Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
জানে আলম চট্টগ্রাম অটোটেম্পু শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক

চট্রগ্রামে চাঁদাবাজী মামলার প্রধান আসামী জানে আলম গ্রেফতার

প্রকাশিত:Sunday ২২ May 20২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১১৭জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

নগরের বাকলিয়া-নতুন ব্রিজ এলাকায় চাঁদাবাজির ঘটনার মূল হোতা মো. জানে আলমকে (৪১) গ্রেফতার করেছে বাকলিয়া থানা পুলিশ।


রোববার (২২ মে) সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানান বাকলিয়া থানার ওসি রাশেদুল হক।


তিনি জানান, বাকলিয়া-নতুন ব্রিজ এলাকার ত্রাস, চাঁদাবাজদের নেতৃত্বদানকারী এবং ভাসমান ভ্যানগাড়ি ও হকারদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়কারী এই জানে আলম। চাঁদা না পেয়ে এক ফল বিক্রেতার ওপর হামলা-ভাংচুর মামলার আসামি সে।


চন্দনাইশের পশ্চিম কেশুয়া ১ নম্বর ওয়ার্ডের ছোরত আলীর বাড়ির মৃত গুরা মিয়ার ছেলে জানে আলম চট্টগ্রাম অটোটেম্পু শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছে।


পুলিশ জানায়, গত ১৬ মে জানে আলমের নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ চাঁদাবাজ দলের সদস্যরা নতুন ব্রিজ এলাকায় ভ্যান গাড়িতে ফল বিক্রেতা মো. বাদশার (২০)  কাছে চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় জানে আলম তার সহযোগী আরাফাত,  মো. আলী ও জাবেদুল ইসলামকে নিয়ে ১৭ মে রাত ৯টার দিকে নতুন ব্রিজ সংলগ্ন নবাব খাঁ কলোনির সুমনের দোকানের সামনে বাদশার পথরোধ করে।


 এসময় তাকে মারধর করে এবং ভ্যানগাড়ি ভাংচুর করে। পরে থানায় মামলা হলে অভিযান চালিয়ে অন্য আসামিদের গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হলেও মূল হোতা জানে আলম পালিয়েছিল।


রোববার (২২ মে) দুপুরে আসামি জানে আলমকে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান ওসি রাশেদুল হক।


আরও খবর



ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা তরুণীকে অপহরণ করে গর্ভপাত, যুবক কারাগারে

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৮০জন দেখেছেন
Image

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে এক প্রতিবন্ধী তরুণী (১৮) ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। এই ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে অন্তঃসত্ত্বা তরুণীকে অপহরণের পর গর্ভপাত করানোর অভিযোগে খাইরুল ইসলাম (২২) নামে এক যুবককে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

অভিযুক্ত খাইরুল উপজেলার রামগোপালপুর ইউনিয়নের মাহতাব উদ্দিনের ছেলে।

রোববার (১২ জুন) বিকেলে ময়মনসিংহ সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক রাজিব আহমেদ তালুকদার এ আদেশ দেন।

আদালতের পুলিশ পরিদর্শক প্রসুন কান্তি দাস জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গৌরীপুর থানা পুলিশ অভিযুক্ত খাইরুল ইসলামকে আদালতে তুললে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে শনিবার (১১ জুন) রাতে ভুক্তভোগী তরুণীর মা বাদী হয়ে মো. খাইরুল ইসলাম, তার মা মদিনা আক্তার এবং চাচা আসাদুজ্জামানসহ মোট চারজনকে আসামি করে গৌরীপুর থানায় মামলা করেন। পরে ওই রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে তরুণীকে উদ্ধার করে খাইরুলকে গ্রেফতার করে। অন্য অভিযানে র্যাব-১৪ খাইরুলের চাচা আসাদুজ্জামানকে গ্রেফতার করে।

এ বিষয়ে গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী জাগো নিউজকে বলেন, মামলার পর রাতেই অভিযান চালিয়ে ভুক্তভোগী তরুণীকে উদ্ধার করে প্রধান আসামি খাইরুলকে গ্রেফতার করা হয়। রোববার সকালে খাইরুলকে আদালতে ও তরুণীতে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

মামলার নথির বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ভুক্তভোগী তরুণী প্রতিবন্ধী। আনুমানিক সাত থেকে আট মাস আগে খাইরুল তাকে ধর্ষণ করে। সম্প্রতি তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। এমতাবস্থায় বিষয়টি ধামাচাপা দিতে গত ২৭ মে মধ্যরাতে খাইরুল ও সোহেল বাড়িতে ডুকে ভুক্তভোগীসহ তার মাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। কিন্তু ওই তরুণীকে আটকে রেখে তার মাকে ছেড়ে দেয়। পরদিন বিভিন্ন জায়গায় খুঁজে তরুণীকে না পেয়ে খাইরুলের মা-বাবাকে বিষয়টি জানালেও কোনো সুরাহা হয়নি। এরপর থেকে খাইরুল ও তরুণী নিখোঁজ ছিল। এমতাবস্থায় শনিবার (১১ জুন) ওই তরুণীর মা র্যাব-১৪ অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করে। পরে র্যাবের পরামর্শে তরুণীর মা গৌরীপুর থানায় মামলা করে।

ওসি আরও বলেন, গ্রেফতার খাইরুল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবং গত ১ জুন তরুণীকে কোর্ট ম্যারেজ করেছে বলে জানায়।

এ বিষয়ে র্যাব-১৪ এর এএসপি বেলায়েত হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, গত রাতেই অভিযান চালিয়ে খাইরুলের চাচা আসাদুজ্জামানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

ঘটনার বিষয়ে ভুক্তভোগী তরুণী বলেন, খাইরুল আমাকে ও মাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে একদিন আটকে রাখে। পরদিন আমাকে বিয়ে করবে বলে ময়মনসিংহের একটি হাসপাতালে নিয়ে গর্ভপাত করায়। এর পরদিন আমাকে বিয়ে করে।

এ বিষয়ে তরুণীর মা বলেন, আমার মেয়ে কিছুটা বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। এই সুযোগে খাইরুল সাত থেকে আট মাস আগে তাকে ধর্ষণ করে। কিন্তু মেয়ে আমার কাছে কিছু বলেনি। সম্প্রতি তার শারীরিক পরিবর্তন হলে গর্ভবতী হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। এই বিষয়টি ধামাচাপা দিতে খাইরুল গত মাসের ২৭ তারিখে আমাকেসহ মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে গর্ভপাত করায়। এর ১৭ দিন পরে আমার মেয়েকে পুলিশ ও র্যাব উদ্ধার করে। খাইরুলসহ এই ঘটনায় জড়িত সবার শাস্তি চাই।


আরও খবর



মেয়র আইভীকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য: আইনজীবী খোকনের জামিন

প্রকাশিত:Thursday ১৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
Image

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভীকে নিয়ে ফেসবুক ও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করার অভিযোগে করা মামলায় নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সদস্য খোকন শাহের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক আস সামছ জগলুল হোসেনের আদালতে তিনি আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক ৫০০ টাকা মুচলেকায় তার জামিন মঞ্জুর করেন। ট্রাইব্যুনালের পেশকার নজরুল ইসলাম শামীম বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে ২০২১ সালের ৪ জানুয়ারি ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক আস সামছ জগলুল হোসেনের আদালতে দুইজনের নামে মামলা করেন মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী। আসামিরা হলেন- প্রদীপ দাস (হিন্দু লাইভস ম্যাটারস ফেসবুক ও ইউটিউব চ্যানেলের স্বত্বাধিকারী) ও নারায়ণগঞ্জ বারের আইনজীবী খোকন শাহা।

আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। ২০২১ সালের ২৭ ডিসেম্বর সিআইডির পুলিশ পরিদর্শক শাহ জালাল ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় প্রদীপ দাস ও খোকন শাহের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

২০২২ সালের ২১ এপ্রিল মামলার প্রতিবেদন গ্রহণ করে প্রদীপ দাস ও খোকন শাহের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন বিচারক।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, “গত ১২ আগস্ট আসামি প্রদীপ দাসের চালু করা ইউটিউব চ্যানেল বাংলাদেশে ইসলামী মৌলবাদীদের হাতে নির্যাতিত ও নিপীড়িত হিন্দু সম্প্রদায়ের খবর প্রচার করে। বাংলাদেশে প্রতিদিন হিন্দুরা ধর্ষণ, জোরপূর্বক বিয়ে, ধর্মান্তরিত, ভূমি দখল এবং আরও অন্যান্য বিষয়ে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। বাংলাদেশে বিগত ৫০ বছর প্রায় ৪০ মিলিয়ন হিন্দু নিধন করা হয়েছে। এটা ধীরপ্রক্রিয়ায় একটি গণহত্যা। এ ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেজের মূল উদ্দেশ্য মিথ্যা, মানহানিকর, উসকানিমূলক, ভিত্তিহীন সংবাদ ও ছবি ওয়েবসাইটে ইলেকট্রনিক বিন্যাসে প্রচার, প্রকাশ বা সম্প্রচার করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট ও দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করা। আসামি প্রদীপ দাস তার নিয়ন্ত্রণাধীন চ্যানেলে এ পর্যন্ত প্রায় ১০০টি ভিডিও আপলােড করেন যার প্রতিটি ভিডিওতে হিন্দু ও মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের নিয়ে ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে।’’

অভিযোগে আরও বলা হয়, ‘‘গত ১৩ নভেম্বর ‘নারায়ণগঞ্জ মেয়র আইভীকে: খোকন শাহা, হাজার কোটি টাকা মূল্যের হিন্দুদের দেবােত্তর সম্পত্তি ফিরিয়ে দিন’ ও ‘এক হাজার কোটি টাকা মূল্যের হিন্দুদের দেবােত্তর সম্পত্তি মেয়র আইভীর পরিবারের দখলে। মন্দিরের সেবায়েত কুম আতঙ্কে হিন্দুরা।’ আসামি প্রদীপ দাসের ‘হিন্দু লাইভস ম্যাটার’ নামের ইউটিউব চ্যানেলে আসামি খােকন শাহার লাইভ সাক্ষাৎকার প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়। ভিডিওতে আসামি খোকন বলেন ‘হিন্দুদের দেবােত্তর সম্পত্তি বাদিনী তথা মেয়র মহােদয়ের দাদা মাহাতাব উদ্দিনসহ পরিবার বা অবৈধভাবে দখল করে আছেন। নেত্রী আপনি আমাদের হিন্দু সম্প্রদায়ের অভিভাবক, আপনি আমাদের অভিভাবক, যারা আওয়ামী লীগ করে এ দখলদারদের নমিনেশন দেবেন না, তাদের আপনি আনবেন না।’’

‘‘মেয়র আইভী হিন্দুদের ভােট নেয়। নিয়ে দীপাবলি (কালীপূজা) করে সিন্দুর দিয়ে কালীমাকে প্রণাম করে। আমি হিন্দুসমাজকে একতাবদ্ধ করার চেষ্টা করছি এবং বলেছি যারা দেবােত্তর সম্পত্তি গ্রাস করে তাদের আপনারা ভােট দেবেন না। যারা দেবােত্তর সম্পত্তি খায় তাদের যেন জননেত্রী শেখ হাসিনা নমিনেশন না দেয় এবং হিন্দু সম্প্রদায়কে বলেছি যারা দেবােত্তর সম্পত্তি খায় তাদের কেন আপনারা ভােট দেবেন।’’

অভিযোগে আরও বলা হয়, ‘‘গত ১ ডিসেম্বর আসামি প্রদীপ দাসের ইউটিউব চ্যানেলে ‘মেয়র আইভী পরিবারের দখলে কোটি টাকার দেবােত্তর সম্পত্তি উদ্ধারে গণঅনশন’ শিরােনামে অপর একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়। ভিডিওতে আসামি খোকন বলেন- ‘হিন্দু কমিনিউটির ভােট নেবেন, সম্পত্তি দখল করে নেবেন দেবােত্তর, এটা হবে না। আমি নেত্রীকে অলরেডি মেসেজ পাঠিয়েছি, নেত্রীকে বলেছি, এ সব যারা অপরাজনীতি করে। যারা হেফাজত নিয়ে কথা বলেন, হেফাজত যারা, যারা হেফাজতের ভােটে, যাদের সঙ্গে হেফাজতের সম্পর্ক, সেই বিষয়টি আমি বলেছি। আপনি করবেন সরকারি দল, করবেন আওয়ামী লীগ, এটা হবে না। আপনি আওয়ামী লীগ করবেন দেবােত্তর সম্পত্তি দখল করবেন, সেটা হবে না।’’

ভিডিওতে আসামি প্রদীপ দাসের উদ্দেশে খোকন দাস বলেন, ‘‘দাদা আমি আপনার সহযোগিতা চাই। এ যে আগে আমেরিকার যে প্রেসিডেন্ট ছিল। বিল.. হিলারি, হিলারি কিন্তু আইভীর পক্ষে, ঘটনা বুঝছেন? আপনি যদি সম্ভব হয় বিল ক্লিনটনসহ হিলারিসহ তাদের আপনি এ মেসেজটা দেবেন। যারা বাংলাদেশের দেবােত্তর সম্পত্তি খায়।’’

‘‘আসামি প্রদীপ দাস ও খোকন শাহা মামলার বাদিনী মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে অপমান, অপদস্ত বা হেয়প্রতিপন্ন করে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্য ইলেকট্রনিকস বিন্যাসে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ বা সম্প্রচার করে ‘ডিজিটাল প্রযুক্তি আইন ২০১৮’ অনুযায়ী দণ্ডনীয় অপরাধ করেছে।’’


আরও খবর



হেলেছে দেয়াল, ঝুঁকিতে কল্যাণপুর মডেল বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত:Wednesday ০৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৮৩জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর কল্যাণপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অধিকাংশ সীমানা প্রাচীর ধসে গেলেও গত পাঁচ বছরে তা সংস্কার হয়নি। রাস্তার ওপর প্রবেশ গেটের সঙ্গে অবশিষ্ট দেয়ালও হেলে গেছে। যে কোনো সময় সেটি ধসে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। বছরের পর বছর সংস্কার না হওয়ায় দেয়াল ঘেঁষা রাস্তা দিয়ে ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করছেন পথচারীরা। চলছে যানবাহনও।

গতকাল মঙ্গলবার (৭ জুন) মিরপুরের কল্যাণপুর এলাকায় সরেজমিনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে।

দেখা গেছে, রাজধানীর কল্যাণপুর মডেল বিদ্যালয়ের সীমানা দেয়ালের ৮০ শতাংশ ধসে গেছে। ধসে পড়া দেয়ালের ইট স্তুপ করে রাখা হচ্ছে স্কুলের এক কোণে। মূল ফটকে লোহার গেটের দু-পাশের দেয়ালও ২০ শতাংশ হেলে পড়েছে। সামান্য ঝড়-বৃষ্টিতেই সেটি আরও নুয়ে পড়তে পারে। যা এ পথে সকাল-সন্ধ্যা যাতায়াতকারী সাধারণ মানুষের জন্য বড় ঝুঁকি।

বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, সকালে যথারীতি শিক্ষার্থীদের অ্যাসেম্বেলি চলছে। সীমানা প্রাচীর ভেঙে পড়ায় এলাকার কিছু বখাটে দলবেঁধে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ঢুকে হইহুল্লোড় করছে, ধূমপান করছে। কখনোবা সুযোগ পেয়েই মেয়েদের উত্যক্ত করার চেষ্টা করছে। এলাকার ছেলেপুলে বলে ভয়ে কেউ প্রতিবাদও করছে না। বিদ্যালয়টির প্রায় সাড়ে পাঁচশো শিক্ষার্থী ও ২০ জন শিক্ষক এরকম অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতেই শিক্ষা কার্যক্রমে যুক্ত রয়েছেন।

শিক্ষকরা বলছেন, বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর না থাকায় যখন-তখন মাদকাসক্তরা এখানে আড্ডা দিচ্ছে। ক্লাস রুমের ছাদে উঠে তারা মাদক সেবন করছে। কেউ কিছু বলতে পারছে না। মেয়েদের ক্লাস চলাকালে এই বখাটেরা ক্লাসের সামনে দাঁড়িয়ে হট্টগোল করছে। বাইরে যেতে বললেও যাচ্ছে না। বিদ্যালয় প্রাঙ্গণটি যেন তাদের অবাধ বিচরণক্ষেত্র। এতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার পাশাপাশি মানসিক বিকাশও বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

হেলেছে দেয়াল, ঝুঁকিতে কল্যাণপুর মডেল বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিদ্যালয়টির সীমানা প্রাচীর ২০১৭ সালে ধসে পড়ে। এরপর বিভিন্ন সময়ে উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে দেয়াল সংস্কারের আবেদন জানালেও তা আলোর মুখ দেখেনি। উল্টো কখনো কখনো বিষয়টি নিয়ে বেশি আলোচনা না করারও পরোক্ষ নির্দেশ আসে প্রধান শিক্ষক বরাবর। যদিও স্থানীয় এলাকাবাসী নানা সময়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে দেয়াল সংস্কারের দাবি জানিয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উন্মে কুলসুম মঙ্গলবার জাগো নিউজকে বলেন, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, পথচারীসহ সবাই ঝুকি নিয়ে চলাচল করছে। বারবার আবেদন করলেও ধসে পড়া দেয়াল সংস্কার হচ্ছে না। এতে বহিরাগত বখাটেদের কারণে বিদ্যালয়ে শিক্ষার পরিবেশ বিনষ্ট হচ্ছে। মেয়ে শিক্ষার্থীরা ইভটিজিংয়ের শিকার হচ্ছে।

হেলেছে দেয়াল, ঝুঁকিতে কল্যাণপুর মডেল বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

তিনি জানান, ভারি বর্ষণে ২০১৭ সালে বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর ধসে যায়। তখন দেয়াল ধসের ঘটনায় তিনটি কুকুর মারা যায়। এতে এলাকাবাসী স্কুলের শিক্ষকদের ওপর ক্ষিপ হন। বর্তমানে চলাচলের রাস্তার ওপরে গেটের অংশের কিছুটা দেয়াল হেলে রয়েছে। যে কোনো সময় সেটিও ধসে পড়তে পারে। বারবার নোটিশ করার পরও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আমলে নিচ্ছে না।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে ঢাকা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আলেয়া ফেরদৌসী শিখা জাগো নিউজকে বলেন, বিষয়টি আমাদের নজরে রয়েছে। অর্থ অনুমোদন হলে বিদ্যালয়টির সীমানা প্রাচীর সংস্কার করা হবে। অর্থ বরাদ্দের জন্য সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরে চিঠি পাঠিয়ে জানানো হয়েছে। আশা করি, দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্সের ২৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা

প্রকাশিত:Tuesday ২৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের ২৬তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (২৭ জুন) ভার্চুয়ালি এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ২০২১ সালের নিরীক্ষিত বার্ষিক প্রতিবেদন ও ১৮ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ অনুমোদন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল।

এছাড়াও সভায় ছিলেন– কোম্পানির পরিচালক মিসেস বিউটি আক্তার, প্রফেসর ড. মীজানুর রহমান, মো. আলমগীর হোসেন খাঁন, মনজুর মো. সাইফুল আজম, তাহমিনা বিনতে মোস্তফা, তায়েফ বিন ইউসুফ, তানজিমা বিনতে মোস্তফা, ওয়াশিকুর রহমান, তানভীর আহমেদ মোস্তফা, মিসেস তাসনিম বিনতে মোস্তফা এবং মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সানা উল্লাহ, প্রধান অর্থ কর্মকর্তা শেখ বিল্লাল হোসেন, কোম্পানির অডিটর কাজী মোস্তফা আলম, এ কে এম আমিনুল হক, মো. ফিরোজুল ইসলাম, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট (অর্থ ও হিসাব) ও কোম্পানি সচিব মো. মাসুদ রানা এবং কোম্পানির শেয়ারহোল্ডাররা ভার্চুয়ালি সভায় যুক্ত ছিলেন।


আরও খবর



দুই লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকার ঘাটতি বাজেট

প্রকাশিত:Thursday ০৯ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
Image

২০২২-২৩ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ছয় লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। প্রস্তাবিত এ বাজেটে ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়াবে দুই লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা, যা মোট জিডিপির ৫ দশমিক ৫ শতাংশ। এ হার গত বাজেটে ছিল ৬ দশমিক ২ শতাংশ। অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক উৎস হতে এ ঘাটতি মেটানো হবে।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপনায় এ তথ্য জানান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এটি বর্তমান সরকারের ২৩তম, বাংলাদেশের ৫১তম ও বর্তমান অর্থমন্ত্রীর চতুর্থ বাজেট।

প্রস্তাবিত এ বাজেটের এ ঘাটতি মেটাতে অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে ঋণের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হচ্ছে এক লাখ ৪৬ হাজার ৩৩৫ কোটি টাকা। আর বৈদেশিক ঋণ নেওয়া হবে এক লাখ ১২ হাজার ৪৫৮ কোটি টাকা, যার মধ্য থেকে ১৭ হাজার কোটি টাকা বৈদেশিক ঋণ পরিশোধ করা হবে। ফলে প্রকৃত বৈদেশিক ঋণ দাঁড়াবে ৯৫ হাজার ৪৫৮ কোটি টাকা।

অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে যে ঋণ নেওয়া হবে তার মধ্যে এক লাখ ৬ হাজার ৩৩৪ কোটি টাকা নেওয়া হবে ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে। এর মধ্যে দীর্ঘ মেয়াদি ঋণ ৬৮ হাজার ১৯২ কোটি টাকা। আর স্বল্প মেয়াদি ঋণ ৩৮ হাজার ১৪২ কোটি টাকা। এছাড়া ব্যাংক বহির্ভূত ঋণ ধরা হচ্ছে ৪০ হাজার ১ কোটি টাকা। যার মধ্যে জাতীয় সঞ্চয় প্রকল্প থেকে ৩৫ হাজার কোটি টাকা এবং ৫ হাজার ১ কোটি টাকা অন্যান্য খাত থেকে নেওয়া হবে।

নতুন অর্থবছরের বাজেটে পরিচালন ব্যয় ধরা হচ্ছে চার লাখ ১১ হাজার ৪০৬ কোটি টাকা। এর মধ্যে আবর্তক ব্যয় তিন লাখ ৭৩ হাজার ২৪২ কোটি টাকা। অভ্যন্তরীণ ঋণের সুদ ৭৩ হাজার ১৭৫ কোটি এবং বৈদেশিক ঋণের সুদ ৭ হাজার ২০০ কোটি টাকা। মূলধন ব্যয় ধরা হচ্ছে ৩৮ হাজার ১৬৪ কোটি টাকা। খাদ্য খাতে ব্যয় ৫৪০ কোটি টাকা এবং ঋণ ও অগ্রিম ব্যয় ছয় হাজার ৫০১ কোটি টাকা ধরা হয়েছে।

কোভিড-১৯ অভিঘাত পেরিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় প্রত্যাবর্তনের লক্ষ্য নিয়ে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের আকার হচ্ছে ছয় লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। বাজেটে সংগত কারণেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, কৃষিখাত, স্বাস্থ্য, মানবসম্পদ, কর্মসংস্থান ও শিক্ষাসহ বেশকিছু খাতকে।


আরও খবর