Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

ঈদের খুশি বাড়াতে টেকনোর আকর্ষণীয় অফার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৯৪জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:আর মাত্র কয়েকদিন পর ঈদ। ঈদের আনন্দ আরও বাড়িয়ে তুলতে উদ্ভাবনী স্মার্টফোন ব্র্যান্ড টেকনো এর ব্যবহারকারী ও ভক্তদের জন্য নিয়ে এসেছে ধামাকা অফার। স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য থাকছে দুর্দান্ত কিছু অফার। টেকনো ক্যামন ৩০, স্পার্ক ২০ প্রো+, ক্যামন ২০ এবং ক্যামন ২০ প্রো ডিভাইসগুলো কেনার সময় এই অফারগুলো উপভোগ করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।স্পার্ক ২০ প্রো+ কিনলে ক্রেতারা পাবেন একটি প্রিমিয়াম ব্যাকপ্যাক। এই ফোনে অবিরাম ও নিরবচ্ছিন্ন স্মার্টফোন অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করতে রয়েছে জি৯৯ আলটিমেট প্রসেসর এবং ১২০ হার্জ রিফ্রেশ রেট সহ ৬.৭৮ ইঞ্চি কার্ভড অ্যামোলেড ডিসপ্লে। ১০৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা সেন্সিং মেইন ক্যামেরা দিয়ে ব্যবহারকারী যেকোনো পরিস্থিতিতে (কম আলো) মনোমুগ্ধকর ছবি তুলতে পারবেন। ৩৩ওয়াট চার্জিং সহ ৫০০০ মিলিএম্পিয়ার ব্যাটারির সাহায্যে দিনভর স্মার্টফোন ব্যবহার করা যাবে কোনো দুশ্চিন্তা ছাড়াই। মাল্টিটাস্কিং হোক কিংবা গেমিং অথবা ফটোগ্রাফি, যেকোনো কাজ করার জন্য সঠিক পছন্দ স্পার্ক ২০ প্রো+।

সম্প্রতি টেকনো বাংলাদেশের বাজারে নিয়ে এসেছে ক্যামন ৩০ সিরিজের ফোন। লঞ্চ হওয়ার পর থেকেই ব্যাপক সাড়া পেয়েছে এই সিরিজের ডিভাইস। এই অভিজ্ঞতাকে আরও আনন্দদায়ক করে তুলতে টেকনো এর ক্যামন ৩০ ফোনের ক্রেতাদের জন্য নিয়ে এসেছে নিশ্চিত উপহার অফার। টেকনো ক্যামন ৩০ কিনলেই গ্রাহকরা একটি আকর্ষণীয় গিফট প্যাকেজ পাবেন। ক্যামন ৩০ ফোন কেনার পর বিক্রেতার কাছ থেকে কোড সংগ্রহ করুন এবং ২৬৯৬৯ নাম্বারে (TECNO<space>IMEI1<space>RetailCode) পাঠিয়ে দিন। সকল ক্রেতা নিশ্চিতভাবে একটি প্রিমিয়াম টি-শার্ট অথবা একটি স্মার্ট মগ পাবেন। এছাড়া, কিছু সৌভাগ্যবান বিজয়ীদের জন্য থাকছে আরও অনেক চমক, সুযোগ থাকছে বিনামূল্যে আরও একটি ক্যামন ৩০ ফোন, স্মার্ট ওয়াচ অথবা ট্রু ওয়্যারলেস এয়ারবাডস (টিডব্লিউএস) জিতে নেওয়ার।

নাইট পোর্ট্রেট মাস্টার হিসেবে সমাদৃত টেকনো ক্যামন ৩০ ফোনে রয়েছে ৫০ মেগাপিক্সেল ট্রিপল এআই ক্যামেরা ও ৫০ মেগাপিক্সেল এএফ ডুয়াল কালার টেম্পারেচার ফ্ল্যাশ ফ্রন্ট ক্যামেরা সহ ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ। এর এআই ফিচার এবং এআইজিসি পোর্ট্রেট সুবিধা ক্যামেরা অভিজ্ঞতায় যোগ করবে নতুন মাত্রা। এছাড়া, ক্যামন ৩০ গ্রাহকদের জন্য থাকছে ৩ বছরের সিকিউরিটি প্যাচ আপডেট সহ ৩ বছরের অ্যান্ড্রয়েড আপডেট (অ্যান্ড্রয়েড ১৬ পর্যন্ত) সুবিধা। বাজারে এই ডিভাইসটি তিনটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে - আইসল্যান্ড বেসাল্টিক ডার্ক, ইউনি সল্ট হোয়াইট এবং সাহারা স্যান্ড ব্রাউন। এই অফার দু’টি আলাদা ভ্যারিয়েন্টের – (২৫৬জিবি+৮জিবি) এবং (২৫৬জিবি+১২জিবি) -- জন্যই প্রযোজ্য।

এছাড়া, টেকনো ফ্যানরা ঈদ উপলক্ষে নতুন দামে ক্যামন ২০ সিরিজের ফোন কেনার সুযোগ পাচ্ছেন। আগ্রহীরা এখন ক্যামন ২০ প্রো (৮জিবি+২৫৬জিবি ভ্যারিয়েন্ট) কিনতে পারবেন মাত্র ২১,৯৯৯ টাকায় (বাজারমূল্য ২৪,৯৯০ টাকা) এবং ক্যামন ২০ (৮জিবি+২৫৬জিবি ভ্যারিয়েন্ট) পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ১৮,৯৯৯ টাকায় (বাজারমূল্য ১৯,৯৯০ টাকা)। ক্যামন ২০ সিরিজের পাজল ডিকনস্ট্রাকশনিস্ট ডিজাইন আন্তর্জাতিকভাবে সমাদৃত। অনন্য স্মার্টফোন অভিজ্ঞতা চাইলে এই ফোনের কোনো বিকল্প নেই। নতুন দামে এই দুর্দান্ত ফোন কেনার এটাই সুযোগ! তাহলে আর দেরি কিসের? টেকনো’র এই ধামাকা অফার মিস করতে না চাইলে এক্ষুনি চলে আসুন আপনার নিকটস্থ আউটলেটে।


আরও খবর



পত্নীতলায় প্রকল্প অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ৩৯জন দেখেছেন

Image
দিলিপ চৌহান, পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:পত্নীতলায় এনজিও সংস্থা ইকো সোশ্যাল ডেপলোপমেন্ট অর্গানাইজেশন-(ইএসডিও) ও শতফুল বাংলাদেশের আয়োজনে জিসিএফ ও পিকেএসএফ এর অর্থায়নে বৃহস্পতিবার উপজেলা সভাকক্ষে ইসিসিসিপি-ড্রাউট প্রকল্পের" অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শতফুল বাংলাদেশের প্রশাষনিক কর্মকর্তা ইয়াসমিন আরা'র সঞ্চালনায় ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের পক্ষে উপজেলা কৃষি অফিসার সোহরাব হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পত্নীতলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল গাফফার। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শতফুল বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক নাজিম উদ্দিন মোল্লাহ, পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) এর ব্যাবস্থপক রবিউজ্জামান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ রাহাত, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সাবিনা বেগম। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা: মনিরুজ্জামান, বিএমডিএ এর সহকারী প্রকৌশলী তারেক আজিজ, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী সন্তোষ কুমার কুন্ডু, ইএসডিও (ইসিসিসিপি)-ড্রাউট প্রকল্পের প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর সেলিহান আলম প্রমুখ। 

এসময় বক্তারা বলেন, এই প্রকল্প বাস্তবায়নের ফলে, উপকার ভোগীদের দক্ষতা ও সক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে, খাল পুনঃখননের ফলে অনাবাদি জমি চাষের আওতায় আসবে এবং বরেন্দ্র অঞ্চলের মানুষের পানি ও কৃষি সমস্যা সমাধানে এই প্রকল্পটি যথেষ্ট অবদান রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তারা। 

আরও খবর



চুয়েটে হুয়াওয়ের ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্ট অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১২৫জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্টের আয়োজন করেছে বিশ্বের অন্যতম তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরে অনুষ্ঠিত এমসিকিউ ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে সম্প্রতি এ রিক্রুটমেন্ট সম্পন্ন করা হয়। চুয়েটের সিএসই, ইইই ও ইটিই বিভাগের প্রায় ২০০ শিক্ষার্থী এতে অংশগ্রহণ করে। সেখান থেকে নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা হুয়াওয়ের সাথে কাজ করার সুযোগ পাবে।

এই ইভেন্ট পরিচালনা করেন হুয়াওয়ে সাউথ এশিয়ার সিনিয়র এইচআর ম্যানেজার মো. ফারা নেওয়াজ, এইচআর ম্যানেজার ইফতেখার রহমান ও এইচআর এক্সিকিউটিভ মো. খালিদ হুসাইন। এ সময় চুয়েটের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহাম্মদ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে মো. ফারা নেওয়াজ বলেন, “বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা অনেক মেধাবী এবং তাদের মেধার সঠিক পরিচর্যা করা প্রয়োজন। এ কারণেই প্রয়োজনীয় দক্ষতা, উপযুক্ত কর্মপরিবেশ ও সুযোগ-সুবিধা দেয়ার মাধ্যমে তাদের মেধাকে সমৃদ্ধ করার জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরিতে হুয়াওয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সম্পূর্ণভাবে সংযুক্ত ও বুদ্ধিবৃত্তিক বাংলাদেশ গড়ার যে লক্ষ্য হুয়াওয়ের রয়েছে, সেটিকে এগিয়ে নিতে এসব শিক্ষার্থীদের মাঝে যে আগ্রহ রয়েছে, তা প্রশংসনীয়। বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মের জন্য এই ধরনের কাজের ধারাবাহিক সুযোগ তৈরি ও এটিকে আরো সম্প্রসারণ করার জন্য আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।” 

অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহাম্মদ বলেন “হুয়াওয়ের এই ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্ট আয়োজন আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন সুযোগ তৈরি করলো। এর মধ্যে দিয়ে আমাদের যেসব শিক্ষার্থীর নতুন কিছু করার উচ্চাকাঙ্খা আছে, তারা স্বপ্ন পূরণের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ পাবে।  আমি ‍হুয়াওয়ের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই।”   

দেশের আইসিটি খাতে মেধার উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হুয়াওয়ে কর্মক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদেরকে বিভিন্ন সুযোগ দিয়ে আসছে। দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও নিয়মিত এই ধরনের ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্টের আয়োজন করে হুয়াওয়ে। এ বছর ইতোমধ্যে বুয়েট, কুয়েট, আহ্ছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (আবিপ্রবি) এবং রুয়েটে ক্যাম্পাস রিক্রুটমেন্টের আয়োজন করেছে হুয়াওয়ে।


আরও খবর



মোটরসাইকেল চলাচলে ১৫৭ উপজেলায় তিন দিনের নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৬৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:নির্বাচন কমিশন (ইসি) ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপের ভোটগ্রহণ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে ১৫৭ উপজেলায় তিন দিনের জন্য মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। যা আগামী ১৯ মে মধ্যরাত থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টা বলবৎ থাকবে।

ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপসচিব মো. আতিয়ার রহমান এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবকে ইতোমধ্যে চিঠি পাঠিয়েছেন। এতে বলা হয়েছে, আগামী ২১ মে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের দ্বিতীয় ধাপের সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচন উপলক্ষে ভোটগ্রহণের জন্য নির্ধারিত দিবসের পূর্ববর্তী মধ্যরাত অর্থাৎ ২০ মে দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে ২১ মে দিবাগত মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত ট্যাক্সি ক্যাব, পিকআপ, মাইক্রোবাস ও ট্রাক চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকবে।

অন্যদিকে ১৯ মে দিবাগত মধ্যরাত ১২টা থেকে ২২ মে মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকবে।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, নির্বাচনি এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, যানজট নিরসন ইত্যাদি প্রয়োজনে বাস্তবতার নিরীখে ও স্থানীয় বিবেচনায় উল্লিখিত যানবাহন ছাড়াও উক্তরূপে যেকোনো যানবাহন চলাচলের ওপর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারবে।

এ নিষেধাজ্ঞা রিটার্নিং অফিসারের অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী/তাদের নির্বাচনি এজেন্ট, দেশি/বিদেশি পর্যবেক্ষকদের (পরিচয়পত্র থাকতে হবে) ক্ষেত্রে শিথিলযোগ্য।

নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত দেশি/বিদেশি সাংবাদিক (পরিচয়পত্র থাকতে হবে) নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধ পরিদর্শক এবং কতিপয় জরুরি কাজ যেমন, অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক, টেলিযোগাযোগ ইত্যাদি কার্যক্রমে ব্যবহারের জন্য উল্লিখিত যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে ওই নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না।

জাতীয় মহাসড়ক, বন্দর ও জরুরি পণ্য সরবরাহসহ অন্যান্য জরুরি প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এরূপ নিষেধাজ্ঞা শিথিল করতে পারবেন।

যানবাহনগুলো চলাচলের ওপর বর্ণিত সময়সূচি অনুযায়ী নিষেধাজ্ঞা আরোপের জন্য সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসককে ক্ষমতা দেওয়ার জন্যও বলা হয়েছে চিঠিতে।

অন্যদিকে নৌ সচিবকে পাঠানো পৃথক এক চিঠিতে ভোটের দিন যন্ত্রচালিত নৌযান চলাচল বন্ধের জন্যও বলা হয়েছে।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




শেষ ধাপে নওগাঁয় উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৬৪জন দেখেছেন

Image

এম এম হারুন আল রশীদ হীরা; নওগাঁ:শেষ ধাপে নওগাঁর তিনটি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোট গণনা শেষে বুধবার রাতে ভোটের ফলাফল ঘোষণা করা হয়। প্রাপ্ত ফলাফলের ভিত্তিতে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন নওগাঁ সদর উপজেলায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মাহবুবুল হক কমল,  মান্দা উপজেলায় আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  তোফাজ্জল হোসেন তোফা এবং  মহাদেবপুর উপজেলা ছাত্র ও যুবলীগের সাবেক নেতা মাসুদুর রহমান মাসুদ, বেসরকারিভাবে তাদের বিজয়ী ফলাফল ঘোষণা করেন স্ব স্ব উপজেলা সহকারী রিটার্নিং ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগণ।

নওগাঁ সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি  মাহবুবুল হক কমল আনারস প্রতিকে ৪১হাজার ১৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রফিক ঘোড়া প্রতিকে পেয়েছেন ২৯ হাজার ৩৭ভোট, মান্দা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  তোফাজ্জল হোসেন তোফা হেলিকপ্টার প্রতিকে ২৪ হাজার ৮৪৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি ডা: মাহফুজুর রহমান নয়ন আনারস প্রতিকে পেয়েছেন ২৪ হাজার ২২১ ভোট। মাত্র ৬শত ২৮ ভোটের ব্যবধানে এ উপজেলায় বিজয়ী হয়েছেন তোফা। এবং মহাদেবপুর উপজেলা ছাত্র ও যুবলীগের সাবেক নেতা মাসুদুর রহমান মাসুদ আনারস প্রতিকে ৪১হাজার ৮৫৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মরহুম আহসান হাবিব ভোদনের সহধর্মিণী আয়েশা বেগম দোয়াত কলম প্রতিকে পেয়েছেন ২৭হাজার ৩৫ ভোট।

গতরাতে জেলা প্রশাসকের মিডিয়া সেলে এক বার্তার মাধ্যমে জেলা প্রশাসক গোলাম মওলা জানান, নওগাঁ সদরে ভোট পড়েছে ২০ দশমিক ৭৯ শতাংশ, মান্দায় ২৭ দশমিক ১৯ শতাংশ এবং  মহাদেবপুরে ৩৭ দশমিক ১০ শতাংশ।


আরও খবর



পরীমণির পাশে দাঁড়ালেন ডিপজল

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image

বিনোদন ডেস্ক:দুই বছর পর ফের বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) কুরবানি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত ও জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরীমণি। তবে এবার কুরবানির সঙ্গে একটি শর্তজুড়ে দিয়েছেন তিনি। বিএফডিসিতে আনন্দময় পরিবেশের নিশ্চয়তা পেলে তবেই সেখানে কুরবানি দেবেন বলে জানিয়েছেন এ নায়িকা।

এ অভিনেত্রী বলেন, আমি এবার কুরবানি দিতে চাই। এ জন্য বিএফডিসির কেউ যদি সেখানে আনন্দময় পরিবেশে সবাইকে নিয়ে কুরবানির নিশ্চয়তা দিতে পারে, তবেই সেখানে কুরবানি দেব।

অভিনেত্রীর মন্তব্য দৃষ্টিগোচর হয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদ্য নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মনোয়ার হোসেন ডিপজলের।

এ ব্যাপারে তিনি জানান- পরীমণিকে বিএফডিসিতে কুরবানি দেওয়ার জন্য সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। আনন্দময় পরিবেশ থাকবে বিএফডিসিতে। আমরা সবাই একসঙ্গে ঈদ ও কুরবানির আনন্দ ভাগাভাগি করব। বিএফডিসিতে কুরবানি দেওয়ার জন্য কেন বাধা দেওয়া হবে? আগে বাধা দেওয়ার ব্যাপারে জানা নেই আমার। আমরা একসঙ্গে কুরবানি দেব, সবাই আনন্দ-ভাগাভাগি করব। কুরবানি শেষ হলে ময়লা-আবর্জনা ধুয়ে পরিস্কার করা হবে।

অভিনেতা ডিপজল বলেন, পরীমণিকে আমরা সব ধরনের সহায়তা করব। তার পাশে রয়েছি আমরা। সুন্দর পরিবেশের নিশ্চয়তা দিচ্ছি তাকে। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলব। বিএফডিসিতে এবার উৎসবমুখর পরিবেশে কুরবানি দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে বিএফডিসিতে প্রথমবারের মতো কুরবানি দেন চিত্রনায়িকা পরীমণি। পরবর্তী পাঁচ বছর সেই ধারাবাহিকতায় বজায় রেখে কুরবানি দিয়েছেন। সবশেষ ২০২১ সালে ৬টি গরু কুরবানি দেন তিনি। ওই বছর বিএফডিসির ভেতরে কুরবানি দেওয়ায় নিষেধাজ্ঞা থাকার কারণে বাইরে কুরবানি দিয়েছিলেন এ অভিনেত্রী।

পরীমণি বর্তমানে ‘রঙিলা কিতাব’ নামে একটি ওয়েব সিরিজের কাজ করছেন। কিঙ্কর আহসানের ‘রঙিলা কিতাব’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিতব্য সাত পর্বের সিরিজটি পরিচালনা করছেন অনম বিশ্বাস।


আরও খবর