Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

এবারও গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ

প্রকাশিত:Tuesday ০৩ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২১০জন দেখেছেন
Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ফটো)


পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন সরকারি বাসভবন গণভবনেই ঈদ উদযাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। দেশে করোনা পরিস্থিতি শুরু হওয়ার পর থেকে প্রধানমন্ত্রী গত চারটি ঈদ গণভবনে কোনও আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই কাটিয়েছেন।


সোমবার (২ মে) গণভবন সূত্রে জানা যায়, গত চারটি ঈদ বাদে প্রায় সব বছরই তিনি নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদের দিন সাক্ষাৎ করতেন, ভাগাভাগি করতেন আনন্দ। করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলেও গত চারটি ঈদের মতোই পুরনো আয়োজন সাক্ষাৎ পর্ব বাদ রেখেছেন এবার। তবে কয়েকজন সিনিয়র নেতা ঈদের দিন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার কথা রয়েছে।



এছাড়া করোনা পরিস্থিতির আগে গণভবনে সর্বস্তরের মানুষ, পেশাজীবী, কূটনীতিকসহ বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করতেন। এবারও তা হচ্ছে না।


পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মোবাইলে অডিও বার্তা ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিও বার্তার মাধ্যমে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।


শুভেচ্ছা বার্তায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রিয় দেশবাসী, আসসালামু আলাইকুম। আপনাকে ও আপনার পরিবারের সবাইকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। এক মাস সিয়াম সাধনার পর আবার এসেছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদ মানেই আনন্দ।


আসুন, ঈদের আনন্দ সবাই ভাগাভাগি করে নিই। যে যার অবস্থান থেকে ঈদুল ফিতরের মহিমায় উজ্জীবিত হয়ে দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে আত্মনিয়োগ করি। সুস্থ থাকুন, নিরাপদ থাকুন। ঈদ মোবারক।’

বাংলা ট্রিবিউন 


আরও খবর



সুনামগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে কাঁঠাল ব্যবসায়ীর মৃত্যু

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে আতা মিয়া (৪০) নামের এক কাঁঠাল ব্যবসায়ীর মৃত্যুর হয়েছে।

রোববার (২৬ জুন) দুপুরে জগন্নাথপুর বাজারেরপাঠাগার মসজিদ মার্কেটের দুতলায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত আতা মিয়া (৪০) জগন্নাথপুর পৌর এলাকার নোওয়াহাটি গ্রামের বাসিন্দা।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, জগন্নাথপুর কাঁঠাল বাজারে বন্যার পানি উঠায় ব্যবসায়ীরা ওই মার্কেটের সামনের সড়কে বসে কাঁঠাল বিক্রি করছিলেন। রোদের কারণে ত্রিপল টানাতে গিয়ে আতা মিয়া ১১ হাজার কেভি বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনে লেগে ঘটনাস্থলে মারা যান।

পরে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ, বিদ্যুৎ বিভাগ ও ফায়ার সার্ভিসের একটি প্রতিনিধি দল মরদেহ উদ্ধার করে।

জগন্নাথপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



বোনকে রক্ষায় বুকে জড়ালেন ভাই, তবুও পেটালো বখাটের দল

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২২ June 20২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

বোরকাপড়া এক তরুণীকে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরে রাখা তরুণকে বেধড়ক পেটানো হচ্ছে। মার খেলেও তরুণীকে ছাড়ছিলেন না খালি গায়ে থাকা ওই তরুণ। এক পর্যায়ে তরুণীসহ পড়ে যান। এরপরও থামেনি প্রহার। জিরিয়ে জিরিয়ে পেটাচ্ছিলেন অপর কয়েকজন তরুণ।

এমন একটি ভিডিও শনিবার (১১ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কক্সবাজার সদর উপজেলার খুরুশকুল ইউনিয়নের বেড়িবাঁধের পাশে ৩১ মে ঘটনাটি ঘটে। উত্ত্যক্ত করার সময় বোনকে রক্ষা করতে গিয়ে বখাটে কিশোর গ্যাংদের হাতে মারধরের শিকার হয়েছেন আবদুল মোনাফ নামের ওই তরুণ।

এদিকে ভাইরাল ভিডিওর সূত্র ধরে রোববার ভোরে প্রহারকারী কিশোরের গ্যাংয়ের দুই সদস্য রায়হান ও আরমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি কক্সবাজার সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মুনীর উল গীয়াসের।

তিনি বলেন, ‘৩১ মে রাতে আবদুল মোনাফ কক্সবাজার সদর থানায় একটি অভিযোগ নিয়ে আসেন। সেখানে অভিযোগ ছিল কক্সবাজার সদরের খুরুশকুল ইউনিয়নের বেড়িবাঁধ এলাকায় তিনি ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছেন। বিষয়টি আমলে নিয়ে একজন উপ-পরিদর্শককে (এসআই) তদন্তভার দেওয়া হয়েছে। তদন্তে এক তরুণীকে নিয়ে ঝামেলা হওয়ার কথা শুনতে পান তদন্ত কর্মকর্তা। এ ব্যাপারে অভিযোগকারী তরুণকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি চিনেন না বলে দাবি করেন। ফলে বিষয়টি গভীরভাবে খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়।’

ওসি আরও বলেন, ‘এরই মধ্যে শনিবার রাতে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। সেখানে দেখা গেছে এক তরুণীকে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরা এক তরুণকে অপর কয়েকজন অমানবিকভাবে পেটাচ্ছেন। তরুণীকে জড়িয়ে ধরা খালি গায়ের তরুণটি থানায় অভিযোগকারী হিসেবে শনাক্ত হয়। ভিডিওর ঘটনাটি চরম অমানবিক। এটা সভ্য সমাজে বেমানান। ভিডিওটিকে গুরুত্ব দিয়ে রাতেই অভিযানে নামে পুলিশ। ভোরে প্রহারে জড়িতদের মধ্যে আরমান ও রায়হান নামে দুজনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আনো হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।’

ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াস বলেন, এটা জানতে চেষ্টা চলছে আসলে সেদিন কেন এমন হয়েছে এবং নির্যাতনের শিকার তরুণ-তরুণী কারা? যদি তারা ভাই-বোন হয় তাহলে সেদিন এ ঘটনা চাপিয়ে যাওয়ার কারণ কী?

কিন্তু মারধরের শিকার আবদুল মোনাফ রোববার থানায় এলাকায় সাংবাদিকদের বলেন, ‘কক্সবাজার পৌরসভার কুতুবদিয়া পাড়ার বাসিন্দা হিসেবে খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পে ফ্ল্যাট পেয়েছি আমরা। আমাদের বাবা মারা গেছেন। ফ্ল্যাটে থাকি আমরা এবং সেখান থেকে ৩১ মে আমার বোন মামার বাড়ি যাচ্ছিল। পথে খুরুশকুল মনুপাড়ার জামাল-রায়হানরা বোনকে নোংরা ভাষায় উত্ত্যক্ত করে। এ সময় বোন আশ্রয়ণ প্রকল্পে ফিরে আসতে চাইলে তরুণরা বার বার পথ আটকায়। প্রকল্প থেকে এসব দেখে দৌড়ে গিয়ে বোনকে উত্ত্যক্তের কারণ জানতে চাইলে কিশোরগ্যাংরা বোনকে লাঠি দিয়ে আঘাত করে। তখন বোনকে বাঁচাতে জড়িয়ে ধরি। এ অবস্থায় আমাকেও মারধর করে তারা।’

মোনাফ অভিযোগ করেন বলেন, ‘ঘটনার পরপর হাসপাতালে যাই। সেখান থেকে থানায় অভিযোগ দেই। কিন্তু পুলিশ তদন্তে কালক্ষেপণ করায় শনিবারও হামলাকারীরা আমাকে হুমকি দেয়। ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর এখন সবাই দৌড়াচ্ছে।’

পুলিশের দাবি মতে ৩১ তারিখের অভিযোগে ছিনতাইয়ের কথা উল্লেখ করে বোনকে উত্ত্যক্ত ও প্রহারের কথা কেন গোপন করেছিলেন এমন প্রশ্নের কোন সদুত্তর দেননি মোনাফ।

ওসি মুনীর উল গীয়াস বলেন, সবকিছু খতিয়ে দেখে এ ব্যাপারে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এবং সেভাবেই কাজ চলছে।


আরও খবর



ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু পাড়ি দিতে চার জায়গায় টোল!

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু পাড়ি দিতে পৃথক চার জায়গায় যানবাহনকে টোল দিতে হচ্ছে। মেয়র মোহাম্মদ হানিফ উড়ালসড়ক, বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতু, ধলেশ্বরী সেতু ও পদ্মা সেতুতে এই টোল দিতে হচ্ছে। এর মধ্যে পদ্মা সেতুতে টোলের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি।

মেয়র মোহাম্মদ হানিফ উড়ালসড়কের ধোলাইপাড় থেকে মুন্সিগঞ্জের মাওয়ার দূরত্ব প্রায় ৩৫ কিলোমিটার। এই পথে চারটি পৃথক স্থানে টোল দেওয়া নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন চালক এবং যাত্রীরা। তাদের অভিযোগ, ঢাকা থেকে বাবুবাজার হয়ে বুড়িগঙ্গা দ্বিতীয় সেতু দিয়ে আসতে টোল লাগে না। কিন্তু পোস্তগোলায় বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতু দিয়ে যানবাহন চলাচলে টোল দিতে হচ্ছে। ১৫ কিলোমিটার দূরেই আবার ধলেশ্বরীতে টোল লাগে। এই টোলের চাপ যাত্রীদের ওপর গিয়ে পড়ে। তাই বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতু এবং ধলেশ্বরী সেতুর টোল বাতিলের দাবি জানান এই রুটে চলাচলকারীরা।

মেয়র মোহাম্মদ হানিফ উড়ালসড়ক ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নিজস্ব সম্পত্তি বা আওতাধীন। এই উড়ালসড়ক থেকে টোল আদায় করে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ওরিয়ন গ্রুপ। আর সেতু বিভাগ বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতু, ধলেশ্বরী সেতু ও পদ্মা সেতু থেকে ইজারাদারের মাধ্যমে টোল আদায় করে।

toll-4.jpg

সেতু বিভাগ সংশ্লিষ্টরা জানান, বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতুর টোল বাতিল করার কাজ চলছে। ধলেশ্বরী সেতুর টোল আদায়ে যে ইজারাদার প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, তাদের মেয়াদ শেষ পর্যায়ে। কিছুদিনের মধ্যে এই সেতুর টোল নেওয়া বন্ধ হবে। তখন ধলেশ্বরী টোলপ্লাজায় এক্সপ্রেসওয়ের টোল নেওয়া হবে।

রোববার (২৬ জুন) সকাল সাড়ে সাতটায় মাইক্রোবাস নিয়ে ঢাকা থেকে পদ্মা সেতু হয়ে শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলায় যায় জাগো নিউজ টিম। সেসময় সরেজমিনে টোলের এ চিত্র নজরে আসে জাগো নিউজ টিমের।

ঢাকা থেকে যাত্রার প্রথমেই মেয়র হানিফ উড়ালসড়কে ৮৫ টাকা টোল দিতে হয়। এ ছাড়া এই উড়ালসড়কে মোটরসাইকেল ১০ টাকা, সিএনজি ১৮ টাকা, ব্যক্তিগত গাড়ি ৭০ টাকা, মাইক্রোবাস ৮৫ টাকা, পিকআপ ১৩০ টাকা, মিনিবাস ১৭৩ টাকা, বাস ২৬০ টাকা, ট্রাক (চার চাকা) ১৭৩ টাকা, ট্রাক (ছয় চাকা) ২৬০ টাকা এবং ট্রেইলারের জন্য ৩৪৫ টাকা টোল দিতে হয়।

toll-4.jpg

এই উড়ালসড়ক থেকে নেমে দুই মিনিটের দূরত্বে বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতু। এখানে মাইক্রোবাসের টোল ৭৫ টাকা। সরেজমিনে দেখা যায়, এই সেতুতে যাতায়াত করা প্রতিটি যানবাহন থেকে টোল আদায় করছেন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা। তাদের প্রায় প্রত্যেকের হাতেই লাঠিসোঁটা রয়েছে। কোনো যানবাহন টোল না দিয়ে যেতে চাইলে গাড়িতে লাঠি দিয়ে আঘাত করা হচ্ছে। এতে সেতুতে গাড়ির জটলা তৈরি হচ্ছে। সেতুতে মাত্র একটি কাউন্টার রয়েছে। এই কাউন্টারের পাশে টানানো বোর্ডে লেখা- ট্রেইলার ৭৫০ টাকা, হেভি ট্রাক ২৪০, মিডিয়াম ট্রাক ১৬০, মিনি ট্রাক ১০০, বড় বাস ৩৫, কৃষি কাজে ব্যবহৃত পাওয়ার টিলার ২০, মিনিবাস কোস্টার ২৫, মাইক্রোবাস ৭৫, পিকআপ ৭৫, সিএনজি ২৫ এবং মোটরসাইকেল ১৫ টাকা।

ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান মাহিন এন্টারপ্রাইজের তত্ত্বাবধায়ক আমিনুল গাজী জাগো নিউজকে জানান, আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত তাদের টোল আদায় করার অনুমতি আছে। এরপর এখান থেকে আর টোল নেওয়া হবে কি না, সে সিদ্ধান্ত নেবে সেতু বিভাগ।

বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতু থেকে ১০ থেকে ১২ কিলোমিটার এগিয়ে গেলেই ধলেশ্বরী টোলপ্লাজা। এখানে মাইক্রোবাসের টোল ৭৫ টাকা। টোল প্লাজায় টোলের তালিকায় দেখা যায়, এই সেতু পার হতে ভারী ট্রাক ২৪০ টাকা, বড় বাস ১৬০, মিনিবাস ৯৫, মাইক্রোবাস ৭৫, ব্যক্তিগত গাড়ি ৪০, সিএনজি ২৫, দশ চাকার ট্রেইলার ৫৬৫, মিডিয়াম ট্রাক ২২৫ এবং ছোট ট্রাক ১৭০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

toll-4.jpg

ধলেশ্বরীতে টোল আদায় করে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ইউডিসি কনস্ট্রাকশন লিমিটেড। এই প্রতিষ্ঠানের প্রকল্প ব্যবস্থাপক নূর হোসেন জাগো নিউজকে জানান, কার্যাদেশ অনুযায়ী আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত টোল আদায়ের সময়সীমা রয়েছে। এরপর এখান থেকে কোরিয়ান একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে টোল আদায় করা হবে।

এখান থেকে আবার প্রায় ১৫ কিলোমিটার দক্ষিণে নবনির্মিত পদ্মা সেতুর টোল প্লাজা। এখানে মাইক্রোবাসের টোল দিতে হয় এক হাজার ৩০০ টাকা। একইভাবে টোল দিয়ে অন্যান্য যানবাহনকে চলাচল করতে দেখা গেছে।

এই টোল প্লাজা সূত্র জানায়, পদ্মা সেতুতে মোটরসাইকেলে ১০০ টাকা, কার বা জিপে ৭৫০ টাকা, পিকআপ ভ্যানে এক হাজার ২০০ টাকা, মাইক্রোবাসে এক হাজার ৩০০ টাকা, ছোট বাসে (৩১ আসন বা এর কম) এক হাজার ৪০০ টাকা, মাঝারি বাসে (৩২ আসন বা এর বেশি) দুই হাজার টাকা, বড় বাসে (৩ এক্সেল) দুই হাজার ৪০০ টাকা টোল নির্ধারণ করা হয়েছে।

এ ছাড়া ছোট ট্রাকে (৫ টন পর্যন্ত) এক হাজার ৬০০ টাকা, মাঝারি ট্রাকে (৫ টনের বেশি থেকে ৮ টন) দুই হাজার ১০০ টাকা, মাঝারি ট্রাক (৮ টনের বেশি থেকে ১১ টন পর্যন্ত) দুই হাজার ৮০০ টাকা, ট্রাক (৩ এক্সেল পর্যন্ত) পাঁচ হাজার ৫০০ টাকা, ট্রেইলার (৪ এক্সেল পর্যন্ত) ছয় হাজার টাকা এবং ট্রেইলার (৪ এক্সেলের বেশি) ছয় হাজারের সঙ্গে প্রতি এক্সেলে এক হাজার ৫০০ টাকা করে যোগ করে টোল দিতে হচ্ছে।

ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে ঢাকা থেকে শরীয়তপুরের জাজিরা যাচ্ছিলেন মোক্তার হোসেন। পদ্মা সেতু টোল প্লাজা এলাকায় তিনি বলেন, অল্প দূরত্বে পথে পৃথক চারটি জায়গায় টোল দেওয়া নিয়ে আমি বিরক্ত। পদ্মা সেতু ছাড়া বাকি সব টোল বাতিল করার দাবি জানান তিনি।

এ বিষয়ে জানতে সেতু বিভাগের সচিব মো. মনজুর হোসেনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সেতু বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, তারা বুড়িগঙ্গা প্রথম সেতুর টোল বাতিল করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আগামী ১ জুলাই থেকে ধলেশ্বরীতে এক্সট্রাপাওয়ার (এক্সপ্রেসওয়ের) টোল আদায় করা হবে।


আরও খবর



৪৯ জনকে চাকরি দেবে বিএনসিসি অধিদপ্তর

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি) অধিদপ্তরে ০৬টি পদে ৪৯ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ২৭ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়
অধিদপ্তরের নাম: বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি) অধিদপ্তর

পদের বিবরণ
৪৯ জনকে চাকরি দেবে বিএনসিসি অধিদপ্তর

চাকরির ধরন: অস্থায়ী
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
কর্মস্থল: ঢাকা

বয়স: ২৭ জুন ২০২২ তারিখে ১৮-৩০ বছর। বিশেষ ক্ষেত্রে ২৫-৩৫ বছর

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা bncc.teletalk.com.bd এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। আবেদনের সঙ্গে ৩০০-৩০০ সাইজের ছবি ও ৩০০-৮০ সাইজের স্বাক্ষর স্ক্যান করে যুক্ত করতে হবে।

আবেদন ফি: টেলিটক প্রি-পেইডের মাধ্যমে ১ নং পদের জন্য ১১২ টাকা, ২-৬ নং পদের জন্য ৫৬ টাকা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পাঠাতে হবে।

আবেদনের শেষ সময়: ২৭ জুন ২০২২ তারিখ বিকেল ০৫টা পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

সূত্র: আমাদের সময়, ০৯ জুন ২০২২


আরও খবর



শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তকে নিয়ে ফাখরুল আরেফিন খানের ‘অবিনশ্বর’

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

ধীরেন্দ্রনাথ দত্তকে বলা হয় ভাষা আন্দোলনের প্রথম সৈনিক। তিনি ছিলেন একাধারে আইনজীবী, সমাজকর্মী ও রাজনীতিবিদ। তার জীবন ছিল বর্ণাঢ্য ও বৈচিত্রময়। ১৯৪৭ সালে দেশভাগের পর নতুন রাষ্ট্র পাকিস্তানে বাংলা ভাষা নিয়ে সর্বপ্রথম সরব হয়েছিলেন ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত।

১৯৭১ সালের ২৯ মার্চ রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সদস্যরা পুত্র দিলীপকুমার দত্তসহ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তকে গ্রেপ্তার করে। তাদের কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্টে অমানবিক নির্যাতন করে হত্যা করা হয়।

দেশবরেণ্য এই সূর্যসন্তানকে নিয়ে খুব একটা আলোচনা হয় না। নতুন প্রজন্মের কাছে তার বীরত্বগাঁথাও বলা যায় অজানা। সেই জায়গা থেকে ‘ভুবন মাঝি’খ্যাত নির্মাতা ফাখরুল আরেফিন খান নির্মাণ করছেন প্রামাণ্যচলচ্চিত্র। নাম ‘অবিনশ্বর’।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী নির্মাতা ফাখরুল আরেফিন খান জানান, সম্প্রতি কুষ্টিয়া, কুমারখালি ও ঢাকার বেশ কয়েকটি স্থানে এর দৃশ্যধারণ হয়েছে। বর্তমানে পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে।

২০১৯-২০ সালের সরকারি অনুদানে নির্মিত এই প্রামাণ্যচলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন নওফেল জিসান, আতিক রহমান, যশ জায়েদী, আমিরুল ইসলাম, শাহীন সরকার, আসলাম আলী, আনোয়ার বাবু, হালিম স্বপন প্রমুখ।

এতে ধীরেন্দ্রনাথ দত্তকে নিয়ে কথা বলেছেন মেজর জেনারেল (অব:) ইমামুজ্জামান, লেফনেন্ট কর্নেল (অব:) সাজ্জাদ জহির, বীর প্রতিক ও ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের দৌহিত্র অ্যারোমা দত্ত, এম পি।

প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ প্রসঙ্গে ফাখরুল আরেফীন খান বলেন, ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে যে ক’জন মানুষকে নিয়ে আমরা সর্বময় আলোচনার মধ্যে থাকি, সেখানে ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত অনুপস্থিত। তাকে আমরা কখনও আলোচনার মধ্যে আনিনা। অথচ বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের মূল সূতিকাগার ভাষা আন্দোলনের প্রথম পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তিনি। আর সে কারণেই শেষ পর্যন্ত তাকে প্রাণ দিতে হয়েছিল ১৯৭১ সালে।’

ফাখরুল আরেফিন খান আরও বলেন, ‘ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত নিজে যা করেছিলেন, তার চেয়েও তার বড় কীর্তি আগুনের ফুলকি ছড়িয়ে দেওয়ায়। সে আগুন সবখানে ছড়িয়ে গিয়েছিল। তিনি সবসময় মানুষের অধিকারের পক্ষে দাঁড়াতেন। জীবনে ও মরণে এই নির্লোভ, সদাচারী, দেশপ্রেমিক, সত্যসন্ধ মানুষ অকম্পিতচিত্তে নিজের কর্তব্য করে গেলেও রয়ে গেছেন প্রদীপের নিচে অন্ধকারের মতই আড়ালে।

ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের জীবন ও কর্মের উপর নির্মিতব্য প্রামাণ্যচিত্রের মূল উদ্দেশ্য হল বাংলা ভাষার এই মহান সৈনিককে তরুণ প্রজন্মের কাছে বাংলা ভাষার আন্দোলন ও মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস ও চেতনাকে পৌঁছে দেয়া।’

ফাখরুল জানান, গড়াই ফিল্মসের ব্যানারে নির্মিত এই প্রামাণ্যচলচ্চিত্রটি আগামী ২ নভেম্বর শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের ১৩৬তম জন্মবাষিকীতে মুক্তি পাবে।


আরও খবর