Logo
আজঃ Wednesday ১০ August ২০২২
শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ২৪৩৫ লিটার চোরাই জ্বালানি তেলসহ আটক-২ নাসিরনগরে বঙ্গ মাতার জন্ম বার্ষিকি পালিত রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড

এবার জিদানকে পিএসজিতে চান ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৯৮জন দেখেছেন
Image

প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের সঙ্গে কাইলিয়ান এমবাপের তিন বছরের নতুন চুক্তিতে বড় ভূমিকা রেখেছিলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। এবার তিনি চাইছেন দেশটির কিংবদন্তি ফুটবলার জিনেদিন জিদানও যেনো পিএসজিতে যোগ দেন।

গত মৌসুমের শেষ দিক থেকেই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, হেড কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনোকে বিদায় করে দেবে পিএসজি। তবে নতুন কোচ কে হবে তা এখনও নিশ্চিত হয়নি। মাঝে শোনা গিয়েছে জোসে মরিনহোর নাম। এবার জিদানের কথা বললেন ম্যাক্রোঁ।

এমবাপের সঙ্গে কথা বলে তাকে পিএসজিতে রাখার ব্যাপারে রাজি করাতে পারলেও, এখনও জিদানের সঙ্গে পিএসজির কোচ হওয়ার বিষয়ে কোনো কথা হয়নি ম্যাক্রোঁর। তবে জিদানের গুণমুগ্ধ ফ্রান্স প্রেসিডেন্ট চান, এ কিংবদন্তি ফুটবলারই যেনো পিএসজির দায়িত্ব নেন।

আরএমসি স্পোর্টে ম্যাক্রোঁ বলেছেন, ‘এমবাপের সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল ঠিক। তবে সে নিজের সিদ্ধান্ত স্বতন্ত্রভাবেই নিয়েছে। সে এটি করে দেখিয়েছে। সে খুবই পরিপক্ব এবং নিজের ক্যারিয়ারের দিকে মনোযোগী। দায়িত্ববোধের সঙ্গে নিষ্ঠার পরিচয় দিয়েছে এমবাপে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘জিনেদিন জিদানের সঙ্গে আমার এখনও কথা হয়নি। তবে আমি তার বড় ভক্ত। খেলোয়াড় এবং কোচ- দুটোরই গুণমুগ্ধ। ফ্রান্সে আমরা তার উপস্থিতি চাই। জিদানের মতো প্রতিভাবান ক্রীড়াবিদ ও কোচের আমাদের খুব প্রয়োজন।’

সরাসরি পিএসজির নাম উল্লেখ না করে ম্যাক্রো বলেন, ‘আমি আশা করি ফ্রান্সের জন্য সে ফিরে আসবে এবং এখানের বড় ক্লাবকে প্রশিক্ষণ করাবে। এটি দারুণ হবে। আমার দায়িত্ব এটি জানানো যে, খেলাধুলা ও ফুটবলের জন্য ফ্রান্স দারুণ দেশ। আমরা এই খেলাকে ভালোবাসি। তাই আমাদের জন্য সেরাদের এখানে থাকা জরুরি।’

কোচিং ক্যারিয়ারে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে দারুণ সব সাফল্য পেয়েছেন জিদান। ২০১৬ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত এবং পরে ২০১৯ থেকে ২০২১ পর্যন্ত রিয়ালের কোচ ছিলেন তিনি। তার অধীনে তিনটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, দুইটি লা লিগা ও দুইটি ক্লাব ওয়ার্ল্ড কাপ জিতেছে রিয়াল।


আরও খবর



ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে ট্রেনে যাত্রীর চাপ বেশি

প্রকাশিত:Monday ০৮ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
Image

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বাসভাড়া বৃদ্ধিতে ভিড় বেড়েছে ট্রেনে। টাকা ও ভোগান্তি বাঁচাতে সাধারণ যাত্রীরা সড়কপথ ব্যবহার না করে রেলপথ বেছে নিয়েছেন। বাসভাড়া বৃদ্ধির পর থেকে যাত্রীরা গাদাগাদি করে ট্রেনে নির্দিষ্ট গন্তব্যে যাচ্ছেন।

সোমবার (৮ আগস্ট) সকালে সরেজমিনে দেখা যায়, এ রুটের প্রায় সব ট্রেনেই সাধারণ যাত্রীদের প্রচণ্ড চাপ। ঝুঁকি নিয়ে অনেককে ট্রেনে উঠতে দেখা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে সারাদেশের মতো ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটেও পরিবহন ভাড়া বেড়েছে। এ রুটে বিভিন্ন পরিবহনের বাসে টিকিটপ্রতি ২০ টাকা করে বেশি নেওয়া হচ্ছে। আবার কোনো পরিবহন ১০ টাকা করে বেশি আদায় করছেন।

বাসভাড়া বৃদ্ধি, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে ট্রেনে যাত্রীদের চাপ

এ রুটে এসি বাসের ভাড়া ৬৫ টাকা থেকে ১৫ টাকা বাড়িয়ে ৮০ টাকা, বিআরটিসি ডাবল ডেকারের বাসে ৪০ টাকা থেকে ১০ টাকা বাড়িয়ে ৫০ টাকা, বন্ধন ও উৎসব পরিবহনের বাসে ৪৫ টাকা থেকে ২০ টাকা বাড়িয়ে ৬৫ টাকা এবং হিমাচল পরিবহনের বাসে ৪৫ টাকা থেকে ১০ টাকা বাড়িয়ে ৫৫ টাকা নেওয়া হচ্ছে।

তবে বাসের ভাড়া বৃদ্ধি পেলেও বিপরীতে ট্রেনে ভাড়া ঠিক আগের মতোই রয়েছে। জ্বালানি তেলে মূল্যবৃদ্ধির আগেও টিকেটপ্রতি ১৫ টাকা করে নেওয়া হতো এখনো সে ভাড়াই রয়েছে।

শহীদুল ইসলাম নামের এক যাত্রী বলেন, প্রতিদিন বাসেই যাতায়াত করতাম। কয়েকদিন পরপরই বাসের ভাড়া বাড়ছে। এমনিতেই সংসারের খরচ চালাতে হিমশিম খেতে হয়। তার ওপর নতুন করে ভাড়া বৃদ্ধিতে বেগ পেতে হচ্ছে। সিদ্ধান্ত নিয়েছি যত কষ্টই হোক এখন থেকে ট্রেনেই যাতায়াত করবো।

বাসভাড়া বৃদ্ধি, ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে ট্রেনে যাত্রীদের চাপ

নাসিমা বেগম নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা জানান, আমরা নিরুপায় হয়ে পড়েছি। কোনো দিশা খুঁজে পাচ্ছি না। কয়েকদিন পরপরই এভাবে ভাড়া বৃদ্ধি করা হচ্ছে। তাই কিছুটা চাপ কমানোর জন্য ট্রেনে করে যাতায়াত করবো।

এ বিষয়ে চাষাঢ়া স্টেশন মাস্টার খাজা সুজন বলেন, এ রুটে আট জোড়া ট্রেন চলাচল করে। বাসের ভাড়া বাড়ানোর পর থেকেই প্রায় প্রত্যেকটি ট্রেনে যাত্রীদের চাপ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আগের চেয়ে টিকেটও বেশি বিক্রি হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ স্টেশন মাস্টার কামরুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, বাস ভাড়া বৃদ্ধির পর ট্রেনের যাত্রীর সংখ্যা বেড়েছে। আগের থেকে প্রায় ৩০ শতাংশ বেশি যাত্রী যাতায়াত করছে ট্রেনে।


আরও খবর



যে ৫ ভুলে সঙ্গী আপনাকে ছেড়ে চলে যেতে পারেন!

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
Image

সারাজীবন একসঙ্গে থাকার সংকল্প করে ভালোবাসার সঙ্গে জড়ালেও বেশ কয়েকদিন কাটতে না কাটতেই দেখা দেয় অশান্তি। যদিও এর অনেক কারণ থাকতে পারে। কখনো কখনো সম্পর্কে কলহ ভালোবাসা আরও বাড়ায়। আবার কখনো কখনো তা বিচ্ছেদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

তবে প্রেমে বারবার প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার বিষয়টি কিন্তু মোটেও সুবিধার নয়। বারবার প্রেমে পড়ছেন, ঠিকমতো সম্পর্ক এগিয়ে যেতেই হঠাৎ বিপত্তি দেখা দিল, এরপর সঙ্গী আপনাকে ছেড়ে চলে গেলেন! আর আপনি হলেন প্রত্যাখ্যাত! বারবার কি আপনার সঙ্গেও এমনটি ঘটছে?

যদি তা-ই হয় তাহলে সঙ্গীর দোষ না খুঁজে বরং নিজেকে দোষারোপ করুন। কারণ বারবার প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পেছনে আপনারও দোষ থাকতে পারে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বারবার এমনটি ঘটার পেছনে আছে বেশ কয়েকটি কারণ। যা আপনার অজান্তেই ডেকে নিয়ে আসছে অশান্তি। জেনে নিন কী কী-

>> বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ছোটবেলায় যদি কেউ বারবার নানা কারণে অভিভাবকের কাছে গালমন্দ শোনে তাহলে তার মনে তৈরি হয় নেগেটিভিটি।

তাই বড় হয়ে সম্পর্কে জড়ালে সেই নেগেটিভিটির সঞ্চার ঘটে। লে সঙ্গীর উপরও সেই নেতিবাচকতা প্রকাশ করে ফেলেন। ফলে সঙ্গী মানসিক চাপ বোধ করায় ব্রেকআপ করেন।

>> অনেক মানুষই সম্পর্কে জড়ানোর পর সঙ্গীর উপর সব বিষয় নিয়েই অধিকার খাটাতে গিয়ে নিজের আত্মসম্মানকে একেবারে মাটিতে নামিয়ে নিয়ে আসেন। যা সঙ্গীর কাছে নির্যাতনের মতো মনে হতে পারে। আর সে কারণে তিনি আপনাকে ছেড়ে যেতে পারেন।

>> সম্পর্ক নিয়ে যদি আপনি সব সময় নেগেটিভ ভাবেন তাহলে সেটি বেশিদিন টিকবে না। অনেকেই সঙ্গীর চলাফেরা নিয়ে সন্দেহ পোষণ করেন। যা সম্পর্কে অশান্তির কারণ হয়ে দাড়াতে পারে। এ কারণে অনেকেই সম্পর্ক ভেঙে ফেলেন।

>> সঙ্গী কখন কী করছেন, কাদের সঙ্গে মিশছেন ইত্যাদি জানার জন্য সারাদিন যদি তাকে ফোন করেন তাহলে সে বিরক্তবোধ করতে পারে। এগুলো আপনাকে মানসিকভাবে স্বস্তি দিলেও সঙ্গী হয়তো এ বিষয় বিরক্তির কারণ হিসেবে দেখতে পারেন। এ কারণেও সম্পর্ক ভাঙতে পারে।

>> অত্যধিক অধিকারপ্রবণ মানসিকতাও বিপজ্জনক হতে পারে সম্পর্কের ক্ষেত্রে। সঙ্গীর সব ভালো-মন্দ দেখতে যাবেন না। নিজের জীবনের দায়িত্ব তাকে নিতে দিন।

এজন্য পাশে থাকুন। তবে তার উপর জোর খাটাবেন না কখনো। এতে ওই সম্পর্ক ভেঙে যেতে পারে। আর এজন্য দায়ী থাকবেন কিন্তু আপনিই!


আরও খবর



চার টপ অর্ডারের ফিফটিতে তিনশোর্ধ্ব পুঁজি বাংলাদেশের

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

তামিম ইকবাল, লিটন দাস, এনামুল হক বিজয়ের পর মুশফিকুর রহিম- টপ অর্ডারের চার ব্যাটারই ফিফটি করলেন। তাতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ২ উইকেটেই ৩০৩ রানের বড় সংগ্রহ পেলো বাংলাদেশ।

ওয়ানডেতে দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশ টপ অর্ডারের প্রথম চার ব্যাটারই হাফসেঞ্চুরি করলেন। এর আগে ২০১৪ সালে এশিয়া কাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে এমন কীর্তি দেখিয়েছিল টাইগাররা। সেই রেকর্ডেও ছিলেন মুশফিক আর বিজয়। সঙ্গে ছিলেন মুমিনুল হক আর ইমরুল কায়েস। সবমিলিয়ে বাংলাদেশের চার ব্যাটারের এক ইনিংসে ফিফটি পাওয়ার ঘটনা এ নিয়ে চতুর্থবার।

হারারেতে টসের সময় জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক রেগিস চাকাভা জানিয়েছেন, শুরুর দিকে উইকেটের সাহায্য পেতে পারেন বোলাররা। যে কারণে টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জিম্বাবুয়ে। তবে শুরুতে বোলারদের সেই সুবিধাটা নিতে দেননি বাংলাদেশের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও লিটন দাস।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে মাঠে টি-টোয়েন্টি সিরিজের তিন ম্যাচের মতো প্রথম ওয়ানডেতেও টস হেরেছে বাংলাদেশ। স্বাগতিক জিম্বাবুয়ের আমন্ত্রণে আগে ব্যাট করতে নেমেছে তামিমের দল। অনুজ সতীর্থ লিটনকে নিয়ে বাংলাদেশের ইনিংসের গোড়াপত্তন করেছেন তামিম।

রিচার্ড এনগারাভার করা প্রথম ওভারের প্রথম পাঁচ বলই ছিল ডট। শেষ বলে ফ্লিক করে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের খাতা খোলেন তামিম। অভিষিক্ত ভিক্টর নিয়ুচির করা পরের ওভার পুরোটা মেইডেন খেলেন লিটন। তবে নিয়ুচির পরের ওভারে বাউন্ডারি হাঁকিয়েই নিজের রানের খাতা খুলেছেন এ ডানহাতি ওপেনার।

নিয়ুচি-এনগারাভার আঁটসাঁট বোলিংয়ের মাঝে নেতিবাচক ছিল ওয়েসলে মাধভেরের ওভারথ্রো থেকে দেওয়া বাউন্ডারি। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে নন স্ট্রাইক প্রান্তে লক্ষ্যভ্রষ্ট থ্রো করে বাংলাদেশকে বোনাস চার রান দেন মাধভের। এছাড়া নিয়ুচি লেগসাইডের অনেক বাইরে বল করে ওয়াইডসহ বাউন্ডারি দিয়ে বসেন।

এরপর ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে নতুন মাইলফলক উন্মোচন করেন বর্তমান অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সবার আগে ৮ হাজার রানের মাইলফলকে প্রবেশ করলেন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ৫৭তম রান নেওয়ার মাধ্যমে ক্যারিয়ারের ৮ হাজার রান পূরণ হয় তামিমের।

বাংলাদেশের আর কোনো ব্যাটারের ওয়ানডেতে সাত হাজার রানও নেই। স্বাভাবিকভাবেই সবার আগে এই মাইলফলকে ঢুকলেন তামিম। এর আগে ৫ হাজার, ৬ হাজার ও ৭ হাজার রানেও বাংলাদেশের ব্যাটারদের মধ্যে সবার আগে নাম লিখিয়েছেন দেশসেরা এই ওপেনার।

তবে মাইলফলকে প্রবেশ করার পর বেশিক্ষণ উইকেটে থাকতে পারেননি তামিম। ইনিংসের ২৬তম ওভারে সিকান্দার রাজার বলে আউট হওয়ার আগে ৮৮ বল থেকে নয় চারের মারে ৬২ রান করেছেন টাইগার অধিনায়ক। যা তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৫৪তম হাফসেঞ্চুরি।

লিটন দাস দারুণ ব্যাটিং করছিলেন। এগিয়ে যাচ্ছিলেন সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু ব্যক্তিগত ৮১ রানে এসে হঠাৎ পায়ে টান পড়ে ডানহাতি এই ব্যাটারের।এমনই অবস্থা যে উঠে দাঁড়াতেও পারলেন না। ফলে স্ট্রেচারে শুয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে তাকে।

এরপর মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে ৭৬ বলে ৯৬ রানের ঝড়ো এক জুটি গড়েন এনামুল হক বিজয়। ছক্কা মেরে ৪৭ বলে ফিফটি পূরণ করেন বিজয়। ব্যক্তিগত ৭১ রানে সহজ ক্যাচ দিয়েছিলেন ডিপ কভারে। কিন্তু এনগারাভার বলে সেই ক্যাচ ফেলে দেন মাদভেরে।

যদিও সেই সুযোগটা কাজে লাগাতে পারেননি তিন বছর পর ওয়ানডে দলে ফেরা বিজয়। নিজের নামের সঙ্গে আর দুই রান যোগ করেই ফের ক্যাচ তুলে দেন লংঅনের আকাশে। মুসাকান্দা সেটা তালুবন্দী করলে উইকেট পান নিয়াচি। ৬১ বলে বিজয়ের ৭৩ রানের ঝড়ো ইনিংসে ছিল ৬ বাউন্ডারি আর ৩ ছক্কার মার।

এরপর মাহমুদউল্লাহ আর মুশফিকুর রহিম ২৫ বলে ৩৬ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে দলকে তিনশো পার করে দেন। মুশফিক ৪৯ বলে ৫ বাউন্ডারিতে অপরাজিত থাকেন ৫২ রানে। ১২ বলে ২ বাউন্ডারিতে ২০ করেন মাহমুদউল্লাহ।


আরও খবর



বক্সিংয়ে শেষ ষোলো থেকে বিদায় বাংলাদেশের হোসেন আলীর

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

বার্মিংহামে কমনওয়েলথ গেমসের বক্সিংয়ে উগান্ডার ওয়েন আইজ্যাক কিবিরার কাছে ৫-০ পয়েন্টে হেরে রাউন্ড অব সিক্সটিন (শেষ ষোলো) থেকেই বিদায় নিয়েছেন বাংলাদেশের হোসেন আলী।

পুরুষদের ওয়েল্টারওয়েইট (৬৩.৫-৬৭ কেজি ওজনশ্রেণি) বিভাগে হোসেন আলী মুখোমুখি হয়েছিলেন কিবিরার। লাল জার্সিতে হোসেন আলী আর কিবিরা ছিলেন নীল জার্সিতে।

পাঁচ বিচারকের মধ্যে তিনজন হোসেনকে দিয়েছেন ২৭ পয়েন্ট করে আর বাকি দুই জন দিয়েছেন ২৮ পয়েন্ট করে। কিবিরা ৩০ পয়েন্ট করে পেয়েছেন তিনজনের কাছ থেকে আর ২৯ পয়েন্ট করে পেয়েছেন দুইজনের কাছ থেকে।

বার্মিংহামে আজ পুরুষদের হাইজাম্পে অংশ নেবেন বাংলাদেশের প্রতিযোগী মাহফুজুর রহমান। অন্যদিকে ব্যস্ত দিন কাটবে টেবিল টেনিস খেলোয়াড়দের।

দিনে নিজেদের প্রথম খেলায় মেয়েদের এককে সাদিয়া রহমান মৌ-এর প্রতিপক্ষ ভানুয়াতুর রোয়ানা অ্যাবেল, সোনম সুলতানার প্রতিপক্ষ সলোমন দ্বীপপুঞ্জের কনি সিফি।

পুরুষ এককে রামহিম লিয়ান বম-এর প্রতিপক্ষ নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের ওয়েন ক্যাচকার্ট, রিফাত সাব্বির খেলবেন মালদ্বীপের মুনসিফ আহমেদ মুসার সঙ্গে। মুহতাসিম হৃদয়ের প্রতিপক্ষ ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর ডেরন ডগলাস।


আরও খবর



আন্তর্জাতিক আদালতের রায়কে স্বাগত জানালো বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Saturday ২৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ৭৩জন দেখেছেন
Image

রোহিঙ্গা গণহত্যার মামলায় মিয়ানমারের আপত্তি খারিজ করে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিজে) দেওয়া রায়কে স্বাগত জানিয়েছে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

শুক্রবার (২২ জুলাই) রাতে মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গাম্বিয়া বনাম মিয়ানমার মামলায় মিয়ানমারের চারটি আপত্তি আইনি ও পদ্ধতিগত কারণে খারিজ করে দিয়েছেন আন্তর্জাতিক আদালত। বাংলাদেশ মনে করে, রোহিঙ্গা সমস্যার টেকসই সমাধান খুঁজে পেতে আন্তর্জাতিক বিচার ও দায়বদ্ধতা অত্যন্ত জরুরি। এ রায়ে রোহিঙ্গাদের আইনি অধিকারসহ স্বদেশে প্রত্যাবাসনে আত্মবিশ্বাসী হতে সহায়তা করবে।

রাখাইনে রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে ২০১৯ সালের নভেম্বরে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা করে গাম্বিয়া। ওই বছরের ১০-১২ ডিসেম্বর এই মামলায় প্রথমবার প্রাথমিক শুনানি হয়। এতে গাম্বিয়ার পক্ষে নেতৃত্ব দেন দেশটির আইন ও বিচারমন্ত্রী আবুবকর তামবাদু। আর মিয়ানমারের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি।

২০২০ সালে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যার দলিল দাখিল করে গাম্বিয়া। সেখানে দেখানো হয়, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী কীভাবে রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা চালিয়েছে।

তবে এ মামলায় আইসিজের এখতিয়ার নেই দাবি করে একপর্যায়ে চ্যালেঞ্জ জানায় মিয়ানমার সরকার। সু চি কারাবন্দি থাকায় গত ফেব্রুয়ারিতে এর শুনানিতে অংশ নেন মিয়ানমার জান্তার প্রতিনিধিরা। তাদের দাবি, যেহেতু আন্তর্জাতিক আদালতে কেবল দুই রাষ্ট্রের মধ্যকার মামলার শুনানি করে এবং ইসলামী সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) পক্ষ থেকে রোহিঙ্গা গণহত্যার মামলা দায়ের করেছে গাম্বিয়া, তাই এটি খারিজ করে দেওয়া উচিত

মিয়ানমার আরও দাবি করে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে গাম্বিয়ার যেহেতু সরাসরি কোনো যোগসূত্র নেই এবং মিয়ানমারের সঙ্গেও গাম্বিয়ার আগে কোনো আইনি দ্বন্দ্বও ছিল না, তাই পশ্চিম আফ্রিকার দেশটি আন্তর্জাতিক আদালতে এই মামলা করতে পারে না।

তবে শুক্রবারের রায়ে মিয়ানমারের প্রত্যেকটি দাবিই খারিজ করে দিয়েছেন দ্য হেগের আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত। আইসিজে সভাপতি বলেছেন, গণহত্যা কনভেনশনে স্বাক্ষরকারী যেকোনো রাষ্ট্রপক্ষ আদালতের সামনে কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে অন্য রাষ্ট্রপক্ষের দায়িত্ব নিতে পারে।

গত ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত শুনানিতে গাম্বিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছিলেন, মামলাটি অবশ্যই এগিয়ে নেওয়া উচিত এবং এটি দায়ের করেছে তার দেশ, ওআইসি নয়। সেদিন তিনি জোর দিয়ে বলেন, আমরা কারও প্রক্সি (প্রতিনিধি) নই।

রোহিঙ্গা গণহত্যার মামলায় গাম্বিয়াকে সমর্থন করছে বাংলাদেশ, নেদারল্যান্ডস, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশ। এছাড়া, আন্তর্জাতিক আদালতে আইনি লড়াই চালিয়ে যেতে গাম্বিয়াকে আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে ওআইসি।


আরও খবর