Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
চট্টগ্রাম টেস্ট

চতুর্থ দিন পুরোটা সময় ব্যাট করে যেতে চায় বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Wednesday ১৮ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৭৭জন দেখেছেন
Image

স্পোর্টস রিপোর্টারঃ

চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন শেষেও বোঝার উপায় নেই আদৌ ফল আসবে কি না এই ম্যাচে। কেননা ম্যাচের তিন দিনেও শেষ হয়নি দুই দলের প্রথম ইনিংস। উইকেট পড়েছে মাত্র ১৩টি। ব্যাটিংবান্ধব এ উইকেটে ফল না আসার সম্ভাবনাই বেশি। তবে বাংলাদেশ দলের রয়েছে ভিন্ন চিন্তা।

তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি, মাহমুদুল হাসান জয়, মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের ফিফটিতে তৃতীয় দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৩১৮ রান। শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংসে অলআউট হওয়ার আগে করেছিল ৩৯৭ রান। অর্থাৎ প্রথম ইনিংসে এখনও ৭৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

এই ম্যাচে ফল আনার জন্য চতুর্থ দিন পুরোটা সময় ব্যাট করে যেতে চায় বাংলাদেশ। এরপর বড় লিড নিয়ে ম্যাচের শেষ দিন শ্রীলঙ্কাকে অলআউট করার পরিকল্পনা স্বাগতিকদের। লিটন দাস, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসানদের মতো দ্রুত রান তোলা ব্যাটার থাকায়


আরও খবর



কুমিল্লাকে মাদকমুক্ত করার অঙ্গীকার কায়সারের

প্রকাশিত:Saturday ১১ June ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৪ June ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
Image

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়রপ্রার্থী (ঘোড়া) নিজাম উদ্দিন কায়সার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। এসময় তিনি নির্বাচিত হলে কুমিল্লাকে মাদকমুক্ত করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

শনিবার (১১ জুন) বেলা ১১টায় কুমিল্লা নগরীর শিশুমঙ্গল রোডের নির্বাচনী কার্যালয়ে তিনি ইশতেহার ঘোষণা করেন।

ইশতেহার ঘোষণাকালে নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, নেশার মরণ ছোবল কুমিল্লাকে গিলে ফেলেছে। তরুণ সমাজ আজ দিকভ্রান্ত। মাদকের কারণে অপরাধপ্রবণতাও বেড়েছে। আর এই মাদককে ঘিরেই কুমিল্লায় অনেক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এমনকি জনপ্রতিনিধিরাও হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। সংগঠিত হচ্ছে কিশোর গ্যাংয়ের মতো সহিংস কার্যক্রম। মাদকের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি নাগরিক সমাজেরও দায়িত্ব রয়েছে। এরই আলোকে নেশার মরণ ছোবল থেকে কিশোর ও যুব সমাজকে রক্ষা করতে কুমিল্লা সিটিতে সচেতনতামূলক কার্যক্রম চালু করা হবে।

তিনি বলেন, হতাশা এবং অন্যান্য মনস্তাত্ত্বিক সমস্যার কারণে মাদকাসক্তদের চিকিৎসা এবং তাদেরকে সাইকোলজিস্ট, মনোবৈকল্য বিশেষজ্ঞের মাধ্যমে সচেতনতা তৈরি করা হবে। মাদকাসক্তদের পুনর্বাসন এবং এর থেকে মুক্ত করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে আধুনিক মাদক নিরাময় কেন্দ্র গড়ে তোলা হবে। ‘ক্রাইম ম্যাপিং’ প্রণয়ন এবং অপরাধমুক্ত নগর সৃষ্টিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে উদ্যোগ নেওয়া হবে। নৈতিক ও সামাজিক অবক্ষয় রোধে সামাজিক সচেতনতার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

এছাড়া তিনি নিরাপদ ও সম্প্রীতির কুমিল্লা, আবাসন, তথ্যপ্রযুক্তি ও ফ্রিল্যান্সিং, জলাবদ্ধতা, যানজট নিরসন, স্বাস্থ্যসেবা, সু-শিক্ষা, পর্যটন ও বিনোদন, পরিচ্ছন্ন পরিবেশ, খাদ্য ও নগর কৃষি, পয়োনিষ্কাশন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং ক্রীড়া ও সংস্কৃতির বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে ইশতেহারে ১৩ বিষয় উল্লেখ করেন।

এসময় নিজাম উদ্দিন কায়সার আরও বলেন, আমি নির্বাচিত হলে কুমিল্লাকে দুর্নীতিমুক্ত করে দেশসেরা একটি সিটি করপোরেশন হিসেবে কুমিল্লাবাসীকে উপহার দেবো।

ইশতেহার ঘোষণা অনুষ্ঠানে নিজাম উদ্দিন কায়সারের নির্বাচনী প্রচারণা কমিটির আহ্বায়ক এস এ সেলিম, কুমিল্লা জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইউসুফ আলী, কুমিল্লা জজ কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী আমান উল্যাহ আমান, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, শহীদুল্লাহ্ রতন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



অবসর নিচ্ছেন মরগ্যান, নতুন অধিনায়ক হবেন বাটলার!

প্রকাশিত:Monday ২৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ১৫জন দেখেছেন
Image

একে তো ফর্ম নেই, তার ওপর ফিটনেসেও ঘাটতি। সবমিলিয়ে জাতীয় দলে জায়গা ধরে রাখাই মুশকিল হয়ে পড়েছে ইংল্যান্ডের সাদা বলের ক্রিকেটের অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যানের। তাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন এ বাঁহাতি মিডলঅর্ডার ব্যাটার।

চলতি সপ্তাহেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেবেন মরগ্যান- এমনটাই জানাচ্ছে ইংল্যান্ডের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান। নতুন অধিনায়ক হিসেবে উইকেটরক্ষক ব্যাটার জস বাটলার কিংবা মঈন আলির অধিক সম্ভাবনার কথা লিখেছে তারা।

সবশেষ নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচেই ০ রানে আউট হন মরগ্যান। পরে গত বুধবার তৃতীয় ম্যাচের একাদশেই দেখা যায়নি তাকে। তখন ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক বাটলার জানান, কুঁচকির পুরোনো চোট ফিরে আসায় খেলতে পারছেন না মরগ্যান।

কিন্তু ইংল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমগুলো তখন জানায়, মূলত বাদই দেওয়া হয়েছে মরগ্যানকে। কারণ হিসেবে স্রেফ কুঁচকির চোটের কথা বলা হয়েছে। এই সন্দেহ আরও জোরালো হয়, শনিবার মরগ্যান একটি কর্পোরেট ম্যাচে খেলতে নামলে। অবশ্য মঙ্গলবারের একটি ম্যাচ থেকে তিনি নিজের নাম সরিয়ে নিয়েছেন।

গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর থেকে ১৫ ওয়ানডেতে মাত্র ৩২ গড়ে ৩৫৩ রান করেছেন মরগ্যান। ফিফটি ও সেঞ্চুরি করতে পেরেছেন একবার করে। এছাড়া টি-টোয়েন্টিতে এ সময়ের মধ্যে খেলা ৩২ ম্যাচে চার ফিফটির সাহায্যে ২৮ গড়ে করেছেন ৬৪৮ রান।

মরগ্যানের জায়গায় নতুন অধিনায়ক হিসেবে বাটলারের দিকেই জোর দেওয়া হচ্ছে বেশি। ২০১৫ সাল থেকে মরগ্যানের ডেপুটি হিসেবে রয়েছেন বাটলার। এরই মধ্যে ১৩টি ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি সাম্প্রতিক ফর্মও কথা বলছে বাটলারের পক্ষে।

নতুন অধিনায়ক যে-ই হোক না কেন, ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ইতিহাসে অমর হয়েই থাকবেন মরগ্যান। কেননা তার অধীনেই যে নিজেদের প্রথম ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেছে ইংলিশরা। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের আগে অধিনায়কত্ব নিয়ে চার বছরের মধ্যেই দলকে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করেছেন মরগ্যান।


আরও খবর



মালিতে বিস্ফোরণে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনীর ২ সদস্য নিহত

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৭০জন দেখেছেন
Image

মালিতে পেতে রাখা বোমা বিস্ফোরণে জাতিসংঘ মিশনের শান্তিরক্ষী বাহিনীর দুই সদস্য নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুইজন। স্থানীয় সময় শুক্রবার (৩ জুন) মালির মধ্যাঞ্চলীয় শহর দুয়েনজার কাছে টিম্বুকতুর পথে বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটে।

জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি ও মালি মিশনের প্রধান আল ঘাসিম ওয়ানে ঘটনাটি নিশ্চিত করেন।

জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক জানিয়েছেন, একটি ইম্প্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) বিস্ফোরিত হয়। সেনা সদস্যদের বহনকারী গাড়িটি পেতে রাখা আইইডিতে আঘাত করলে সেটি বিস্ফোরিত হয়। এতে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

তিনি আরও জানান, ‘২২ মে থেকে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীর গাড়িবহরের সঙ্গে বিস্ফোরণের ষষ্ঠ ঘটনা এটি।’ হতাহত সেনারা মালির শান্তিরক্ষা মিশনের মিশরীয় কন্টিনজেন্টের অংশ বলে জানা গেছে।

এর আগে, বুধবার উত্তর মালিতে আরেকটি ঘটনায় জর্ডানের এক শান্তিরক্ষী নিহত ও আরও তিন জন আহত হন।

মালিতে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে ১৩ হাজার সদস্য কাজ করছেন। জাতিসংঘের অন্যতম বড় এই শান্তিরক্ষা মিশনটি সবচেয়ে বিপজ্জনক মিশনগুলোর মধ্যে একটি বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্র: রয়টার্স, আল-জাজিরা


আরও খবর



এবারও বাড়ছে সিগারেটের দাম

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

তামাক পণ্য নিরুৎসাহিত করতে আগামী ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেটেও বাড়ছে সিগারেটের দাম। তবে আগের মতোই থাকছে বিড়ি, জর্দা ও গুলের দাম।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) বাজেট উপস্থাপনকালে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, তামাক ও তামাকজাত পণ্যের ব্যবহার কমাতে এবং রাজস্ব আয় বৃদ্ধির লক্ষ্যে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, সিগারেটের নিম্নস্তরের দশ শলাকার দাম ৪০ টাকা ও তদুর্ধ্ব এবং সম্পূরক শুল্ক ৫৭ শতাংশ ধার্যের প্রস্তাব করছি। এছাড়া মধ্যম স্তরের দশ শলাকার দাম ৬৫ টাকা ও তদুর্ধ্ব, উচ্চ স্তরের দশ শলাকার দাম ১১১ টাকা ও তদুর্ধ্ব, অতি-উচ্চ স্তরের দশ শলাকার দাম ১৪২ টাকা ও তদুর্ধ্ব এবং এই তিনটি স্তরের সম্পূরক শুল্ক ৬৫ শতাংশ নির্ধারণ করার প্রস্তাব করছি।

আগের বছর মধ্যমস্তরের ১০ শলাকার দাম ৬৩ টাকা ও তদুর্ধ্ব, উচ্চস্তরের ১০ শলাকার দাম ১০২ টাকা ও তদুর্ধ্ব, অতি উচ্চস্তরের ১০ শলাকার দাম ১৩৫ টাকা ও তদুর্ধ্ব এবং এ তিনটি স্তরের সম্পূরক শুল্ক ছিল ৬৫ শতাংশ।

তবে আগের বছরের ন্যায় যন্ত্রের সাহায্য ব্যতীত হাতে তৈরি ফিল্টার বিযুক্ত বিড়ির ২৫ শলাকার দাম ১৮ টাকা, ১২ শলাকার দাম ৯ টাকা ও ৮ শলাকার দাম ৬ টাকা এবং সম্পূরক শুল্ক ৩০ শতাংশ অব্যাহত রাখার প্রস্তাব করছি।

এছাড়া পূর্ববর্তী বছরের ন্যায় প্রতি দশ গ্রাম জর্দার দাম ৪০ টাকা ও সম্পূরক শুল্ক ৫৫ শতাংশ এবং প্রতি দশ গ্রাম গুলের দাম ২০ টাকা ও সম্পূরক শুল্ক ৫৫ শতাংশ অব্যাহত রাখার প্রস্তাব করছি।

করোনাভাইরাসের অভিঘাত পেরিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় প্রত্যাবর্তনের লক্ষ্য নিয়ে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের আকার হচ্ছে ছয় লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। এবারের বাজেটের আকার যেমন বড়, তেমনি এ বাজেটে ঘাটতিও ধরা হয়েছে বড়।

অনুদান বাদে এই বাজেটের ঘাটতি দুই লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা, যা জিডিপির সাড়ে ৫ শতাংশের সমান। আর অনুদানসহ বাজেট ঘাটতির পরিমাণ দুই লাখ ৪১ হাজার ৭৯৩ কোটি টাকা, যা জিডিপির ৫ দশমিক ৪০ শতাংশের সমান।

এটি বর্তমান সরকারের ২৩তম এবং বাংলাদেশের ৫১তম ও বর্তমান অর্থমন্ত্রীর চতুর্থ বাজেট। বাজেটে সঙ্গত কারণেই মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, কৃষিখাত, স্বাস্থ্য, মানবসম্পদ, কর্মসংস্থান ও শিক্ষাসহ বেশকিছু খাতকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।


আরও খবর



যে শহরের ৬ ভাগ মানুষের ৫ ভাগই চালান সাইকেল

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৬৬জন দেখেছেন
Image

বিভিন্ন ধরনের যানবাহনের মধ্যে সাইকেলের ব্যবহার অনেক বেশি। এটি সহজলভ্য ও স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী। আবার এক স্থান থেকে অন্য স্থানে দ্রুততার সঙ্গে যাওয়ার বাহন হিসেবেও সাইকেলের ব্যবহার তুঙ্গে।

তবে জানলে অবাক হবেন, বিশ্বের এমন একটি শহর আছে যেখানে শুধু সাইকেলই ভরসা। সে শহরে নেই কোনো যানবাহনের ধোঁয়া। ফলে সেখানকার পরিবেশও দূষণমুক্ত।

বলছি ডেনমার্কের কোপেনহেগেন শহরের কথা। এ শহরে অন্যান্য যানবাহনের চেয়ে সাইকেলের সংখ্যা বেশি। এমনও দেখা যায় যে, কারও হয়তো ২-৩টি গাড়ি আছে; তবুও তিনি সাইকেলে চলাচল করেন। কারণ তারা সাইকেলে চলাচল করতেই বেশি আনন্দ উপভোগ করেন।

জানা যায়, কোপেনহেগেনে ৬ লাখ ৭৫ হাজার সাইকেল ও ১ লাখ ২০ হাজার গাড়ি আছে। অর্থাৎ সে শহরের ৬ ভাগের ৫ ভাগ মানুষই সেখানে সাইকেল ব্যবহার করেন। ১৯৭০ সালে সেখানে সাইকেলের ব্যবহার বাড়তে থাকে।

২০১৬ সালের তথ্যানুযায়ী, কোপেনহেগেনের সাইক্লিস্টরা মোট ১.৪ মিলিয়ন কিলোমিটার সাইকেল চালায়। ২০০৬ সালের পরে এটি আর ২২ শতাংশ বেড়েছে।

অনেকেরই মনে প্রশ্ন আসতে পারে ডেনমার্কের মতো উন্নত দেশে সাইকেল ব্যবহার করার কারণ কী? সেখানে সাইক্লিংয়ের জনপ্রিয়তার প্রধান কারণ হলো সাইকেলবান্ধব শহর।

কোপেনহেগেন শহর জুড়ে সাইক্লিং সুপার হাইওয়ে ও উদ্ভাবনী সেতুগুলো সবই সাইকেলবান্ধব। সব মিলিয়ে সাইক্লিস্টদের জন্য নিরপদ এক স্থান হলো কোপেনহেগেন।

পাশাপাশি শহরকে কার্বনমুক্ত করার চেষ্টায় সাইকেলবান্ধব নগরী গড়ে তুলেছেন সেখানকার কাউন্সিলর। যাতায়াত খরচ বাঁচানো থেকে শুরু করে সাইকেল চালানোর বেশ কিছু স্বাস্থ্যগত উপকারিতাও আছে। সাইক্লিং একটি দুর্দান্ত ব্যায়াম। নিয়মিত সাইকেল চালালে পেশি শক্ত হয়, হাড়ের ঘনত্ব বাড়ে ও কার্ডিওভাসকুলার রোগের ঝুঁকি কমে।

দ্রুত যাতায়াত, যানজট কমানো এবং শাররিক অসুস্থতা কমাতে ডেনমার্কের সাইক্লিং দূতাবাস সাইকেল চালানোর পক্ষে বিভিন্ন প্রচারণা করে থাকে। সেখানকার সব সাইকেলের দোকানগুলো প্রায় এক তৃতীয়াংশ কমে ক্রেতাদের কাছে সাইকেল বিক্রি করেন।

সাইকেলবান্ধব শহর গড়তে ২০১৭ সালে কোপেনহেগেন অঞ্চলে ৩.৯ কিলোমিটার নতুন পথ, ৬০০ কিলোমিটার সবুজ সাইক্লিং রুট ও ৫টি নতুন সুপার সাইকেল পথ উদ্বোধন করা হয়।

অতিরিক্ত হিসাবে, সাড়ে ৩ হাজার নতুন পার্কিং স্ট্যান্ড স্থাপন করা হয়েছে ও ১২ হাজার ৯০০ পরিত্যক্ত সাইকেল সংগ্রহ করা হয়েছে।

বর্তমানে ডেনমার্কের মতোই প্যারিস, চীনেও সাইকেল ব্যবহার বেড়েছে। চীনের জিয়ামেন শহর সাইকেলের জন্য একটি ৭.৬ কিলোমিটার এলিভেটেড স্কাইওয়ে তৈরি করেছে।

নেদারল্যান্ডসেও মানুষের চেয়ে বেশি সাইকেল আছে। এমনকি সেখানে সাইকেল চালানোর সময় মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে সরকার।


আরও খবর