Logo
আজঃ শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪
শিরোনাম
কক্সবাজারে পাহাড় ধসে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু বন্ধ শিল্প প্রতিষ্ঠান চালুর পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে: শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশের হার দিয়ে সুপার এইট শুরু গোদাগাড়ীতে রাসেল ভাইপারের চিকিৎসার দাবিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর কাছে চিঠি দিয়েছে নাগরিক স্বার্থ-সংরক্ষণ কমিটি রূপগঞ্জে জমে উঠেছে কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন যাত্রাবাড়ীতে পুলিশ কর্মকর্তার বাবা মাকে কুপিয়ে হত্যা যানজট নিরসনে সংসদ সদস্যগণের সাথে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের সমন্বয়সভা ভোলায় ফের দেখা মিলল রাসেল ভাইপার, জনমনে আতঙ্ক বাজেট পাস হয়নি,অনেক কিছু পুনর্বিবেচনা করা সম্ভব: অর্থমন্ত্রী দেশের সব মহৎ অর্জন আ. লীগের মাধ্যমেই হয়েছে: ওবায়দুল কাদের

ঢাকায় সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে কলারোয়ায় মানববন্ধন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ নভেম্বর 2০২3 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৩০৫জন দেখেছেন

Image

কলারোয়া(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি:ঢাকায় সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে কলারোয়ায়  মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (১ নভেম্বর) বেলা ১২ টায় প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন-প্রেসক্লাবের আহবায়ক ইউপি চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক এম,এ কালাম। প্রেসক্লাবের যুগ্ম আহবায়ক প্রধান শিক্ষক রাশেদুল হাসান কামরুলের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন-প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শিক্ষক দীপক শেঠ, যুগ্ম আহবায়ক আব্দুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ জুলফিকারুজ্জামান জিল্লু, আ'লীগ নেতা কেরালকাতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান স,ম মোরশেদ আলী, এশিয়ান টিভির উপজেলা প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম লিটন, কেরালকাতা ইউনিয়ন আ'লীগের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান বাবু, হাসান মাসুদ পলাশ, আরিফ মাহমুদ, সাংবাদিক আসাদুজ্জামান নয়ন, হাসান মাসুদ পলাশ, সরদার জিল্লুর রহমান, কামরুজ্জামান, জুলিকার আলী, রাজু রায়হান, সরদার জিল্লুর, আতাউর রহমান, খোকা, আসাদুজ্জামান আসাদ, সেলিম খান, রাসেল, তরিকুল ইসলাম, নাজমুল, জাহাঙ্গীর হোসেন, দেলয়ার হোসেন, সহ অসংখ্য সংবাদকর্মীগণ। বক্তারা, বিএনপি'র ডাকা মহা সমাবেশে পেশাগত দায়িত্ব পালনে সন্ত্রাসী হামলার শিকার আহত সাংবাদিকদের সুস্থতা কামনা করে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের বিচারের আওতায় আনার জোর দাবী জানানো হয়। উল্লেখ্য-গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় বিএনপি'র ডাকা মহা সমাবেশে কর্তব্যরত সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে কলারোয়া প্রেসক্লাবের আয়োজনে ওই মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়।


আরও খবর



আদম তমিজিসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ মে 20২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:এবার চেক ডিজঅনারের মামলায় হক ফুড ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদম তমিজি হকসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন টাঙ্গাইলের আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর থানা আমলি আদালতের বিচারক মো. মাহমুদুল মোহসীন এই আদেশ দেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন– আদম তমিজি হকের স্ত্রী নুসরাত আক্তার হক, তার আরেক স্ত্রী লিজা আক্তার হক, হক ফুডের জিএম (ফিন্যান্স অ্যান্ড একাউন্টস) মো. রেজাউল করিম এবং সিনিয়র জিএম (বিডি অ্যান্ড লজিস্টিকস) মুশফাকুর রহমান।

বাদীপক্ষের আইনজীবী এম এ মালেক আদনান জানান, ঢাকার মাহবুব গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান কেবিসি এগ্রো প্রোডাক্টস (প্রা.) লিমিটেডের সঙ্গে হক ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবসা ছিল। ব্যবসায়িক লেনদেনে হক ফুড ১৯ লাখ ৪৫ হাজার ৩০০ টাকা বকেয়া করে। আসামিরা এ বকেয়া টাকা পরিশোধের জন্য কেবিসি কোম্পানিকে দুটি চেক দেন। কিন্তু চেক দুটি ব্যাংক কর্তৃক ডিসঅনার হয়। পরে কেবিসি কোম্পানির পক্ষে ইমরান হোসেন (ম্যানেজার রিকভারি) বাদী হয়ে ২০২৩ সালের ৭ ডিসেম্বর হক ফুডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদম তমিজি হকসহ পাঁচজনকে আসামি করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট টাঙ্গাইল সদর থানা আমলি আদালতে মামলা করেন।

তিনি আরও জানান, বিচারক মামলা আমলে নিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে সমনের আদেশ দেন। কিন্তু আসামিরা আদালতে হাজির না হওয়ায় বিচারক তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন। একইসঙ্গে আগামী ২১ আগস্ট মামলার পরবর্তী তারিখ ধার্য করা হয়েছে।


আরও খবর



সৈয়দপুর রানার্স এর লোগো ও জার্সি উন্মোচন

প্রকাশিত:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image
সৈয়দপুর,( নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর সৈয়দপুর রানার্স এর লোগো ও জার্সি উন্মোচন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১১ জুন) সন্ধ্যায় সৈয়দপুরের পার্শ্ববর্তী দিনাজপুরের পার্বতীপুরের বেলাইচন্ডী ইউনিয়নের সোনাপুকুর এলাকায় সৈয়দপুর রানার্স এর নিজস্ব কার্যালয়ে ওই লোগো ও জার্সি উন্মোচন করা হয়।এতে সম্মানিত অতিথি (গেস্ট অন অনার) হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক এম আর আলম ঝন্টু, দৈনিক মানবজমিনের সৈয়দপুর উপজেলা প্রতিনিধি এম এ করিম মিস্টার, দৈনিক কালের কন্ঠ পত্রিকার সৈয়দপুর উপজেলা প্রতিনিধি

তোফাজ্জল হোসেন লুতু এবং দৈনিক আজকের পত্রিকার সৈয়দপুর উপজেলা প্রতিনিধি রেজা মাহমুদ।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সৈয়দপুর রানার্স এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি বিশিষ্ট চক্ষু বিশেষজ্ঞ ও সার্জন ডা. কামরুল হাসান সোহেল।অন্যান্যদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন সৈয়দপুর রানার্স এর সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, সদস্য মো. মুজাহিদ হোসেন, সাদেকুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম খান, মো. জাহাঙ্গীর আরিফ প্রমুখ।

পরে অতিথিরা  জার্সি ও ম্যারাথনের লোগো উন্মোচন করেন। শেষে সৈয়দপুর রানার্স এর  সকল সদস্যদের হাতে জার্সি তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানের সম্মানিত অতিথিরা রানার্স সদস্যদের হাতে জার্সি তুলে দেন। অনুষ্ঠানে সৈয়দপুর রানার্স এর অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি ডা. কামরুল হাসান সোহেল বলেন, স্বাস্থ্য সুস্থ ও সবল রাখতে হাঁটা কিংবা দৌঁড়ের কোন বিকল্প নেই। তাই আমরা নিজেদের সুস্বাস্থ্যের জন্য প্রতিনিয়ত দৌঁড়াচ্ছি। সেই সঙ্গে অন্যদেরও দৌঁড়ে উদ্ধুদ্ধ তথা আগ্রহী করতে আমাদের এ প্রয়াস।

তিনি আরো বরেন, সৈয়দপুর রানার্স সংগঠনটি চলতি বছরের আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয়বারের মতো সৈয়দপুরে এক বিশাল মিনি ম্যারাথন দৌঁড়ের আয়োজন করতে যাচ্ছে। এতে  দেশ ও বিদেশের প্রায় সাড়ে ৫শ’ থেকে ছয় শত দৌঁড়বিদ অংশ নেবেন। তাই এখন থেকেই ওই মিনি ম্যারাথন দৌঁড়ের সার্বিক প্রস্তুতি চলছে। আশা করি অনুষ্ঠিতব্য মিনি ম্যারাথন দৌঁড় আয়োজনটি আমরা সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে পারবো। আর এ জন্য তিনি প্রশাসন,জনপ্রতিনিধি ও মিডিয়াসহ সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

আরও খবর



সৈয়দপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের অবস্থান কর্মসূচি পালিত

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image
সৈয়দপুর (নীলফামারী ) প্রতিনিধি:কুখ্যাত রাজাকর নঈম খান ওরফে নঈম গুন্ডাকে এক মামলায় স্বাধীনতার পক্ষের ব্যক্তি উল্লেখ করে আদালতে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদে নীলফামারীর সৈয়দপুরে মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের উদ্যোগে ওই প্রতিবেদন দাখিলকারী পুলিশ কর্মকর্তার অপসারনের দাবিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়। রোববার (৯ জুন) দুপুরে সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে পালন করা হয়।

এদিন দুপুরে মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সদস্যরা অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন। প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপী চলা এ অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মির্জা সালাউদ্দিন বেগ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইউনুস আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুল হক সরকার, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান শাহনাজ পারভীন, মাহফুজা আক্তার, মো: মিজানুর, বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী রোকেয়া ও আলম আরা প্রমুখ।
 
বক্তারা বলেন, কুখ্যাত রাজাকার নঈম খান ওরফে নঈম গুন্ডা একজন চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধী। ওই ব্যক্তি মুক্তিযুদ্ধের সময় বাঙ্গালী নিধন, ধর্ষণ, বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের সঙ্গে জড়িত। অথচ স্বাধীনতার ৫৩ বছর পর সম্প্রতি রংপুর সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে দায়ের করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদনে রাজাকার নঈম খানকে স্বাধীনতার স্বপক্ষে ব্যক্তি বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এই ইতিহাস বিকৃতি প্রতিবেদনটি আদালতে দাখিল করেছেন পুলিশ কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক রেজাউল করিম। বক্তারা ওই প্রতিবেদন দাখিলকারী পুলিশ কর্মকর্তার অবিলম্বে অপসারণ ও শাস্তির দাবি জানান। পরে অবস্থান কর্মসূচি শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-ই-আলম সিদ্দিকীর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি স্মারকলিপি তুলে দেওয়া হয়। স্মারকলিপিতে ওই পুলিশ কর্মকর্তার ইতিহাস বিকৃতির অপকর্ম তুলে তার অপসারণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে।

আরও খবর



বেনাপোলে কাস্টমস কর্মকর্তার উপর হামলা, রক্তাক্ত জখম

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০24 | ৫৯জন দেখেছেন

Image

ইয়ানূর রহমান শার্শা,যশোর প্রতিনিধি:বেনাপোলে কাস্টমস ইন্সপেক্টরের উপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা রাফিউল ইসলাম নামে একজন কাস্টমস কর্মতাকর্তাকে কুপিয়ে জখম করেছে। শুক্রবার রাত সোয়া ৮টার দিকে স্থানীয় পেচোর বাওড়ে এই ঘটনাটি ঘটেছে। তিনি যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

রাফিউল ইসলামের বন্ধু সোহরাব হোসেন জানান, প্রচন্ড গরমে তারা দুজন পেচোর বাওড়ে ঘুরতে যান। হঠাৎ করেই একদল সন্ত্রাসী এসে পেছেন থেকে তাদের উপর হামলা চালায়। এসময় তারা জানতে চান কেনো তাদের উপর হামলা করা হচ্ছে। জবাবে সন্ত্রাসীরা বলেন, 'এই ব্যাটার জন্যে অনেক ক্ষতি হয়েছে।' এই বলে সন্ত্রাসীরা একের পর এক ছুরি দিয়ে তার আঘাত করতে থাকে। এ সময় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন।

পরে সন্ত্রাসীরা দ্রুত এলাকা ত্যাগ করলে বন্ধু সোহরাব স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহত কাস্টমস কর্মকর্তাকে শোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান।গুরুতর আহত রাফিউল ইসলাম জানিয়েছেন, তার কারও সাথে ওই এলাকায় কোনো শত্রুতা নেই। তবে, পেশাগত কারণে কেউ তার উপর ক্ষুব্ধ থাকতে পারে। হামলাকারীদের কাউকে তিনি চিনতে পারেননি।

খবর পেয়ে যশোর জেনারেল হাসপাতালে যান বেনাপোল কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার শাফায়েত হোসেন। তিনি জানান, আহত রাফিউল ইসলাম অত্যন্ত সৎ মানুষ হিসেবে পরিচিত। পেশাগত কারণে হয়তো তিনি কোনো অসৎ ব্যবসায়ীর রোষানলে পড়তে পারেন।তাছাড়া, তার কোনো শত্রু ছিলো বলে তাদের জানা নেই।তিনি আরো বলেন, ঘটনাটি থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে। কাস্টমসের পক্ষ থেকেও ঘটনার অভ্যন্তরীণ তদন্ত করা হতে পারে বলেও তিনি জানান।


আরও খবর



ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কিনে বাইক জিতলেন গাজীপুরের রাসেল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image

নিউজ ডেস্ক:ঈদের আগেই ইনফিনিক্সের স্মার্টফোন কিনে প্রথম বাইক জিতে নিয়েছেন গাজীপুরের ক্রেতা রাসেল আহমেদ। ‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইনটিতে ইনফিনিক্স নোট ৩০ স্মার্টফোনটি কিনে এক্সক্লুসিভ বাইকটি জেতেন তিনি।

ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কেনার পর নিয়ম অনুযায়ী এসএমএস করেন রাসেল, ফিরতি মেসেজে জানানো হয় তিনি পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। গাজীপুরের মাওনায় অবস্থিত ইনফিনিক্স শপ ‘মাসুম টেলিকম’ থেকে নোট ৩০ ফোনটি কেনেন রাসেল।

দীর্ঘদিন ধরেই রাসেল ইনফিনিক্স স্মার্টফোনের ভক্ত বলে জানান। নোট ৩০ ডিভাইসটি কেনার আগেও তিনি কল্পনা করেননি পুরস্কার হিসেবে বাইক পাবেন। তিনি জানান, ‘মেসেজ পাওয়ার পর আমি বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না। ফিচার আর সাশ্রয়ী দামের জন্য ইনফিনিক্স ফোন আমার সবসময়ই পছন্দের। সেই ফোন কিনে একটা বাইক জিতেছি এটা আমার কাছে অত্যন্ত আনন্দের।’

২৫ জুন পর্যন্ত ইনফিনিক্স ‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইন চলবে। এই সময়ের মধ্যে নির্দিষ্ট ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কিনে ভাগ্যবান ক্রেতারা বাইক, কক্সবাজার ভ্রমণ প্যাকেজ, ১০০ থেকে ৫,০০০ টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত ক্যাশব্যাক পাবেন। এ ছাড়া নেকব্যান্ড, টিশার্ট ও ছাতার মতো নিশ্চিত উপহারও পাবেন ক্রেতারা।

ইনফিনিক্সের উদ্দেশ্য, ক্যাম্পেইনটির মাধ্যমে ক্রেতাদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়া। এর আওতায় নোট ৩০ ও ৪০ সিরিজ, হট ৩০ সিরিজ, হট ৪০ সিরিজ এবং স্মার্ট ৮ সিরিজসহ নির্দিষ্ট স্মার্টফোন কিনে এসব পুরস্কার জেতার সুযোগ থাকছে।

রাসেলের এই আনন্দ উল্লাস সব ক্রেতার মাঝে দেখতে চায় ইনফিনিক্স। উন্নত মানের ও স্টাইলিশ ফোনের পাশাপাশি ক্রেতাদের অবিস্মরণীয় অভিজ্ঞতা ও মূল্যবান উপহারও দিয়ে আসছে কোম্পানিটি। এভাবেই তাদের বিশ্বাস ও উৎসাহকে অনুপ্রাণিত করছে ইনফিনিক্স।

‘ঈদ বোনানজা’ ক্যাম্পেইন চলাকালীন অন্যান্য ভোক্তারাও তাদের ঈদকে স্মরণীয় করে তুলতে পারেন। এজন্য ক্রেতাকে যেকোনো অফিশিয়াল রিটেইলার স্টোর থেকে স্মার্টফোন কিনতে হবে।

সাশ্রয়ী মূল্যে গ্রাহকদের হাতে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি তুলে দিতে ইনফিনিক্স দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। ফলে তরুণ প্রযুক্তিপ্রেমীদের মাঝে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ব্র্যান্ডটি।


আরও খবর