাজেট ঘোষণা হলেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। একারনে আমরা লজ্জিত। জননেত্রী শেখ হাসিনা দয়া করে যাকে মেয়র নির্বাচিত করেছেন তিনি আওয়ামী ঘরানার। শহর জুড়ে সড়ক ও ড্রেনের বেহাল দশা দেখে সৈয়দপুর বাসীর সামনে মুখ লুকিয়ে চলতে হচ্ছে। 

এসব বিষয়ে কথা হয়,মেয়র রাফিকা আকতার জাহান বেবির সাথে, তিনি বলেন, সড়ক ও ড্রেন সংস্কারে বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে সত্য কিন্তু বরাদ্দ না আসলে কিছুই করার নেই।তবে কিছু দিনের মধ্যে বরাদ্দ আমার সম্ভাবনা আছে। বরাদ্দ এলেই নতুন ভাবেই সবকিছু করা হবে বলে জানান তিনি। 

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



হলে ফেরার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান আন্দোলনকারীদের

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা হলে ফেরার অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছেন। ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হলের প্রভোস্ট ড. মোহাম্মদ জাভেদ হোসেন এমন অনুরোধ করলে শিক্ষার্থীরা তা প্রত্যাখ্যান করে ‘দালাল দালাল’ ‘ভুয়া ভুয়া’ স্লোগান দিতে দেখা যায়।

সোমবার (১৫ জুলাই) বিকেলে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ছাত্রলীগের দফায় দফায় সংঘর্ষের পর রাত পৌনে ৮টার দিকে ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হলের সামনে আসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মো. মাকসুদুর রহমান।

তিনি বলেন, আমাদের হাতে সবকিছু নেই। সুযোগ থাকলে আমরা বহিরাগতদের আগেই সরিয়ে দিতাম। এখন হল প্রভোস্ট ও হাউস টিউটরদের মাধ্যমে হলের ভেতর প্রবেশ করিয়ে বহিরাগত যারা আছে তাদের বের করার ব্যবস্থা করব।

এদিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের থেকে প্রায় ৩০ গজ দূরে একটি সাঁজোয়া যান নিয়ে কয়েকশত পুলিশ অবস্থান করছেন। এর আগে তারা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হল গেট থেকে ব্যারিকেড দিয়ে দোয়েল চত্বরের দিকে নিয়ে যান।

সোমবার কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের চতুর্মুখী হামলায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়েছে।

জানা গেছে, ছাত্রলীগের হামলায় আহত দুই শতাধিক শিক্ষার্থীর মধ্যে অন্তত ছয়জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা ঢাবির মেডিকেল সেন্টার এবং ঢামেক থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। তবে আহত শিক্ষার্থীদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারে নেওয়া হলে সেখানেও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসএম হল ছাত্রলীগ, জগন্নাথ হল ছাত্রলীগ, মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হকিস্টিক, লাঠি নিয়ে মহড়া দিতে দেখা যায়। সংঘর্ষের একপর্যায়ে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়েন।

-খবর প্রতিদিনসি.


আরও খবর



হামিদপুর ইউনিয়নে নব বঁধু কে যৌতুকের জন্য নির্যাতন পাষন্ড স্বামী কারাগারে

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৩৪জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের  পার্বতীপুর উপজেলার ৯নং হামিদপুর ইউনিয়নের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি এলাকার বাঁশ পুকুর গ্রামে বিয়ের মাত্র দশ মাস অতিবাহিত না হতেই যৌতুকের দাবিতে শাশুড়ীর প্ররোচনায় পাষন্ড স্বামীর নির্মম নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর সংসারে ভাঙ্গনের সুর নিয়ে  হাসপাতালে ভর্তির পরের দিন স্বামী কৌশলে তালাক প্রদান করেছে। অতঃপর  থানায়  মামলা হলে  যৌতুক লোভী  আটক পাষন্ড স্বামী আজিজুল হাকিম রাজুুর জামিন না মঞ্জুর করে আদালত কারাগারে   পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। 

পার্বতীপুর মডেল থানার মামলা নং ১৬ ও সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানদের শালিশি বৈঠক নামা সুত্রে  জানা গেছে ১৮/০৮/২৩ইং তারিখে উপজেলার বাঁশ পুকুর গ্রামের মাহবুবুর রশিদ এর পুত্র আজিজুল হাকিম রাজুর সঙ্গে একই উপজেলার ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়নের মধ্যপাড়া খনিজ শিল্পাঞ্চল এলাকার গুড়গুড়ি গ্রামের সাইফুল ইসলামের কলেজ পড়ুয়া কন্যা আনিকা তাবাসসুম (১৯) এর  সহিত চারলক্ষ টাকা দেন মোহর নির্দ্ধারন পূর্বক মুসলিম শরিয়া মোতাবেক ১০ নং ইউনিয়ন কাজীর মাধ্যমে বিবাহ রেজিষ্ট্রি হয় যার বিবাহ নং১৯২ বালাম নং ০৩ পাতা নং৩৬  সাল ২০২৩।  বিবাহের কিছু দিন অতিবাহিত হওয়ার পর হতে পাষন্ড স্বামী শাশুড়ী পরধন লোভী শশুর ও বাড়ির অন্যান্য সদস্য গন  মোটা অংকের যৌতুকের জন্য  নব বঁধু আনিকা তাবাসসুম কে অমানবিক  শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন করতে থাকে।  এক পর্যায়ে বিগত ১৯/০৩/২০২৪ সকাল ১০ ঘটিকায় শাশুড়ীর প্ররোচনায় পাষন্ড স্বামী নববধূ তাবাসসুম কে বাবার বাড়ি থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা যৌতুক আনার জন্য চাপসৃষ্টি করে। দাবি কৃত যৌতুকের টাকা আনতে অপারগতা প্রকাশ করলে যৌতুক লোভী শশুরালয়ের সংঘবদ্ধ রা নির্মমভাবে মারপিট করে তাড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় ১৯/৩/২৪ পার্বতীপুর মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল হলে গত ৪/৪/২৪ উভয় পক্ষকে নিয়ে  ৯ নং হামিদপুর চেয়ারম্যান এবং ১০ নং হরিরামপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোজাহিদুল ইসলাম সোহাগ শালিশি বৈঠকের আয়োজন করেন।  শালিশি বৈঠকে আজিজুল হাকিম ও তার পিতা মাতা তাদের ভুল বুঝতে পেরে সকলের নিকট ক্ষমা চেয়ে আর কখনো নির্যাতন করিবেনা এবং দাম্পত্য জীবন অটুট রাখার সার্থে আন্নিকা তাবাসসুম কে তাদের নিজ গৃহে নিয়ে যায়। গত ০৮/০৬/২৪ তারিখে আবারো একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলে নির্যাতনের শিকার হয়ে গুরুতর আহত ও অসুস্থ অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হলদিবাড়ি পার্বতীপুরে ভর্তি হয়। পরের দিন ০৯/০৬০২৪  ধুরন্ধর  স্বামী বিষয় টি ভিন্ন দিকে প্রবাহের কৌশল হিসাবে স্ত্রী কে তালাক নামা প্রদান করেন।  চিকিৎসা  শেষে হাসপাতাল থেকে ফিরে ১২/৬/২৪  স্বামী শাশুড়ী শশুর সহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে পার্বতীপুর মডেল  থানায় ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন সংশোধনী /০৩ এ মামলা রেকর্ড হয়।  গত ১২ জুন/২৪ থানা পুলিশ আজিজুল হাকিম কে আটক করে পরের দিন  আদালতে হাজির করলে আদালত তাকে  কারাগারে পাঠানোর  নির্দেশ দেন । এদিকে প্রতারনার শিকার গৃহবধূর বাবা সাইফুল ইসলাম জানান  বিবাহ রেজিস্ট্রি কালিন সময়ে ডাচ বাংলা ব্যাংকের চার লক্ষ টাকার একটি চেক যার হিসাব নং ৭০১৭৩৩৩৯৯২৫৮২ হিসাব ধারি মাহাবুব রশিদ পুত্র বধু আন্নিকা অনুকূলে প্রদেয় হয়। অথচ ডাচ বাংলা ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট শাখায় চেক সহ যোগাযোগ করা হলে জানা গেছে ওই চেকের টাকা আন্নিকার উত্তোলনের কোন সুযোগ নেই এ ধরনের চেক প্রদান জাস্ট প্রতারনা মুলক শান্তনা মাত্র। আমি চেক প্রতারনার প্রতিকার চেয়ে ব্যবস্থা নিব। উপজেলা আওয়ামী লীগ কমিটির অন্যতম সদস্য খলিলুর রহমান বলেন যৌতুক লোভী মা ও ছেলের কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত বলে জানান। 


আরও খবর



উলিপুর সরকারি কলেজে নবীন বরণ ও বিদায় সম্বর্ধনা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:রবিবার ২৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ১২০জন দেখেছেন

Image
সহিদুল আলম বাবুল, কুড়িগ্রাম ব্যুরো:কুড়িগ্রামের একটি ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান উলিপুর সরকারি কলেজ lকলেজটিতে আজ ২৩ জুন রোববার এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে lসেই সাথে বরণ করে নেয়া হয় নবীন শিক্ষার্থীদের lঅনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ২৭ কুড়িগ্রাম-৩ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য উলিপুরের মেহনতি মানুষের নেতা সৌমেন্দ্র প্রসাদ পান্ডে গবা,  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উলিপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাজাদুর রহমান তালুকদার ( সাজু ) ও  উলিপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মামুন সরকার মিঠু l

অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উলিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আতাউর রহমান ও উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম মর্তুজা lউলিপুর সরকারি কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল আবু জুবায়ের আল মুকুল এর উপস্থাপনায় কলেজের উন্নয়ন ও সার্বিক সমস্যা তুলে ধরে বক্তব্য  রাখেন, উলিপুর সরকারি কলেজের কেমিস্ট্রি বিষয়ের সহকারী অধ্যাপক মোঃ  সফিকুল ইসলাম, এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক মাসুদুর রহমান সর্দার রাজা lআলোচনা সভার শুরুতে ফুলের তোড়া ও ক্রেস্ট দিয়ে অতিথিদের বরণ করে নেয়া হয় l আনুষ্ঠানিকভাবেই রজনীগন্ধার স্টিক দিয়ে নতুনদের বরণ এবং আসন্ন এসএসসি  পরীক্ষার্থীদের প্রত্যেককে বিদায়ী উপহার প্রদান করা হয় lএরপর কলেজের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান lঅনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, উলিপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ শরিফুর রহমান খোকন l

আরও খবর