Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

দেউলিয়া শ্রীলঙ্কায় লিটারপ্রতি পেট্রলের দাম বেড়ে ৫৫০ রুপি

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৭৮জন দেখেছেন
Image

অর্থনৈতিকভাবে দেউলিয়া শ্রীলঙ্কায় ফের জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে। এতে দেশটির নাগরিকদের দুর্ভোগ আরও বাড়বে। এদিকে ঋণ সহায়তার বিষয়ে আলোচনা করতে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা শ্রীলঙ্কায় পৌঁছেছেন। রোববার (২৬ জুন) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

দেশটির সিলন পেট্রলিয়াম করপোরেশন (সিপিসি) রোববার ডিজেলের দাম বাড়ানোর কথা জানিয়েছে। ডিজেলের দাম লিটারে ১৫ শতাংশ বাড়িয়ে ৪৬০ রুপি করা হয়েছে। অন্যদিকে পেট্রলের দাম ২২ শতাংশ বাড়িয়ে ৫৫০ রুপি করা হচ্ছে।

শ্রীলঙ্কার জ্বালানি মন্ত্রী কাঞ্চনা উইজেসেকেরা জানান, তেলের নতুন চালান কবে আসবে তার নির্দিষ্ট কোনো তথ্য নেই। তার এমন ঘোষণার এক দিন পরেই জ্বালানির দাম বাড়ানো হলো।

এসময় উইজেসেকেরা গাড়িচালকদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ও তাদের পাম্পিং স্টেশনের বাইরে দীর্ঘ লাইনে না দাঁড়াতে আহ্বান জানিয়েছেন। এদিকে সরবরাহ পুনরুদ্ধারের আশায় অনেকে তাদের যানবাহন সারিবদ্ধভাবে রেখে গেছে।

সরকারি একটি সূত্র জানিয়েছে, দ্বীপ রাষ্ট্রটিতে মাত্র দুই দিনের জন্য তেলের সরবরাহ রয়েছে। তাই কর্তৃপক্ষ এটি প্রয়োজনীয় পরিষেবার জন্য সংরক্ষণ করছে।

১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর এই প্রথম তীব্র অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। এরই মধ্যে দেশটির বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণ তলানিতে ঠেকেছে। দ্বীপ রাষ্ট্রটির বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো খাদ্য, জ্বালানি ও ওষুধ আমদানিতে ডলার সরবরাহ করতে পারছে না।


আরও খবর



‘অপশক্তি সুকৌশলে রাষ্ট্রযন্ত্রের ভেতর ঢুকে পড়েছে’

প্রকাশিত:Sunday ১৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

‌‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযোদ্ধারা যে বাংলাদেশ চেয়েছিলেন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থেকেও সেই লক্ষ্যপূরণ করতে পারেনি। এক যুগ ধরে বঙ্গবন্ধুর দল আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেও অপশক্তি সুকৌশলে রাষ্ট্রযন্ত্রের ভেতর ঢুকে পড়েছে।’

শনিবার (১৩ আগস্ট) রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ-৭১ আয়োজিত এক সেমিনারে এ কথা বলেন বক্তারা।

বক্তারা জানান, কিছু দিন পরপর পরিকল্পিতভাবে দেশের বিভিন্ন জেলায় সাম্প্রদায়িক হামলা চালানো হচ্ছে। এটা বাংলাদেশের জন্য অশনিসংকেত।

সেমিনারে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি ডা. সারওয়ার আলী বলেন, ১৯৭২ সালের নভেম্বর মাসে বঙ্গবন্ধু যখন জাতীয় পরিষদে সংবিধান পেশ করেন, তখন স্পষ্টভাবে ধর্মনিরপেক্ষতার সংজ্ঞা দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, হিন্দুরা হিন্দুধর্ম পালন করতে পারবেন, খ্রিস্টানরা খ্রিস্টধর্ম পালন করবেন। মুসলমানরা ইসলাম ধর্ম পালন করবেন। কিন্তু ধর্ম নিয়ে কোনো রাজনীতি করতে পারবেন না। এখন ৫০ বছর পর দাঁড়িয়ে কী বলবেন, সেই কথা কি রাখা গেছে?

সারওয়ার আলী বলেন, ‘গত ১২ বছর ধরে অন্তত যে ঘটনাগুলো ঘটছে, তাতে বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর যে ভাবাদর্শের রাষ্ট্র, আমরা যাঁরা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করি, তাঁরা যে ভাবধারার রাষ্ট্র গঠন করতে চেয়েছি, সেখান থেকে রাষ্ট্রটি পথভ্রষ্ট হয়েছে।’

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি মফিদুল হক বলেন, ‘বিগত এক যুগ ধরে রামু থেকে নাসিরনগর, সুনামগঞ্জ হয়ে নড়াইল, প্রতিটা ঘটনার পেছনে আছে একটা মিথ্যাচার। প্রতিটা ঘটনার পেছনে আছে একটা সুপরিকল্পিত উদ্দেশ্য। তার মোকাবিলা করার জন্য যে শক্তি, তা আমরা বঙ্গবন্ধুর কাছ থেকে আহরণ করতে পারি। সেই শক্তির অসাধারণ প্রকাশ তিনি তাঁর জীবন দিয়ে দেখিয়ে গেছেন।’

মফিদুল হক বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সব ধরনের ঘৃণা–বিদ্বেষ ছড়ানোর একটি বড় ক্ষেত্র হয়ে উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ধর্মকে অত্যন্ত বিকৃতভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। আন্তর্জাতিক আইনে আছে এবং আমাদের সংবিধানেও আছে সমাজে সংঘাত সৃষ্টি করা যাবে না। অপরের আদর্শ বা ধর্মকে চিহ্নিত করে কোনো রকম সামাজিক অশান্তি তৈরি করা যাবে না। মানুষকে সহিংসতার দিকে প্ররোচিত করা যাবে না। কিন্তু এই ঘটনাগুলো ঘটছে। আজ মিথ্যাচারের একটা ভিত্তি হয়ে গেছে সোশ্যাল মিডিয়া।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে কেউ যেন কোনো ধরনের ধর্মীয় উসকানি দিতে না পারে, সে জন্য আইন করা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন প্রাবন্ধিক মফিদুল হক।

সেমিনারে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ আলী সিকদার।সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন হাবীব। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের নির্বাহী সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নুরুল আলম, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক অজয় দাশগুপ্ত, যুগ্ম মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ পাটোয়ারী প্রমুখ।


আরও খবর



বিদ্যুৎ সরবরাহে অগ্রাধিকার পাবে শিল্প-কৃষিখাত: জ্বালানি উপদেষ্টা

প্রকাশিত:Thursday ০৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১৭ August ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

চলমান বিদ্যুৎ রেশনিংয়ে শিল্প ও কৃষিখাত অগ্রাধিকার পাবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী। বৈশ্বিক সংকটকালে দেশের অর্থনীতিকে চাঙা রাখতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি (এফবিসিসিআই) কার্যালয়ে ‘টেকসই উন্নয়নের জন্য জ্বালানি নিরাপত্তা’ শীর্ষক ভার্চুয়াল সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ তথ্য জানান ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী।

তিনি বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারাবিশ্বে জ্বালানি সরবরাহ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। আপৎকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিদ্যুৎ রেশনিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। কৃষি ও শিল্পখাতে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ অব্যাহত রাখতেই এ পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

এ সময় আবাসিক গ্রাহকদের সাময়িক অসুবিধা মেনে নেওয়ার আহ্বান জানান জ্বালানি উপদেষ্টা। একই সঙ্গে সবাইকে সাশ্রয়ী হওয়ারও তাগিদ দেন।

সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস বলেন, শিল্প ও সেবাখাতে সরকারের আলাদা নজর রয়েছে। বিদ্যুৎ রেশনিংয়ে শিল্প এলাকা বিবেচনায় লোডশেডিংয়ের পরিকল্পনা করা হলেও আবাসিক এলাকায় কিছু শিল্পকারখানা থেকে যায়।

‘আবাসিক এলাকার এসব শিল্প কারখানা লোডশেডিংয়ের কবলে পড়ছে। লোডশেডিংয়ের কারণে কোনো কারখানার উৎপাদন ব্যাহত হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানোর অনুরোধ করা হচ্ছে।’

স্বাগত বক্তব্যে এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, সরকারের উচিত কয়লা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে জোর দেওয়া। বিশ্বের অনেক দেশেই পরিবেশ ঠিক রেখে কয়লাভিক্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে। বাংলাদেশও সেদিকে যেতে পারে।

তিনি বলেন, শিল্পোন্নত দেশগুলোর অনেকেই কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদনে ফিরে যাচ্ছে। বাংলাদেশেরও কয়লা অনুসন্ধান-উত্তোলনে জোর দেওয়া উচিত।

এফবিসিসিআই সভাপতি একই সঙ্গে গ্যাসসংকট মোকাবিলায় স্থলের পাশাপাশি, সমুদ্রেও অনুসন্ধান পরিচালনা ও কূপ খননের তাগিদ দেন। এ লক্ষ্যে বাপেক্সকে আরও শক্তিশালী করার আহ্বান জানান তিনি।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন- এফবিসিসিআইয়ের প্যানেল উপদেষ্টা ও বুয়েটের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. ইজাজ হোসেন।

তিনি জানান, দেশের শিল্পখাত চাহিদা অনুসারে গ্যাস পাচ্ছে না। এতে শিল্পের স্বাভাবিক প্রবৃদ্ধি ব্যাহত হচ্ছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনে গ্যাসের ওপর একক নির্ভরতা দেশের জ্বালানি নিরাপত্তাকে ঝুঁকির মুখে ফেলছে।

দীর্ঘমেয়াদে জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যাপকভিত্তিতে গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনা, বিদ্যুৎ উৎপাদনে কয়লার ব্যবহার বাড়ানো বিশেষ করে, নিজস্ব কয়লার ব্যবহার বাড়ানো, সাশ্রয়ী জ্বালানি কৌশল ব্যবহারের পরামর্শ দেন অধ্যাপক ড. ইজাজ হোসেন।

সেমিনারে প্যানেল আলোচনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভূতত্ত্ব বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. বদরুল ইমাম স্থল ও সমুদ্রে গ্যাস অনুসন্ধানের ওপর জোর দেওয়ার পরামর্শ দেন।

ক্রান্তিকালীন সংকট মোকাবিলায় একটি জরুরি তহবিল গঠনের দাবি জানান এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক ও বিটিএমএর সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন।

কয়লাভিক্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদনের পাশাপাশি সমুদ্রে অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে গ্যাসের অনুসন্ধানের আহ্বান জানান এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক ও এমসিসিআইয়ের সভাপতি মো. সাইফুল ইসলাম।

জ্বালানি মিশ্রনে বৈচিত্র্য আনার আহ্বান জানান এফবিসিসিআইয়ের বিদ্যুৎ ও জ্বালানিবিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান হুমায়ূন রশিদ।

বছরে অন্তত ১০টি গ্যাসক্ষেত্র অনুসন্ধানের পরামর্শ দেন জ্বালানিবিষয়ক ম্যাগাজিন এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ারের সম্পাদক মোল্লা এম আমজাদ হোসেন।

সাবেক অতিরিক্ত সচিব সিদ্দিক জোবায়ের ইপিজেডের কারখানাগুলোর ছাদে সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের ব্যবস্থা সহজতর করতে বেপজার প্রতি আহ্বান জানান।

আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ভোলার গ্যাসক্ষেত্র থেকে ১৫০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হবে বলে জানান বাপেক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলী।

তিনি আরও জানান, ২০২৫ সাল নাগাদ আরও ৬১৮ ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হবে। এজন্য তিনি দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় তেল-গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রম পরিচালনা ও পার্বত্য চট্টগ্রামে এক থেকে দেড় বছরের মধ্যে পাঁচটি অনুসন্ধান কূপ খনন পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করেন।

সেমিনারে অংশ নেওয়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান- এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি মো. আমিন হেলালী।

সেমিনারে এফবিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি সালাউদ্দিন আলমগীর, মো. হাবীব উল্লাহ ডন, মহাসচিব মাহফুজুল হক, সংগঠনটির একাধিক পরিচালক, বিভিন্ন স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



সংক্ষিপ্ত বিশ্ব সংবাদ: ৯ আগস্ট ২০২২

প্রকাশিত:Tuesday ০৯ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৮২জন দেখেছেন
Image

আমাদের চারপাশে অসংখ্য ঘটনা ঘটছে প্রতিদিনই। এর মধ্যে হয়তো আলোচনায় আসে হাতেগোনা কিছু। তবে সময় ও পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে বেশকিছু বিষয়। এগুলো জানা না থাকলে অনেক ক্ষেত্রেই পিছিয়ে পড়তে হয়। এ কারণে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ঘটে যাওয়া নানা ঘটনা থেকে সংক্ষেপে গুরুত্বপূর্ণ কিছু সংবাদ থাকছে জাগো নিউজের পাঠকদের জন্য-

ইউক্রেনের রপ্তানি বাড়ায় বিশ্ববাজারে কমেছে শস্যের দাম

ইউক্রেন থেকে ছেড়ে যাওয়া শস্যবাহী জাহাজগুলো এরই মধ্যে তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে শুরু করেছে। অন্যদিকে রাশিয়ার কৃষি রপ্তানির ওপর বিধিনিষেধ শিথিল করা হবে বলেও জানা গেছে। এমন খবরে সোমবার (৮ আগস্ট) বিশ্ববাজারে গম ও ভুট্টার দাম কমেছে।

মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগে বিহার বিজেপিতে বড় ধাক্কা

ভারতের বিহারের রাজনীতিতে যে জল্পনা শুরু হয়েছিল, সেটাই এবার সত্যি হলো। রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিলেন নীতীশ কুমার। মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) রাজ্যপাল ফাগু চৌহানের কাছে নিজের ইস্তফাপত্র দিয়ে দিয়েছেন নীতীশ। যার অর্থ বিহারে সরকারিভাবে এনডিএ বা ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স জমানার অবসান ঘটলো। এই জোটের নেতৃত্বে আছে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)।

ইমরান খানের অন্যতম সহযোগী শাহবাজ গিল গ্রেফতার

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পিটিআইয়ের চেয়ারম্যান ইমরান খানের অন্যতম সহযোগী শাহবাজ গিলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে জনসাধারণকে উসকানি দেওয়ার জন্য তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইসলামাবাদ পুলিশের একজন মুখপাত্র।

পশ্চিমবঙ্গে পালিত হলো পবিত্র আশুরা

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির আবহে পশ্চিমবঙ্গজুড়ে পালিত হলো পবিত্র আশুরা। দিনটিকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই রাজ্যটির জেলায় জেলায় বিভিন্ন প্রান্তে মিছিল বের হয়। হিন্দু-মুসলিম উভয় সম্প্রদায়ের মানুষ আশুরার মিছিলে যোগ দেন। বহরমপুর, কান্দি, বেলডাঙ্গাসহ জেলাজুড়ে দিনটি পালিত হলেও লালবাগে নবাবি আমালের ইতিহ্য মেনে মহরম উৎসব পালিত হয়।

ভারতের চাপে চীনের জাহাজ থামিয়ে দিলো শ্রীলঙ্কা

চীনের একটি জাহাজ চলতি সপ্তাহে শ্রীলঙ্কার বন্দরে পৌঁছানোর কথা ছিল। কিন্তু প্রতিবেশী দেশ ভারতের প্রতিবাদে সেটিকে আপাতত বন্ধ রাখতে বলেছে শ্রীলঙ্কা। মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। জানা গেছে, ইউয়ান ওয়াং-৫ নামের জাহাজটি আগামী বৃহস্পতিবার পাঁচ দিনের জন্য শ্রীলঙ্কার দক্ষিণে চীনের-নির্মিত ও লিজ নেওয়া হাম্বানটোটা বন্দরে পৌঁছানোর কথা ছিল।

এফবিআইয়ের অভিযানের পর ট্রাম্পের বাড়ির বাইরে সমর্থকদের ভিড়

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ফ্লোরিডার বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা (এফবিআই)। ট্রাম্প নিজেই তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ট্রুথ সোশ্যালে এ খবর প্রকাশ করেন। এরপরই তার সমর্থকরা মার-এ-লাগো নামের বিলাসবহুল বাড়িটির সামনে জড়ো হতে থাকেন।

এবার পশ্চিমতীরে ইসরায়েলের অভিযান, হতাহত ৪৩

গাজায় ধারাবাহিক হামলার পর দখলকৃত পশ্চিমতীরের নাবলুস শহরে অভিযান চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে ফিলিস্তিনের তিন নাগরিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ৪০ জন। নিহতদের মধ্যে একজন স্থানীয় সশস্ত্র মিলিশিয়া বাহিনীর কমান্ডার রয়েছেন। খবর আল-জাজিরার।

রাশিয়ার সহায়তায় মহাকাশে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ ইরানের

কাজাখস্তান থেকে ইরানের একটি স্যাটেলাইট মহাকাশে পাঠানো হয়েছে। মূলত ইরানের মালিকানাধীন স্যাটেলাইটি রাশিয়ার রকেটের মাধ্যমে পাঠানো হয়েছে। তাছাড়া কাজাখস্তানের ওই বেসটিও মস্কো পরিচালনা করে। এর আগে প্রশ্ন ওঠে স্যাটেলাইটি মূলত রাশিয়া নিয়ন্ত্রণ করবে। তবে পরে সে দাবি ইরানের পক্ষ থেকে প্রত্যাখ্যান করা হয়।

সিউলে ৮০ বছরের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত, মৃত ৭

ঘণ্টার পর ঘণ্টা প্রবল বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউল ও এর আশপাশের এলাকাগুলো। গত আট দশকের মধ্যে ওই অঞ্চলে এমন বৃষ্টিপাত আর দেখা যায়নি। ভয়াবহ বৃষ্টি ও জলাবদ্ধতায় সেখানে প্রাণ হারিয়েছেন সাতজন, ছয়জন এখনো নিখোঁজ।

ট্রাম্পের বাড়িতে এফবিআই’র হানা

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাড়িতে আকস্মিক অভিযান চালিয়েছে মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা (এফবিআই)। গত সোমবার (৮ আগস্ট) ফ্লোরিডায় তার বিলাসবহুল মার-এ-লাগো রিসোর্টে এই অভিযান চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন এ রিপাবলিকান নেতা। যুক্তরাষ্ট্রে সাবেক কোনো প্রেসিডেন্টের বাড়িতে এভাবে এফবিআই হানা দেওয়ার ঘটনা অভূতপূর্ব বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।


আরও খবর



চবি ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদকের প্রতি ৯৪ নেতাকর্মীর অনাস্থা

প্রকাশিত:Wednesday ১০ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর প্রতি অনাস্থা প্রকাশ করেছেন নবগঠিত কমিটির ৯৪ জন নেতাকর্মী।

বুধবার (১০ আগস্ট) দুপুর ১টায় চবি সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে নেতাকর্মীরা এ অনাস্থা প্রকাশ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চবি শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি প্রদীপ চক্রবর্তী দুর্জয়। তিনি বলেন, রাজপথের পরীক্ষিত ও ত্যাগী কর্মীদের বাদ দিয়ে অযোগ্য ও বিতর্কিত অনেককে নতুন কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে। এ সময় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কাছে তিন দফা দাবি জানিয়ে সাংগঠনিকভাবে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানান তারা।

দাবিগুলো হলো

১. পদবঞ্চিত ত্যাগী ও পরিশ্রমী কর্মীদের মূল্যায়ন করে কমিটিতে অন্তর্ভুক্তকরণ
২. পদপ্রাপ্ত নেতাদের যোগ্যতা অনুযায়ী ক্রমানুসারে যোগ্যস্থানে পুনরায় মূল্যায়ন ও
৩. নতুন কমিটিতে পদপ্রাপ্ত বিবাহিত, চাকরিজীবী ও দীর্ঘদিন রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ খতিয়ে দেখে যথাযথ সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ।

jagonews24

এসব দাবি নিয়ে কেন্দ্রীয় দপ্তর সেলে খুব শিগগির যোগাযোগ করবেন বলে জানান নেতাকর্মীরা। পাশাপাশি দাবি আদায় না হলে আগস্টের পর কঠোর কর্মসূচি ও রাজপথে নামার হুমকিও দেন তারা।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বলেন, দীর্ঘ ছয় বছর পর কমিটি হওয়ায় সদস্য সংখ্যা বেশি। বেশি সদস্যের কমিটি দিয়ে যদি সংগঠন ভালো থাকে তাহলে তাই-ই করা উচিত।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চবি শাখা ছাত্রলীগের উপগ্রুপ ভার্সিটি এক্সপ্রেসের (ভিএক্স) নেতা ও কমিটির সহ-সভাপতি প্রদীপ চক্রবর্তী দুর্জয়, উপগ্রুপ রেড সিগনালের নেতা ও সহ-সভাপতি রকিবুল হাসান দিনার, বাংলার মুখ উপগ্রুপের নেতা ও সহ-সভাপতি আবু বকর তোহা, একাকার উপগ্রুপের নেতা ও সহ-সভাপতি মইনুল ইসলাম রাসেল।

এছাড়া কনকর্ড উপগ্রুপের নেতা ও সহ-সভাপতি আবরার শারিয়ার, উল্কা উপগ্রুপের নেতা ও সহ-সভাপতি সুমন খান, এপিটাফ উপগ্রুপের নেতা এবং নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক সাজ্জাদ আনাম পিননসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



আওয়ামী লীগ নয় বরং বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতি করে: হানিফ

প্রকাশিত:Saturday ১৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
Image

বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতি করে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ।

আওয়ামী লীগ প্রতিহিংসার রাজনীতি করে-বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে তিনি বলেন, ২০০১ থেকে ২০০৬ সালে বিএনপি গণহত্যা চালিয়েছিল। আওয়ামী লীগের ২৬ হাজার নেতাকর্মী খুন হয়। ১০ হাজার মা-বোনের ওপর পাশবিক নির্যাতন চালানো হয়। ২০০৪ সালে গ্রেনেড হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধুকন্যাকে হত্যা চেষ্টা করা হয়। এসবের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয় আওয়ামী লীগ নয় বরং বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতি করে।

শনিবার (১৩ আগস্ট) সকাল ১০টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

হানিফ বলেন, এক সাক্ষাৎকারে বলা হয় খালেদা জিয়ার জন্ম হয় ৫ সেপ্টেম্বর। এখন জাতীয় শোক দিবসে খালেদা জিয়া মিথ্যা জন্মদিন উদযাপন করে।

বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, গোটা বিশ্বে অর্থনৈতিক সংকট চলছে। টানা দুই বছর করোনার কারণে বিশ্ব বিপর্যস্ত ছিল। এরপর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হয়। বিশ্ব সংকটের কারণে সে ধাক্কা আমাদের দেশেও লেগেছে। কিন্তু বিএনপি এ সুযোগে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। এ সংকট সাময়িক। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আগামী দু-তিন মাসের মধ্যে এ সংকট কাটিয়ে উঠবো।

জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান ভাষা আন্দোলনের প্রথম সৈনিক হিসেবে গ্রেফতার হয়েছিলেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভাষা আন্দোলন, যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন ও ৬ দফার মধ্য দিয়ে স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখেছিলেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে শুধু তাকে নয়, স্বাধীনতার মূল চেতনাকে হত্যা করা হয়েছিল। রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের জন্য তাকে হত্যা করা হয়নি। একাত্তরের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে পাকিস্তান ও তাদের দোসর পশ্চিমা মহাশক্তিধর রাষ্ট্র এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছিল।

হানিফ বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের দণ্ডপাপ্ত অনেকের রায় কার্যকর হয়েছে। কয়েকজন আত্মস্বীকৃত খুনি পালিয়ে আছে। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাকে অনুরোধ করবো বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী দণ্ডপাপ্তরা যদি সেখানে থেকে থাকে তাহলে তাদের যেন ফিরিয়ে দেওয়া হয়। তাদের বিচার রায় কার্যকরের মাধ্যমে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করতে চাই।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু হত্যায় যারা মূল চক্রান্তকারী তাদের মুখোশ উন্মোচন হয়নি। জিয়াউর রহমান তার বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের প্রমাণ রেখে গেছেন তিনি জড়িত ছিলেন। আত্মস্বীকৃত খুনীদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছে।’

ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠার কারণ জানিয়ে তিনি বলেন, ১৯৪৮ সালে বাঙালি নিজের অধিকার সম্পর্কে সচেতন ছিল না। বঙ্গবন্ধু ছিলেন দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতা। তিনি জানতেন ছাত্ররা জাগ্রত সমাজ, অধিকার আদায়ে সোচ্চার। সে সময়ে তিনি আওয়ামী লীগের আগে ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ঘুমন্ত জাতিকে জাগিয়ে তোলার জন্য। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি-জামায়াত কোনো ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা করলে তা প্রতিহত করতে ছাত্রলীগ অগ্রণী ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবসহ সব শহীদ স্মরণে আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হল ছাত্রলীগ।

আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে ছিলেন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ। এছাড়া বিশেষ আলোচক হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. নাজমুন নাহার। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হল ছাত্রলীগ সভাপতি রাজিয়া সুলতানা কথা।

আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ফরিদা পারভীন, ইমাম সুলতানা স্মৃতি, কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফ জর্জ, আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য মাহমুদ সালাউদ্দিন চৌধুরী প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হল ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক জান্নাতুল হাওয়া আঁখি।


আরও খবর