Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা তরুণীকে অপহরণ করে গর্ভপাত, যুবক কারাগারে

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১১৩জন দেখেছেন
Image

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে এক প্রতিবন্ধী তরুণী (১৮) ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। এই ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে অন্তঃসত্ত্বা তরুণীকে অপহরণের পর গর্ভপাত করানোর অভিযোগে খাইরুল ইসলাম (২২) নামে এক যুবককে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

অভিযুক্ত খাইরুল উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের মাহতাব উদ্দিনের ছেলে।

রোববার (১২ জুন) বিকেলে ময়মনসিংহ সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক রাজিব আহমেদ তালুকদার এ আদেশ দেন।

আদালতের পুলিশ পরিদর্শক প্রসুন কান্তি দাস জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গৌরীপুর থানা পুলিশ অভিযুক্ত খাইরুল ইসলামকে আদালতে তুললে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে শনিবার (১১ জুন) রাতে ভুক্তভোগী তরুণীর মা বাদী হয়ে মো. খাইরুল ইসলাম, তার মা মদিনা আক্তার এবং চাচা আসাদুজ্জামানসহ মোট চারজনকে আসামি করে গৌরীপুর থানায় মামলা করেন। পরে ওই রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে তরুণীকে উদ্ধার করে খাইরুলকে গ্রেফতার করে। অন্য অভিযানে র্যাব-১৪ খাইরুলের চাচা আসাদুজ্জামানকে গ্রেফতার করে।

এ বিষয়ে গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী জাগো নিউজকে বলেন, মামলার পর রাতেই অভিযান চালিয়ে ভুক্তভোগী তরুণীকে উদ্ধার করে প্রধান আসামি খাইরুলকে গ্রেফতার করা হয়। রোববার সকালে খাইরুলকে আদালতে ও তরুণীতে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

মামলার নথির বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ভুক্তভোগী তরুণী প্রতিবন্ধী। আনুমানিক সাত থেকে আট মাস আগে খাইরুল তাকে ধর্ষণ করে। সম্প্রতি তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। এমতাবস্থায় বিষয়টি ধামাচাপা দিতে গত ২৭ মে মধ্যরাতে খাইরুল ও সোহেল বাড়িতে ডুকে ভুক্তভোগীসহ তার মাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। কিন্তু ওই তরুণীকে আটকে রেখে তার মাকে ছেড়ে দেয়। পরদিন বিভিন্ন জায়গায় খুঁজে তরুণীকে না পেয়ে খাইরুলের মা-বাবাকে বিষয়টি জানালেও কোনো সুরাহা হয়নি। এরপর থেকে খাইরুল ও তরুণী নিখোঁজ ছিল। এমতাবস্থায় শনিবার (১১ জুন) ওই তরুণীর মা র্যাব-১৪ অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করে। পরে র্যাবের পরামর্শে তরুণীর মা গৌরীপুর থানায় মামলা করে।

ওসি আরও বলেন, গ্রেফতার খাইরুল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবং গত ১ জুন তরুণীকে কোর্ট ম্যারেজ করেছে বলে জানায়।

এ বিষয়ে র্যাব-১৪ এর এএসপি বেলায়েত হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, গত রাতেই অভিযান চালিয়ে খাইরুলের চাচা আসাদুজ্জামানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

ঘটনার বিষয়ে ভুক্তভোগী তরুণী বলেন, খাইরুল আমাকে ও মাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে একদিন আটকে রাখে। পরদিন আমাকে বিয়ে করবে বলে ময়মনসিংহের একটি হাসপাতালে নিয়ে গর্ভপাত করায়। এর পরদিন আমাকে বিয়ে করে।

এ বিষয়ে তরুণীর মা বলেন, আমার মেয়ে কিছুটা বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। এই সুযোগে খাইরুল সাত থেকে আট মাস আগে তাকে ধর্ষণ করে। কিন্তু মেয়ে আমার কাছে কিছু বলেনি। সম্প্রতি তার শারীরিক পরিবর্তন হলে গর্ভবতী হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। এই বিষয়টি ধামাচাপা দিতে খাইরুল গত মাসের ২৭ তারিখে আমাকেসহ মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে গর্ভপাত করায়। এর ১৭ দিন পরে আমার মেয়েকে পুলিশ ও র্যাব উদ্ধার করে। খাইরুলসহ এই ঘটনায় জড়িত সবার শাস্তি চাই।


আরও খবর



পদ্মা সেতু বাঙালির আত্মমর্যাদার এক অনন্য সোপান: স্পিকার

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
Image

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, পদ্মা সেতু বাঙালির আত্মমর্যাদার এক অনন্য সোপান। সকল ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে, বিশ্বব্যাংকের ভিত্তিহীন অভিযোগ উপেক্ষা করে, সব প্রতিকূলতা ও বাধা-বিপত্তি জয় করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোনো চাপের কাছে নতি স্বীকার না করে দেশের সর্ববৃহৎ অবকাঠামো ‘পদ্মা সেতু’ নির্মাণ সম্পন্ন করেছেন।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে ‘আমাদের অর্থে আমাদের পদ্মা সেতু’ শীর্ষক বইয়ের প্রকাশনা উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন সম্পাদিত ও চন্দ্রাবতী একাডেমি প্রকাশিত বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন স্পিকার।

এ সময় শিরীন শারমিন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অদম্য সাহস, দৃঢ়তা, দূরদর্শিতা ও প্রজ্ঞার কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে। এটি বাংলাদেশকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। বাঙালির আত্মঅহংকারের জায়গায় এ সেতু একটি মাইলফলক। এক্ষেত্রে লিখিত আকারে পদ্মা সেতু নিয়ে দ্রুততম সময়ে ‘আমাদের অর্থে আমাদের পদ্মা সেতু’ গ্রন্থটির প্রকাশ প্রশংসার দাবি রাখে। এতে ৬৫টি প্রবন্ধ রয়েছে, যা বইটিকে অত্যন্ত সমৃদ্ধ করেছে।

স্পিকার বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কখনো চাপের কাছে নতি স্বীকার করেননি, অন্যায়ের সঙ্গে আপষ করেননি। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা বাংলার মানুষকে গভীরভাবে ভালবাসেন, যা তার মূল শক্তির উৎস।

‘পদ্মা সেতুর বাস্তবায়ন দেশে বহুমাত্রিক অর্থনৈতিক সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করেছে। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জন্য এই সেতু অর্থনৈতিক লাইফলাইন। সাউথ এশিয়ান কানেক্টিভিটি, শিল্পায়ন, কৃষির অগ্রগতি ও জিডিপি প্রবৃদ্ধি ইত্যাদি সবক্ষেত্রেই পদ্মা সেতুর অবদান অনস্বীকার্য। দেশের সাধারণ মানুষ এ সেতুর দ্বারা সরাসরি উপকৃত হচ্ছে। তরুণ প্রজন্মের কাছে পদ্মা সেতু কেবল ইট-পাথরের সেতু নয়, কোটি কোটি বাঙালির আবেগ ও গৌরব।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে প্রকাশনা উৎসবে আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম ও মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



চিকিৎসক ছাড়াই চলছে লাউয়াছড়া রেসকিউ সেন্টার

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

মৌলভীবাজারের জাতীয় উদ্যান লাউয়াছড়ায় আহত ও অসুস্থ পশুপাখির সেবা এবং চিকিৎসার জন্য প্রতিষ্ঠিত ওয়াইল্ড লাইফ রেসকিউ সেন্টারটিতে ডাক্তার নেই দীর্ঘদিন থেকে। নেই প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জনবলও। মাত্র দুজন ওয়াইল্ড লাইফ স্কাউট সদস্য ও একজন ফরেস্টার দিয়েই চলছে পশুপাখির সেবা ও চিকিৎসা। অভিযোগ রয়েছে, উদ্ধার হওয়া পশুপাখি মারা গেলে চিকিৎসার অভাবে মাটি চাপা দিয়ে বলা হয় অবমুক্ত করা হয়েছে।

বন বিভাগের তথ্যমতে লাউয়াছড়া উদ্যানে রয়েছে ২৪৬ প্রজাতির পাখি, ৬ প্রজাতির সরীসৃপ প্রাণী, ৪ প্রজাতির উভয়চর, ১৬৭ প্রজাতির উদ্ভিদ ও ২০ প্রজাতির স্তন্যপায়ী প্রাণী।

এ বনের জীববৈচিত্র্য ধরে রাখতে ২০১৫ সালে জাতীয় উদ্যানের জানকি ছড়ায় স্টেদেনিং রিজিওনাল কো-অপারেশন ফর ওয়াইল্ড লাইফ প্রটেকশন প্রজেক্টের আওতায় নির্মাণ করা হয় রেসকিউ সেন্টার। এ সেন্টারে রয়েছে একটি পশুপাখি চিকিৎসা কেন্দ্র, দুটি বোর্ড ও ক্লোজারঘর।

jagonews24

শ্রীমঙ্গল বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক সীতেশ দেব জাগো নিউজকে বলেন, ‘নামেই রয়েছে রেসকিউ সেন্টার। এখানে চিকিৎসকের অভাবে সঠিকভাবে আহত ও অসুস্থ পশুপাখির চিকিৎসা হয় না। অনেক সময় পশুপাখি মারা গেলেও অবমুক্ত করা হয়েছে বলে চালিয়ে দেয় বনবিভাগ।’

পশুপাখি ও পরিবেশ প্রেমী শ্রীমঙ্গলের বাসিন্দা ইকবাল আহমদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘জানকি ছড়ায় রেসকিউ সেন্টার শুধু নামেই রয়েছে। এখানে লোকবলের অভাবে আহত ও অসুস্থ পশুপাখির তেমন সেবা দেওয়া হয় না।

বিভিন্ন সময় আহত পশুপাখি মরে যাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে ওয়াইল্ড লাইফ স্কাউট সদস্য ঋষি বড়ুয়া ও নাজমুল হোসেন বলেন, ‘ভেটেরিনারি সার্জন না থাকায় আমরা তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিতে পারি না। এ কারণে অনেক সময় পশুপাখি মারা যায়।’

jagonews24

মৌলভীবাজারের সহকারী বন সংরক্ষক শ‍্যামল কুমার মিত্র জাগো নিউজকে বলেন, ‘এখানে পশুপাখি ধরার জন্য ক্লিফার নেই। অনেক ঝুঁকি নিয়ে তাদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। চিকিৎসকসহ কম পক্ষে আটজন লোকবলের প্রয়োজন রয়েছে। বর্তমানে একজন ফরেস্টার ও দুজন স্কাউট সদস‍্য দিয়ে রেসকিউ সেন্টার চালানো হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত ছয় মাসে এখানে চিকিৎসা ও সেবা দিয়ে ১৯৭টি পশুপাখি অবমুক্ত করা হয়েছে।’


আরও খবর



বদলি-নিয়োগে টাকা চাইলে পুলিশে দিন: মাউশি ডিজি

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

পদোন্নতি, নিয়োগ, বদলিসহ বিভিন্ন কাজ করিয়ে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে কেউ শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে টাকা চাইলে তাকে পুলিশে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।

সোমবার (২ আগস্ট) রাতে এক গণবিজ্ঞপ্তিতে এ অনুরোধ জানিয়েছেন মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ।

এতে বলা হয়— সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, বিভিন্ন প্রতারকচক্র সরাসরি বা মাউশির ঢাকা ও তার অধীন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের নাম ভাঙিয়ে পদোন্নতি, নিয়োগ, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বদলিসহ বিভিন্ন কাজ করিয়ে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে স্কুল-কলেজসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ফোন করে, ই-মেইল, এসএমএস বা চিঠি পাঠিয়ে টাকা দাবি করছে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে তাদের পক্ষ থেকে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে ব্যক্তিগতভাবে ও মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছে মর্মে বিভিন্ন সূত্রে জানা যাচ্ছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর বাংলাদেশ, ঢাকার কোনো কাজে কোনো ধরনের আর্থিক লেনদেনের প্রয়োজন নেই। ঢাকা থেকে যেসব সেবা দেওয়া হয়ে থাকে, তার জন্য সুনির্দিষ্ট নীতিমালা রয়েছে এবং তার ভিত্তিতেই সেবা দেওয়া হয়ে থাকে।

এ সংক্রান্ত সব তথ্যাদি মাউশির ঢাকার ওয়েবসাইটে www.dshe.gov.bd নিয়মিতভাবে প্রকাশ করা হয়ে থাকে।

এমতাবস্থায় এ ধরনের প্রতারকচক্র বা মাউশির ঢাকার অধীন কোনো প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের নাম ব্যবহার করে ই-মেইল, এসএমএস ফোন এবং চিঠিপত্র কিংবা তাদের ব্যক্তিগত যোগাযোগের ভিত্তিতে কাউকে কোনো ধরনের প্রলোভনের ফাঁদে না জড়ানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করা হলো। কেউ কোনো ধরনের সুবিধা বা টাকা চাইলেই বুঝবেন যে এটা প্রতারণা। সঙ্গে সঙ্গেই এ ধরনের প্রতারকের ফোন নম্বর কাছের থানায় দিন এবং প্রতারকদের ধরে পুলিশে সোপর্দ করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।


আরও খবর



আগামী প্রজন্মকে শেখ কামালের আদর্শে গড়তে হবে: কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশিত:Friday ০৫ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ১৪জন দেখেছেন
Image

আগামী প্রজন্মকে শেখ কামালের আদর্শে গড়তে হবে জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী শেখ কামাল ছিলেন অত্যন্ত সৃজনশীল ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের উজ্জ্বল নক্ষত্র। শেখ কামাল ছিলেন অনন্য ক্রীড়া সংগঠক, যিনি নিজে খেলাধুলায় অংশ নিয়েছেন, আবার ক্রীড়া সংগঠন গড়ে তুলে খেলাধুলায় নতুন যুগের সূচনা করেছিলেন।

তিনি বলেন, একাধারে শেখ কামাল ছিলেন রাজনৈতিকভাবে সচেতন ও দেশপ্রেমিক। তিনি উনসত্তরের গণ-অভ্যুত্থান ও মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশ করেন। তার আদর্শ ও চেতনা আগামী প্রজন্মের ছেলে-মেয়েদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে পারলে বাংলাদেশ আরও উন্নত, বিকশিত ও সমৃদ্ধ হবে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে শুক্রবার (৫ আগস্ট) বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি মিলনায়তনে ‘শেখ কামাল: বহুমাত্রিক অনন্য প্রতিভাবান সংগঠক’ শীর্ষক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন মন্ত্রী। এ আলোচনাসভার আয়োজন করে আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটি।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমান প্রজন্মের ছেলে-মেয়েদের মধ্যে খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড কম পরিলক্ষিত হচ্ছে। ফুটবল খেলার মাঠে ফুটবল না খেলে দলবেঁধে বসে মোবাইল নিয়ে মগ্ন থাকে। দেশে যুবসমাজকে অবক্ষয়, অপসংস্কৃতি ও মোবাইল আসক্তি থেকে দূরে রাখতে শেখ কামালের আদর্শ চেতনাকে তরুণদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে।

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, শেখ কামাল বেঁচে থাকলে ক্যারিশমাটিক নেতায় পরিণত হতেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুপস্থিতিতে দেশকে সঠিক নেতৃত্ব দিতে সক্ষম হতেন।

বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান খন্দকার বজলুল হকের সভাপতিত্বে ও সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উপাচার্য অধ্যাপক মান্নান চৌধুরী, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মশিউর রহমান, কলাম লেখক সুভাষ সিংহ রায় প্রমুখ বক্তব্য দেন।


আরও খবর



জ্বালানির দাম বৃদ্ধিতে দুশ্চিন্তায় উবার-পাঠাও চালকরা

প্রকাশিত:Saturday ০৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | জন দেখেছেন
Image

তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় দুশ্চিন্তায় পড়েছেন রাইড শেয়ারিং মোটরসাইকেল চালকরা। শনিবার (৬ আগস্ট) রাজধানীর বেশ কয়েক জন পাঠাও-উবার চালকদের সঙ্গে কথা বললে তেলের দাম বাড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা।

রাজধানীর গুলশান-বাড্ডা লিংক রোড থেকে আগারগাঁও যাবেন সুজন মিয়া। দাঁড়িয়ে থাকা এক মোটরসাইকেল চালককে কত নিবেন জানতে চাইলে ১৮০ টাকা চান তিনি। পরে দেড়শো টাকা বললেও রাজি হোন না রাইড শেয়ারিং করা ওই মোটরসাইকেল চালক।

মো. সোহাগ নামে ওই চালক জাগো নিউজকে বলেন, আগের ভাড়াই ছিলো দেড়শো টাকা। আজকে ৪০ টাকা বেশি দিয়ে তেল কিনছি। ত্রিশ টাকা বেশি চাইছি। অথচ উনি আগের ভাড়াই বলছেন। এজন্য যাইনি। সকালে ২০০ টাকার তেল নিছি। একজনও যাত্রী পাইনাই। একটু বেশি চাই বলে অনেকেই রাগারাগি করে চলে যাচ্ছেন। আমার কি করার আছে।

মহাখালীর আমতলী মোড়ে দাঁড়িয়ে বেশ কিছু মোটরসাইকেল। এমন সময় এক নারী হঠাৎ রেগে উঠেন। ওই নারী বলেন, আগে ৮০ টাকা দিয়ে যাইতাম।

পরে রাগারাগির কারণ জানতে চাইলে মো. হাসান নামে এক পাঠাও চালক বলেন, মহাখালী থেকে উনি কারওয়ান বাজার ৮০ টাকা বলছে। আমি ১২০ টাকাও বলছি, তাও যাবে না।

Pathao-(2)

তেলের দাম বাড়াতে ক্ষোভ জানিয়ে হাসান বলেন, কিছু করার নাই। আমরা ভাড়া বেশি চাই বলে মানুষ রাগ করে। আবার কম নিলেও ইনকাম হয় না। কি আর করার, ইনকামও অর্ধেক হবে।

আরও এক রাইড শেয়ারিং চালক বলেন, অনেকেই এসে বলে অ্যাপসে যাবে। কিন্তু তেলের দাম বাড়ছে, অ্যাপ তো আপডেট করেনাই। এজন্য বিপদও হইছে। দরদাম করলেও যেতে রাজি হন না অনেকেই।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) রাত থেকেই কার্যকর হয়েছে সরকার ঘোষিত ডিজেল, পেট্রল, কেরোসিন, ও অকটেনের নতুন দাম। দাম বেড়েছে প্রতি লিটার ডিজেলে ৩৪, কেরোসিনে ৩৪, অকটেনে ৪৬, পেট্রলে ৪৪ টাকা। দাম বাড়ার পর প্রতি লিটার ডিজেল ১১৪ টাকা, কেরোসিন ১১৪ টাকা, অকটেন ১৩৫ টাকা ও প্রতি লিটার পেট্রল ১৩০ টাকায় কিনতে হবে। আগে ভোক্তা পর্যায়ে খুচরা মূল্য ছিল প্রতি লিটার ডিজেল ৮০ টাকা, কেরোসিন ৮০ টাকা, অকটেন ৮৯ টাকা ও পেট্রল ৮৬ টাকা।


আরও খবর