Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

ফেসবুকে চাকরি পেলেন বাঙালি ছাত্র, বার্ষিক বেতন ১ কোটি ৮০ লাখ রুপি

প্রকাশিত:Tuesday ২৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৭২জন দেখেছেন
Image

এ যেন সোনায় সোহাগা! গুগল, অ্যামাজন থেকেও চাকরির অফার পেয়েছিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বিশাখ মন্ডল। কিন্তু তিনি বেছে নিলেন ফেসবুকের চাকরির অফার। ফেসবুকে তার বার্ষিক বেতনের প্যাকেজ ১ কোটি ৮০ লাখ রুপি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষার্থীর জন্য চলতি বছর এটিই সবচেয়ে বড় বেতনের চাকরির অফার বলে মনে করা হচ্ছে।

ইন্ডিয়া টুডের সঙ্গে কথা বলেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী বিশাখ মণ্ডল। তিনি জানান, আগামী সেপ্টেম্বর থেকে ফেসবুকের সঙ্গে কাজ করবেন। কিন্তু এই চাকরির অফারের আগে তিনি গুগল, অ্যামাজন থেকেও অফার পান। কিন্তু ফেসবুকে বেতনের অফার বেশি হওয়ায় তিনি সেখানে যোগ দেবেন।

তিনি আরও বলেন, ফেসবুকে তার কর্মস্থলে হবে লন্ডন। সেপ্টেম্বরেই তিনি লন্ডনে পাড়ি জমাবেন।

বিশাখ জানান, মঙ্গলবার রাতে তিনি চাকরির এই প্রস্তাব পান। একাডেমিক পড়াশোনার বাইরে করোনা মহামারির সময় তিনি বিভিন্ন সংগঠনে ইন্টার্নশিপ করেছিলেন। সেটিই চাকরির সাক্ষাৎকারে কাজে লেগেছে বলে জানান তিনি।

বীরভূমের রামপুরহাটের একেবারে সাধারণ পরিবারের সন্তান বিশাখ মন্ডল। কৃষক পরিবার থেকে অনেক কষ্ট করেই পড়াশোনা করছেন। মা শিশুযত্ন কেন্দ্রের অঙ্গনওয়ারি কর্মী হিসেবে কাজ করেন।

ফেসবুকে চাকরি পেলেন বাঙালি ছাত্র, বার্ষিক বেতন ১ কোটি ৮০ লাখ রুপি

ছেলের এমন সাফল্যে উচ্ছ্বসিত তার পুরো পরিবার। বিশাখের মা শিবানী বলেন, ‘এটি আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। বিশাখ ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছাত্র।’

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্লেসমেন্ট কর্মকর্তা সমিতা ভট্টাচার্য বলেন, মহামারি শুরুর পর এই প্রথম তাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এতো বেশি পরিমাণে চাকরির অফার পেয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়টির নয়জন শিক্ষার্থী গত বছর বিদেশি কোম্পানির কাছ থেকে এক কোটি রুপির বেশি বার্ষিক প্যাকেজের চাকরি অফার পেয়েছেন।

সূত্র: এনডিটিভি


আরও খবর



হাত ধুয়ে ৩০০ পথশিশু খেল নিরাপদ খাবার

প্রকাশিত:Tuesday ১৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানেরর ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে মিরপুরের রুপনগর কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত হয় পথশিশুদের হাত ধোয়া ও নিরাপদ খাবার বিতরণ কর্মসূচি।

সোমবার (১৫ আগস্ট) দুপুর ১টার দিকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. আব্দুল কাইউম সরকার। তিনি তার বক্তব্যে জাতি গঠনে নিরাপদ খাদ্যের গুরুত্ব এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনাদর্শ শিশুদের জীবনে লালন করার আহ্বান জানান।

food2

এ কর্মসূচিতে ৩০০ পথশিশুকে হাত ধোয়া বিষয়ক প্রশিক্ষণের পাশাপাশি নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক প্রচারপত্র ও কোভিডসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের সহায়তায় আয়োজিত এ কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সচিব আব্দুন নাসের খান, সহকারী পরিচালক আসফিহা তারান্নুম, মনিটরিং অফিসার মো. আব্দুল হান্নান, ইমরান হোসেন মোল্লা এবং জনসংযোগ কর্মকর্তা আবুল হাসনাত।


আরও খবর



কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে স্কুলের আসবাবপত্র বিক্রির অভিযোগ

প্রকাশিত:Sunday ২৪ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

ফরিদপুরের সালথা উপজেলার পুরুরা সাধুপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত একটি ভবনের আসবাবপত্রসহ মূল্যবান মালামাল কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে।

স্কুল কমিটির সভাপতি ইদ্রিস মোল্যা ও পিকুল হোসেন নামে স্কুলটির এক সহকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, অভিভাবক এবং এলাকাবাসীর মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যালয়টির পুরাতন ভবনের ২৬ জোড়া বেঞ্চ, ২৫টি টিন, দুটি দোলনা, বেশ কিছু লোহার অ্যাঙ্গেল ( মূল্য প্রায় ৫০ হাজার টাকা) কোনো টেন্ডার কিংবা কর্তৃপক্ষকে না জানিয়ে গত ১৯ জুলাই স্থানীয় বাজারে বিক্রি করা হয়। পরে শনিবার (২৩ জুলাই) স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. ইদ্রিস মোল্যা, শিক্ষক এবং স্থানীয় লোকজন ডেকে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন।

jagonews24

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পিকুল হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, বিক্রির ঘটনা সঠিক। তবে আমি একা বিক্রি করিনি। স্কুল কমিটির সভাপতি, কমিটির অন্য সদস্যরা বসে রেজুলেশন করে সিদ্ধান্ত নিয়ে বিক্রি করা হয়েছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শামসুল হক জাগো নিউজকে বলেন, আমি ওইদিন বিদ্যালয়ে ছিলাম না। জরুরি মিটিংয়ে বিদ্যালয়ের বাইরে ছিলাম। এ বিষয়টি আমার জানা নেই। আমাকে না জানিয়ে করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. ইদ্রিস মোল্যা জাগো নিউজকে বলেন, স্কুলে সবাইকে নিয়ে বসে রেজুলেশন করে আসবাবপত্রগুলো ও অন্যান্য মালপত্র বিক্রি করা হয়েছে।

jagonews24

তিনি আরও বলেন, বিষয়টি নিয়ে ম্যানেজিং কমিটি, স্কুলের শিক্ষক এবং স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে বসে সমাধান করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সালথা উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার বজলুর রহমান বলেন, ঘটনাটি জানতে পেরেছি। পরে বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে জানালে তিনি ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

সালথা উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. নিয়ামত হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত শিক্ষককে শোকজ করা হয়েছে। মালপত্র বিক্রির টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিতে বলা হয়েছে।

jagonews24

এ প্রসঙ্গে সালথা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোসা. তাসলিমা আকতার জাগো নিউজকে বলেন, ঘটনাটি আমার জানা নেই। এ বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগও করেননি। খোঁজ-খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া, চারদিন পর যুবকের মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ১৫ August ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

সাভারের আশুলিয়ায় নূর বিশ্বাস (২৮) নামের এক যুবককের গলাকাটা অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নূর বিশ্বাসকে বটি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

সোমবার (১ আগস্ট) সন্ধ্যায় আশুলিয়ার জিরাবো এলাকার দেলোয়ারের বাড়ির ভাড়া বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। দুই থেকে তিনদিন আগে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহত নূর বিশ্বাস মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার হোগলডাঙ্গা গ্রামের বাহাদুর বিশ্বাসের ছেলে। তিনি আশুলিয়ায় ভাড়া বাসায় থেকে অটোরিকশা চালিয়ে জীবন নির্বাহ করতেন।

নূর বিশ্বাসের ভগ্নিপতি মো. জাকির হোসেন বলেন, গত ১৪ জুলাই পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় নূরের। বিয়ের তিন দিন পর স্ত্রীকে গ্রামে রেখে ঢাকায় আসেন নূর। পরে রোববার নূরের মোবাইল ফোন থেকে এক নারী আমাকে কল দিয়ে বলেন নূরকে একটি ঘরে আটকে রাখা হয়েছে। আপনারা এসে নিয়ে যান। আমরা গ্রাম থেকে জিরাবো এসে নূরের মরদেহ দেখতে পাই। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে।

বাড়ির মালিক দেলোয়ার হোসেন বলেন, গত বৃহস্পতিবার নূর ও এক নারী স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া নেন। শুক্রবার ঘর ধোয়ামোছা করে বাড়িতে ওঠেন তারা। শনিবারও নূরকে রিকশা চালাতে দেখেছি।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইউনুস আলী বলেন, মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। একই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা বটি জব্দ করা হয়েছে। নিহতের কথিত স্ত্রীর পরিচয় শনাক্ত করে আইনের আওতায় নেওয়ার চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



খরায় মরছে শিমগাছ, চাষির মাথায় হাত

প্রকাশিত:Friday ১২ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
Image

আগাম শিম চাষ করে লাভবান হতে চেয়েছিলেন পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার মুলাডুলি ইউনিয়নের চাষিরা। কিন্তু সেই আশায় গুড়েবালি। ভরা বর্ষা মৌসুমেরও কাঙ্ক্ষিত বৃষ্টি হচ্ছে না। পানির অভাবে বেশিরভাগ শিমগাছ মরে যাচ্ছে। অনেকেই মরা শিমগাছ উঠিয়ে নতুনভাবে আবারও শিমের চারা রোপণ করেছেন। খরায় শিমগাছ মরে যাওয়ায় লাভের বদলে তাদের লোকসান গুনতে হবে।

চাষিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মুলাডুলি ইউনিয়নে প্রায় ১০ বছর ধরে আগাম শিম চাষ শুরু হয়েছে। অটো ও রূপভান নামের দুই জাতের আগাম শিম এখানে চাষ করা হয়। এবার আষাঢ়-শ্রাবণ মাসে কাঙ্ক্ষিত বৃষ্টি না হওয়ায় কৃষকরা বিপদে পড়েছেন। প্রচণ্ড খরায় শিমগাছের পাতা হলুদ, ছিদ্র ও বিবর্ণ হয়ে গেছে। পোকার আক্রমণে গাছ দুর্বল হয়ে মারা যাচ্ছে। ফলে নিরুপায় হয়ে মরা ও বিবর্ণ শিমগাছ উপড়ে ফেলে সেখানে নতুন করে বীজ ও চারা রোপণ করছেন চাষিরা।



মুলাডুলির বাঘহাছলা গ্রামের হুসেন আলী জাগো নিউজকে বলেন, ‘আষাঢ় মাসের প্রথম সপ্তাহে শিমের চারা রোপণ করেছিলাম। প্রচণ্ড খরায় শ্রাবণের শুরুতেই শিমের গাছগুলো লালচে হয়ে বিবর্ণ হয়ে গেছে। তিন বিঘা জমির মধ্যে প্রায় এক বিঘা জমির শিমগাছ খরায় মরে গেছে। এগুলো উঠিয়ে আবার নতুন করে লাগানো হচ্ছে।’

তিনি বলেন, আগাম শিম বেশি দামে বিক্রি করা যায় এমন আশায় অনেকেই আবাদ করেছিলেন। কিন্তু অসময়ে খরার কারণে সেচ দিতে না পারায় কৃষকদের ক্ষতি হয়ে গেলো। মরে যাওয়া শিম গাছ উঠিয়ে এখন যে চারা রোপণ করা হচ্ছে এগুলোর ফলন হবে কার্তিক ও অগ্রহায়ণ মাসে। তখন আর এ শিম বেশি দামে বিক্রি যাবে না।

খরায় মরছে শিমগাছ, চাষির মাথায় হাত

একই গ্রামের কৃষক আনোয়ার হোসেন বলেন, আগাম শিম ১০০-১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। এতে কৃষকরা বেশ লাভবান হন। কিন্তু শিমগাছ মরে যাওয়ায় কৃষকরা কাঙ্ক্ষিত লাভবান হতে পারবেন না। তাই অতিরিক্ত টাকা খরচ করে যারা আগাম শিমের আবাদ করেছেন তাদের অনেকেই এবার ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন।

শিম চাষ করেছেন শেখপাড়া গ্রামের চাষি শাহান আলী। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে অটো শিমের আবাদ করেছি। এক বিঘা জমিতে বিট (টিবি) তৈরি, বীজ, কীটনাশকবাবদ প্রায় ১৫ হাজার টাকা প্রাথমিক পর্যায়ে খরচ হয়ে গেছে। অথচ খরায় দেড় মাস পর ক্ষেতের বেশিরভাগ শিমগাছ মরে গেছে। এবার আগাম শিম চাষে লাভের আশা খুব একটা করতে পারছি না।’

প্রচণ্ড খরায় আগাম শিমের আবাদে বেশ ক্ষতি হয়েছে বলে জানান মুলাডুলি ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. আলিউজ্জামান।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মিতা সরকার জাগো নিউজকে বলেন, শিমগাছের জন্য মাটিতে যে পরিমাণ রস থাকার প্রয়োজন অনাবৃষ্টির কারণে সেটি না থাকায় পোকা আক্রমণ করে। এতে পাতা বিবর্ণ হয়ে গাছ নিস্তেজ হয়ে পড়ে। মরা গাছ উঠিয়ে কৃষকদের নতুন শিমের চারা লাগানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



গোতাবায়ার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেওয়া একজন গ্রেফতার

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
Image

শ্রীলঙ্কায় এবার ধরপাকড় শুরু হয়েছে সম্প্রতি ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের। প্রেসিডেন্টের গোতাবায়ার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেওয়া ধ্বনিজ আলিকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সদস্যরা।

দেশটির পুলিশ বলছে, ধ্বনিজ আলি ফ্লাইটে করে দুবাই যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। এসময় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

তার বিরুদ্ধে শ্রীলঙ্কার রূপবাহিনি কর্পোরেশনে অনুপ্রবেশের অভিযোগ এবং গত ১৩ জুলায়ের ঘটনা সম্প্রচার করেতে দেখা যায়।

গোতাবায়ার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেওয়া একজন গ্রেফতার

পুলিশের গণমাধ্যম শাখা জানিয়েছে, তার বিরুদ্ধে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি ছিল।

এদিকে, তাকে গ্রেফতারের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

অর্থনৈতিক সংকটের জেরে সম্প্রতি ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয় দেশটিতে। হাজার হাজার বিক্ষোভকারী প্রেসিডেন্টের প্যালেষে ঢুকে পড়েন। বাধ্য হয়ে সামরিক বিমানে করে দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে। রাজাপাকসে পালিয়ে মালদ্বীপে যান প্রথমে। এরপর সেখান থেকে সিঙ্গাপুরে যান তিনি। এর আগে প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের ভাই ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন।

শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক সংকটের জন্য রাজাপাকসে পরিবারকে দায়ী করছে বিক্ষোভকারীরা। ১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর এমন সংকট দেখেননি, বলছেন তারা।

সূত্র: ডেইলি মিরর ডট আইকে


আরও খবর