Logo
আজঃ Monday ২৭ June ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা নাসিরনগরে মুক্তিযোদ্বাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন পদ্মা সেতু দেখানোর কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ জুরাইনে পাশের বাড়ির উপড় ধসে পড়েছে সেই ঝুকিপুর্ন ভবনটি

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Monday ২১ March ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ১৯৪জন দেখেছেন
Image

স্পোর্টস ডেস্কঃ

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে শেষ পর্যন্ত বড় হারও সঙ্গী হলো টাইগারদের। ম্যাচ শেষে তাই ওয়ান্ডার্সের খটখটে শুকনো উইকেট আর বাড়তি বাউন্সের সমালোচনা করলেন তামিম ইকবাল। কিন্তু ম্যাচটা হেরে যাওয়ার পেছনে শুধু উইকেটই নয়, নিজেদের ভুলগুলোকেই বড় করে দেখছেন টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক।


সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে আজ রোববার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। টসে জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ওয়ান্ডার্সের উইকেটে খাবি খেয়েছেন টাইগার ব্যাটাররা। যদিও পিচের কন্ডিশন আগের ম্যাচের চেয়ে আলাদা ছিল। আগের ম্যাচে সেঞ্চুরিয়নে রানের বন্যা দেখা গিয়েছিল তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান ও ইয়াসির আলীর ব্যাটে।


কিন্তু আজকের ম্যাচে তাদের সবাই ব্যাট হাতে ব্যর্থ। তাদের আউট হওয়ার ধরনও প্রায় এক। সবাই বাড়তি বাউন্সে বিভ্রান্ত হয়ে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন।  টাইগার ব্যাটারদের ব্যর্থতার মিছিলে একমাত্র ব্যতিক্রম আফিফ হোসেন ধ্রুব। দলের ১৯৪ রানের সংগ্রহের মধ্যে তার ব্যাট থেকেই এসেছে ৭২ রান। এছাড়া বলার মতো রান এসেছে কেবল মেহেদি হাসান মিরাজ (৩৮) এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের (২৫) ব্যাট থেকে। বাকিরা ছিলেন আসা-যাওয়ার মিছিলে এবং প্রায় সবাই অসমান বাউন্সের শিকার। 


ম্যাচ শেষে অবধারিতভাবে তাই উইকেট ইস্যু উঠে এলো। যদিও একই পিচে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটাররা অনায়াসেই রান তুলেছেন।উইকেটের দায় যেমন আছে, টস জিতে এমন পিচে ব্যাটিং বেছে নেওয়াতেও অনেকে অবাক হয়েছেন। ম্যাচ শেষে তাই তামিম বলেন, 'যেমন উইকেট আশা করেছিলাম তা পাইনি। পেস আর বাউন্সে কোনো অসুবিধা নেই, কিন্তু অসমান পিচ হলে অসুবিধা হবেই। 



টস জেতা কিংবা আগে ব্যাটিং বেছে নেওয়া নিয়ে অনেক কথা বলতে পারি, কিন্তু আমি মনে করি ম্যাচের ভাগ্য আমরা নির্ধারণ করতে পারি না। আমরা ভুল করেছি এবং তারা (দ. আফ্রিকা) ভালো বোলিং করেছে। মাঝের ওভারগুলোতে আমরা আরও রান তুলতে পারলে ওদের চাপে রাখতে পারতাম। একসময় তো ১০০ রানও কঠিন মনে হচ্ছিল, সেখানে আমরা ১৯৪ রান করেছি। দিনশেষে, আমরা অনেক কিছুকেই দায়ী করতে পারি, কিন্তু আমরা খারাপ খেলেছি। '



আরও খবর



চড়া দাম নিয়ে বাজারে হাঁড়িভাঙা আম

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ২৫ June ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
Image

বাজারে উঠেছে রংপুরের ঐতিহ্যবাহী হাঁড়িভাঙা আম। বুধবার (১৫ জুন) থেকে আম পাড়া শুরু করেছেন বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা। ফলে বিভিন্ন মোকামগুলোতে ভিড় বাড়ছে মৌসুমী, ক্ষুদ্র ও ফড়িয়া ব্যবসায়ীদের। চাহিদা বিবেচনা করে ক্রেতাদের কাছে আম পৌঁছে দিতে ইতোমধ্যে যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে কৃষি বিপণন অধিদফতর ও জেলা প্রশাসন।

তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর শুরুতেই দাম একটু চড়া বলে জানিয়েছেন আমচাষি এবং ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) সকালে সরেজমিনে দেখা গেছে, মিঠাপুকুরের পদাগঞ্জ বাজারে তিল ধারণের ঠাঁই নেই। একই অবস্থা রংপুরের সিটি বাজার, টার্মিনাল এলাকায়। আম চাষিরা গাছ থেকে আম সংগ্রহ করে বাজারে নিয়ে এসেছেন। ঘুরে ঘুরে দাম হাঁকাচ্ছেন ফড়িয়া ও মৌসুমী ব্যবসায়ীরা।

jagonews24]

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, রংপুর কৃষি অঞ্চলের পাঁচ জেলায় প্রায় ৬ হাজার ৯৭৯ হেক্টর জমিতে হাঁড়িভাঙাসহ অন্যান্য আম বাগান রয়েছে। এতে গাছের সংখ্যা রয়েছে প্রায় দুই লাখ ৫৭ হাজার। এরমধ্যে শুধুমাত্র রংপুর জেলায় হাঁড়িভাঙা আমের জমি রয়েছে প্রায় ১ হাজার ৮৮৭ হেক্টর। এবার শুধুমাত্র হাঁড়িভাঙা আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৯ হাজার ৪৩৬ মেট্রিক টন। গত বছরের তুলনায় ফলন কিছুটা কম হলেও বাজারে ভালো দাম পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান কৃষি কর্মকর্তারা।

বাজারে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, থরে থরে আম সাজিয়ে রেখেছেন বিক্রেতারা। বিভিন্ন সাইজের আম ঝুড়িতে রাখা হয়েছে। আমের সাইজ দেখে ক্রেতারা দরদাম ঠিক করছেন। তবে একটু বেশি দাম হলেও ক্রেতাদের পছন্দের আম কিনতে দেখা গেছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানোর উদ্দেশ্যে আম বাজারের সঙ্গেই অস্থায়ীভাবে কুরিয়ায় সার্ভিসগুলো তাদের শাখা সেন্টার খুলেছে।
অনেকে আম কিনে বাজারের পাশে অবস্থিত কুরিয়ারগুলোর মাধ্যমে পাঠিয়ে দিচ্ছেন।

পদাগঞ্জ এলাকার আমচাষি মোকছেদ জানান, বড় সাইজের কাঁচা আম আজ বাজারে প্রতিমণ ১৮শ থেকে ২ হাজার টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। মাঝারিটা ১৪ থেকে ১৬শ আর ছোটটা ১৩শ থেকে ১৪শ টাকায় মণ বিক্রি হচ্ছে।

রংপুরের মিঠাপুকুর পদাগঞ্জ এলাকার আমচাষি হজরত আলী বলেন, গত বছর আমার ৬টা বাগান ছিল। শেষ পর্যন্ত ২১শ টাকা মণ করেছি। এবারও ৬টা বাগান আছে। কিন্তু আমের ফলন বেশি হবে না।

ওই এলাকার আমচাষি ইয়াকুব আলী বলেন, এবার শীলাবৃষ্টি ও ঝড়ের কারণে অনেক আম পড়ে গেছে। এছাড়া অনেক গাছে আমের ফলনও কম হয়েছে। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা পাইকারি ব্যবসায়ীরা একটু দাম বেশি বলছেন। আমরা আশা করছি এবার ভালো দাম পাওয়া যাবে।

টার্মিনাল বাজারে ক্রেতা এনামুল কবীর বলেন, বড় সাইজের এক মণ আম ১৯শ টাকায় কিনেছি। গত বছর এই দিনে বড় সাইজের আমের দাম ছিল ১২শ থেকে ১৩শ টাকা। সেটা এবার কিনলাম ১৯শ টাকা দিয়ে। বাগান মালিকরা বলছেন, এবার গাছে ফলন কম, তাই দাম বেশি।

রংপুর কৃষি বিপণন অধিদফতরের সিনিয়র কৃষি বিপণন কর্মকর্তা শাহীন আহমেদ বলেন, এ বছর আমের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ২৯ হাজার ৪৩৬ টন। প্রতি টন গড়ে বিক্রি হবে ৩৩ হাজার টাকায়। প্রাকৃতিক কোনো দুর্যোগ না হলে প্রায় শতকোটি টাকার আম (হাঁড়িভাঙা) বিক্রির সম্ভাবনা রয়েছে।

jagonews24

তিনি বলেন, গত বছর মাসতোয়া এগ্রো লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান দেশের বাইরে আম রপ্তানি করেছে। এবারও তারা রপ্তানি করবে। আমরা অনেকের সঙ্গে যোগোযোগ রাখছি। আশা করছি তারা এগিয়ে আসবে। আম দেশের বাইরে রপ্তানি হবে। এছাড়াও অনলাইনে আম বিক্রি করতে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক ওবায়দুর রহমান মন্ডল বলেন, আমের উপরিভাগ বেশি মোটা ও চওড়া, নিচের অংশ চিকন। দেখতে সুঠাম ও মাংসালো, শ্বাস গোলাকার ও একটু লম্বা। স্বাদে-মানে এক অনন্য আম হাঁড়িভাঙা। ছোট থেকে পাকা পর্যন্ত একেক স্তরে একেক স্বাদ পাওয়া যায়।

তিনি আরও বলেন, আঁশবিহীন, মিষ্টি ও সুস্বাদু এই আমের সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে সারা দেশে। এমনকি দেশের বাইরেও। তবে আমটির পরিপূর্ণ পরিপক্কতা পেতে হলে ২০ জুন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে বলেও মত দেন এই কৃষি কর্মকর্তা।

জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, আমের সবচেয়ে বড় হাট পদাগঞ্জে। সেখানে হাট সংস্কারের কাজ করা হয়েছে। কিছু কিছু কাজ চলমান আছে। এছাড়াও যেকোনো সমস্যা সমাধানে প্রশাসন কাজ করছে।


আরও খবর



ফিক্সিং কাণ্ডে প্রোটিয়া পেসারের ছয় বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশিত:Tuesday ১৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২১ June ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

দক্ষিণ আফ্রিকার র‍্যাম স্ল্যাম টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের ২০১৫ সালের আসরে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িত থাকার অপরাধে ছয় বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে দেশটির পেসার পুমেলেলা মাৎশিকের। তবে এই ছয় বছরের মধ্যে পাঁচ বছর স্থগিত সাজা দেওয়া হয়েছে ৩৭ বছর বয়সী এ ডানহাতি পেসারকে।

২০১৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের (সিএসএ) অ্যান্টি করাপশন ইউনিটের পক্ষ থেকে ছয়জন খেলোয়াড়কে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল। তন্মধ্যে অন্যতম ছিলেন এই পুমেলেলা মাৎশিকে। তখন তাকে সবধরনের ক্রিকেট থেকে দশ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল প্রোটিয়া বোর্ড।

গোলাম বদির পর দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে এই ঘটনায় কারাদণ্ড পেলেন মাৎশিকে। ২০০০ সালে হানসি ক্রুনিয়ের ফিক্সিং কাণ্ডের পর ২০০৪ সালে এ বিষয়ক আইন তৈরি করে দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই আইনে দীর্ঘদিন মামলা লড়ার পর শুক্রবার ছয় বছর (পাঁচ বছর স্থগিত) কারাদণ্ড পান মাৎশিকে।

তাকে চারটি অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করেছে আদালাত। যেগুলো হলো- ২০১৫ সালের র‍্যাম স্ল্যামে টাকা নিয়ে এক বা একাধিক ম্যাচ পাতানো; খেলাটির ওপর দাগ লাগানোর মতো অর্থের আদানপ্রদান; বোর্ডের অ্যান্টি করাপশন ইউনিটের কাছে অর্থ লেনদেনের যথাযথ হিসেব দিতে ব্যর্থ হওয়া এবং ফিক্সিংয়ের প্রস্তাবের বিস্তারিত তথ্য না দেওয়া।

বোদি-মাৎশিকে ছাড়া ২০১৬ সালে নিষেধাজ্ঞা পাওয়া অন্য ক্রিকেটাররা হলেন থামি সোলেকিলে, জিন সাইমস, এথি বালাতি ও আলভিরো পিটারসেন। ২০১৯ সালে দুর্নীতির আটটি অভিযোগে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল গোলাম বদির। বাকিরা দুই থেকে ১২ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, কখনও জাতীয় দলের হয়ে খেলা হয়নি মাৎশিকের। ২০০৯ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত ৭৭টি প্রথম শ্রেণি, ৫৭টি লিস্ট 'এ' ও ২৪টি কুড়ি ওভারের ম্যাচ খেলেছেন ৩৭ বছর বয়সী এ পেসার। সবমিলিয়ে স্বীকৃত ক্রিকেটে ১৫৮ ম্যাচে মাৎশিকের উইকেটসংখ্যা ২৫০টি।


আরও খবর



শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ অস্ট্রেলিয়ার

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৮৫জন দেখেছেন
Image

প্রথম ম্যাচের মত এতটা সহজ হয়নি। তবুও তুলনামূলক সহজেই দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। যদিও জয়ের ব্যবধান কেবল ৩ উইকেটের। এই জয়ের ফলে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় করে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

অষ্টম উইকেট জুটিতে ঝিয়ে রিচার্ডসনকে নিয়ে খুব ধৈয্যের সঙ্গে ব্যাট করেছেন ম্যাথ্যু ওয়েড। ২৬ বলে ২৬ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিয়েই মাঠ ছেড়েছেন ওয়েড। ম্যাচ শেষে এই ধৈয্যের পুরস্কারও পেয়েছেন। ম্যাচ সেরা হলেন তিনিই।

ঝিয়ে রিচার্ডসন টেস্ট স্টাইলে ব্যাট করে ২০ বলে করেছেন ৯ রান। অপরাজিতই ছিলেন তিনি। ২৪ রান করেছিলেন ফিঞ্চ এবং ২১ রান করেছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার।

কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে টস জিতে শ্রীলঙ্কাকেই প্রথমে ব্যাট করতে পাঠায় অস্ট্রেলিয়া। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই দুই ওপেনার পাথুম নিশাঙ্কা এবং দানুসকা গুনালিথালাকার উইকেট হারায় লঙ্কানরা। এরপর চারিথ আশালঙ্কা এবং কুশল মেন্ডিস মিলে ৬৬ রানের জুটি গড়ে তোলেন।

৩৯ রান করেন আশালঙ্কা এবং ৩৬ রান করেন কুশল মেন্ডিস। এছাড়া ভানুকা রাজাপাকসে ১৩, দাসুন শানাকা ১৪ এবং হাসারাঙ্গা ১২ রান করেন। শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১২৪ রান সংগ্রহ করে শ্রীলঙ্কা। কেন রিচার্ডসন ৪টি এবং ঝিয়ে রিচার্ডসন নেন ৩ উইকেট। ২ উইকেট নেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

আগের ম্যাচে লঙ্কানরা করেছিল ১২৮ রান। অস্ট্রেলিয়া কোনো উইকেট না হারিয়েই জয় পেয়েছিল। তবে এই ম্যাচে এতটা সহজ হয়নি। ৭ উইকেট হারাতে হয়েছিল অস্ট্রেলিয়াকে। ওয়ানিদু হাসারাঙ্গা ৪ উইকেট নিলেও লাভ হয়নি লঙ্কানদের।


আরও খবর



ঢাকা কমার্শিয়াল অটোমোটিভ শো-তে ফোটন কমার্শিয়াল ভেহিক্যাল

প্রকাশিত:Friday ২৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ঢাকা কমার্শিয়াল অটোমোটিভ শো ২০২২। ২৩ জুন থেকে শুরু হওয়া এ শো চলবে ২৫ জুন পর্যন্ত।

দেশের অন্যতম শীর্ষ প্রতিষ্ঠান এসিআই লিমিটেডের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান এসিআই মটরস এই শোতে অংশগ্রহণ করছে ফোটন কমার্শিয়াল ভেহিক্যাল নিয়ে। বাংলাদেশে এসিআই মটরস ফোটন কমার্শিয়াল ভেহিক্যালের একমাত্র পরিবেশক।

ফোটন ইতোমধ্যে বিশ্বের ১০০টিরও অধিক দেশে এক কোটির বেশি কমার্শিয়াল ভেহিক্যাল বিক্রি করেছে। এসিআই মটরস, কৃষি যন্ত্রপাতি, কনস্ট্রাকশন ইকুইপমেন্ট, মোটরসাইকেল ব্যবসায় বিক্রয়োত্তর সেবা এবং গ্রাহক সন্তুষ্টিতে দেশের শীর্ষ স্থানীয় প্রতিষ্ঠান। ফোটন কমার্শিয়াল ভেহিক্যালের ক্ষেত্রেও প্রতিষ্ঠানটি সর্বাধিক গ্রাহক সন্তুষ্টি অর্জনে বদ্ধপরিকর।

মেলাতে এসিআই মটরস প্রদর্শন করেছে ফোটনের বিভিন্ন কমার্শিয়াল ভেহিক্যাল যার মধ্যে রয়েছে ১ টন টিএম, ১.২ টন টিএম প্লাস, ১.৫ টন, ৩.৫ টন পিক আপ, অ্যাম্বুলেন্স এবং মিনিবাস।

ইঞ্জিনিয়ার আসিফ উদ্দিন, সার্ভিস এন্ড প্রোডাক্ট ডেভেলপমেন্ট, এসিআই মটরস এর উপস্থিতিতে ব্র্যান্ড নিউ ১.২ টন টিএম প্লাস লঞ্চ করা হয়। তার সাথে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জ্যাক, কান্ট্রি ম্যানেজার, ফোটন মোটর গ্রুপ, এসিআই মটরসের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, গ্রাহকরা।


আরও খবর



বাঁধ ভেঙে চলনবিলের ৪৫ হাজার হেক্টর ফসলি জমি প্লাবিত

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

রিং বাঁধ ভেঙে চলনবিলের পাবনা, নাটোর ও সিরাজগঞ্জ জেলার আট উপজেলার প্রায় ৪৫ হাজার হেক্টর ফসলি জমি তলিয়ে গেছে।

শনিবার (১৮ জুন) বিকেলে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পোতাজিয়া ইউনিয়নের রাউতারা স্লুইচগেট সংলগ্ন বাঁধ ভেঙে যায়।

এ অঞ্চলের ফসল রক্ষার জন্য দুই বছর আগে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড ২ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ে অস্থায়ী এ বাঁধটি নির্মাণ করে। গত ১৫দিন আগে এ অঞ্চলের সব ফসলের মাঠের ধানকাটা শেষ হয়ে যাওয়ায় বাঁধটি কার্যত পরিত্যক্ত হয়ে পড়ে।

এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য টুলি বেগম জাগো নিউজকে বলেন, উজানের ঢল ও অতি বর্ষণে গত কয়েকদিন ধরে শাহজাদপুর উপজেলার করতোয়া, বড়াল, হুরাসাগরসহ সব নদ-নদীর পানি হু হু করে বাড়ছে। ফলে অস্থায়ী এ বাঁধটি প্রবল পানির চাপে দুর্বল হয়ে শনিবার বিকেলে ভেঙে যায়। এতে শাহজাদপুরসহ চলনবিলের পাবনা, নাটোর ও সিরাজগঞ্জের ৮ উপজেলার প্রায় ৪৫ হাজার হেক্টর ফসলি জমি প্লাবিত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এছাড়া এ অঞ্চলের ৩ হাজার হেক্টর গো-চারণ ভূমি ডুবে যাওয়ায় কৃষকরা তাদের গবাদি পশু বাড়ি অথবা উঁচুস্থানে স্থানান্তর করেছে। ঘাসের জমি ডুবে যাওয়ায় গো-খাদ্যের সংকট সৃষ্টি হবে। এছাড়া তিল, কাউন, বাদাম, ভুট্টা, শাক-সবজি ও নেপিয়ার ঘাসের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, বাঁধটি ফসল রক্ষার জন্য নির্মাণ করা হয়েছিল। ফসল উঠে যাওয়ায় বাঁধটি ভেঙে গেলেও কৃষকের তেমন কোনো ক্ষতি হয়নি।


আরও খবর