Logo
আজঃ Wednesday ২৫ May ২০২২
শিরোনাম

একশ রান করার আগে ৩ উইকেট তুলে নিলো বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Sunday ১০ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১৯২জন দেখেছেন
Image

স্পোর্টস ডেস্কঃ

প্রথম ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার ৪৫৩ রানের জবাবে ২১৭ রানেই গুটিয়ে গেছে বাংলাদেশ। ব্যাটারদের ব্যর্থতায় এই টেস্টে বেশ পিছিয়েই গেছে টাইগাররা। তবে বোলাররা দলকে লড়াইয়ে ফেরাতে যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন।


ফলোঅন না করিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামা দক্ষিণ আফ্রিকা একশ রান তোলার আগে হারিয়েছে ৩ উইকেট। ৯০ রানের মধ্যে সাজঘরে ফিরেছেন টপঅর্ডারের ডিন এলগার, কেগান পিটারসেন আর সারেল এরউই।


এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২৬ ওভার শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১০৯ রান। রায়ান রিকেলটন ১১ আর টেম্বা বাভুমা ১৩ রানে অপরাজিত আছেন। প্রোটিয়াদের লিড ৩৪৫ রানের।


প্রথম ইনিংসে একাই ৬ উইকেট নিয়েছিলেন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। দ্বিতীয় ইনিংসেও দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং লাইনআপে প্রথম আঘাত হানেন তিনি। তাইজুলের বলে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে সাজঘরের পথ ধরেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ডিন এলগার (২৬)।


এরপর প্রোটিয়াদের দ্বিতীয় উইকেটও তুলে নিয়েছেন তাইজুলই। এবার তিনি এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেছেন পিটারসেনকে। ডিফেন্স করেও উইকেট বাঁচাতে পারেননি প্রোটিয়া ব্যাটার। আম্পায়ার আউট দিলে অবশ্য রিভিউ নিয়েছিলেন পিটারসেন। কিন্তু আম্পায়ার্স কলে লেগ স্ট্যাম্প পেয়ে যাওয়ায় সাজঘরে ফিরতে হয় তাকে (১৪)।


তার পরের ওভারেই খালেদ আহমেদের আঘাত। সেট ব্যাটার সারেল এরউই ব্যক্তিগত ৪১ রানে শর্ট মিডঅনে মুমিনুল হককে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরেছেন।


এর আগে বাংলাদেশকে ২১৭ রানে অলআউট করে ২৩৬ রানের বিশাল লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে আক্রমণাত্মক শুরু করেন দুই প্রোটিয়া ওপেনার এলগার ও এরউই। একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ইনিংসের নবম ওভারেই দলীয় পঞ্চাশ পূরণ করে ফেলেন এ দুজন।


এর পেছনে অবশ্য বড় অবদান রয়েছে মেহেদি হাসান মিরাজের। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই সাজঘরে ফিরতে পারতেন এরউই। কিন্তু এবাদত হোসেনের বলে সোজা শরীর বরাবর আসা ক্যাচ দেখতেই পাননি মিরাজ। উল্টো বুকে আঘাত পেয়ে প্রায় ১৫ মিনিট মাঠের বাইরে থাকতে হয় তাকে।


উল্লেখ্য, আজকের দিনের শুরুটা বেশ ভালো করেছিলেন দুই অপরাজিত ব্যাটার ইয়াসির আলি রাব্বি ও মুশফিকুর রহিম। দুজনের জুটিতে বেশ ভালোভাবেই এগোচ্ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু প্রথম সেশনে শেষ দিকে ইয়াসিরের বিদায়ের মাধ্যমে শুরু হয় দলীয় পতনের।



আরও খবর



হানিফ সংকেত সুস্থ আছেন

সোশ্যাল মিডিয়ায় হানিফ সংকেতের মৃত্যুর গুজব

প্রকাশিত:Wednesday ২৫ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

এ আর হানিফঃ

জনপ্রিয় উপস্থাপক, পরিচালক, অভিনেতা, প্রযোজক, লেখক হানিফ সংকেতের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। টিকটক, ফেসবুকসহ নানা সোশ্যাল মিডিয়ায় এ ভুয়া তথ্যের খবরটি গতকাল ছড়ানো হয়।

এর মধ্যে Asofuddowla Jewel নামের একটি আইডি থেকে লেখা হয়েছে, ‘শোক এবং শ্রদ্ধা, জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদির উপস্থাপক, প্রযোজক ও নির্মাতা বিশিষ্ট গুণীজন হানিফ সংকেত আজ সড়ক দুর্ঘটনায় ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আমরা গভীর শোক প্রকাশ করছি।’


Feni Page ফেনী পেজ থেকে বলা হয়েছে, ‘................শোক সংবাদ -!! জনপ্রিয় ম্যগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদির উপস্থাপক প্রযোজক ও নির্মাতা জনাব হানিফ সংকেত সড়ক দুর্ঘটনায় ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করছি।’


‘দূর্গাপুর উপজেলা প্রচার দল’, Siyadat Raj নামে একটি আইডি, Md. Ridwan Khan নামে একটি আইডিসহ আরও অনেক পেজ ও আইডি থেকে হানিফ সংকেতের মৃত্যুর মিথ্যে খবর ছড়ানো হয়েছে।



গুণী মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হানিফ সংকেতের মৃত্যুর গুজবে তার লাখো ভক্ত এবং অনুরাগীরা শংকিত, ব্যথিত এবং চিন্তাগ্রস্ত। তাই ঘটনার সত্যতা জানতে হানিফ সংকেতের ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে এ তথ্য ভুল বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

তারা জানান, হানিফ সংকেত সুস্থ আছেন।



আরও খবর



পিচ ঢালাইয়ের কাজ শেষ

সব ধরনের যান চলাচলের জন্য প্রস্তুত পদ্মা সেতু

প্রকাশিত:Monday ২৩ May ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
Image

সোহরাওয়ার্দীঃ

সকল জল্পনা কল্পনা শেষে সব ধরনের যান চলাচলের জন্য প্রস্তুত হয়ে উঠেছে পদ্মা সেতু।পদ্মা সেতুর মূল অংশের পিচ ঢালাই শেষে বাকি ছিল দুই পাড়ের সংযোগ সড়কের পিচ ঢালাই। কর্মযজ্ঞের ধারাবাহিকতায় শেষ হয়েছে দুই পাড়ের সংযোগ সড়কের পিচ ঢালাই।


সোমবার (২৩ মে) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে সর্বশেষ জাজিরা অংশের সংযোগ সড়কের (সাউথ ভায়াডাক্ট) পিচ ঢালাইয়ের কাজ শেষ করেন সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী ও নির্মাণশ্রমিকরা।


পুরো সেতুর পিচ ঢালাই শেষ হওয়ায় এখন যানচলাচলের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত স্বপ্নের পদ্মা সেতুর সড়কপথ।পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, যান চলাচল উপযোগী করে তুলতে সেতুতে পিচ ঢালাইয়ের কাজ শুরু হয়েছিল গত বছরের ১০ নভেম্বর। পাঁচ মাস ১৯ দিনের মাথায় গত ২৯ এপ্রিল মূল সেতুর ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার অংশে সে কাজ শেষ হয়। এরপরই সমানতালে শুরু হয় দুই পাড়ের সংযোগ সড়কের পিচ ঢালাই।



বৃহস্পতিবার (১৯ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তের সংযোগ সড়কের পিচ ঢালাইয়ের কাজ শেষ হয়। সর্বশেষ জাজিরা প্রান্তের সংযোগ সড়কের পিচ ঢালাই শেষ হলো আজ।


এদিকে সেতুর অবশিষ্ট কাজের মধ্যে রোড মার্কিং ও সেতুকে আলোকিত করতে বসানো ৪১৫টি ল্যাম্পপোস্টে বিদ্যুৎ সংযোগের কাজ চলছে পুরোদমে। শুরু হয়েছে রেলিং বসানোর কাজ।



সূত্র জানায়, চলতি মাসের মধ্যেই শেষ হবে রোড মার্কিংয়ের কাজ। বিদ্যুৎ সংযোগের কাজও চলছে। পরিকল্পনা মতো কাজ এগুলোই নির্ধারিত সময় ১ জুনে জ্বলে উঠবে বাতিগুলো।



আরও খবর



টাঙ্গাইলে জমিজমা বিরোধকে কেন্দ্র করে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

প্রকাশিত:Monday ০৯ May ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২২ May 20২২ | ৮১জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে সৎ ভাই সুমন মিয়াকে (২৫) হত্যা করেছেন আতোয়ার মিয়া (৫৫) নামে এক ব্যক্তি।


সোমবার (৯ মে) নাগরপুর উপজেলার মোকনা ইউনিয়নের ডাকাতিপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।


নিহত সুমন ও অভিযুক্ত আতোয়ার ওই গ্রামের কলিম উদ্দিনের সন্তান।  


নাগরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাসুদ ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে সকালে ছোট ভাই সুমনকে ফলা দিয়ে আঘাত করেন বড় ভাই আতোয়ার মিয়া।


এতে গুরুতর আহত হন সুমন। এ অবস্থায় তাকে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।


আরও খবর



চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী জব্বারের বলীখেলা

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১৮১জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

করোনার কারণে দুই বছর হয়নি শতবছরের ঐতিহ্যবাহী আবদুল জব্বারের বলীখেলা ও বৈশাখী মেলা। এবার স্বল্প সময়ের প্রস্তুতিতে আয়োজিত হচ্ছে এ মেলা। যেখান থেকে বৃহত্তর চট্টগ্রামের মানুষ এক বছরের গৃহস্থালি টুকিটাকি সংগ্রহ করেন। বলা হয়ে থাকে সুঁই থেকে ফুলশয্যার খাটও মেলে জব্বারের বলীখেলায়।  



জীবন বলী চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে জব্বারের বলীখেলা। খেলাকে ঘিরে আগের দিন ও পরের দিন বৈশাখী মেলা।তিন দিনের এ মেলার শেষ দিন মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল)। দূরদূরান্ত থেকে আসা ব্যবসায়ীরা কম লাভে, কেনা দামেই ছেড়ে দিচ্ছেন পণ্যসামগ্রী। এ সুযোগে কিনে নিচ্ছেন ক্রেতারা।


সরেজমিন দেখা গেছে, মাটির তৈরি ছোট-বড় ব্যাংক, ফুলদানি, কাপ-পিরিচ, জগ-গ্লাস, ধর্মীয় নানা স্মারক বিক্রি হচ্ছে বেশি। হাতপাখা, মুড়ি-মুড়কি, বাঁশি, শিশুদের খেলনা, টমটম গাড়ি, নারীদের ইমিটেশনের গহনা, শীতলপাটি, ফুল ও ফলের চারা, বাঁশের শলার তৈরি মাছ ধরার চাই (ফাঁদ), ডালা, কুলা, দা-বঁটি, প্লাস্টিকের ফুলসহ বাহারি সব জিনিস কিনতে আসছেন মানুষ।      




আবদুল জব্বার স্মৃতি কুস্তি প্রতিযোগিতা ও মেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এম জামাল হোসাইন বলেন, মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) দিনগত রাত ১২টায় জব্বারের বলীখেলাকে ঘিরে তিন দিনের বৈশাখী মেলা শেষ হবে। ভোরের মধ্যে সড়কের আশপাশ থেকে সব দোকানপাট উঠে যাবে।   


ঐতিহ্যবাহী জব্বারের বলীখেলা ও মেলাকে ঘিরে বলীখেলা কমিটি, প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে।  



আরও খবর



জুমাতুল বিদা,মসজিদে মুসল্লিদের ঢল

প্রকাশিত:Friday ২৯ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১২৯জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

যথাযথ মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) ২৭ রমজান সারাদেশে পবিত্র জুমাতুল বিদা পালিত হয়েছে। রমজান মাসের শেষ শুক্রবার জুমাতুল বিদা হিসেবে পালন করেন মুসলমানরা।


বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) রমজানের শেষ শুক্রবারে জুমার নামাজের পর বিশেষ ইবাদত করতেন। তার উম্মতরা এরই ধারাবাহিকতায় এদিন জুমার নামাজের পর নফল নামাজ আদায় করেন ও বিশেষ দোয়া করেন।

রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের মাস রমজানের শেষ জুমা ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের কাছে বিশেষ গুরুত্ব ও মর্যাদাপূর্ণ। রমজানের শেষ জুমা হওয়ায় দিনটিকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়। জুমাতুল বিদার দিন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা এলাকার মসজিদে আগে ভাগেই উপস্থিত হন।


এবছর বায়তুল মোকাররম মসজিদ জুমার আজানের আগেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। রোজা রেখে সবাই জুমাতুল বিদার জামাতে শরিক হওয়ার চেষ্টা করেন। শুক্রবার প্রধান মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ রাজধানীর পাড়া-মহল্লার সব মসজিদেও মুসল্লিদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।




মসজিদ ছাড়িয়ে আশপাশের রাস্তায় মুসল্লিরা কাতারবন্দি হয়ে নামাজ আদায় করেন। পবিত্র জুমাতুল বিদায় মসজিদে মসজিদে দেশ জাতি ও মুসলমানদের কল্যাণে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।


আরও খবর