Logo
আজঃ শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

ডেঙ্গুতে আরও ১০ মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ২৯৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সারাদেশে ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২৭৪৮ জন ডেঙ্গু রোগী।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর)  স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শুক্রবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টা থেকে শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২ হাজার ৭৪৮ জন। তাদের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা ১ হাজার ৫১ জন ও ঢাকার বাইরের ১ হাজার ৬৯৭ জন।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন এক লাখ ৪৫ হাজার ৩৩৫ জন। তাদের মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ৬৬ হাজার ৬৫ জন আর ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়েছেন ৭৯ হাজার ২৭০ জন।

বছরের একই সময়ে আক্রান্তদের মধ্যে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন এক লাখ ৩৪ হাজার ৪২১ জন। তাদের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা ৬১ হাজার ১৪১ জন এবং ঢাকার বাইরের ৭৩ হাজার ২৮০ জন।


আরও খবর



ইসলামপুরে বন্যার পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৫৭জন দেখেছেন

Image

লিয়াকত হোসাইন লায়ন, জামালপুর প্রতিনিধি:জামালপুরের ইসলামপুরে বন্যার পানিতে ডুবে সুহান(৭) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। উপজেলার ডিগ্রীরচর দক্ষিন পাড়ায় (১৩জুলাই) শনিবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে। ওই শিশু ডিগ্রীরচর দক্ষিনপাড়া শহিদ শেখের পুত্র। 

চেয়ারম্যান সামসুজ্জামান সুরুজ মাস্টার জানান, দুপুরের দিকে শিশু সুহান বাড়ির পার্শে খেলাচ্ছলে বন্যার পানিতে গোসল করতে যায়। এক পর্যায়ে ডুবাতে তলিয়ে যায়। খরব পেয়ে স্বজনরা অনেক খোঁজাখুজির পর ভেসে উঠা লাশ উদ্ধার করে।

ইসলামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন তালুকদার বলেন, ‘পানিতে ডুবে সুহান নামে এক শিশুর মৃত্যুর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



কালিয়াকৈরে নৌকা ডুবে নিখোঁজ মায়ের লাশ উদ্ধার, ছেলে নিখোঁজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ৭৯জন দেখেছেন

Image

সাগর আহম্মেদ,কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:গাজীপুরের কালিয়াকৈরে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে বিলের পানিতে নৌকা ডুবে নিখোঁজের ১৭ ঘন্টার পর  মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে মায়ের লাশ উদ্ধার করেছে ডুবুরী দল। তার শিশু ছেলে এখনো নিখোঁজ রয়েছে। উপজেলার ভাউমান টালাবহ এলাকায় এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহত হলেন, টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার তক্তারচালা এলাকার সৌদি প্রবাসী হাবিবুর রহমানের স্ত্রী সাদিয়া আক্তার (২৩)। 

এলাকাবাসী ও ফায়ার সার্ভিস সুত্রে জানা গেছে, গত কয়েক বছর আগে কালিয়াকৈর ভাউমান টালাবহ এলাকার সাইফুল ইসলামের মেয়ে সাদিয়া আক্তারের সঙ্গে পারিবারিকভাবে সৌদি প্রবাসী হাবিবুর রহমানের বিয়ে হয়। তাদের সংসার জীবনে আব্দুল্লাহ আলভী নামে এক ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। গত ১০/১২ দিন আগে সাদিয়া তার তিন বছরের ছেলে আব্দুল্লাহকে নিয়ে বাবার বাড়ি ভাউমান টালাবহ এলাকায় বেড়াতে আসেন। গত সোমবার বিকেলে সাদিয়া ও তার দাদা ফরমান উদ্দিন, দাদী সুরভানু বেগম, ছোট বোন মরিয়ম ও ছেলে আব্দুল্লাহ আলভীসহ এক পরিবারের পাঁচজন নৌকা যোগে পাশের বগাবাড়ি বিলে বেড়াতে যান। কিন্তু বিকেল ৬টার দিকে ওই বিলের কৈডাঙ্গা কালভার্টের নিচ দিয়ে যাওয়ার সময় ¯্রােতে তাদের নৌকাটি ডুবে যায়। এসময় দাদা ফরমান উদ্দিন, দাদী সুরভানু বেগম ও ছোট বোন মরিয়ম কোনভাবে পাড়ে উঠে। কিন্তু ¯্রােতের পানিতে ডুবে নিখোঁজ হন নাতনি সাদিয়া ও সাদিয়ার শিশু ছেলে। পরে আশপাশের লোকজন ছুটে গিয়ে নিখোঁজ মা সাদিয়া ও ছেলে আব্দুল্লাহকে উদ্ধারে ব্যর্থ হয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে গেলেও তারা নিখোঁজ মা-ছেলেকে উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়। পরের দিন মঙ্গলবার সকালে গাজীপুরের টঙ্গী থেকে একদল ডুবুরী ঘটনাস্থলে গিয়ে নিখোঁজ মা-ছেলেকে উদ্ধারের চেষ্টা চালায়। অনেক খোঁজাখুজি করে নিখোঁজের ১৭ ঘন্টা পর বেলা ১১টার দিকে মা সাদিয়ার লাশ উদ্ধার করে ডুবুরী দল। তার লাশ উদ্ধারের পর ওই এলাকায় এক হৃদয়বিধারকের সৃষ্টি হয়। কিন্তু নিখোঁজের একদিন পেরিয়ে গেলে নিহতের ছেলে আব্দুল্লাহকে উদ্ধার করতে পারেনি ডুবুরী দল। তাকে উদ্ধারে ডুবুরী দলের সঙ্গে স্থানীয় লোকজন যারা মাছ ধরে তারাও ছোট ছোট নৌকা নিয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনার খবর পেয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সেলিম আজাদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে লাশের দাফন-কাপনের জন্য শোকাহত পরিবারকে ২০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেন চেয়ারম্যান।

কালিয়াকৈর ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন কর্মকর্তা ইফতেখার রায়হান চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, টঙ্গী থেকে ডুবুরী দল ঘটনাস্থলে গিয়ে চেষ্টা চালিয়ে নৌকা ডুবে নিখোঁজ মায়ের লাশ উদ্ধার করেছে। এখনো নিহতের শিশু ছেলে নিখোঁজ আছে। তবে ওই নিখোঁজ শিশুকে উদ্ধারের কাজ অব্যাহত রয়েছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সেলিম আজাদ জানান, নৌকা ডুবে মায়ের মৃত্যু ও তার শিশু ছেলে নিখোঁজ। এটা একটা মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে শোকাহত পরিবারকে লাশ দাফন-কাপনের জন্য আর্থিক সহযোগীতা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত) নিখোঁজ ছেলে আব্দুল্লাহ আলভীর লাশ উদ্ধার হয়নি।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর



বোদায় ধুমধাম করে বট-পাকুড়ের বিয়ে অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৮ জুলাই ২০২৪ | ৭৭জন দেখেছেন

Image

কুয়েল ইসলাম সিহাত, বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধিঃচারদিকে ঢাক-ঢোল আর সানাইয়ের সুর বাজছে। উলুধ্বনিও দিচ্ছেন অনেকেই। পুরোহিত পাঠ করছেন মন্ত্র। পরিপাটি করে সাজানো হয়েছে বিয়ের আসর। এক পলক দেখার জন্য ভিড় করছেন অনেকেই। বিয়ের আয়োজনের কোনো কিছুর কমতি নেই। তবে এত কিছু আয়োজন করা হয়েছে শুধু বট আর পাকুড় গাছের বিয়েকে ঘিরে। গত বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার পাঁচপীর ইউনিয়নের মীরগঞ্জ এলাকায় এ বিয়ের আয়োজন করা হয়। এতে আশেপাশের প্রায় শতাধিক পরিবার অংশ নেন।
জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল আটটা থেকে শুরু হয় বিয়ের কার্যক্রম। চলে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত। বটপাকুড়ের বিয়েতে বটগাছকে কনে আর পাকুড় গাছকে বর হিসেবে সাজানো হয়। বিয়েতে কনের বাবা হিসেবে কন্যাদান করেন নুনি রাম বর্মন আর ছেলের বাবা ছিলেন একই এলাকার লক্ষী প্রসাদ বর্মন। বিয়ের কাজ সম্পন্ন করেন পুরোহিত কাজল চক্রবর্তী। কথা হয় কন্যাদান (বটগাছ) করা নুনি রাম বর্মনের সাথে। তিনি বলেন, আমি এ যাবত শুধু শুনেই আসছি যে বট আর পাকুড় গাছের বিয়ের কথা। কোনো দিনও সেই বিয়ে দেখিনি। আজকে নিজেই কন্যার বাবা হিসেবে বটগাছকে সম্প্রদান করছি। আমাদের পরিবারের সবার মঙ্গল কামনায় এই বিয়ের আয়োজন করা হয়েছে। ছেলের বাবা (পাকুড় গাছ) লক্ষী প্রসাদ বর্মন বলেন, আমার বাবা এই বট ও পাকুড় গাছ দুটির চারা রোপণ করে। তখন বাবা এই গাছগুলোকে বিয়ে দিতে বলেছিলেন আমাদের সুফল হওয়ার জন্য। আজকে সেই গাছেরই বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এর মাধ্যমে আমাদের সব মঙ্গল হবে। আমাদের পরিবারের ছেলেমেয়েদের বিপদ-আপদ দূর হবে। বিয়ে দেখতে আসা প্রতিমা রাণী বর্মন বলেন, বট-পাকুড়ের বিয়ে দিলে আমদের ধর্মীয়ভাবেই একটা পুণ্য লাভ হয়। অনেকেই আবার ছেলে বা মেয়ে সন্তান লাভের আশায় এই বিয়ে দেয়। অনেক আগে থেকে এই বিয়ের প্রথা চলে আসছে। প্রথমবারের মতো বট-পাকুড়ের বিয়ে দেখতে এসেছেন সুর্বণা রাণী। কথা হলে তিনি বলেন, বট-পাকুড়ের বিয়ে হবে এটা শোনার পর থেকেই অনেক কৌতূহল হচ্ছিল মনের মধ্যে। আগে অনেকবার শুনেছি বট-পাকুড়ের বিয়ের কথা। কিন্তু এই প্রথমবার নিজ চোখে বিয়ে দেখলাম। বিয়েতে অনেকের আত্মীয়-স্বজনের সাথে দেখা হলো। সবাই মিলে অনেক আনন্দ করলাম। বর-কনের বিয়ের মতোই সব আয়োজন ছিল বিয়েতে। আমার অনেক ভালো লেগেছে বট-পাকুড়ের বিয়েতে আসতে পেরে। বিয়ের পুরোহিত কাজল চক্রবর্তী বলেন, বট-পাকুড়ের বিয়ে দিলে পরিবারের অমঙ্গল দূর হয়। তাদের পরিবারের ছেলেমেয়েদের কোনো অভাব বা দুঃখ-কষ্ট তাদের জীবনে আসবে না। এজন্য আজকে বট-পাকুড়ের বিয়ে দিচ্ছেন নুনি রাম বর্মন ও লক্ষী প্রসাদ বর্মন।এবিষয়ে পাঁচপীর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অজয় কুমার বলেন, সনাতন রীতিনীতি মেনেই এই বিয়ে দেওয়া হয়েছে। বর-কনের বিয়ের মতোই সব আয়োজন ছিল বিয়েতে। বৃহস্পতিবার কনের বাড়িতে খাওয়ার আয়োজন করা হয়েছে। শুক্রবার (১২ জুলাই) বরের বাড়িতে বৌভাত এর আয়োজন করা হয়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



ঠাকুরগাঁওয়ে ভুয়া নিয়োগে ৪০ লাখ টাকা আত্মসাত

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৪৫জন দেখেছেন

Image

জসীমউদ্দীন ইতি ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:ভুয়া নি‌য়ো‌গে ঠাকুরগাঁওয়ে ‌তিন‌টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৬ সহকারী শিক্ষিকা প্রায় চার বছর ধরে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থেকেও নিয়মিত বেতন-ভাতা তুলছেন। এ ঘটনায় ৬ সহকারী শিক্ষিকাসহ তৎকালীন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসের অ‌ফিস সহকারীকে অভিযুক্ত ক‌রে আদাল‌তে অভিযোগ দিয়ে‌ছে দুদক।

গত মঙ্গলবার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এ অ‌ভিযোগপত্র জমা দেন ঠাকুরগাঁও দুর্নীতি দমন কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয় সহকারী পরিচালক আজমির শরিফ মারজী।

অ‌ভিযুক্তরা হ‌লেন, তৎকালীন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও বর্তমানে নীলফামারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এ এম শাহজাহান সিদ্দিক ও সদ‌র উপজেলা শিক্ষা অফিসের অফিস সহকারী সলিম উদ্দিন।

অ‌বৈধ নি‌য়োগপ্রাপ্ত ৬ শিক্ষিকা হ‌লেন, সদর উপজেলার দেহন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক সহকারী শিক্ষক কৌশলা রানী ও ভারতী রানী রায়। কৌশলা রানী বর্তমা‌নে ৮নং আখানগর আর্দশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এবং ভারতী রানী রায় সদ‌র উপজেলার কাশিডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকরি করছেন। এছাড়াও ভুয়া কাগ‌জে নিয়োগ নিয়েছেন আখানগর ধনীপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়য়ের সাবেক সহকারী শিক্ষিকা মোছা. নাহিদ পারভীন ও লতা বালা। মোছা. নাহিদ পারভীন বর্তমা‌নে গাইবান্ধা সদ‌রের চাপাদহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এবং লতা বালা সদর উপজেলার মাধবপুর যোতপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা। একইভাবে নিয়োগ নিয়েছেন সদর উপজেলার সেনিহারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক সহকারী শিক্ষিকা লিলি রানী রায় ও সুইটি রানী রায়। লিলি রানী রায় বর্তমানে কালীতলা কান্দরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এবং সুইটি রানী রায় একই স্কুলে কর্মরত আছেন।

আদাল‌তে দেওয়া অ‌ভি‌যোগ প‌ত্রে জানা যায়, তৎকালীন ঠাকুরগাঁও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এ এম শাহজাহান সিদ্দিক সদ‌র উপজেলা শিক্ষা অফিসের অ‌ফিস সহকারী মো. সলিম উদ্দিন পরস্পর যোগসাজসে তথ্য গোপন ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে প্রতারণার মাধ্যেমে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কা‌ছে ভুয়া কাগজপত্র দাখিল করে মোট ৬ জন শিক্ষককে অবৈধভাবে নিয়োগ দেন। একই স‌ঙ্গে তা‌দের জাতীয়করণ এবং অবৈধ নিয়োগ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিয়োগপ্রাপ্ত হয় ৬ ভুয়া শিক্ষক।

নি‌য়োগপ্রাপ্তরা ২০১৩ সালের ১ জানুয়ারি চাক‌রি‌তে যোগদা‌নের তা‌রিখ দে‌খি‌য়ে ৩০ জুন ২০১৭ সা‌লে জাতীয়করণ হয় তা‌দের চাক‌রি। বিদ্যাল‌য়ের শিক্ষক হাজিরা খাতায় এ চার বছ‌র পর্যন্ত তাদের কোনো সই পাওয়া যায়নি। বিদ্যাল‌য়ে অনুপ‌স্থিত থে‌কেও উপজেলা অফিস সহকারী সলিম উদ্দিন ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার পরস্পরের সঙ্গে যোগসাজসে অবৈধভাবে বেতন ভাতা ও উৎসব ভাতা বাবদ ৪০ লাখ ৪২ হাজার ৯২০ টাকা বকেয়া বিল রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে উত্তোলণ ক‌রে আত্মসাৎ করেন। যা দণ্ডবিধির ৪০৯/৪২০/১০৯ এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছে ব‌লে দুদক আদালতের অ‌ভি‌যোগ পত্রে উ‌ল্লেখ ক‌রা হয়।

এ বিষ‌য়ে সদ‌র উপজেলার আখানগর ধনীপাড়া সরকারি  প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক উম্মে কুলসুম ব‌লেন, তার বিদ্যাল‌য়ে দুই শি‌ক্ষিকা ২০১৩ সা‌লে নি‌য়ো‌গের বিষয়‌টি তারা কেউ জান‌তেন না। প‌রে ২০১৭ সা‌লে তা‌দের চাক‌রি জাতীয়করণ হ‌লে তারা নিয়‌মিত বিদ্যাল‌য়ে আ‌সে। এর ম‌ধ্যে ওই দুই শি‌ক্ষিকা বি‌ভিন্ন সময় তা‌দের যোগদা‌নের তা‌রিখ‌ পি‌ছি‌য়ে


আরও খবর



মাগুরায় জমি নিয়ে দাঙ্গা যুবক খুন বাড়িঘর ভাংচুর লুটপাট

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরা সদর উপজেলার বেঙ্গাবেরইল গ্রামে জমিজমা দাঙ্গায়  জাহিদ মোল্যা (৪৪) নামে এক যুবক খুন হয়েছে। নিহত জাহিদ ওই গ্রামের আবদুল কুদ্দুস মোল্যার ছেলে।

এলাকাবাসি জানায়, উপজেলার বেঙ্গাবেরইল গ্রামের আনারুল মোল্যার সাথে বড় ভাই জয়নাল মোল্যার ছেলে আশরাফ মোল্যার মধ্যে  জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। বৃহস্পতিবার বিকালে আনারুল মোল্যা বাড়ির সামনে বিরোধপূর্ণ একটি জমিতে মাটি ভরাটের কাজ করছিলো। এ সময় তার ভাতিজা আশরাফ এতে বাঁধা দিলে উভয় পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। উভয় পরিবারের সমর্থনে একই গোষ্ঠির লোকজন ঢাল সড়কি নিয়ে দাঙ্গায় লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন কমবেশি আহত হয়। আহতদের মধ্যে আলতাফ মোল্যা (৫৩), আলমগীর (৪৫), জাহিদ বিশ্বাস (৪৪), জাহিদ মোল্যা (৪৪), মোশারফ মোল্যা (৫৬), উজ্জ্বল মোল্যা (২৪), পিকুল মোল্যা (৪২), মনিরুল (৩২), নাসিরুল রফিক মোল্যা (৩৮), রবিউল মোল্যা (৪০), শমসের মোল্যা, হাসানুর মোল্যা (৪০) ও সায়েদ মোল্যা (৩৫) কে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর আহত জাহিদ মোল্যাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মধুখালী পৌছালে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে জাহিদ মোল্যার মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তার সমর্থিতরা প্রতিপক্ষের অন্তত ১০টি বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মেহেদী রাসেল বলেন, খবর পেয়ে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।


আরও খবর