Logo
আজঃ Wednesday ২৬ January ২০২২
শিরোনাম
অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সহ-শিল্পীদের নগ্ন ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিদেশের মাটিতে কৃষিপণ্য সরবরাহ বাড়াণোর লক্ষ্যে : ইরান রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল স্বপ্নের মেট্রোরেল রওনা হলো আগারগাঁওয়ের উদ্দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণে ভারতে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ মুরাদ হাসান এমিরেটসের ফ্লাইটে কানাডা গেলেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু বিশ্বের ৪৩তম ক্ষমতাধর নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ১১০জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক" দেশের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও ভাগ্য পরিবর্তনে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন,‘আমাদের সশস্ত্র বাহিনীতে উন্নয়ন, প্রযুক্তি জ্ঞান বৃদ্ধি এবং বিশ্ব দরবারে যেন তারা মাথা উঁচু করে চলতে পারে সেইভাবে আওয়ামী লীগ সরকার পদক্ষেপ নেয় এবং বাস্তবায়ন শুরু করে। কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বেসরকারি খাতগুলো উন্মুক্ত করে দেই। সরকার জনগণের সেবক; সেটা আমরা প্রমাণ করেছি।’

আজ বৃহস্পতিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে রাজধানীর বিজয় সরণিতে অবস্থিত সামরিক জাদুঘর উদ্বোধনের পর তিনি এসব কথা বলেন।

জাদুঘরটি উদ্বোধন করে নিজেকে ধন্য মনে করেছেন উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,‘এটি সশস্ত্র বাহিনীর জন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং আমাদের তিন বাহিনী সম্পর্কে আমাদের তরুণ প্রজন্ম উদ্বুদ্ধ হবে। সম্যক জ্ঞান পাবে। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারীসহ সশস্ত্র বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান সদস্যদের মধ্যে একটি প্রেরণা আসবে। তারা তৃপ্ত হবেন।’

সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তোলার পেছনে বঙ্গবন্ধুর অবদানের কথা স্মরণ করে সরকারপ্রধান বলেন,‘স্বাধীনতার পরে তিনি সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী গঠন করেন। তাদের প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট গড়ে তোলেন। সাড়ে তিন বছর সময়ের মধ্যে রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তোলা ও আর্থ সামাজিক উন্নয়নের জন্য তিনি কাজ করেছেন। যুদ্ধ ক্ষতবিক্ষত দেশকে তিনি শূন্য থেকে দাঁড়িয়ে স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গ্রাম পর্যায়ে উন্নয়ন ও তারা যাতে আত্মমর্যাদা নিয়ে বেঁচে থাকতে পারেন তার জন্য বঙ্গবন্ধু দ্বিতীয় বিপ্লবের কর্মসূচি হাতে নিয়েছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্য সেটা তিনি সম্পন্ন করে যেতে পারেননি। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নির্মমভাবে হত্যা করা হলো। একই সঙ্গে আমার মা ও ভাইসহ পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা আপনজন হারিয়েছিলাম এটা সত্য কিন্তু বাংলাদেশ কী হারিয়েছিল? একের পর এক ক্যু হয়েছে। শত শত সেনা অফিসারকে জীবন দিতে হয়েছে। অনেক পরিবার এখনো তাদের খোঁজও পায়নি। পাশাপাশি রাজনৈতিক নেতাদের ওপর চলে অত্যাচার নির্যাতন। সেইসঙ্গে বাংলাদেশ যে আদর্শ নিয়ে স্বাধীন হয়েছিল তার থেকে বিচ্যুত হয়। বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা থেমে যায় যা কখনো হওয়ার কথা নয়।’

বারবার নির্বাচিত করার জন্য দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘আমরা দীর্ঘ সময় ক্ষমতায় থাকার কারণে কেবল দেশের উন্নয়ন নয় বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদায় উন্নীত করতে সক্ষম হয়েছি। ইশতিহারের ঘোষণা অনুযায়ী, সুনির্দিষ্টভাবে কাজ করার কারণেই এটা সম্ভব হয়েছে।’

জাদুঘরের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষের যে ইতিহাস রয়েছে-স্বাধীনতার ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং সেই সঙ্গে আমাদের সার্বভৌমত্ব রক্ষার প্রতীক সশস্ত্র বাহিনী-দেশের মানুষ যেন সে সম্পর্কে জানতে পারে, উপলব্ধি করতে পারে, আমাদের সামরিক বাহিনী অর্থাৎ সেনা, নৌ, বিমান বাহিনী কী কাজ করে, কিভাবে চলে বা অতীতে তারা কী করেছে সে বিষয়ে মানুষকে জানানো একান্তভাবে দরকার। বিশেষ করে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানা, একই সঙ্গে আমাদের ভবিষ্যৎ কী হতে যাচ্ছে-সে সম্পর্কে জানা দরকার।’

সরকারপ্রধান বলেন, ‘আজকে যে সামরিক জাদুঘরটি আমরা দেখছি-এটি প্রথমে নির্মিত হয়েছিল খুব ক্ষুদ্র পরিসরে। বিজয় সরণির পাশের জায়গাটিতে এটি প্রস্তুত করা হয়। আমার খুব আকাঙ্খা ছিল-এটিকে খুব আকর্ষণীয় স্থান হিসেবে গড়ে তোলার। তারই পাশে আরেকটি জায়গায় আমি প্রথমবার যখন সরকারে আসি, প্লানেটোরিয়াম করে ফেলি।’

তিনি বলেন, ‘যে কোনো কাজ আমি প্রথমবার যখন করতে গেছি, প্রতিটি ব্যাপারেই কিন্তু পরবর্তী সরকার এসে আমার বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে। প্লানেটোরিয়াম যখন আমি করলাম এর জন্য আমার বিরুদ্ধে দুটো মামলা দেওয়া হয়েছিল। কেন দেওয়া হয়-আমি ঠিক জানি না। আমরা যখন প্লানেটোরিয়াম করেছি, তখনই সমস্ত ইউটিলিটি যেন সামরিক জাদুঘর এবং প্লানেটোরিয়াম-উভয়েই শেয়ার করতে পারে সে ব্যবস্থাও নিয়েছিলাম। আর সেই সঙ্গে সরকার প্রধান হিসেবে বিভিন্ন সময় বিদেশে যখন আমরা যাই বা কোনো সরকার প্রধান যখন আমাদের দেশে বেড়াতে আসে তখন যে উপহার দেয়-সেগুলো সংরক্ষণ করা এবং দৃষ্টিনন্দনভাবে রাখা ও মানুষের সামনে তুলে ধরার ব্যবস্থাও করি। আমাদের যে তোষাখানা জাদুঘর আছে বঙ্গভবনে, সেখানে স্টোর রুমের মতো জিনিসপত্রগুলো রাখা। কিন্তু সেগুলো মানুষের সামনে প্রদর্শন করবার ব্যবস্থা আমি নিয়েছি। এজন্য এই জায়গায় আমরা তোষাখানা জাদুঘরও নির্মাণ করি। এবং এটা সামরিক বাহিনীর হাতেই দিয়েছিলাম, একটা কমিটিও আমরা করে দেই।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সেই সঙ্গে সামরিক জাদুঘরটাকেও অত্যন্ত আধুনিক করে গড়ে তোলা এবং এটা যেন দৃষ্টিনন্দন হয়-সারা বিশ্বের যত সামরিক জাদুঘর হয়েছে, তারমধ্যে যেন শ্রেষ্ঠ জাদুঘর হিসেবে প্রতিষ্ঠা পায় সেটাই আমার আকঙ্খা ছিল। আমি এই জাদুঘরটি এখনো সরেজমিনে দেখিনি, প্রাথমিক পর্যায়ে যখন কাজ শুরু হয় তখন কিছুটা দেখেছি, যখন যতটুকু ডেভেলপ হয়েছে আমি ছবিতে দেখেছি, এবং যখন যেটা নির্দেশনা দেওয়ার আমি দিয়েছি, কিন্তু যতটুকু এখন দেখলাম—আমি মনে করি, এটা হবে সর্বশ্রেষ্ঠ, সুন্দর, আধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন একটি সামরিক জাদুঘর। কাজেই সেভাবে এটি তৈরি হোক সেটাই আমি চাই।’

তিনি বলেন, ‘জাদুঘর শুধু প্রদর্শনীর জন্য না, এটা দেখে আমাদের তরুণ প্রজন্ম দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হবে এবং দেশপ্রেমে জাগ্রত হয়ে তারা আমাদের সশস্ত্র বাহিনীতে, আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য যোগদান করতে আগ্রহী হবে, এগিয়ে আসবে।’


আরও খবর



ওমিক্রনের তিনটি উপধরন মিলেছে ঢাকায়

প্রকাশিত:Monday ২৪ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দেশে করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার পর থেকেই সংক্রমণ বাড়ছে। এ পরিস্থিতির মধ্যেই ওমিক্রন সম্পর্কে নতুন তথ্য সামনে এল। আজ সোমবার আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর,বি) প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে জানানো হয়, ঢাকা শহরে করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের অন্তত তিনটি উপধরন (সাব টাইপ) পাওয়া গেছে।

সম্পূর্ণ জিনোম সিকোয়েন্স গবেষণায় এটি জানা গেছে। গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকা শহরে যে তিনটি উপধরন আছে সেগুলো আফ্রিকান, ইউরো-আমেরিকান এবং এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের ওমিক্রন ধরনের সঙ্গে মিলে যায়।

আইসিডিডিআর,বি বলছে, জানুয়ারির প্রথম দুই সপ্তাহে তাদের ল্যাবরেটরিতে ১ হাজার ৩৭৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ২৮ শতাংশই ছিল করোনায় আক্রান্ত। আর আক্রান্তদের মধ্যে ওমিক্রন ছিল ৬৯ শতাংশের নমুনায়।

বাংলাদেশে ৬ ডিসেম্বর ওমিক্রন প্রথম শনাক্ত হয়। ওই মাসেই আইসিডিডিআর,বির ল্যাবে পরীক্ষা করা ঢাকা শহরের ৭৭ জন করোনা রোগীর মধ্যে পাঁচটিতে ওমিক্রন শনাক্ত করা হয়েছিল। অন্যগুলো ছিল ডেল্টা ধরন।

গবেষণায় আক্রান্তদের সঙ্গে কথা বলে তথ্য যুক্ত করা হয়েছে। এতে বলা হয়, ওমিক্রনে আক্রান্ত ২৯ জনের মধ্যে ২৭ জনের মৃদু উপসর্গ কিংবা কোনও উপসর্গও ছিল না। ২৪ জন টিকার দুই ডোজ নিয়েছিলেন, বুস্টার ডোজ নিয়েছেন একজন। একজন শুধু একদিনের জন্য হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।


আরও খবর



করোনা আক্রান্ত ভারতের ১৩ যাত্রী কোয়ারেন্টিন থেকে পালিয়েছে

প্রকাশিত:Friday ০৭ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১৩৮জন দেখেছেন
Image

বুধবার চার্টার্ড ফ্লাইটে ইতালির মিলান থেকে অমৃতসরে ল্যান্ড করার পর শিশু বাদে ১৬০ যাত্রীর কভিড পরীক্ষা করা হয়। এতে ১২৫জনেরই ফল পজেটিভ আসলে তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। তাদের মধ্যে অন্তত ১৩জন পালিয়ে গেছে। 

বৃটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়, ভারতের অমৃতসরে ল্যান্ড করা ইতালি ফেরত যাত্রীদের মধ্যে কভিড-১৯ পজেটিভ হওয়া অন্তত ১৩ যাত্রী প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন থেকে পালিয়ে গেছেন। তারা কভিড আক্রান্ত ১২৫ জনের তালিকায় ছিলেন, যারা বুধবার বিকালে মিলান থেকে অমৃতসরনে ফেরেন। নগর কর্মকর্তা সারজাং সিং বিবিসি পাঞ্জাবিকে বলেন, পালিয়ে যাওয়া কভিড রোগীদের মধ্যে ৯জন বিমানবন্দর থেকে এবং ৪ জন স্থানীয় হাসপাতাল থেকে পালিয়েছেন।  

পুলিশ অবশ্য বলছে, তাদের সবার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আজ শুক্রবার ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাখ ছাড়িয়েছে। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, নভেল করোনাভাইরাসের অতিসংক্রামক নতুন ধরন অমিক্রনের কারণেই এক সপ্তাহের ব্যবধানে কভিড আক্রান্ত এত বাড়ছে। গতকাল স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুসারে, আগের ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা ছিল ৯০ হাজার ৯২৮ জন।


আরও খবর



হাইকোর্টে তাহসানের জামিন

প্রকাশিত:Thursday ২০ January ২০22 | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ৭৪জন দেখেছেন
Image

বিনোদন ডেস্ক: ই-কমার্সভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির হয়ে প্রতারণামূলক কর্মকাণ্ডে সহযোগিতা ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় অভিনেতা ও গায়ক তাহসান খানকে আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি শেখ মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি খিজির হায়াতের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ভার্চুয়াল বেঞ্চ তাকে ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন দেন।

এদিন আদালতে তাহসান খানের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট সানজিদা খানম। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মহিউদ্দিন দেওয়ান। এর আগে গতকাল বুধবার তাহসান হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।

২০২১ সালের ৪ ডিসেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় সাদ স্যাম রহমান নামে ইভ্যালির এক গ্রাহক তাহসান খান, রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়াসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

সাদ স্যাম তার অভিযোগে উল্লেখ করেন, প্রতারণামূলকভাবে গ্রাহকদের টাকা আত্মসাৎ ও এতে সহায়তা করা হয়েছে। আত্মসাৎ করা টাকার পরিমাণ তিন লাখ ১৮ হাজার, যা তিনি এখনো উদ্ধার করতে পারেননি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, তাহসান, মিথিলা ও শবনম ফারিয়া ইভ্যালির বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলেন। তাদের উপস্থিতি এবং তাদের বিভিন্ন প্রমোশনাল কথাবার্তার কারণে আস্থা রেখে বিনিয়োগ করেন সাদ স্যাম রহমান। এসব তারকার কারণে মামলার বাদী প্রতারিত হয়েছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। পরে ওই মামলায় গত ১৩ ডিসেম্বর অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা ও শবনম ফারিয়াকে ৮ সপ্তাহের জামিন দেন হাইকোর্ট। তবে, তাহসান বিদেশে থাকায় তার জামিন আবেদন করতে দেরি হয়েছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, ইভ্যালিতে অভিনেতা তাহসান খান শুভেচ্ছাদূত হিসেবে যুক্ত ছিলেন। আর রাফিয়াত রশিদ মিথিলা প্রতিষ্ঠানটির ‘ফেস অব ইভ্যালি লাইফস্টাইল’ হিসেবে কাজ করেছিলেন। আর প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দেন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া।


আরও খবর



বিধিনিষেধ না মানলে লকডাউন : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:Saturday ১৫ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ৬৯জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান ১১ দফা বিধিনিষেধ অমান্য করলে লকডাউন দেওয়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে ডায়ালাইসিস ইউনিট ও সিটি স্ক্যান মেশিন উদ্বোধন শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা জানান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা এখন উর্দ্ধমুখী। গতকাল চার হাজার ৪০০ মানুষ নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তের হার ১৩ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে। প্রতিদিন যে হারে করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে তা আশঙ্কাজনক। আমি একটি সমীক্ষায় দেখেছি, আক্রান্ত যদি আড়াই হাজার হয়, সেখানে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে দুই থেকে তিন শতাধিক রোগী। এর মধ্যে বর্তমানে এক শতাংশ রোগীর আইসিইউ প্রয়োজন হচ্ছে। এভাবে রোগী ও সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলে হাসপাতালে যায়গা হবে না।’

তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বানিজ্য মেলায় বেশীরভাগ লোকই মাস্ক ছাড়া। এটা খুবই দু:খজনক। তবে আশার আলো হচ্ছে আগের চেয়ে অনেক মানুষ মাস্ক পড়ে। তাই সকলকে মাস্ক পড়তে হবে।’

জাহিদ মালেক বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে সাড়ে আট কোটি প্রথম ডোজ টিকা দিয়ে ফেলছি। ২য় ডোজও পৌঁনে ছয় কোটি দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে সোয়া ১৪ কোটি টিকা দেওয়া সম্পন্ন হয়েছে। স্কুল শিক্ষার্থীদের ৭০ লাখ টিকা দেওয়া হয়েছে। তাদের এক কোটি ২৫ লাখ টিকার প্রয়োজন পড়বে। এ মাসেই সকল শিক্ষার্থী আসলে সেটা পূরণ করা সম্ভব। যারা এখনো টিকা নেন নাই তাদেরও তিনি টিকার নেওয়ার আহ্বান করেন।’

এ সময় জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার গোলাম আজাদ খান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম, সিনিয়র সহ-সভাপতি রমজান আলী, যুগ্ম সম্পাদক সুলতানুল আজম খান আপেল, সদর উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আফসার উদ্দিন সরকারসহ স্বাস্থ্য বিভাগের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



প্রতারক লিটনের বিরোদ্ধে রবিউলের ১২ লক্ষ টাকা আত্মসাতের আরো এক মামলা

প্রতারক লিটনের বিরোদ্ধে রবিউলের ১২ লক্ষ টাকা আত্মসাতের আরো এক মামলা

প্রকাশিত:Saturday ২২ January 20২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১১৫জন দেখেছেন
Image

পর্ব -৩

মোঃ আব্দুল হান্নানঃ৷

ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলা সদরের বাসিন্দা মৃত আব্দুল গাফ্ফারের ছেলে Rab এর হাতে গ্রেপ্তার হওয়া প্রতারক মোঃ লিটন (৩৫) এর বিরোদ্ধে ১২ লক্ষ টাকা আত্মসাতের আরো একটি প্রতারনার মামলার সন্ধান পাওয়া গেছে।বাদী গুনিয়াউক ইউনিয়নের চিতনা গ্রামের প্রবাসী মোঃ রবিউল মিয়া।

বাদী ও মামলা সুত্রে জানা গেছে,প্রতারক লিটন ২০১৫ সালের ২৩ আগষ্ট প্রবাসী রবিউলের নিকট নাসিরনগর সদরে ৩ শতাংশ জায়গা ১৫ লক্ষ টাকা বিক্রি করে উপস্থিত স্বাক্ষীদের সামনে ৩ শত টাকা মুল্যের ননজুডিশিয়াল ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে ১২ লক্ষ টাকা গ্রহন করে।বাকী ৩ লক্ষটাকা জমি রেজিষ্টারির দিনে বুঝে নিয়ে রেজিষ্টারী করে দেয়ার কথা হয়।পরবর্তীতে রবিউল জমি রেজিষ্টারী করার কথা বললে দেম দিচ্ছি বলে ঘুড়াইতে থাকে।এক পর্য্যায়ে রবিউলের কাছে জমি বিক্রি করছে না বলে জানিয়ে দেয়।একপয্যার্য়ে লিটন ও তার ছোটভাই সাংবাদিক মনির মিলে রাস্তায় ফেলে রবিউলকে মারপিট করে।এমনকি রবিউলের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে রবিউলকে জেলেও পাঠায়।


অবশেষে নিরুপায় হয়ে রবিউল প্রতারক লিটনের বিরোদ্ধে ব্রাক্ষণবাড়িয়ার বিজ্ঞ আদালতে অর্থ আত্মসাতের মামলা দায়ের করে।বর্তমানে লিটনের বিরোদ্ধে রবিউলের দায়ের করা মামলাটি আদালতে  বিচারাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে।


-খবর প্রতিদিন/ সি.বা              


আরও খবর