Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

দৌলতপুরে ফেন্সিডিল সহ বিএনপি নেতা শ্যামল সহ আটক-২

প্রকাশিত:রবিবার ২১ মে ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২৪৮জন দেখেছেন

Image

খন্দকার জালাল উদ্দীন : কুষ্টিয়া দৌলতপুর থানা পুলিশের এস.আই সেলিম রেজা সঙ্গীয় অফিসার এস.আই সাব্বির হোসেন ও কনস্টেবল জামিরুল ইসলাম অভিযান পরিচালনা করে ২০ বোতল ফেন্সিডিল একটি বাজার পালসার মোটরসাইকেল সহ দুই জনকে আটক করেছে।দৌলতপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান বলেন, কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ সুপার এস এম খায়রুল আলমের নির্দেশক্রমে অবৈধ অস্ত্র, মাদকদ্রব্য ও ওয়ারেন্ট তামিল অভিযান পরিচালনা করাকালীন সময়ে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি মোটরসাইকেল যোগে এক ব্যক্তি মশাউড়ার দিক থেকে আল্লার দর্গা এলাকার দিকে আসছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে এস আই সেলিম রেজা সঙ্গীয় অফিসার নিয়ে শনিবার দুপুরে অভিযান পরিচালনা করিলে তারাগুনিয়া বাজার এলাকা থেকে একটি বাজার কোম্পানির পালসার মোটরসাইকেল ও ২০ বোতল ফেন্সিডিল সহ পাবনা উপজেলার সানোয়ার হোসেনের ছেলে মসিউর রহমান সাব্বির কে আটক করে। পরে তার দেওয়া তথ্য মতে, ফেনসিডিলের মূল মালিক মশাউড়া গ্রামের আজিম উদ্দিনের ছেলে শ্যামল কে তার নিজ বাড়ির সামনে থেকে আটক করে। শ্যামল এলাকা চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী তার নামে তিনটি মাদক মামলা একটি নাশকতা মামলা সহ অন্যান্য মামলা দিয়ে মোট আটটি মামলা রয়েছে । এ বিষয়ে মাদক আইনের একটি মামলার হয়েছে।




আরও খবর



মাগুরার চাঞ্চল্যকর জোড়া খুনের বিচার ও আসামী গ্রেফতারের দাবিতে মিছিল ও মানববন্ধন

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১০৪জন দেখেছেন

Image
স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরার মহম্মদপুরে জোড়া খুনের আসামিদের গ্রেপ্তার ও বিচার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল এবং মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মামলার  ৫ মাস অতিক্রান্ত হলেও হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন ও  কাঙ্খিত অগ্রগতি না হওয়ায় নিহতের পরিবার এবং এলাকাবাসী  ক্ষোভ প্রকাশ করে এ মানববন্ধনে যোগ দেয়।

বুধবার ২৯ মে  দুপুরে মাগুরা প্রেসক্লাবের সামনে নিহতর পরিবার ও এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল এবং মানববন্ধন করে। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ইমদাদুল হক ক্যাপ্টেন,  মামলার বাদী আবুল কালাম, নিহত সবুজের স্ত্রী আলেয়া খাতুন ও ছোট ভাই আব্দুল্লাহ।বক্তারা অভিযোগ করেন,মামলার আসামিরা প্রকাশ্যে এলাকায় ঘোরাফেরা করলেও পুলিশ অজ্ঞাত কারণে নিষ্ক্রিয় রয়েছে।

উল্লেখ্য, গ্রাম্য  দলাদলি কে কেন্দ্র করে গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর রাতে মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা ইউনিয়নের পানিঘাটা গ্রামের সবুজ মোল্যা (৩০) ও তার আপন ভাই হৃদয় মোল্যা(১৭) কে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ঐ গ্রামের পুকুর পাড়ে গলা কেটে হত্যা করে প্রতিপক্ষরা।

মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ কালিমুল্লাহ জানান, পানিঘাটার দুই সহোদর সবুজ ও হৃদয় হত্যার পরদিন তার বড় ভাই আবুল কালাম বাদী হয়ে মোহাম্মদপুর থানায় ১০ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা রুজু করেন। পুলিশ ইতিমধ্যে এজাহার ভুক্ত  ৪ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে। একজন আসামী ইতিমধ্যে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে এবং তদন্ত চলছে।

আরও খবর



ঘূর্ণিঝড় রেমাল; মিরসরাইয়ে পানিতে ভেসে গেছে কোটি টাকার মাছ, বিদ্যুতবিচ্ছিন্ন ৯০ হাজার গ্রাহক

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১১৭জন দেখেছেন

Image

মিরসরাই প্রতিনিধি:বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট প্রবল ঘূর্ণিঝড় রিমালের তাণ্ডবে মিরসরাইয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অতিবৃষ্টিতে ফেনী নদীর জোয়ারের পানি ঢুকে মুহুরী প্রজেক্ট এলাকার ২৬ হেক্টর মৎস্য প্রকল্পের প্রায় কোটি টাকার মাছ পানিতে ভেসে গেছে। দমকা বাতাসে ও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে ১০ হেক্টর আউশ বীজতলা ও ১৮০ হেক্টর গ্রীষ্মকালীন সবজিক্ষেত নষ্ট হয়েছে।বিদ্যুৎহীন অবস্থায় রয়েছেন প্রায় ৯০ হাজার গ্রাহক ।

জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও দুটি পৌরসভায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ঝড়ো বাতাসে বড় বড় গাছ উপড়ে পড়ে গ্রামীন সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে এবং অসংখ্য বসতঘর ভেঙে গেছে। এছাড়া বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙেছে ৩৭ টি, তার ছিঁড়েছে ৩৪০ টি স্পটে, ক্রস আর্ম ভেঙেছে ৩৬ টি। উপজেলায় প্রায় ৯০ হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎহীন অবস্থায় রয়েছেন। অতিবৃষ্টিতে ফেনী নদীর পানি ঢুকে মুহুরী প্রজেক্ট এলাকার ৩২ টি মৎস্য খামারের ২৬ হেক্টর পুকুর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কোটি টাকার কার্পজাতীয় মাছ পানিতে ভেসে গেছে। হাবিলদারবাসা এলাকায় সড়কে বড় গাছ ভেঙে পড়ে প্রায় ২০ ঘণ্টা বন্ধ ছিল ছাগলনাইয়া-করেরহাট সড়কে সবধরনের যান চলাচল। মঙ্গলবার দুপুরে গাছ কেটে সরানোর পর যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।উপজেলার মধ্যম ওয়াহেদপুর এলাকার কৃষক আব্দুল হান্নান বলেন, ‘এবার আমি প্রায় ৭০ শতক জমিতে বোরো আবাদ করেছি। ঘূর্ণিঝড়ের আগে ৩০ শতক জমির ধান কেটে বাড়িতে নেওয়া হয়েছে। বাকি ৩০ শতক জমির পাকা ধান পানিতে ডুবে রয়েছে। এতে ধান পচে গেলে বড় ক্ষতি হয়ে যাবে।’চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর মিরসরাই জোনাল অফিসের এজিএম প্রকৌশলী উদয়ন দাশ গুপ্ত বলেন, এরইমধ্যে ১৮ হাজার গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। তবে এখনো ৫৪ হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎহীন রয়েছেন। লাইন চালু করতে মাঠে ১৮ টি টিম কাজ করছে। দু'একদিনের মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগ স্বাভাবিক হয়ে যাবে আশা করি।বারইয়ারহাট জোনাল অফিসের ডিজিএম হেদায়েত উল্ল্যাহ বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে আমাদের ১২ টি খুঁটি ও ৮ টি ক্রস আর্ম ভেঙেছে। তার ছিঁড়েছে ৪০ টি স্পটে। ২৫ হাজার গ্রাহক এখনো বিদ্যুৎ সংযোগ পাননি। লাইন স্বাভাবিক করতে ৬ টি টিম কাজ করছে।

সীতাকুণ্ড জোনাল অফিসের ডিজিএম পঙ্কজ চৌধুরী জানান, সীতাকুণ্ড জোনাল অফিসের আওতাধীন মিরসরাই উপজেলার ১০ হাজার গ্রাহক এখনো বিদ্যুৎহীন অবস্থায় রয়েছে।উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা প্রতাপ চন্দ্র রায় বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমালের কারণে উপজেলার ১০ হেক্টর আউশ বীজতলা পানিতে ডুবে গেছে ও ১৮০ হেক্টর গ্রীষ্মকালীন সবজি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দ্রুত পানি না নামলে ক্ষতির পরিমাণ বাড়বে। পরিপূর্ণ ক্ষয়ক্ষতি আগামী দুদু’য়েকদিনের মধ্যে নির্ধারণ করা যাবে।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা নাসিম আল মাহমুদ বলেন, মুহুরী প্রজেক্টের পুকুরগুলো পাশাপাশি লাগানো থাকায় পাড় থাকে একদম সরু। ফলে অল্প বৃষ্টিতে পাড় ভেঙে মাছ পাশের পুকুরে ভেসে যায়।


আরও খবর



হিলিতে কাঁচা মরিচের দাম কেজিতে কমেছে ২০ থেকে ৪০ টাকা

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৯১জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে কাঁচা মরিচ আমদানি বেড়েছে। আমদানি বাড়ায় দেশীয় কাঁচা মরিচ কেজিতে দাম কমেছে ২০ থেকে ৪০ টাকা। 

আজ বুধবার (২৯ মে) দুপুরে হিলি স্থলবন্দর ও বাজার ঘুরে দেখা যায়, একসপ্তাহ আগে বুধবার (২২ মে) দেশীয় প্রতিকেজি কাঁচামরিচ ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। আর আজ বুধবার (২৯ মে) সেই কাঁচা মরিচ মানভেদে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এদিকে বন্দরের আমদানিকৃত কাঁচা মরিচ পাইকারী ১০০ থেকে ১১০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আর খুচরা বাজারে ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। 

কিছুদিন ধরে হিলিতে কাঁচামরিচের বাজার অস্থির হয়ে ওঠে। দাম সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে।তবে ভারত থেকে কাঁচামরিচ আমদানি শুরু হওয়ার পর দাম কিছুটা কমেছে। 

হিলি বাজারের কাঁচা মরিচ বিক্রেতা শেখ বিপ্লব বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে প্রচন্ড রোদের কারণে কাঁচামরিচ উৎপাদন কমে যায়। তাই বাজারে সরবরাহ কম ছিল।তাই বেশি দামে কিনে বেশি দামে কিনে বিক্রি করতে হয়েছে। এখন ভারতীয় কাঁচামরিচ আমদানি শুরু হয়েছে। তাই দাম কমে এসেছে। 

পানামা হিলি পোর্টের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন মল্লিক প্রতাব জানান,অনুমতি পাওয়ার পর গেলো বৃহস্পতিবার (২৩ মে ) বিকেলে বন্দর দিয়ে কাঁচা মরিচ আমদানি শুরু হয়েছে। এখন প্রতিদিনই হিলি স্থলবন্দর দিয়ে কাঁচামরিচ আমদানি হচ্ছে। কাস্টমসের যাবতীয় প্রক্রিয়া শেষে দ্রুত ছাড়করণ করা হচ্ছে এসব কাঁচা মরিচ। এতে বন্দর থেকে সরকারের রাজস্ব আয় যেমন বেড়েছে, তেমনি বন্দর কর্তৃপক্ষ ও শ্রমিকদের দৈনন্দিন আয়ও বেড়েছে। 

হিলি কাষ্টমস সূত্রে জানা গেছে,গেলো বৃহস্পতিবার ২৩ মে থেকে ২৮ মে পর্যন্ত ভারতীয় ২২ টি ট্রাকে ২১২ মেট্রিক টন ২০০ কেজি কাঁচা মরিচ আমদানি হয়েছে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে।


আরও খবর



উদ্ভাবনী চার্জিং প্রযুক্তির কারণে অনন্য ইনফিনিক্স নোট ৪০ সিরিজ

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১১৯জন দেখেছেন

Image

প্রযুক্তি ডেস্ক:উদ্ভাবনী ও স্টাইলিশ ফোন বাজারে এনে তরুণ ও প্রযুক্তিপ্রেমীদের মাঝে জনপ্রিয় হয়েছে ট্রেন্ডি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড ইনফিনিক্স। সম্প্রতি স্মার্টফোন শিপমেন্টের ক্ষেত্রে অন্যান্য বৈশ্বিক ব্র্যান্ডের তুলনায় সর্বোচ্চ বার্ষিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে ব্র্যান্ডটি।

একইসঙ্গে দ্রুত ও উদ্ভাবনী চার্জিং প্রযুক্তি নিয়ে ক্রমাগত কাজ করে যাচ্ছে ইনফিনিক্স। সম্প্রতি বাজারে আসা নতুন নোট ৪০ সিরিজের স্মার্টফোনে এই প্রযুক্তির মান আরও বেড়েছে। ফলে ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতাও উন্নত হয়েছে।

প্রথমবারের মতো নোট ৪০ সিরিজে যুক্ত করা হয়েছে অল-রাউন্ড ফাস্টচার্জ ২.০ নামে পরিচিত ইনফিনিক্সের অল- রাউন্ড ফাস্টচার্জ প্রযুক্তির দ্বিতীয় প্রজন্ম। অত্যাধুনিক এই প্রযুক্তিতে আছে একটি মাল্টি-ট্যাব গঠনের ব্যাটারি এবং তিনটি সমান্তরাল ফাস্ট-চার্জিং চিপ। যার মাধ্যমে ১০০ ওয়াট পর্যন্ত স্থিতিশীল ও কার্যকর ওয়্যারড চার্জিংয়ের সুবিধা  পাওয়া যায়। এছাড়া, সিরিজটি ২০ ওয়াটের ওয়্যারলেস চার্জিং ও ওয়্যারলেস রিভার্স চার্জিংও সাপোর্ট করে। যার সাহায্যে ফোনকে অন্যান্য ডিভাইসের জন্য পাওয়ার ব্যাংক হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

নোট ৪০ সিরিজের একটি উল্লেখযোগ্য ফিচার হলো- ওয়্যারলেস ম্যাগচার্জ, যা অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ক্ষেত্রে একটি নতুন  সংযোজন। নিরবচ্ছিন্ন ম্যাগনেটিক চার্জিংয়ের জন্য এই সিস্টেমে আছে একটি ফোন কেস (ম্যাগকেস), একটি ম্যাগনেটিক চার্জিং প্যাড (ম্যাগপ্যাড) এবং একটি ওয়্যারলেস ম্যাগনেটিক পাওয়ার ব্যাংক (ম্যাগপাওয়ার)। সম্প্রতি,  ফোর্বস ইনফিনিক্সের ম্যাগচার্জকে অ্যাপলের ম্যাগসেফ-এর সাথে তুলনা করেছে। তাদের মতে, কার্যকারিতা ও সুবিধা উভয় ক্ষেত্রেই ইনফিনিক্সের সমাধান উন্নততর।

অল-রাউন্ড ফাস্টচার্জ ২.০ প্রযুক্তির কেন্দ্রে আছে ইনফিনিক্সের তৈরি পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট চিপ চিতা এক্স১। যার সাহায্যে বিভিন্ন ধরনের চার্জিং ফিচার ও মোড কাজ করতে পারে। যেমন- মাল্টি-স্পিড ফাস্ট চার্জিং, বাইপাস চার্জিং, এআই চার্জিং প্রোটেকশন এবং পিডি ৩.০ প্রোটোকলের জন্য সাপোর্ট। মাল্টি-স্পিড ফাস্ট চার্জিংয়ের আওতায় আছে সুপার মোড, স্মার্ট মোড এবং লো-টেম্পারেচার মোড। এই মোডগুলো ব্যবহারকারীদের চার্জিংয়ের অভিজ্ঞতা উন্নত করে।

উচ্চ তাপমাত্রা সহনীয় ডিভাইস হিসেবে নোট ৪০ সিরিজের ডিজাইন করা হয়েছে। মাইনাস ২০° সেলসিয়াস তাপমাত্রায়ও অনায়েসেই এই স্মার্টফোন চার্জ দেওয়া যায়। এ কারণে ভ্রমণপ্রেমীরা নিশ্চিন্তে এই ডিভাইসটি বেছে নিতে পারেন।

এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের বাজারে নোট ৪০ সিরিজের দুটি মডেল এসেছে- নোট ৪০ ও নোট ৪০ প্রো। দেশজুড়ে ইনফিনিক্স অফিশিয়াল রিটেইলারের কাছে পাওয়া যাচ্ছে ফোনগুলো।


আরও খবর



ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৮২জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ি, দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ বারের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল, “হাসপাতালে সন্তান প্রসব করান মা ও নবজাতকের জীবন বাচান”। সারা দেশের ন্যায় গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর সভাকক্ষে নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালি শেষে হাসপাতালের সভাকক্ষে আলোচনা সভায় সভাপত্ত্বিত করেন এবং সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডা: মশিউর রহমান। আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর ডেন্টাল সার্জেন ডা: সাজেদুর ইসলাম, সি.এইচ.সিপি ও পরিসংখ্যানবিদ সঞ্জয় কুমার রায়, মোঃ সাইফুল ইসলাম সহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সকল ডাক্তার, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ এবং সিনিয়র সকল সেবিকাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আয়োজনে ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ফুলবাড়ি দিনাজপুর।


আরও খবর