ঢাকা,বৃহস্পতিবার:

ফেসবুক খুললেই সামনে চলে আসছে লম্বা কান ওয়ালা, বড় নাক, সাদা চুলের বামন আকৃতির এক বুড়ি। তাঁর মাথায় টুপি, হাতে একটা ছোট পুতুল আর এক হাতে ঝুরি। এই ছবিতে ছেয়ে গিয়েছে ফেসবুক। দেখলেই শেয়ার করা হচ্ছে এই ছবি। বলা হচ্ছে ইনি নাকি ভাগ্য ফেরাতে এসেছেন। এই ছবি একবার শেয়ার করলেই ভাগ্য আপনার হাতের মুঠোয়। আপনি যেমন চাইবেন, তেমন দৌড়োবে আপনার ইঁদুরে খাওয়া পোড়া কপাল। না, মানে এক শেয়ারে আপনি লটারিও পেয়ে যাবেন। করোনা আবার কি জিনিস ! ওসব এক নিমেষে জব্দ হবে, এই ছবি শেয়ার করলেই। তবে এই বুড়ি মায়ের আবার পরিবারও আছে। ফেসবুকেই ছড়িয়ে পড়েছে তাঁর আরও কিছু সঙ্গী সাথিদের ছবি। তা এঁরা এতদিন ছিলেন কোথায়? হঠাৎ কি মনে করে এলেন ফেসবুকে? মানুষের করুণ দশাই কি তাঁদের ডেকে আনল? এসবের উত্তরই আছে।

 

তাঁর আগে জেনে নেওয়া যাক এই ছবিটা আসলে কি? এই ছবিকে বলা হয় ELF যা নাকি ভাগ্যের উন্নতি ঘটায়। অনেকটা ফেংশুইয়ের মতো ব্যাপারটা।  Elf শব্দের অর্থ হলো একটা ছোট আকৃতির জীব যার সরু কান রয়েছে এবং যার রয়েছে ম্যাজিক্যাল পাওয়ার। সুতরাং Elf of Luck- এর অর্থ হলো ভাগ্য ফিরিয়ে দেবে এরকম ম্যাজিক্যাল ক্ষমতাসম্পন্ন একটি জীব। অর্থাৎ এই জীবের ফটো শেয়ার করলে আপনার ভাগ্যের উন্নতি ঘটবে। তবে এর ঐতিহাসিক গুরুত্ব কতটা জানা যায়নি। বলা হচ্ছে এই Elf of Luck আসলে ভগবানের দূত নয়। তাঁরা ডেভিল। ডেভিল আর ইভিলের মধ্যে একটা তফাৎ আছে। ডেভিলরা আপনার মনের খারাপ সত্ত্বাকে ধ্বংস করে। আর ইভিল সে যে নিজেই শয়তান। তাই বলা হয় ডেভিলরা আসলে অ্যাঞ্জেল বা পরি। এই ডেভিল দমনের শক্তিই রয়েছে Elf of Luck-এর এই বৃদ্ধার ছবিতে।

 

তবে ফেসবুকে যে ভাবে মানুষ এই ছবি শেয়ার করছেন ভাগ্য ফেরার আশায়, তা সত্যিই অবাক করেছে। মানুষের নিজের ওপর আত্মবিশ্বাস কোন তলানিতে গিয়ে ঠেকলে তবেই এমন ছড়িয়ে পড়া এক অন্ধবিশ্বাসকে সকলে বিশ্বাসে পরিণত করতে পারেন ! করোনা, অর্থনৈতিক সমস্যা, বেকারত্ব, পারিবারিক অশান্তিতে মানুষের জীবনে আজ শান্তির বড্ড অভাব ! তাঁরা একটু শান্তি খোঁজার জন্য কি না করতে পারেন ! যদি একটা ছবি পোস্ট করলেই ভাগ্য ফেরে, তবে করতে দোষ কোথায় ! এই ভাবনা থেকেই হাজার হাজার মানুষ এই Elf of Luck-এর ছবি শেয়ার করে চলেছেন। যেভাবে প্রতিদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা হয় মা কালী, তারা মা, বা অন্য কোনও দেবতার বা অন্য কোনও শক্তির কথা ঠিক সেভাবেই। একবার শেয়ার করলেই বদলে যাবে আপনার ভাগ্য। এটা একেবারে একটা ডাহা মিথ্যে কথা। এমন কিছু হওয়ার সম্ভাবণা কোথাও নেই। হ্যাঁ, এই ছবি শেয়ার করার পর হয়তো কাকতালীয় ভাবে আপনার জীবনের ভালো কিছু ঘটে গিয়েছে, আর আপনি ভাবছেন এটার জন্য ওই ছবিই দায়ী। তাহলে ভুল করছেন। আপনি সেই ভালো খবরের জন্য কখনও না কখনও নিশ্চয় সময় দিয়েছেন বা চেষ্টা করেছেন। তাই বদলেছে আপনার ভাগ্য। কোনও ছবির চমৎকারে নয়। নিজের ভাবনাকে বদলান। আমরা এখন যে পরিস্থিতিতে বেঁচে আছি, তাতে কুসংস্কারকে বাহবা দেওয়ার সময় এটা নয়। ভেবে দেখুন তো যে ডাক্তাররা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার করোনা রোগীর প্রাণ বাঁচানোর চেষ্টা করছেন, তাঁরা যদি শুধু এই ছবিটি শেয়ার করে। এবং বলে ছবির Elf of Luck দেখে নেবে সব। আমি বাড়ি চললাম। কি হবে আপনার? তাই মানুষে ভরসা গড়ে তুলুন। নিজের প্রতি আস্থা রাখুন। কোনও অন্ধবিশ্বাসকে বাড়তে দেবেন না।

এই ছবি শেয়ার করার বদলে নিজের জীবনের ভালো মুহূর্তের ছবি পোস্ট করুন। বা খারাপ সময়কে ভাগ করে নিন সবার সঙ্গে। হালকা হবেন। মানসিক চাপ কমবে। আর এই Elf of Luck শেয়ার করার পরও যদি কোনও চমৎকার না হয়, তবে আপনারই অবসাদ বাড়বে। সংস্কার আমাদের অন্তরের শক্তি বাড়ায়। আর কুসংসস্কার আমাদের অন্ধকারেই ঠেলে দেয়। এই অ্যানিমেটেড ছবি ছড়িয়ে সত্যিই কি আর ভাগ্য ফেরানো যায় ! তাহলে তো সব ঝামেলা মিটেই যেত ! ভাবুন, ভাবুন।