Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

চুয়াডাঙ্গায় দেশের সবচেয়ে বড় মাল্টা বাগান, দাবি মালিকের

প্রকাশিত:Thursday ০২ June 2০২2 | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৭১জন দেখেছেন
Image

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার নতিপোতা ইউনিয়নের হোগলডাঙ্গা গ্রামে গড়ে তোলা হয়েছে বিশাল মাল্টা বাগান হয়েছে। এ গ্রামের মরাগাঁঙ বিলের পাশ ঘেঁষে ৪০ বিঘা জমিতে এ মাল্টা বাগান করেছেন ভগিরথপুর গ্রামের পুরাতন পাড়ার আব্দুর রহমানের ছেলে সাখাওয়াত হোসেন বাবলু।

সাখাওয়াত হোসেন দাবি করেন, শুধু খুলনা বিভাগে নয়, দেশের সবচেয়ে বড় মাল্টার বাগান এটি। চুয়াডাঙ্গাসহ পার্শ্ববর্তী জেলার চাহিদা মিটিয়ে এই বাগানের মাল্টা এখন ঢাকায় যাচ্ছে।

মাল্টা পাকা শুরু হলে প্রায় প্রতিদিনই ঢাকা থেকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা এসে সাখাওয়াত হোসেনের বাগান থেকে মাল্টা কিনে নিয়ে যাবেন। সাখাওয়াত হোসেনের সাফল্য দেখে গ্রামের অনেক যুবক এখন মাল্টা চাষে আগ্রহ প্রকাশ করছেন।

jagonews24

এ ছাড়া অন্য কৃষকরাও মাল্টা চাষে ঝুঁকছেন। সাখাওয়াত হোসেনের কাছ থেকে মাল্টা চাষের ব্যাপারে বিভিন্ন পরামর্শও নিচ্ছেন নতুন উদ্যোক্তারা। এবছর চুয়াডাঙ্গার ১২৭ হেক্টর জমির শতাধিক মাল্টা বাগান থেকে প্রায় ১১৯২ মেট্রিক টন ফল পাওয়া যাবে।

শৈশব থেকেই বৃক্ষ রোপণের নেশা ছিল শাখাওয়াত হোসেনের। নতুন কোনো ফল বা ঔষধি গাছের সন্ধান পেলেই তার চারা সংগ্রহ করে পরিত্যক্ত জমিতে অথবা রাস্তার দুপাশে সেটি রোপণ করতেন তিনি। বৃক্ষ রোপণের নেশা তার পিছু ছাড়েনি। নতুন কোনো ফলের সন্ধান পেলে এখনো ছুটে যান এবং চারা সংগ্রহ করে সেটি রোপণ করেন তিনি।

পাবনার ঈশ্বরদীতে অবস্থিত রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের কর্মচারী শাখাওয়াত হোসেন খুলনায় পরমাণু চিকিৎসা কেন্দ্রে চাকরি করার সময় কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটে বেড়াতে যান। সেখানে মাল্টার বাগান দেখে মুগ্ধ হন তিনি।

jagonews24

সাখাওয়াত হোসেন বাবলু জানান, শুরুটা ২০১৩ সালের প্রথম দিকে। তখন খুলনার দৌলতপুর কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট থেকে দুই হাজার টাকা দিয়ে ২০টি বারি মাল্টা-১ জাতের চারা কিনে আনি। এরপর ১৪ কাঠা জমিতে চারাগুলো রোপণ করি। ২০১৫ সালে সবকটি গাছে ফল ধরলে তা দেখতে আশপাশের লোকজন ভিড় করতে থাকেন। পরে এসব গাছ থেকে কলম তৈরির পর পরিকল্পিতভাবে মাল্টা চাষ শুরু করি। প্রথমেই অন্যের ২০ বিঘা জমি বর্গা নিয়ে মাল্টার বাগান তৈরি করি। পরবর্তীতে ধাপে ধাপে ৪০ বিঘা জমিতে মাল্টা বাগান করেছি।

তিনি জানান, প্রায় দুবছর আগে আরও দুবিঘা জমিতে পরীক্ষামূলকভাবে বাও-৩ জাতের মাল্টা বাগান করেছি। ময়মনসিংহ থেকে এ জাতের চারা সংগ্রহ করেছি। গাছ রোপণের ৯ মাস পরই ফুল ধরতে শুরু করে। ফুল আসার অল্প দিনেই মাল্টা ফলে পরিণত হয়।

এ জাতের মাল্টা চাষে প্রথম বছরেই সফলতা পেয়েছি। বাও-৩ জাতের মাল্টা চাষে সফলতা পাওয়ায় এখন বাণিজ্যিকভাবে চাষ শুরু করতে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। এ জন্য জমি প্রস্তুতসহ চারা উৎপাদন এবং বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। সাখাওয়াত হোসেন বলেন, এ জাতের মাল্টা চাষে খরচ তুলনামূলক কম। পরিচর্চা, সার ও কীটনাশক ব্যবহার করতে হয় অল্প পরিমাণে। বছরে ৩-৪ বার ফল সংগ্রহ করা যায়। প্রতিটি গাছ থেকে ১৫ কেজি হতে ১৮ কেজি পর্যন্ত ফল পাওয়া যায়।

jagonews24

তিনি জানান, তার বাগানের মাল্টা চুয়াডাঙ্গাসহ আশপাশের জেলার চাহিদা মিটিয়ে ঢাকায় চলে যায়। বাগানে প্রতিদিন ৫০-৬০ জন শ্রমিক কাজ করছেন। চলতি মৌসুমে ৪০ বিঘা জমি থেকে প্রায় কোটি টাকার মাল্টা বিক্রি হবে। আগামী সেপ্টেম্বর মাস থেকে বাগানের মাল্টা বিক্রি শুরু হবে। তার সফলতা দেখে জেলার অনেকেই মাল্টা চাষে উদ্যোগী হচ্ছেন বলে জানান তিনি।

সরেজমিনে সাখাওয়াত হোসেনের মাল্টা বাগানে গিয়ে দেখা গেছে, বাগানের প্রতিটি গাছে শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন আকৃতির কাঁচা মাল্টা। কাঁচা ফলে ভরে গেছে পুরো বাগান। গাছের ডালে থোকায় থোকায় ঝুলছে মাল্টা। সবুজ পাতার আড়ালে প্রতিটি ডালে ঝুলে আছে নজরকাড়া মাল্টা। চুয়াডাঙ্গাসহ আশপাশের জেলা থেকে বাগান দেখতে ছুটে এসেছেন অনেক শিক্ষিত বেকার যুবক।

মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর এলাকার যুবক রফিকুল ইসলাম জানান, আমি মাল্টা বাগান দেখতে এসেছি। গাছে যে পরিমাণে মাল্টা ঝুলছে তা দেখে আমি বিস্মিত হয়েছি। বাস্তবে না দেখলে বিশ্বাস করতাম না। আমি নিজে এখান থেকে চারা নিয়ে ২ বিঘা জমিতে বাগান করব।

jagonews24

বাগানের শ্রমিক হায়দার আলী জানান, বাবলু ভাইয়ের মাল্টা বাগান আমরা বেশ কয়েকজন মিলে দেখাশোনা করি। আমাদের গ্রামের অধিকাংশ মানুষ কৃষি কাজের সঙ্গে জড়িত। মাল্টা বাগান হওয়াতে অনেকেই এখন কাজের সুযোগ পেয়েছেন। এখান থেকে উপার্জিত টাকায় জীবিকা নির্বাহ করছেন তারা।

চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ জানান, দামুড়হুদা উপজেলায় ৪০ বিঘা জমিতে মাল্টা চাষ হয়েছে। এবার ফলও হয়েছে বেশ ভালো। বারি মাল্টা-১ এর সম্প্রসারণ যদি আমরা করতে পারি এবং বাজারে এ মাল্টার যে চাহিদা রেয়েছে তাতে করে কৃষকরা বারি মাল্টা-১ চাষ করে লাভবান হবেন।

তিনি আরও বলেন, চুয়াডাঙ্গা বন্যামুক্ত এলাকা। বছরের মে মাস থেকে জুলাই মাসে মাল্টা গাছ রোপণের সময়। সেপ্টেম্বর মাস থেকে ডিসেম্বরে গাছ থেকে ফল সংগ্রহ করা হয়। এই অঞ্চলের মাটি মাল্টা চাষের জন্য উপযোগী। মাল্টা চাষের ব্যাপারে আমরা তাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছি।


আরও খবর



বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ শুরু আজ

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

আজ সোমবার, ১ আগস্ট বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ শুরু হচ্ছে। মায়ের দুধের প্রয়োজনীয়তা ও শিশুর স্বাস্থ্য বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধিতে জোর দিতে এই বিশ্বব্যাপী এই সপ্তাহ পালন হয়। প্রতিবছর ১ থেকে ৭ আগস্ট বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ পালন করা হয়ে থাকে।

১৯৯২ সাল থেকে প্রতি বছর ১ আগস্ট বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ দিবস ও ১ থেকে ৭ আগস্ট বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ পালিত হয়ে আসছে। ২০১০ সাল থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ জাতীয়ভাবে বাংলাদেশেও পালিত হচ্ছে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, জাতীয় পুষ্টিসেবা, জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে, বাংলাদেশ ব্রেস্টফিডিং ফাউন্ডেশন (বিবিএফ) ও অন্যান্য সহযোগী সংস্থার সহযোগিতায় বাংলাদেশে বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ পালন করা হয়ে থাকে।

চিকিৎসকদের মতে, শিশুকে মায়ের দুধ খাওয়ানোর কোনো বিকল্প নেই। জন্মের ১ ঘণ্টার মধ্যে শিশুকে মায়ের দুধ দিলে মায়ের গর্ভফুল তাড়াতাড়ি পড়ে, সহজে রক্তক্ষরণ বন্ধ হয়, ফলে মা রক্তস্বল্পতা থেকে রক্ষা পান। এছাড়াও দ্রুত দুগ্ধপানে মায়ের জন্ম বিরতিতে সাহায্য করে, স্তন ও জরায়ুর ক্যান্সার এবং উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমায়।

মাতৃদুগ্ধ পান শিশুর সর্বোচ্চ শারীরিক বৃদ্ধি ও মানসিক বিকাশ নিশ্চিত করে। এছাড়াও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়, ডায়রিয়ার ঝুঁকি কমায়, শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ এবং কানের প্রদাহ কমায়। একই সঙ্গে দাঁত ও মাড়ি গঠনে সহায়তা করা ছাড়াও মায়ের দুধ শিশুর অনেক উপকার করে থাকে।

মায়ের দুধ না খাওয়ালে শিশুদের নানা রকম রোগ হতে পারে। যেমন শিশুর নিউমোনিয়াজনিত মৃত্যুর ঝুঁকি প্রায় ১৫ গুণ ও ডায়রিয়ায় মৃত্যুর ঝুঁকি প্রায় ১১ গুণ বেড়ে যায়। শিশুদের অপুষ্টি ও অন্যান্য কারণে মৃত্যুর ঝুঁকি প্রায় ১৪ গুণ বেড়ে যায়। শিশুর শারীরিক বৃদ্ধি ও বুদ্ধির বিকাশ বাধাগ্রস্ত হয়।


আরও খবর



সরকারি রেল পরিদর্শক রমজান বরখাস্ত

প্রকাশিত:Wednesday ০৩ August ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশ রেলওয়ের সরকারি রেল পরিদর্শক মো. রমজান আলীকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। তিনি দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) একাধিক মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি। তার বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও বিদেশে অর্থ পাচারের অভিযোগ রয়েছে।

রোববার (৩১ জুলাই) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে বাংলাদেশ রেলওয়ের সচিব মো. হুমায়ুন কবীর স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, রেল পরিদর্শক মো. রমজান আলীর বিরুদ্ধে এজাহারে বর্ণিত অপরাধ তদন্তকালে প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ঢাকা মহানগর কোর্ট মামলাটি আমলে নিয়েছে। যেহেতু সরকারি চাকরি আইন ২০১৮ এর ৩৯ (২) ধারায় উল্লেখ আছে ‘কোনো কর্মচারী দেনার দায়ে কারাগারে আটক থাকলে, কোনো ফৌজদারি মামলায় গ্রেফতার হলে অথবা তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গৃহীত হলে, সরকার বা নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ সে সময় আটক, গ্রেফতার বা অভিযোগপত্র গ্রহণের দিন থেকে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করতে পারবে।’ তাই সরকারি রেল পরিদর্শক মো. রমজান আলীকে গত ৩১ জুলাই সাময়িক বরখাস্ত করা হলো। সাময়িক বরখাস্ত থাকাকালে তিনি বিধি মোতাবেক খোরাকি ভাতা প্রাপ্য হবেন।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, রমজান আলী ক্ষমতার অপব্যবহার করে অনিয়ম, দুর্নীতির মাধ্যমে তার নিজের ও স্ত্রীর নামে প্রায় পাঁচ কোটি টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করেছেন। এর মধ্যে অর্ধেকের কিছু বেশি টাকার সম্পদ রেখেছেন গৃহিণী স্ত্রী আগা দিলরুবা পারভীন ইলোরার নামে। রমজান আলীর নামে রয়েছে দুই কোটি ৪৩ লাখ ৮০ হাজার ২৮৬ টাকার সম্পদ। এছাড়া তার স্ত্রী আগা দিলরুবা পারভীন ইলোরার নামে রয়েছে দুই কোটি ৪৭ লাখ ৯০ হাজার ৬৫৬ টাকার সম্পদ। এর মধ্যে এক কোটি ৮৫ লাখ আট হাজার ১৮০ টাকার সম্পদ আয়ের উৎস বহির্ভূত।


আরও খবর



জ্ঞানপাপীদের কথা শুনে কেউ বিভ্রান্ত হবেন না: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ০৩ August ২০২২ | ১১জন দেখেছেন
Image

জ্ঞানপাপীদের কথা শুনে কেউ যেন বিভ্রান্ত না হয়, সেদিকে সজাগ ও সচেতন থাকার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘ষড়ঋতুর দেশ আমাদের। দুইমাস পর পর ঋতু বদলায়, মানুষের মনও বদলায় এবং ভুলেও যায়। কাজেই দুইমাস পর ভুলে যেন না যায়, সেজন্য আমরা কী কাজ করেছি, তা মানুষের কাছে বার বার বলতে হবে, বোঝাতে হবে। কারণ একটা শ্রেণি আছে, যারা মানুষকে বিভ্রান্ত করতে চায়। এ জ্ঞানপাপীদের কথা শুনে কেউ যেন বিভ্রান্ত না হয়।’

বুধবার (২৭ জুলাই) প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন তিনি।

দলীয় নেতাকর্মীদের সরকারের উন্নয়ন দেশবাসীর সামনে তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বাংলাদেশের অগ্রগতি ব্যাহত করার অনেক ষড়যন্ত্র আছে, চক্রান্ত চলছে। আমি বিশ্বাস করি, যত চক্রান্তই করুক বাংলাদেশের এই অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না। আমরা অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছি। উন্নয়নের অপ্রতিরোধ্য এ গতিকে কেউ বাধাগ্রস্ত করতে পারবে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ঝড়-ঝাপটা এবং আন্তর্জাতিক পরিবেশের কারণে অনেক কিছুই মোকাবিলা করতে হবে। আমরা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করে যেমন চলি, তেমনি বৈশ্বিক যে দুর্যোগ সেটাও মোকাবিলা করে এগিয়ে যেতে পারবো। সেই বিশ্বাসও আমার আছে।’


আরও খবর



কেনিয়ায় বাস নদীতে পড়ে ২৪ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০১ August ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
Image

কেনিয়ায় একটি বাস নদীতে পড়ে অন্তত ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ২০ জন। বাসটি দেশটির মধ্যাঞ্চলের শহর মেরু থেকে নাইরোবী যাওয়ার পথে নিথি নদীর ৪০ মিটার গভীরে পড়ে যায়। এতেই হতাহতের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় গণমাধ্যমে রোববার (২৪ জুলাই) প্রকাশিত খবরে আরও জানা যায়, দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।
রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন কেবিসির খবরে বলা হয়, মেরু শহর থেকে উপকূলীয় এলাকা মোমবাসায় যাওয়ার পথে এ ঘটনা ঘটে।

রেডক্রসের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, রাতে উদ্ধার কাজ স্থগিত রাখা হয়। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় দুটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পূর্ব আফ্রিকান অঞ্চলের মধ্যে কেনিয়ায় এটি সর্বশেষ বাস দুর্ঘটনা। এই অঞ্চলের রাস্তাঘাট সংকীর্ণ হওয়ায় প্রায়ই ঘটে এ ধরনের ঘটনা ঘটে। তবে চালকের বেপরোয়া গতির কারণেই এসব দুর্ঘটনা ঘটে বলে দায়ী করে আসছে দেশটির পুলিশ।

এর আগে, গত ৮ জুলাই নাইরোবী থেকে মোমবাসা যাওয়ার পথে বাস দুর্ঘটনায় অন্তত ২০ জন প্রাণ হারান।

সূত্র: এপি, ডয়েচে ভেলে


আরও খবর



অবনমন উত্তর বারিধারার, বেঁচে গেলো মুক্তিযোদ্ধা

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ০৫ August ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ থেকে অবনমন এড়ানোর লড়াই ছিল চার দলের মধ্যে। স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘ এরই মধ্যে নেমে যাওয়ায় বেঁচে গিয়েছিল রহমতগঞ্জ। শেষ রাউন্ড পর্যন্ত ভাগ্য ঝুলে ছিল উত্তর বারিধারা ক্লাব ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রের।

শেষ ম্যাচে আবাহনীর কছে হেরে প্রিমিয়ার লিগ থেকে নেমে গেছে উত্তর বারিধারা ক্লাব, টিকে থাকলো মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র।

ঝুঁকিতে থাকা দুই দল রোববার শেষ ম্যাচ খেলতে নেমেছিল। গোপালগঞ্জে বারিধারা খেলেছে আবাহনীর বিপক্ষে এবং মুন্সিগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা খেলেছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে।

আবাহনীর কাছে ৫-২ গোলে হেরে নেমে গেছে বারিধারা। বারিধারা নেমে যাওয়ায় মুক্তিযোদ্ধ না জিতলেও টিকে থাকতো। কিন্তু তারা শেষ ম্যাচে হারিয়ে দিয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে।

লিগ রানার্সআপ আবাহনীর কাছে পাত্তাই পায়নি বারিধারা। সহজে ম্যাচ জিতে লিগ শেষ করেছে আবাহনী। গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়ামে শেষ ম্যাচ জয়ের পর আবাহনী গ্রহন করেছে রানাসআপ ট্রফি।

আবাহনী বড় জয়ে হ্যাটট্রিক করেছে ব্রাজিলিয়ান ডরিয়েলটন। তিনি করেছেন ৪ গোল। অন্য গোলটি আরেক ব্রাজিলিয়ান রাফায়েল অগুস্তর। উত্তর বারিধারার গোল করেছেন মারুফ আহমেদ ও ফজিলভ।

২২ ম্যাচে ৩ জয়, ৫ ড্র ও ১৪ হারে উত্তর বারিধারা ১৪ পয়েন্ট নিয়ে প্রিমিয়ার লিগ থেকে নেমে গেলো। রানার্সআপ আবাহনী লিগ শেষ করলো ১৪ জয়, ৫ ড্র ও ৩ হারে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে। চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংসের চেয়ে আবাহনী ১০ পয়েন্ট কম নিয়ে এবারের লিগ শেষ করলো।


আরও খবর