Logo
আজঃ Wednesday ১০ August ২০২২
শিরোনাম
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ২৪৩৫ লিটার চোরাই জ্বালানি তেলসহ আটক-২ নাসিরনগরে বঙ্গ মাতার জন্ম বার্ষিকি পালিত রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড

চবিতে সাংবাদিকদের হুমকি: ৯ ছাত্রলীগকর্মীকে শোকজ

প্রকাশিত:Tuesday ২৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ১০ August ২০২২ | ৬৩জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) সাংবাদিকদের হল থেকে বের করে দেওয়ার হুমকির ঘটনায় ৯ ছাত্রলীগকর্মীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার (২৮ জুন) দুপুরে তাদের এ নোটিশ দেওয়া হয়।

শোকজপ্রাপ্তরা হলেন, লোকপ্রশাসন বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল জোবায়ের (নিলয়), অর্থনীতি বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের রানা আহমেদ, একই শিক্ষাবর্ষের ইসলাম ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ওয়ায়দুল হক লিমন ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের আশীষ দাস, দর্শন বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের সাজ্জাদুর রহমান, সংস্কৃত বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের তুষার তালুকদার বাপ্পা, হিসাববিজ্ঞান বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের আহম্মদ উল্লাহ রাব্বি ও একই বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের জাহিদুল ইসলাম এবং সংস্কৃত বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের রুদ্র তালুকদার। তারা সবাই চবি ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইলিয়াসের অনুসারী বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে সহকারী প্রক্টর মো. শাহরিয়ার বুলবুল তন্ময় জাগো নিউজকে বলেন, ‘অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ৯ ছাত্রকে আমরা কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছি। আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে তাদের জবাব দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অভিযুক্তের জবাবের প্রেক্ষিতে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে গত ১৬ জুন ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন কর্মী বিশ্ববিদ্যালয়ের আলাওল হলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি সাইফুল ইসলামের কক্ষে গিয়ে সাংবাদিকদের হল থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি 
 দেন। এ সময় অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও করেন তারা।


আরও খবর



‘কৃচ্ছ্রসাধন শুরু, দেখি সতর্ক হয়ে চলা যায় কি না’

প্রকাশিত:Tuesday ১৯ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ৭৮জন দেখেছেন
Image

মাহবুব কবির মিলন

ঈদের আগে যে আপেলের দাম ছিল ১৯০/২০০ টাকা কেজি, গতকাল দেখলাম ২৩০ টাকা, আজ লাগিয়ে রেখেছে ২৫৫ টাকা। আপেল খাওয়া পরিত্যাগ করলাম। জীবনে প্রথম কৃচ্ছ্রসাধন শুরু।

আমদানি করা ফলমূল না খেলেও ভালভাবেই বেঁচে থাকা যাবে ইনশাআল্লাহ। বলে নেওয়া ভালো, আমি প্রতিদিন কমপক্ষে একটি আপেল, তিনটি চম্পাকলা খেতাম।

বাসায় ব্যবহার করা সাবানের যে ক্ষুদ্র অংশ ফেলে দিতাম, মিশে যাওয়া পর্যন্ত ব্যবহার চলবে। মিষ্টি খাওয়া খুব পছন্দ করতাম। মাসে অন্তত পাঁচ কেজি একাই খেতাম। এক কেজির বেশি কিনবো না। কয়েকদিন ধরে মিষ্টি খাওয়া ছাড়াই আছি আলহামদুলিল্লাহ। দেখি সতর্ক হয়ে চলা যায় কি না।


আরও খবর



স্ত্রীর মর্যাদা পেতে ৩ দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে কলেজছাত্রী

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Monday ০১ August ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

নীলফামারীর ডোমারে স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে তিনদিন ধরে প্রেমিক নিপুণ রায়ের বাড়িতে অবস্থান করছেন এক কলেজছাত্রী। শুক্রবার (২২ জুলাই) বিকেল পর্যন্ত উপজেলার নয়ানী বাকডোকরা বাবুপাড়া এলাকায় অবস্থান করছেন তিনি।

নিপুণ রায় উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নয়ানী বাকডোকরা বাবুপাড়ার বাবু ভূপেশ চন্দ্র রায়ের ছেলে। তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সের।

ওই কলেজছাত্রী জানান, পাঁচ বছর পূর্বে নিপুণের মামা কনকের মাধ্যমে নীলফামারী কলেজে তার সঙ্গে পরিচয় হয়। একপর্যায়ে আমাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। লেখাপড়ার কারণে এক সময় দুজন ঢাকায় গেলে ২০১৯ সালের ৩ জানুয়ারি লোকনাথ মন্দিরে বিয়ে করি। বিয়ের সময় নিপুণের বান্ধবী ও তার স্বামী উপস্থিত ছিলেন। বিয়ের পর নিপুণের এক বান্ধবীর বাসায় আমরা এক সপ্তাহ অবস্থান করি। বিষয়টি চাকরি না হওয়া পর্যন্ত আমাকে গোপন রাখতে বলেছিল নিপুণ। কিন্তু গত এক মাস ধরে নিপুণ আমার সঙ্গে আগের মতো যোগাযোগ রাখছে না। তাই তাকে ফোন দিয়েই মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাড়িতে চলে আসি।

তিনি আরও জানান, নিপুণের পরিবার চান আমি জেনো এখান থেকে চলে যাই। তারা আমার পরিবারকে চার লাখ ৫০ হাজার টাকা দিতে চেয়েছে। তবে আমার পরিবার রাজী নয়। নিপুণ আমাকে স্ত্রীর মর্যাদা দিবে না হলে সে আমার মরা মুখ দেখবে।

এ ব্যাপারে নিপুণ রায়ের বাবা বাবু ভূপেশ চন্দ্র রায় বলেন, মেয়েটি গত তিনদিন ধরে আমার বাড়িতে আছে। মেয়েটি বলছে সে নাকি আমার ছেলেকে বিয়ে করেছে। আমার ছেলে বাড়িতে আসুক তার মুখে শুনে সিদ্ধান্ত নিবো।

নিপুণের চাচা জগদীশ চন্দ্র জানান, নিপুণকে বাড়িতে আসতে বলেছি। মেয়েটির কথা যদি সত্য হয় তাহলে আমরা নিপুণের সঙ্গে তাকে বিয়ে দিবো।

বোড়াগাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিমুন জানান, বিয়ের দাবিতে কলেজ ছাত্রীর অবস্থান করার কথা নিশ্চিত করেছেন। ঢাকায় থাকার কারণে ঘটনাস্থলে যেতে পারিনি। উভয় পক্ষ বসে একটা সিদ্ধান্তে আসা উচিত বলে আমি মনে করি।


আরও খবর



বিশ্ববাজারের কম দামের তেল আসলে দেশেও কমবে: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত:Sunday ০৭ August ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ০৭ August ২০২২ | ১০জন দেখেছেন
Image

বিশ্ববাজারের কম দামের জ্বালানি তেল দেশের বাজারে আসলে দাম কমে যাবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

রোববার (৭ আগস্ট) বিকেলে রাজধানীর একটি হোটেলে বন্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের বন্ড লাইসেন্স অ্যাপ্লিকেশন মডিউলের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমছে। সেই দামে তেল দেশে আসলে দাম কমে যাবে। জ্বালানি তেলের দামে রিয়েল টাইম অ্যাডজাস্টমেন্ট তথা স্বয়ংক্রিয় দাম নির্ধারণের কথা চিন্তা করছে না সরকার।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রসঙ্গে অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, সরকারের সাম্প্রতিক সিদ্ধান্তে মানুষের কষ্ট হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু দীর্ঘমেয়াদি ভালোর জন্য মাঝে মাঝে কষ্ট করতে হয়।

রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেন, কাস্টমস বন্ড কমিশনারেটের মাধ্যমে বন্ড লাইসেন্সধারী প্রতিষ্ঠানসমূহকে অধিকতর সেবা প্রদান এবং সরকারি রাজস্বের সুরুক্ষা নিশ্চিত করতে
বন্ড লাইসেন্স অ্যাপ্লিকেশন কাজ করবে। ২০১৭ সালে প্রকল্পটি নেওয়া হয়। ২০২৩ সালে কাজ শেষ হবে। প্রকল্পটি শেষ হলে ব্যবসা পরিচালন ব্যয় ও সময় হ্রাস হবে এবং সেবা প্রদানের প্রতিটি ক্ষেত্রে জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে।


আরও খবর



আম-সবজি রপ্তানিতে গাবতলীতে হচ্ছে বাষ্প তাপ প্রয়োগ প্ল্যান্ট

প্রকাশিত:Thursday ২১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

সংরক্ষণ সময় কম হওয়ায় দেশে উৎপাদিত আমের ৩০ শতাংশই নষ্ট হয়। এজন্য ফলটির বিদেশে চাহিদা থাকা সত্ত্বেও কাঙ্ক্ষিত হারে রাপ্তানি করা যাচ্ছে না। সমস্যা সমাধানে এবার গরম পানিতে শোধনের মাধ্যমে আমের সংরক্ষণ ক্ষমতা বাড়িয়ে তা রপ্তানি উপযোগী করার প্রকল্প নিচ্ছে সরকার।

এছাড়া অনেক সময় সবজিও স্বাস্থ্যসম্মতভাবে রপ্তানি করা যায় না। আর তাই ‘আম ও অন্যান্য সতেজ কৃষিপণ্য রপ্তানি বৃদ্ধিতে বাষ্প তাপ প্রয়োগ প্ল্যান্ট প্রকল্প’ নেওয়া হচ্ছে। এরই মধ্যে প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বলে জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

প্রকল্পের ব্যয় ২৭ কোটি ৬ লাখ টাকা হওয়ায় মন্ত্রী নিজ ক্ষমতাবলে এটা অনুমোদন করেছেন। জুলাই ২০২২ থেকে জুন ২০২৫ মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমরা সঠিকভাবে আম সংরক্ষণ করতে পারি না। অনেক সময় ৩০ শতাংশ নষ্ট করে ফেলি। এছাড়া যেভাবে আমরা আম সংরক্ষণ করি, এর ফলে বিদেশের অনেক মার্কেটে আমাদের আম ঢুকতে পারে না। গাবতলীতে একটা বাষ্প তাপ প্রয়োগ প্ল্যান্ট করে দেবো। এর মাধ্যমে আমসহ সতেজ সবজি বিদেশে বাধাহীনভাবে রপ্তানি করা যাবে।

বিএডিসি জানায়, বাংলাদেশ বিশ্বের প্রধান ১০টি আম উৎপাদনকারী দেশের মধ্যে অষ্টম স্থানে থাকলেও আম রপ্তানিকারক দেশ হিসেবে আমরা কোনো অবস্থানে নেই। আম একটি পচনশীল ফল হওয়ায় শুধু প্রক্রিয়াজাতকরণের অভাবে রপ্তানি কাঙ্খিত পর্যায়ে পৌঁছানো সম্ভব হয় না।

এছাড়া আমের মধ্যে রোগজীবাণু, পোকামাকড়, হেভিমেটাল ও দাগ থাকায় বিদেশিদের কাছে আমাদের আমের গ্রহণযোগ্যতাও কম। আম প্রক্রিয়াজাতকরণ প্রযুক্তি না থাকায় ফলটিকে উজ্জ্বল, দীর্ঘস্থায়ী করার পাশাপাশি বিভিন্ন জীবাণু, পোকামাকড় ও মাছিমুক্ত করা যায় না। ফলে ফাইটোস্যানিটারী সার্টিফিকেট পেতে বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়।

দেশের বাজারজাতকারীরা আম পাকানো ও সংরক্ষণকালে ক্ষতিকর রাসায়নিক ব্যবহার করে। এটি স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। আর সেটি প্রতিরোধে একটি অটো কনভেয়ার প্যাকেজিং লাইন নির্মাণের মাধ্যমে বাজারজাতকরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হবে।

এ প্রকল্পের আওতায় গুণগত মানসম্পন্ন ১০ হাজার মেট্রিক টন আমের বিভিন্ন ছত্রাক, ব্যাকটেরিয়া ও পোকার ডিম এবং শুককীট মুক্ত করা হবে। এছাড়া গুণগত মানসম্পন্ন ২৫ হাজার মেট্রিক টন সবজি ও সতেজ কৃষিজাত পণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ করা হবে।

আম রপ্তানি বৃদ্ধির লক্ষ্যে দ্রুত পচন রোধ করে সেলফ্ লাইফ বৃদ্ধি ও ফাইটোস্যানিটারী সার্টিফিকেটপ্রাপ্তি সহজীকরণের লক্ষ্যে পাইলট কার্যক্রম হিসেবে ঢাকার গাবতলীতে একটি বাষ্প তাপ প্রয়োগ প্রযুক্তি সুবিধাসম্পন্ন প্লান্ট স্থাপনের জন্য প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

প্রকল্পের উদ্দেশ্য: ঢাকা জেলার গাবতলীতে বাষ্প তাপ প্রয়োগ প্রযুক্তি স্থাপনের জন্য ২০২৩ সালের মধ্যে একটি প্রক্রিয়াজাতকরণ কেন্দ্র স্থাপন। আর ২০২৫ সালের মধ্যে আম ও অন্যান্য কৃষিজাত পণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ সুবিধার উন্নয়নের মাধ্যমে রপ্তানি বৃদ্ধিকরণ।

প্রকল্পের প্রধান কার্যক্রম: দুই হাজার ৫০০ বর্গমিটার আয়তনের একটি প্রক্রিয়াজাতকরণ কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। একটি বাষ্প তাপ প্রয়োগ প্রযুক্তি মেশিন ও একটি অটো কনভেয়ার প্যাকেজিং লাইন মেশিন স্থাপনা প্রক্রিয়াজাতকরণ প্ল্যান্টের জন্য বিদ্যুৎ সাবস্টেশন স্থাপন করা হবে। এছাড়া রপ্তানিকারক, উদ্যোক্তা, মেকানিক ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য সংশ্লিষ্ট বিষয়ে স্থানীয় প্রশিক্ষণ আয়োজন করা হবে।

কৃষি সার্ভিসের তথ্যমতে, দেশে বর্তমানে বছরে ২৮ হাজার হেক্টর জমিতে নয় লাখ টন আম উৎপাদন হয়। কিন্তু তা থেকে রপ্তানি হয় অতি সামান্য, যা মাত্র এক হাজার টনের মতো। রপ্তানির প্রধান সমস্যা হচ্ছে, আম পাকানো ও সংরক্ষণকাল বৃদ্ধিতে ক্ষতিকর রাসায়নিক বস্তুর ব্যবহার, সংগ্রহোত্তর ব্যবস্থাপনা (সন্তোষজনক প্যাকেজিং ও পরিবহন ব্যবস্থা না থাকা, কৃষকদের রপ্তানি মান সম্পর্কে জ্ঞান না থাকা ইত্যাদি)।

প্রকল্প প্রস্তাবে বলা হয়, দেশে যথেষ্ট আম উৎপাদন হলেও উপযুক্ত প্রক্রিয়াজাতকরণ ও সংরক্ষণ ব্যবস্থার অভাবে প্রচুর আম নষ্ট হয়, যা মোট উৎপাদনের প্রায় ৩০ শতাংশ। আবার সংগ্রহ মৌসুমে আর্দ্রতা ও তাপমাত্রার কারণে আমের সংরক্ষণ সময় কম থাকে যার কারণে দ্রুত পচে যায়। আমের মৌসুমের সময় কম এবং শোধন ব্যবস্থা অপ্রতুল হওয়ায় এমনটি হয়ে থাকে।

তবে গরম পানিতে শোধন করলে আমের সংরক্ষণ ক্ষমতা বাড়বে এবং আমে থাকা রোগ-বালাই ও জীবাণুও নষ্ট হবে। একই সঙ্গে সংরক্ষণ ব্যবস্থাও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের হবে, যা আমের রপ্তানি উপযোগিতা বাড়াবে। এর মাধ্যমে আধুনিক ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে আমের সংগ্রহোত্তর অপচয় ১০ শতাংশ হ্রাস পাবে। একই সঙ্গে গুণগত মান নিশ্চিতকরণ ও বিপণন দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে আমের রপ্তানি বাজার সম্প্রসারিত হবে।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রী সংলাপের কোনো দাওয়াত দেননি: কামরুল

প্রকাশিত:Monday ২৫ July ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ০৯ August ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
Image

দাওয়াত না পেয়েও ‘প্রধানমন্ত্রী চায়ের দাওয়াত দিয়েছেন’ বিএনপি এমন কথা বলে বেড়াচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।

সোমবার (২৫ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুনের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

কামরুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী সংলাপের কোনো দাওয়াত দেননি। আওয়ামী লীগের কোনো দুর্বলতাও নেই। এটা নিয়ে বিএনপি অপব্যাখ্যা দিচ্ছে। তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, দেশে এখন সাহারা খাতুনের মতো কর্মীবান্ধব নেতৃত্বের অভাব। সকল আন্দোলন সংগ্রামে তিনি নেতাকর্মীদের পাশে থাকতেন। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দুঃসময় দেখলে তাদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন। বিএনপির সময় মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে নেতাকর্মীদের পক্ষে আইনী লড়াই করেছেন তিনি।

আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু একাডেমির চেয়ারম্যান সাব্বির আহমেদ রনি। এতে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, প্রেসিডিয়াম সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া (বীর বিক্রম) ও আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।


আরও খবর