Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

ঢাবি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের নতুন কমিটি

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ১৩০জন দেখেছেন
Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ২০২২-২৫ মেয়াদের জন্য ৪৩ সদস্যবিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটির সভাপতি হয়েছেন আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী (পারভেজ) এবং মহাসচিব হয়েছেন মোল্লা মো. আবু কাওছার।

শনিবার (৪ জুন) সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে অ্যাসোসিয়েশনের বার্ষিক সাধারণ সভায় এই কমিটি ঘোষণা করা হয়।

কমিটিতে সিনিয়র সহ-সভাপতি হয়েছেন শাইখ সিরাজ, সহ-সভাপতি সেলিনা খাতুন, মো. নূর আলী এবং আশরাফুল হক মুকুল। কোষাধ্যক্ষ হয়েছেন মাহবুব হোসাইন। যুগ্ম মহাসচিব হয়েছেন সুভাষ চন্দ্র সিংহ রায় এবং এ. কে. এম. আফজালুর রহমান বাবু।

সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ, সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক জহুরা বেগম, পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক মো. আব্দুর রহিম, প্রচার ও প্রচারণা সম্পাদক কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন এবং সাংস্কৃতিক সম্পাদক ফেরদৌস আহমেদ।

দপ্তর সম্পাদক শরীফুর রহমান, আইন সম্পাদক ড. মো. শাহজাহান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মো. সেলিম জাহান, বিনোদন সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিন মাহমুদ এবং আন্তর্জাতিক যোগাযোগ সম্পাদক তাপস চন্দ্র পাল।

কার্যনির্বাহী সদস্য- দেওয়ান রাশিদুল হাসান, বেনজির আহমেদ, অ্যারোমা দত্ত, আফজাল হোসাইন, শামসুজ্জামান দুদু, মাহবুবুর রহমান, মো. নাসের শাহরিয়ার জাহিদি, মো. আতাউর রহমান প্রধান, ড. মো. আবদুল কাইয়ুম লস্কর, মাহফুজা রহমান চৌধুরী বাবলী, মো. শহীদুল ইসলাম নীরু, মো. আল-মামুন, ইয়াসমীন সুলতানা খুকু, নাজিবুল ইসলাম দীপু, সালেহা খাতুন স্নিগ্ধা, মাহমুদা সুলতানা হেলেন, মো. মাহফুজুর রহমান আল মামুন, সাহেলা ফারজানা, নাদিরা কিরণ, অনুপম রায়, ড. নাঈমা খানম এবং শিখা বোস।

এর আগে, বিকেলে বার্ষিক সাধারণ সভা শুরু হয়। অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ. কে. আজাদের সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম মহাসচিব আশরাফুল হক মুকুলের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য আখতারুজ্জামান বলেন, অ্যালাইমনাই শুধু অর্থ দেয় অথবা অবকাঠামো নির্মাণ করে তা নয়। এভাবেই যে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নে ভূমিকা রাখে তা নয়। অনন্য সাধারণ যে ভূমিকা তারা রাখে সেটি হচ্ছে রেপুটেশন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনন্য সাধারণ মর্যাদা তার পেছনে এলাইমনাইদের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে। যে যেখানে কাজ করছেন দেশে বিদেশে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে তাদের মর্যাদা, মোরাল ইন্টিগ্রিটি, বিজনেস ইথিকস খুবই উঁচু। যেটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্ব র‍্যাংকিংয়ে, সম্মানে, মর্যাদায় শক্তিশালী প্যারামিটার হিসেবে ভূমিকা রাখে।

অনুষ্ঠানে গত ২০১৯ সালের ২৭ এপ্রিল অনুষ্ঠিত বার্ষিক সাধারণ সভার কার্যবিবরণী পাঠ করেন সাংগঠনিক সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু। কমিটির তিন বছরের কার্যবিবরণী উপস্থাপন করেন মহাসচিব রঞ্জন কর্মকার এবং আয়-ব্যয়ের বিবরণী তুলে ধরেন কোষাধ্যক্ষ দেওয়ান রাশিদুল হাসান।

সভা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।


আরও খবর



গুলশানে প্লট বরাদ্দ: জামিন হলেও মুক্তি মিলছে না কুতুবের

প্রকাশিত:Monday ১৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০১ August ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
Image

ভুয়া আমমোক্তারের মাধ্যমে শ্বশুর ও আত্মীয়-স্বজনদের নামে প্লট বরাদ্দ দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ভূমি মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রশাসনিক কর্মকর্তা কুতুব উদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে। এ মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয় তাকে। সবশেষ কুতুব উদ্দিনকে হাইকোর্ট জামিন দিলেও মুক্তি দিতে পারবে না জেল কর্তৃপক্ষ।

ফলে আপাতত তাকে কারাগারেই থাকতে হচ্ছে। কারণ আপিল আবেদনটি শুনানি ও নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগার থেকে মুক্তি না দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন চেম্বারজজ আদালত।

বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান।

জামিন বাতিল চেয়ে দুদকের আবেদন শুনানি নিয়ে সোমবার (১৮ জুলাই) আপিল বিভাগের বিচারপতি কৃষ্ণাদেব নাথের চেম্বারজজ আদালত এই আদেশ দেন।

আদালতে আজ দুদকের পক্ষে শুনানি করেন সংস্থাটির জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান।

এর আগে গত ১৪ জুলাই তার জামিন মঞ্জুর করেছিলেন হাইকোর্ট। তবে সেই জামিন বাতিলের বিষয়ে আপিল করে দুদক। ওই আবেদনের ওপর আজ শুনানি শেষ না করে এই আদেশ দেন।

এর আগে ভুয়া আমমোক্তারনামার মাধ্যমে গুলশানে ১০ কাঠার প্লট বরাদ্দের মামলায় কুতুব উদ্দিনকে ছয় মাসের জামিন দেন হাইকোর্ট। ওইদিন হাইকোর্টের বিচারপতি মো. আক্তারুজ্জামানের একক বেঞ্চ তার জামিন মঞ্জুর করেন।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কুতুব উদ্দিন আহমেদকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত। এরপর গত ১৫ মার্চ নিম্ন আদালতে সাজার বিরুদ্ধে কুতুবের আপিল শুনানির জন্য নেন হাইকোর্ট।

২০১৮ সালের ৮ এপ্রিল কুতুব উদ্দিনকে গ্রেফতার করে দুদকের উপ-পরিচালক মির্জা জাহিদুল আলমের নেতৃত্বাধীন একটি দল। এর আগে গুলশান থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা করেন মির্জা জাহিদুল আলম।

কুতুব উদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি সরকারি কর্মকর্তা হওয়া সত্ত্বেও ভুয়া আমমোক্তারনামার মাধ্যমে গুলশানে ১০ কাঠার একটি প্লট তার শ্বশুরসহ কয়েকজনের নামে বরাদ্দ করেন। শ্বশুর ও স্বজনদের নামে গুলশান অভিজাত এলাকায় সরকারি ১০ কাঠা জমি ক্রয় দেখিয়ে নিজেই বসবাস করেন।

ওই মামলায় কুতুবের সঙ্গে নাজমুল ইসলাম সাঈদকেও আসামি করা হয়। একই বছরের ১২ এপ্রিল কুতুবকে বরখাস্ত করে আদেশ জারি করে ভূমি মন্ত্রণালয়।


আরও খবর



কোম্পানীগঞ্জে আইনশৃঙ্খলা সভায় দুই চেয়ারম্যানের হট্টগোল

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় দুই ইউপি চেয়ারম্যানের মধ্যে বাগবিতণ্ডার জেরে হট্টগোলের ঘটনা ঘটেছে। এদের একজন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ভাগনে রামপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজিস সালেকীন রিমন ও অন্যজন মেয়র কাদের মির্জার অনুসারী মুছাপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী।

রোববার (৩১ জুলাই) দুপুরে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে মাসিক আইনশৃঙ্খলা সভা চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।

এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেজবা উল আলম ভূঁইয়া, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাদেকুর রহমান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আজম পাশা চৌধুরী রুমেলসহ সব ইউপি চেয়ারম্যান ও সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় উপস্থিত একাধিক ব্যক্তি জানান, মুছাপুরের চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী কর্তৃক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ফেসবুকে ‘কটূক্তি’ এবং ছোটফেনী নদী থেকে বালু উত্তোলন নিয়ে প্রতিবাদ করেন রামপুরের চেয়ারম্যান সিরাজিস সালেকীন রিমন। এসময় উভয়ের মধ্যে কথা বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ ও উপজেলা চেয়ারম্যান গিয়ে তাদের গণ্ডগোল থামান।

রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজিস সালেকীন রিমন বলেন, আমি কারও নাম উচ্চারণ না করে সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলার একপর্যায়ে মুছাপুরের চেয়ারম্যান উচ্চবাচ্য করলে আমি সেটার কাউন্টার দিয়েছি।

মুছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলী জাগো নিউজকে বলেন, আমাদের মধ্যে যে ভুলবোঝাবুঝি হয়েছে তা মীমাংসা করে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, এ ঘটনার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। এতে দেখা যায়, মুছাপুরের চেয়ারম্যান মো. আইয়ুব আলীর সঙ্গে অন্য ইউপি চেয়ারম্যানরা তর্কে জড়িয়ে কথা কাটাকাটি করছেন। এসময় রামপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজিস সালেকীন রিমন বারবার তার দিকে তেড়ে যেতে থাকেন। থানার কনস্টেবল রিফাত তাকে নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শাহাব উদ্দিন উঠে এসে দুইজনকে দুইদিকে সরিয়ে দেন।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, মুছাপুরে বালু উত্তোলন নিয়ে দুই চেয়ারম্যানের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়েছে। পরে আমি উপস্থিত হয়ে তা মীমাংসা করে দিয়েছি এবং আমার কার্যালয়ে ডেকে দুইজনেক মিলমিশ করে দিয়েছি।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মেজবা উল আলম চৌধুরী বলেন, বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলার একপর্যায়ে দুই চেয়ারম্যান উত্তেজিত হয়ে গিয়েছিলেন। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যানসহ আমরা তা নিয়ন্ত্রণ করি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সভা শেষে উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন উপজেলার আট ইউপি চেয়ারম্যানসহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে নিয়ে তার কার্যালয়ে সমঝোতা বৈঠক করে ওই দুজনের মধ্যে ভুলবোঝাবুঝির মীমাংসা করে দেন। পরে তিনি সবাইকে মিষ্টি মুখ করান।


আরও খবর



কানাডায় মূল্যস্ফীতি বেড়ে কয়েক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ০৪ August ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

করোনা মহামারির পর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকে কেন্দ্র করে দেশে দেশে মূল্যস্ফীতি বেড়েই চলেছে। প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়ে হয়েছে আকাশচুম্বী। এতে অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে মানুষের জীবনযাত্রার ব্যয়। এরই ধারাবাহিকতায় কানাডায়ও মূল্যস্ফীতি বেড়ে কয়েক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ হয়েছে। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে মূল্যস্ফীতি বেড়ে ৪০ বছরের মধ্যে বেশি হয়। কানাডার সংবাদমাধ্যম দ্য গ্লোব অ্যান্ড মেইলের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

কানাডার পরিসংখ্যান বিভাগ জানিয়েছে, চলতি বছরের জুনে ভোক্তা মূল্যসূচক বেড়ে আট দশমিক এক শতাংশে দাঁড়িয়েছে। মে মাসে মূল্যস্ফীতির এই হার ছিল সাত দশমিক সাত শতাংশ। ১৯৮৩ সালের পর এটাই কানাডার মূল্যস্ফীতিতে বড় পরিবর্তন।

জানা গেছে, পেট্রোলের দাম বাড়ার কারণেই জুনের মূল্যস্ফীতি বেড়ে আকাশচুম্বী হয়েছে।

পরিসংখ্যান বিভাগটি জানায়, প্রতি ঘণ্টায় মজুরি মূল্যস্ফীতির সঙ্গে তাল মেলাতে ব্যর্থ হয়েছে। তাছাড়া গত বছরের একই সময়ে মূল্যস্ফীতির হার ছিল পাঁচ দশমিক দুই শতাংশ।

তবে কানাডার মূল্যস্ফীতি প্রায় ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ হলেও এখনো যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে কিছুটা কম। কারণ যুক্তরাষ্ট্রের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে নয় দশমিক এক শতাংশে, যা ১৯৮১ সালের পর সর্বোচ্চ। এদিকে যুক্তরাজ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে নয় দশমিক চার শতাংশে, যা ১৯৮২ সালের পর সর্বোচ্চ।


আরও খবর



মাঝে মধ্যে বিদ্যুৎ এসে জানায় এখনো মরি নাই: গয়েশ্বর

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০২ August 2০২2 | ১৮জন দেখেছেন
Image

বিদ্যুৎ উৎপাদনের শ্বেতপত্র প্রকাশের আহ্বান জানিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, এখন বিদ্যুৎ যায় না, মাঝে মধ্যে আসে। বিদ্যুৎ বলে আমি জীবিত আছি এখনো মরি নাই।

তিনি বলেন, এই সরকারের উন্নতি শেষ পর্যন্ত ঘরে ঘরে মোমবাতি। এই সরকার ঘরে ঘরে জনগণের হাতে হারিকেন ধরিয়ে দিয়েছে। বিদ্যুৎ নাই তাহলে বিদ্যুৎ উৎপাদনের নামে টাকা গেল কোথায়? বিদ্যুতের জন্য যে টাকা ব্যাংক থেকে ঋণ করা হয়েছে, লুট করা হয়েছে- এর দায়ভার তো জনগণকে পরিশোধ করতে হবে। প্রশ্ন হচ্ছে বিদ্যুৎ পাবো না তাহলে আমরা সেই ঋণ পরিশোধ করবো কেন?

বুধবার (২৭ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক স্মরণ সভায় এসব কথা বলেন তিনি। স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, যে সব কোম্পানিকে কুইক রেন্টাল বেসিসে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য নিয়োগ দিয়েছেন তাদেরকে ব্যাংক থেকে কত টাকা ঋণ দিয়েছেন? তাদের কত বিদ্যুৎ উৎপাদন করার কথা ছিল, কতটুকু তারা করতে পেরেছে, কতটুকু সরকারের কাছে হস্তান্তর করেছে- তার শ্বেতপত্র প্রকাশ করতে হবে। জনগণের সেই হিসাব চাওয়ার অধিকার আছে।

নির্বাচন কমিশন ও প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) তীব্র সমালোচনা করে গয়েশ্বর বলেন, নির্বাচন কমিশন এখন ঠাট্টা-মশকরা করার জায়গা। সকালে এক কথা বিকেলে আরেক কথা বলে সাবেক নির্বাচন কমিশনার নূরুল হুদাকে এরইমধ্যে হার মানিয়ে দিয়েছেন বর্তমান সিইসি। যার কাজ সে করবে, সিইসি এতো কথা বলেন কেন?

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, কে নির্বাচনে আসবে কে আসবে না- তাতে কিছু আসে যায় না। এতো দায়িত্ব আপনাদের (নির্বাচন কমিশন) দেয় নাই । হু আর ইউ? তুমি কে এই কথা বলার। রাজনৈতিক সমস্যার মীমাংসা হবে রাজনৈতিকভাবে। সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন- সরকার চিন্তা করবে কীভাবে তারা জনগণের সঙ্গে মীমাংসা করবে। কীভাবে জনগণের পথ ফেরত দেবে সেই বিষয়। এই কাজ ঠুঁটো জগন্নাথ নির্বাচন কমিশনের নয়। আমি আশা করবো নো টক (কোনো কথা নয়)।

তিনি বলেন, যতদিন দায়িত্বে আছেন চুপচাপ বসে থাকেন, বেতন ভাতা খান। নির্বাচন, রাজনীতি ও রাজনৈতিক দল, গণতন্ত্র নিয়ে ছবক দেওয়ার অধিকার সাংবিধানিক এই পদে বসে আপনাকে কেউ দেয় নাই। আশা করি বাংলা কথাটা বুঝতে আপনার কষ্ট হবে না। আমরা যা করবো রাজপথে ফয়সালা করবো, যা বলেছি, শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রেখে নির্বাচনে যাবো না।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন তার বাড়ি ঘেরাও করতে গেলে তিনি ছাদে আপ্যায়ন করাবেন। আপনার বাড়ি যদি কখনো কেউ ঘেরাও করতে যায় চায়ের জন্য যতটুকু পানি প্রয়োজন ততটুকু মজুত আছে তো? নাই। চায়ের দাওয়াতের জন্য নয়, যদি এদেশের জনগণ কখনো গণভবন ঘেরাও করতে যায় তাহলে আপনার জিনিসপত্র গুছিয়ে গাড়িতে তুলে দিতে যাবে।

তিনি বলেন, গতকাল ওবায়দুল কাদের বলেছেন খালেদা জিয়াকে ‘টুস করে ফেলে দেওয়া’ এটা একান্তই মশকরা। অর্থাৎ শেখ হাসিনা ঠাট্টা করতেও জানেন। ঠাট্টা খালেদা জিয়ার সঙ্গে করেন, কিন্তু জাতির সঙ্গে যেটা মশকরা শুরু করেছেন ১৪ বছর ধরে- এর হিসাব একদিন না একদিন জনগণের কাছে দিতেই হবে।

অর্থমন্ত্রীকে আদম ব্যাপারি আখ্যা দিয়ে গয়েশ্বর বলেন, উনি বলেন আইএমএফের কাছে টাকা চাওয়া হয়নি। পত্রিকায় দেখলাম ভিতরে ভিতরে আবার তাদের কাছে টাকা চাওয়া হয়েছে। আর আইএমএফ বলেছে আপনারা কোন খাতে কত টাকা ব্যয় করেছেন তার একটা হিসাব দেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন ইস্যুতে বিএনপির অবস্থান হচ্ছে জনগণের ভোট জনগণ দেবে, যাকে খুশি তাকে দেবে, দিনের ভোট দিনে দেবে। ভোটকেন্দ্রে গিয়ে নিরাপদে ভোট দেবে। একটা ফয়সালা করতে হবে রাজপথে। এর জন্য আমাদেরকে সেভাবেই এগোতে হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান। আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, বিশেষ সম্পাদক ডক্টর আসাদুজ্জামান রিপন, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, ঢাকা মহানগর বিএনপি নেতা হাবিবুর রশিদ হাবিব প্রমুখ।


আরও খবর



মিলছে না কাঙ্ক্ষিত অনুদান, রাজস্ব আয়ই ভরসা ঢাকার দুই সিটির

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

# পর্যাপ্ত সরকারি-বিদেশি অনুদান না পাওয়ায় বাজেটের দুই-তৃতীয়াংশই বাস্তবায়ন করতে পারছে না ডিএসসিসি ও ডিএনসিসি।
# ১২টি সিটি করপোরেশনকে নিজের আয়ে চলার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর। ফলে রাজস্ব আয়ে গুরুত্ব দিচ্ছে তারা।
# কিছু অনুদান পাওয়ার আশায় নতুন বাজেটে আগের মতোই সরকারি ও বৈদেশিক উৎস থেকে আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরে রেখেছে ঢাকার দুই সিটি।

সরকারি ও বিদেশি উৎস থেকে পর্যাপ্ত অনুদান পাচ্ছে না ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন। এতে সংস্থা দুটি তাদের বাজেটের দুই-তৃতীয়াংশই বাস্তবায়ন করতে পারছে না। এমন অবস্থায় রাজস্ব আয়ে গুরুত্ব দিচ্ছে তারা।

২০২১-২২ অর্থবছরে ৬ হাজার ৫৯৩ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করেছিল ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)। এর মধ্যে সরকারি ও বৈদেশিক উৎস থেকে আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৪ হাজার ৮২৯ কোটি ২৩ লাখা টাকা। অথচ এই খাতে সংস্থাটি মাত্র ৫২৭ কোটি ৩০ লাখ টাকা পেয়েছে। একই অর্থবছরে ৪ হাজার ৮০৬ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করেছিল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। এর মধ্যে সরকারি ও বৈদেশিক উৎস থেকে আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৩ হাজার ৪৯ কোটি টাকা। আয় হয়েছে মাত্র এক হাজার ২৪০ কোটি টাকা।

ডিএসসিসি ও ডিএনসিসির হিসাব বিভাগের সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনা মহামারি এবং পরে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে দেশে অর্থনৈতিক সংকট দেখা দেয়। এর ফলে অনেক বড় বড় প্রকল্পের কাজ বন্ধ হয়েছে গেছে। নতুন করে তেমন কোনো বড় প্রকল্পের অনুমোদন দিচ্ছে না সরকার। কয়েক মাস আগে ঢাকার দুই সিটিসহ দেশের ১২টি সিটি করপোরেশনকে নিজের আয়ে চলার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এমন পরিস্থিতিতে রাজস্ব আয়ে গুরুত্ব দিচ্ছে ডিএনসিসি ও ডিএসসিসি। তবে কিছু অনুদান পাওয়ার আশায় আগের মতোই ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে সরকারি ও বৈদেশিক উৎস থেকে আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরে রেখেছে সংস্থা দুটি।

২০২০ সালের মে মাসে ডিএসসিসিতে শেখ ফজলে নূর তাপস ও ডিএনসিসিতে আতিকুল ইসলাম মেয়র পদে নির্বাচিত হন। তখন করোনা মহামারির কারণে সারা দেশ টানা লকডাউনে ছিল। এর মাস দুয়েক পর ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা করে ডিএসসিসি ও ডিএনসিসি। কিন্তু এই বাজেটের চার ভাগের এক ভাগও বাস্তবায়ন করতে পারেনি ডিএসসিসি। ডিএনসিসিও দুই-তৃতীয়াংশ বাস্তবায়ন করতে পারেনি। সরকারি এবং বিদেশি অনুদান না পাওয়ায় এই বাজেট বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত ১৯ এপ্রিল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণসহ দেশের ১২টি সিটি করপোরেশনকে নিজের আয়ে চলার নির্দেশ  দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সিটি করপোরেশনগুলো প্রায় অনুদাননির্ভর। প্রধানমন্ত্রী তাদের নিজেদের আয়ে চলতে ও আয় বুঝে ব্যয় করতে বলেছেন। আমরা আর সিটি করপোরেশনগুলোকে টানবো না।

রাজস্ব আয় বাড়াতে দুই সিটির উদ্যোগ
ডিএসসিসি ও ডিএনসিসির হিসাব বিভাগ সূত্র জানায়, সিটি করপোরেশন কর (হোল্ডিং, পরিচ্ছন্ন ও লাইটিং), বাজার সালামি, ট্রেড লাইসেন্স, স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তর কর, বাজার ভাড়া, কোরবানির পশুর হাট ইজারা, রাস্তা খোঁড়া ফি, গাড়ি পার্কিং, কমিউনিটি সেন্টার ভাড়াসহ বিভিন্ন খাত থেকে রাজস্ব আদায় করে। এ ছাড়া সরকারের অন্যান্য খাত থেকেও করপোরেশনের রাজস্ব আয় হয়।

এসব খাতে ২০২০-২১ অর্থবছরে ৭০৩ কোটি ও ২০২১-২২ অর্থবছরে ৮৭৯ কোটি টাকা আয় করেছে ডিএসসিসি। এখন ২০২২-২৩ অর্থবছরে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে এক হাজার ২০৮ কোটি টাকা। গত ২৬ জুলাই ডিএসসিসির নগর ভবনে করপোরেশন সভায় এই বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয় 

বাজেট অনুমোদনের সময় ডিএসসিসি মেয়র বলেন, সর্বকালের ইতিহাস ভঙ্গ করে বিগত অর্থবছরে আমরা ৮৭৯ কোটিরও বেশি রাজস্ব আহরণ করেছি। আমরা মাত্র দুই বছরের মধ্যে একটি ভঙ্গুর করপোরেশনকে ঢাকাবাসীর আস্থার করপোরেশনে পরিণত করেছি।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) বেলা ১১টায় ডিএসসিসির নগর ভবনে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বাজেট ঘোষণা করবেন মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস । আজ (বুধবার) বিকেলে গণমাধ্যমে এই তথ্য জানিয়েছেন সংস্থাটির জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের।

এদিকে, গত ২৮ জুলাই ডিএনসিসির নগর ভবনে অনুষ্ঠিত করপোরেশন সভায় ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট অনুমোদ  দেয় সংস্থাটি। সেদিন ২০২১-২২ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটও অনুমোদন দেওয়া হয়। বাজেটের কপি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ২০২১-২২ অর্থবছরে এক হাজার ১৯৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্র নির্ধারণ করেছিল ডিএনসিসি। আদায় হয়েছে প্রায় ৭৯৮ কোটি টাকা। ২০২২-২৩ অর্থবছরে এই খাতে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে এক হাজার ৬৪৬ কোটি ৯০ লাখা টাকা।

২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট প্রসঙ্গে ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, পুরো বিশ্ব বর্তমানে তিন সি-এর (কোভিড, কনফ্লিক্ট এবং ক্লাইমেট চেঞ্জ) জন্য টালমাটাল অবস্থায় রয়েছে। এই তিন সি আমাদের দেশের জন্যও চ্যালেঞ্জ। প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ নেতৃত্বে আমরা এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে এগিয়ে যাচ্ছি। বৈশ্বিক মহামারি করোনা, নানা দেশে (বিশেষ করে রাশিয়া-ইউক্রেনে) চলা সংঘর্ষ এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলা করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন গত ২০২১-২২ অর্থবছরে প্রায় ৮০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করেছে।


আরও খবর