Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

চোর-ছিনতাইকারী বলে গালি দেয়ায় ১০ বছরের শিশুর আত্মহত্যা

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ April ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২২৮জন দেখেছেন
Image

সাভার প্রতিনিধিঃ

সাভার পৌর এলাকায় চোর-ছিনতাইকারী বলে গালির অপবাদ সইতে না পেরে আরাফাত (১০) নামে এক শিশু বাসায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুঁলে আত্মহত্যা করেছে।সোমবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে সাভার পৌর এলাকার দেঁওগায়ে কামালের বাড়ি থেকে শিশুটির ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।


শিশু আরাফাত চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ থানার কালিবাজার গ্রামের জিন্নার ছেলে। সে সাভারে দেঁওগায়ে দাদির কাছে থাকতো। বিয়ে বিচ্ছেদের পর বাবা-মা শিশুটিকে দাদির কাছে রেখে যার যার মতো সংসার করছেন। তাদের সঙ্গে এখন আর কোন যোগাযোগ নেই দাদী জরিনা বেগমের।



দাদি জরিনা বেগম  বলেন, ‘বাপ-মায়ে চলে যাওয়ার পর আরাফাত আমার সঙ্গে সাভারেই থাকতো। শুনেছি কারা যেন আরাফাতকে চোর-ছিনতাইকারী বলে গালিগালাজ করেছে। পরে গতকাল (সোমবার) দুপুরে আমি বাসায় না থাকলে সে ফ্যানের সঙ্গে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুঁলে আত্মহত্যা করে। তার মরদেহ পুলিশ এসে উদ্ধার করে।



আরও খবর



এইচএসসি পাসে বসুন্ধরা গ্রুপে চাকরির সুযোগ

প্রকাশিত:Tuesday ০৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপে ‘সেফটি অফিসার’ পদে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ১৮ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: বসুন্ধরা গ্রুপ
বিভাগের নাম: বিসিআইএল

পদের নাম: সেফটি অফিসার
পদসংখ্যা: নির্ধারিত নয়
শিক্ষাগত যোগ্যতা: স্নাতক/এইচএসসি
অভিজ্ঞতা: ০৩ বছর
বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: পুরুষ
বয়স: ২৫ বছর
কর্মস্থল: চট্টগ্রাম (মীরসরাই)

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহীরা jobs.bdjobs.com এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ সময়: ১৮ জুন ২০২২

সূত্র: বিডিজবস ডটকম


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জ কিশোর গ্যাং কমাতে খেলাধুলার বিকল্প নেই : মেয়র আইভী

প্রকাশিত:Wednesday ০১ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ১০৯জন দেখেছেন
Image
বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা টুর্নামেন্ট আসে তখনই আমরা মাঠে খেলার কথা বলি।

স্টাফ রিপোর্টারঃ মোঃ আবু কাওছার মিঠু 

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, প্রতি বছরই যখন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা টুর্নামেন্ট আসে তখনই আমরা মাঠে খেলার কথা বলি। 


আমার মনে হয় সারা বছরই যদি কোনো না কোনো খেলার আয়োজন করা হয় তাহলে অন্যান্য জিনিস থেকে আমাদের বাচ্চারা দূরে থাকতে পারবে। 


বিশেষ করে কিশোর গ্যাং যেভাবে বেড়ে উঠেছে তাতে এটা কমাতে খেলার কোনো বিকল্প নেই। খেলাধুলার আয়োজন বেশি করা হলে কিশোর গ্যাং কমে যাবে।


মঙ্গলবার (৩১ মে) বিকেলে শহরের ইসদাইর এলাকার ওসমানী স্টেডিয়ামে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি একথা বলেন। 


নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রহিমা আক্তার ও নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিফাত ফেরদৌসসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।


এ সময় মেয়র আইভী আরো বলেন, সাধারণত আমাকে এ ধরনের অনুষ্ঠানে দাওয়াত দেয়া হয় না, হতো না। আমিও আসতে চাইতাম না বা আসতাম না। 


এখন আমাকে দাওয়াত দেওয়া হয়েছে, আমি এসেছি। আমরা একসঙ্গে নারায়ণগঞ্জে উন্নয়ন করতে চাই নারায়ণগঞ্জকে এগিয়ে নিতে চাই। আমরা চাই নারায়ণগঞ্জ তার পুরোনো ঐতিহ্য ফিরে পাক।


আরও খবর



বরগুনায় খেজুর গাছে ৯ ফুট লম্বা অজগর

প্রকাশিত:Friday ০৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

বরগুনার পাথরঘাটায় একটি খেজুর গাছ থেকে ৯ ফুট লম্বা একটি অজগর উদ্ধার করা হয়েছে।

শুক্রবার (৩ জুন) দুপুরে সাপটি উদ্ধার করে হরিণঘাটা পর্যটন কেন্দ্রের বনে অবমুক্ত করা হয়।

হরিণঘাটা বিট কর্মকর্তা মো. আল-আমিন অজগর উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, পাথরঘাটা সদর ইউনিয়নের বিহঙ্গ দ্বীপ সংলগ্ন রূহিতা গ্রামের মুন্সিবাড়ি থেকে সাপটি উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, সকালে মুন্সিবাড়ির কয়েকটি শিশু খেজুর গাছের নিচে দাঁড়িয়ে লাঠি দিয়ে খেজুর পাড়ছিল। এ সময় গাছটিতে খেজুরের ছড়ায় মোড়ানো সাপ দেখতে পেয়ে তারা চিৎকার দেয়।

স্থানীয়রা বিষয়টি দেখে ভিলেজ টাইগার রেসপন্স টিমকে (ভিটিআরটি) জানান। পরে ভিটিআরটির সদস্যরা এসে গাছটি থেকে ৯ ফুট লম্বা একটি অজগর ধরে নামান। পরে দুপুরে বন বিভাগের মাধ্যমে সাপটি হরিণঘাটা পর্যটন কেন্দ্রে অবমুক্ত করা হয়।

এ সময় হরিণঘাটা বিট কর্মকর্তা আল-আমিন, স্থানীয় আরিফুর রহমান, শফিকুল ইসলাম খোকন, টাইগার টিমের সদস্য জাকির মুন্সি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



তথ্যপ্রবাহ অবাধ হলে প্রতিষ্ঠানে স্বচ্ছতা বাড়ে: ইউজিসি চেয়ারম্যান

প্রকাশিত:Monday ২৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

‘তথ্য অধিকার আইন প্রণয়নের মাধ্যমে তথ্যে সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। একইভাবে অবাধ তথ্যপ্রবাহ প্রাতিষ্ঠানিক কর্মকাণ্ডে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। আইনের ধারাসমূহ যথাযথভাবে অনুসরণপূর্বক তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনে (ইউজিসি) আয়োজিত তথ্য অধিকারবিষয়ক দিনব্যাপী প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রোববার (২৬ জুন) প্রধান অতিথির বক্তব্যে কমিশনের চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ও সদস্য অধ্যাপক ড. দিল আফরোজা বেগম এসব কথা বলেন।

জনসংযোগ ও তথ্য অধিকার বিভাগের পরিচালক ড. এ কে এম শামসুল আরেফিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের ও সচিব ড. ফেরদৌস জামান।

অধ্যাপক দিল আফরোজা বলেন, একটি রাষ্ট্রের বিভিন্ন বিষয়ে জনগণের তথ্য জানার অধিকার রয়েছে। এটি তার সাংবিধানিক ও আইনগত অধিকার। জনগণকে সংবিধান ও বিদ্যমান আইনের আওতায় সঠিকভাবে চাহিত তথ্য দিতে হবে। সঠিক তথ্য না দিলে অনেক সময় বিভ্রান্তি তৈরি হতে পারে।

অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেন, তথ্য অধিকার আইনের মূল লক্ষ্য হচ্ছে, তথ্যে জনগণের প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার মাধ্যমে তাদের ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করা। তথ্যের অবাধপ্রবাহ নিশ্চিত করা হলে রাষ্ট্রের সব স্তরে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বাড়ে। গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রার পথও সুগম হয়।

তিনি আরও বলেন, তথ্যের অবাধপ্রবাহ না থাকলে সমাজে গুজব ছড়ায়। তথ্য অধিকার আইন কার্যকর বাস্তবায়নে দেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দুর্নীতি হ্রাস ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা পাবে।

ড. ফেরদৌস জামান বলেন, একটি প্রতিষ্ঠানে কী কী কাজ হয়, কী ধরনের সুযোগ-সুবিধা বা সেবা দিচ্ছে, এসব বিষয়ে জানতে তথ্য অধিকার আইন নাগরিককে সহায়তা করছে।

ড. এ কে এম শামসুল আরেফিন বলেন, তথ্য অধিকার আইন গোপনীয়তার সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে একটি স্বচ্ছ ও জবাদিহিতামূলক প্রশাসনিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার পথ সুগম করেছে। এ আইন নাগরিকের তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করার পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা, জবাবদিহি নিশ্চিত ও শক্তিশালী করেছে।

প্রশিক্ষণের উন্মুক্ত আলোচনা পর্বে অংশ নেন স্ট্র্যাটেজিক প্ল্যানিং ও কোয়ালিটি অ্যাসিউরেন্স বিভাগের পরিচালক ড. ফখরুল ইসলাম, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের পরিচালক মো. ওমর ফারুখ, আইএমসিটি বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ মাকছুদুর রহমান ভুঁইয়া ও পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের অতিরিক্ত পরিচালক ড. দুর্গা রানী সরকার।

ইউজিসির জনসংযোগ ও তথ্য অধিকার বিভাগের উপপরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল মান্নানের সঞ্চালনায় প্রশিক্ষণে কমিশনের ১৪ জন পরিচালক, অতিরিক্ত পরিচালক ও সমপদের কর্মকর্তা অংশ নেন।


আরও খবর



কমেছে বিদেশিদের শেয়ার বিক্রির চাপ, সক্রিয় বড় বিনিয়োগকারীরা

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৯৬জন দেখেছেন
Image

দেশের শেয়ারবাজারে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের শেয়ার বিক্রির চাপ বাড়ছিল। পাশাপাশি অনেকটা নিষ্ক্রিয় ভূমিকায় ছিল প্রাতিষ্ঠানিক ও বড় বিনিয়োগকারীরা। এতে টানা দরপতনের মধ্যে পড়ে শেয়ারবাজার। নির্বিশেষ প্রায় সব প্রতিষ্ঠানের দরপতন হওয়ায় মাত্র আট কার্যদিবসে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ৫৫৫ পয়েন্ট পড়ে যায়। এতে বড় অঙ্কের পুঁজি হারিয়ে হতাশায় নিমজ্জিত বিনিয়োগকারীরা।

এ পরিস্থিতিতে সরকারের দায়িত্বশীলরা শেয়ারবাজার ভালো করতে বেশ তৎপর হয়ে ওঠেন। পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) থেকে জারি করা হয় একের পর এক নির্দেশনা। আর্থিকখাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রধানদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন অর্থমন্ত্রী নিজেই। সরকারের দায়িত্বশীলদের এমন ভূমিকার কারণে আবারও বাজারে বেড়েছে বড় বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ।

অন্যদিকে বড় পতনে অনেক ভালো প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম কমে যাওয়ায় বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বিক্রির চাপ কমেছে। যার সুফলও পেয়েছে দেশের শেয়ারবাজার। গত সপ্তাহে লেনদেন হওয়া পাঁচ কার্যদিবসই সূচক ছিল ঊর্ধ্বমুখী। এতে আবারও লোকসান কাটিয়ে ওঠার স্বপ্ন দেখছেন বিনিয়োগকারীরা।

বিশ্লেষকরা বলছেন, শেয়ারবাজারে যে ধরনের দরপতন হয়েছে তাতে ভালো অনেক কোম্পানির শেয়ার দাম যৌক্তিক মূল্যের নিচে চলে যায়। এ ধরনের দরপতনের পর বাজার ঘুরে দাঁড়ানোটাই স্বাভাবিক ছিল। তাছাড়া দরপতনের পর সরকারের দায়িত্বশীলরাও বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন, যা বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। এ পরিস্থিতিতে বিনিয়োগকারীদের যুক্তিসঙ্গত আচরণ করতে হবে। অহেতুক প্যানিক না হয়ে বিনিয়োগ করতে হবে ভালো কোম্পানি বাছাই করে। একই সঙ্গে নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে বারবার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন থেকে সরে আসতে হবে। বাজার চলতে দিতে হবে তার নিজস্ব গতিতে।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, ১০ থেকে ২২ মে পর্যন্ত লেনদেন হওয়া আট কার্যদিবস শেয়ারবাজারে টানা দরপতন হয়। এতে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক কমে ৫৫৫ পয়েন্ট। বাজার এমন পতনের মধ্যে পড়ায় ২২ মে মার্জিন ঋণের হার বাড়িয়ে নতুন নির্দেশনা জারি করে বিএসইসি। মার্জিন ঋণের হার ১ : ০.৮ থেকে বাড়িয়ে ১ : ১ করা হয়।

বিএসইসি থেকে মার্জিন ঋণের হার বাড়ানোর পাশাপাশি ওইদিন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম, সিনিয়র অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার এবং আর্থিকপ্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব শেখ মোহাম্মদ সলীম উল্লাসকে নিয়ে বৈঠক করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বৈঠকে শেয়ারবাজার ভালো করতে দিকনির্দেশনা দেন।

অর্থমন্ত্রী ও বিএসইসি থেকে এমন পদক্ষেপ নেওয়ায় ২৩ মে শেয়ারবাজারে বড় উত্থান হয়। টানা দরপতন থেকে বেরিয়ে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক একদিনেই বাড়ে ১১৮ পয়েন্ট। সূচকের এমন উত্থানের পরপরই প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের আইপিও আবেদনের বিষয়ে নতুন সিদ্ধান্তের কথা জানায় বিএসইসি।

বিএসইসির এ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আইপিও আবেদনের ক্ষেত্রে এখন থেকে পেনশন, স্বীকৃত প্রভিডেন্ট ফান্ড ও গ্রাচ্যুইটি ফান্ড বাদে অন্য যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কাট অফ ডেটে পুঁজিবাজারে কমপক্ষে তিন কোটি টাকার বিনিয়োগ থাকতে হবে। আগে যেটা ছিল এক কোটি টাকা।

একইভাবে পেনশন ফান্ড, স্বীকৃত প্রভিডেন্ট ফান্ড ও গ্রাচ্যুইটি ফান্ডের ক্ষেত্রে আগে কমপক্ষে ৫০ লাখ টাকা বিনিয়োগ থাকার বাধ্যবাধকতা ছিল। সেটা বাড়িয়ে করা হয়েছে এক কোটি ৫০ লাখ টাকা। পুঁজিবাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের মাধ্যমে তারল্য বাড়ানোর লক্ষ্যে কমিশন সভা করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানায় বিএসইসি।

তারল্য বাড়াতে বিএসইসি এমন পদক্ষেপ নিলেও ২৪ ও ২৫ মে শেয়ারবাজারে দরপতন হয়। এ পরিস্থিতিতে ২৫ মে সার্কিট ব্রেকারের নিয়মে পরিবর্তন এনে একদিনে সর্বোচ্চ ২ শতাংশ দাম কমার নিয়ম বেঁধে দেয় বিএসইসি।

পরদিন ২৬ মে রাতে এক অনুষ্ঠানে বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রায় এক ঘণ্টা আলাপ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী খুবই পজিটিভ। সবাই আমাদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবে। শেয়ারবাজার নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু নেই। বর্তমানে বহির্বিশ্বের কারণে একটু সমস্যা হচ্ছে। এটা সাময়িক। আপনারা ভয় পাবেন না। আশাকরি আগামী সপ্তাহে শেয়ারবাজারে ভালো কিছু হবে।

এরপর থেকেই টানা ঊর্ধ্বমুখী ধারায় রয়েছে শেয়ারবাজার। শেষ ছয় কার্যদিবসের টানা ঊর্ধ্বমুখিতায় ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ২৬৪ পয়েন্ট বেড়েছে।

বিদেশি বিনিয়োগকারীদের পোর্টফোলিও নিয়ে কাজ করেন এমন একটি ব্রোকারেজ হাউজের শীর্ষ এক কর্মকর্তা বাজারের এই ঘুরে দাঁড়ানোর বিষয়ে জাগো নিউজকে বলেন, নানা ইস্যুতে শেয়ারবাজারে এক ধরনের প্যানিক সৃষ্টি হয়েছিল। বিশেষ করে ডলারের দাম নিয়ে অস্থিরতা দেখা দেওয়ায়, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে শেয়ার বিক্রির চাপ বেড়ে যায়। তাদের সঙ্গে দেশি বড় বিনিয়োগকারীরাও শেয়ার বিক্রি করে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ে। ফলে নিয়মিত যেসব প্রতিষ্ঠানের শেয়ার বড় অঙ্কের লেনদেন হয়, তাদের লেনদেনের পরিমাণ কমে যায়। সবকিছু মিলে বাজারে বড় ধরনের দরপতন হয়।

তিনি বলেন, কয়েকদিন ধরে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বিক্রির চাপ কমেছে। এসময় বিদেশিরা শেয়ার কিনেছেন। আবার বড় বিনিয়োগকারীরাও বাজারে সক্রিয় হয়েছেন, কিছু প্রতিষ্ঠানের লেনদেন চিত্র দেখে সেটা সহজেই বোঝা যাচ্ছে। ফলস্বরূপ শেয়ারবাজারে টানা ঊর্ধ্বমুখী। তবে বাজার যে হারে পড়েছিল, সেই হারে ওঠেনি। অনেক ভালো প্রতিষ্ঠানের শেয়ার এখনো বেশ কম দামে পাওয়া যাচ্ছে। বাজারের এ পরিস্থিতিকে কেনার উপযোগী বলা হয়।

ডিএসইর এক সদস্য বলেন, শেয়ারবাজারে নানা ইস্যুতে দরপতন হলেও এর জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের দায় আছে। একদিকে বিএসইসি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের মধ্যকার দ্বন্দ্ব, অন্যদিকে ডলারের দামের অস্থিরতার কারণে এবার শেয়ারবাজারে দরপতন হয়েছে। অতীতেও বাংলাদেশ ব্যাংকের বিতর্কিত ভূমিকার কারণে বাজারে বড় দরপতনের ঘটনা ঘটেছে। তবে অর্থমন্ত্রী এবার দরপতনের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরসহ আর্থিকখাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রধানদের নিয়ে বৈঠক করায় বিনিয়োগকারীরা আশ্বস্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ধারাণা জন্মেছে এবার শেয়ারবাজারের ক্ষতি হয়, এমন সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ ব্যাংক নেবে না।

‘অর্থমন্ত্রী আর্থিকখাতের প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী প্রায় এক ঘণ্টা বিএসইসির চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলেছেন। একথা বিএসইসির চেয়ারম্যানে নিজেই জানিয়েছেন। এতে এখন সবাই বিশ্বাস করছেন, সরকার শেয়ারবাজার ভালো করতে চায়। এ কারণে বড় বিনিয়োগকারীরা আবারও বাজারে সক্রিয় হয়েছেন। যার ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে বাজারে।’

শেয়ারবাজারের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে বিএসইসির সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ সিদ্দিকী জাগো নিউজকে বলেন, বাজারে যে ধরনের কারেকশন (মূল্য সংশোধন) হয়েছে, তাতে ঘুরে দাঁড়ানোই স্বাভাবিক ছিল। আমি মনে করি এখনো বাজার কেনার জন্য যথেষ্ট উপযোগী। বিনিয়োগকারীদের এই বাজার থেকে ভালো প্রতিষ্ঠান বাছাই করে কেনা উচিত। তবে হুজুগে বিনিয়োগ করা উচিত হবে না।

‘নিয়ন্ত্রক সংস্থা থেকে হুটহাট সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা ঠিক নয়। দ্রুত সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলে বিনিয়োগকারীরা আতঙ্কিত হতে পারেন। তাই যে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে সার্বিক পরিস্থিতি ভালো করে বিচার-বিশ্লেষণ করে নিতে হবে। বাজারকে তার নিজস্ব গতিতে ছেড়ে দিতে হবে।’

ডিএসইর পরিচালক মো. শাকিল রিজভী জাগো নিউজকে বলেন, শেয়ারবাজার ভালো করতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বেশকিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। তার সুফল পাওয়া যাচ্ছে। তাছাড়া টানা দরপতনের পর বাজারে অনেক মূল্য সংশোধন হয়েছে। গত কয়েকদিন ঊর্ধ্বমুখী থাকলেও এখনো বাজারে কেনার জন্য যথেষ্ট উপযুক্ত। ভালো প্রতিষ্ঠান বাছাই করে কিনতে পারলে এই বাজার থেকে ভালো মুনাফা করা সম্ভব।


আরও খবর