Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

ডেমরায় মাদক ব্যবসায়ীদের হামলায় আহত ২

প্রকাশিত:Wednesday ১৩ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২৬৬জন দেখেছেন
Image

বিশেষ প্রতিনিধিঃ মোঃআবু কাওছার মিঠু 


রাজধানী ডেমরার আতিক মার্কেটের সামনে চায়ের দোকানে সোমবার (১১ জুলাই ২০২২ইং) রাতে মাদক ব্যবসায়ীদের বাধা দেয়াকে কেন্দ্র করে আসামী হাবিবুর রহমান হাবু, সজিব, পারভেজ, সোহান, সাইফুল, জামান ও সোহান বেআইনী জনতাবদ্ধ হয়ে স্টিলের চাপাতি, লোহার রড, কাঠের লাঠি সোটা দিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে একতা এন্টারপ্রাইজের মালিক মাতব্বর এমদাদ বেপারী ও তার ভাতিজা সুরুজ্জামান বাবুকে রক্তাক্ত গুরুতর আহত করে।


এ সময় তার পকেটে থাকা ৬৫ হাজার টাকা আসামীগন ছিনিয়ে নেয়। এলাকাবাসী একত্রিত হলে আসামীরা আহতদের হত্যার হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়।


এলাকাবাসীর সহযোগীতায় এমদাদ ও বাবুকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। ওই দিনই এমদাদ বাদী হয়ে ডেমরা থানায় অভিযোগ দায়ের করে। বিষয়টি আমলে নিয়ে ডেমরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শফিকুর রহমান মঙ্গলবার (১২ জুলাই ২০২২ইং) মামলা গ্রহন করেন।


মামলাটি ১৪৩/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ ধারার অপরাধ। এছাড়াও বিষয়টি বে আইনী জনতাবদ্ধে মারধর করে খুনের উদ্দেশ্যে সাধারন ও গুরুতর জখম করে চুরি ও ভয়ভীতি প্রদর্শনের অপরাধ। এখনও পর্যন্ত কোন আসামী বা টাকা উদ্ধার হয় নি।


জানতে চাইলে ডেমরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শফিকুর রহমান বলেন, আসামী গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।


আরও খবর



এখনো হুন্ডির মাধ্যমে টাকা আসে: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

এখনো হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশ থেকে টাকা আসে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বুধবার (৩ আগস্ট) দুপুরে ভার্চুয়ালি সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

হুন্ডিতে টাকা না পাঠিয়ে ব্যাংকিং চ্যানেলে পাঠাতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা সবসময় অফিসিয়াল চ্যানেলে বিদেশ থেকে টাকা আসুক সেটা প্রত্যাশা করি। কারণ এটার যে সুফল সেটি অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক। হুন্ডির মাধ্যমে যদি টাকা নিয়ে আসেন সেটিকে অবৈধ বলব না, সেটি কালো টাকা। যারা সেই টাকা হুন্ডির মাধ্যমে নিয়ে আসেন, তারা সবসময় বিবেকের কাছে দায়ী থাকবেন।

বিস্তারিত আসছে…


আরও খবর



চাহিদার চেয়ে উৎপাদন বেশি ৩০ লাখ টন, তবু বাড়ছে আলুর দাম

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

 

প্রতি সপ্তাহেই কাঁচাবাজারে কোনো না কোনো সবজির দাম বাড়ছে। এবার নতুন করে সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছে আলু। কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে আলুর দাম কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে হয়েছে ৩৫ টাকা।

ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) তথ্য বলছে, দেশে গত বছর ৭০ থেকে ৮০ লাখ টন চাহিদার বিপরীতে ১ কোটি ১০ লাখ টন আলু উৎপাদন হয়েছিল। ওই বছরের জুলাই-আগস্টে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হয়েছিল ২০-২৫ টাকা করে। এ বছর দামের ব্যবধান ২৯ শতাংশ বেড়েছে। আর শেষ সপ্তাহে ব্যবধান বেড়েছে সাড়ে পাঁচ শতাংশ।

সোমবার (১ আগস্ট) রাজধানীর রামপুরা ও মালিবাগ বাজার ঘুরে দেখা যায়, সাদা ও লাল আলু বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকায়। তবে কারওয়ান বাজারের কয়েকটি দোকানে ৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হতে দেখা যায়।

রামপুরা বাজারের সবজি বিক্রেতা ফিরোজ মিয়া বলেন, সরবরাহ কম থাকায় পাইকারি বাজার থেকে পাঁচ টাকা বেশিতে আলু কিনতে হচ্ছে। আমরাও সেভাবে দাম সমন্বয় করে মানভেদে কেজিপ্রতি সর্বোচ্চ ৩৫ টাকায় বিক্রি করছি। এর আগেও আলুর দাম প্রতি সপ্তাহে দু-এক টাকা করে বেড়েছে।

অন্যদিকে, কারওয়ান বাজারের আলু ব্যবসায়ী সুজাউল মিয়া বলেন, তিন-চারদিন ধরে পাইকারি বাজারে আলুর দাম বেশি। ঈদের পর থেকেই দাম টুকটাক বেড়েছে। আগে প্রতি পাল্লা (৫ কেজি) আলু বিক্রি করেছি ১২৫ টাকায়। এখন মানভেদে বিক্রি করছি ১৪০ টাকায়।


আরও খবর



শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করে আন্দোলন বেগবান করতে হবে: ফখরুল

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আব্দুর রহিমের রক্ত বৃথা যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করে আন্দোলন বেগবান করতে হবে।

সোমবার (১ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ভোলায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আব্দুর রহিমের গায়েবানা জানাজায় তিনি এসব কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, এই শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করতে হবে। এই রক্তকে ধারণ করে আমাদের আরও সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই সরকারকে পরাজিত করতে হবে।

তিনি বলেন, ফ্যাসিবাদী আওয়ামী সরকারের পুলিশের গুলিতে আমার গণতন্ত্রকামী ভাইয়ের রক্ত ঝরেছে। শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশ গুলি করেছে এবং আমাদের স্বেচ্ছাসেবক দলের আব্দুর রহিমকে হত্যা করেছে। শুধু আব্দুর রহিম নয়, আমাদের কেন্দ্রীয় নেতাসহ প্রায় শতাধিক নেতাকে গুলি করে আহত করেছে।

jagonews24

বিএনপি মহাসচিব আরও বলেন, ভোলায় রহিমের রক্তের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে এদেশের মানুষ কখনোই আওয়ামী সরকারের দমন নীতিকে ভয় করবে না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা।

জানাজায় আরও অংশ নেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত মেজর হাফিজ আহমেদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালাম, সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু, উত্তরের আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান, সদস্য সচিব আমিনুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিন্স, আব্দুস সালাম আজাদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এনি, নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাগপা একাংশের সভাপতি খন্দকার লুৎফর রহমান, মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান প্রমুখ।


আরও খবর



লেবাননে অপরাধে জড়াচ্ছেন প্রবাসীরা

প্রকাশিত:Thursday ০৪ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

লেবাননে কয়েক বছর ধরে চলমান অর্থনৈতিক মন্দায় আইন-কানুন অনেকটা শিথিল থাকায় প্রবাসীদের অপরাধ প্রবণতা বেড়েই চলেছে। মদ, জুয়া, অপহরণসহ বিভিন্ন অনৈতিক কাজে জড়িয়ে পড়ছে কিছু বাংলাদেশি। এমতাবস্থায় হাতেগোনা কয়েকজনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে দেশটিতে হুমকির মুখে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি।

লেবাননে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস সোমবার রাতে স্থানীয় বাংলাদেশিদের সতর্ক করে তাদের ফেসবুকে একটি নোটিশ দিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, কতিপয় বাংলাদেশির বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অসামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকাসহ গণ উপদ্রব সৃষ্টি, হাইছিলুম, আশরাফিয়ে, মুকাল্লেস, মনসুরিয়ে, নাভাসহ বিভিন্ন এলাকায় অবাধে জুয়ার আসর, নাইট ক্লাবে গিয়ে অসামাজিক কর্মকাণ্ড ও অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ধরনের কর্মকাণ্ডে জড়িতদের সতর্ক করে ভবিষ্যতে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

দেশটিতে বেশ কয়েক বছর ধরে স্থানীয় নাইট ক্লাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টিকটকের নামে কিছু বাংলাদেশির উশৃঙ্খলা চরমে পৌঁছেছে। যেখানে-সেখানে টিকটকের নামে অশ্লীলতা, বিভিন্ন এলাকায় অবাধে জুয়া আসরের নামে বাংলাদেশিদের নিঃস্ব, নেশাজাতীয় দ্রব্য সেবন, আধিপত্য বিস্তার, হত্যা, অপহরণ করে অর্থ আদায় ও নারীঘটিত বিভিন্ন অনৈতিক কাজ বেড়েই চলেছে।

এদিকে গত সোমবার (২৫ জুলাই) সাবিনা ইয়াসমিন নামে এক কর্মীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার দায়ে ৬ বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে স্থানীয় পুলিশ। এর আগেও বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে দূতাবাসের তথ্যানুযায়ী প্রায় ৩১ জন বাংলাদেশি স্থানীয় জেলে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি ভোগ করছে।

Lebanon2

এছাড়া গত কিছুদিন আগে দাওড়া এলাকায় প্রকাশ্যে দু’দল বাংলাদেশির মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয় বলে স্থানীয় বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন।

লেবানন প্রবাসী রাব্বুল শেখ বলেন, যেসব জায়গায় জুয়া ও টিকটকের নামে অসামাজিক কার্যকলাপ চলে, জড়িত বাংলাদেশিদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে দূতাবাসের শাস্তিমূলক পদক্ষেপ নেওয়া দরকার।

বাংলাদেশি মিন্টু মাল বলেন, অল্প কয়েকজন বাংলাদেশির কারণে লেবাননে আমাদের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হতে পারে না। এ বিষয়ে দূতাবাসের জোরালো পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন।

এ বিষয়ে দূতাবাসের প্রথম সচিব আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, প্রবাসে কিছু বাংলাদেশি এ ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড দেশের ভাবমূর্তি নষ্টসহ সাধারণ প্রবাসীদের কাজের ক্ষেত্রে এর বিরূপ প্রভাব পড়ে। আমরা তাদের সতর্ক করে নোটিশ দিয়েছি। এরপরও যদি তারা নিজেদের সংশোধন না করে, তাহলে দূতাবাস দেশ ও সাধারণ বাংলাদেশিদের স্বার্থে তাদের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে।

দূতাবাসের নোটিশের পরিপ্রেক্ষিতে সাধারণ প্রবাসী বাংলাদেশিরা দূতাবাসকে ধন্যবাদ জানিয়ে অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।


আরও খবর



ডেপুটি স্পিকারের মরদেহে বিপিজেএ’র শ্রদ্ধা

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ০৪ August ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়ার মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন বাংলাদেশ পার্লামেন্ট জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন (বিপিজেএ) নেতারা। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

সোমবার (২৬ জুলাই) সকালে জাতীয় ঈদগাহ মাঠে জানাজা স্পিকারের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন বিপিজেএ নেতারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিপিজেএর আহ্বায়ক নিখিল চন্দ্র ভদ্র, সিনিয়র সদস্য আসাদুজ্জামান সম্রাট, রফিকুল ইসলাম সবুজ, শাহজাহান মোল্লা, মিজান রহমান, সাকিলা পারভীন, তানভীর আহমেদ, হাবিবুর রহমান প্রমুখ।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে নেতারা বলেন, তার মৃত্যুতে দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে এক অপূরণীয় ক্ষতি হলো। দেশ এক নিবেদিতপ্রাণ রাজনীতিবিদকে হারালো আর আওয়ামী লীগ হারালো দলের একজন নিবেদিতপ্রাণ নেতাকে। আর সাংবাদিকরা হারালো সংসদীয় অনেক জটিল বিষয়গুলোকে সহজ ও সাবলীল ভাবে বুঝিয়ে দেওয়ার মতো বিশেষজ্ঞকে। তার আত্মার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।

অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া টানা ৯ মাস মরণব্যাধি ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই শেষে শুক্রবার দিনগত রাত ২টায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের মাউন্ট সিনাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। আজ সকালে তার মরদেহ ঢাকায় এসে পৌঁছায়।


আরও খবর