Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান তারকাদের

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৭৪জন দেখেছেন
Image

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা ভারি বর্ষণে সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। বন্যার্তদের উদ্ধারে শুক্রবারই মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী। পরিস্থিতি ক্রমে ভয়াবহ হয়ে পড়ায় উদ্ধার তৎপরতায় যোগ দিয়েছে নৌবাহিনী ও কোস্ট গার্ডের সদস্যরাও। এ তৎপরতায় যুক্ত হয়েছে বিমানবাহিনীর দুটি হেলিকপ্টার ও কোস্ট গার্ডের দুটি ক্রুজ।

সিলেট-সুনামগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি নাড়া দিয়েছে সারাদেশের মানুষকে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সাহায্যের আর্তি জানাচ্ছেন অনেকে। দেশের ভয়াবহ এ বন্যা পরিস্থিতি নাড়া দিয়েছে শোবিজ অঙ্গনে। তারা নিজেরা সাহায্য পাশাপাশি সবাইকে সাহায্যয়ের করার আহ্বান করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

অভিনেত্রী জয়া আহসান লিখেছেন, ‘দেশের একটি বিভাগের প্রায় ৮০ শতাংশ ডুবে যাওয়ার মতো বন্যা এর আগে বাংলাদেশে হয়নি। সিলেট ও সুনামগঞ্জের ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির ছবি ও ভিডিও দেখে শিউরে উঠছি। বন্ধ হয়ে গেছে ইলেকট্রিসিটি, ইন্টারনেট। এমনকি দেশের অন্যান্য জায়গা থেকেও তাদের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন।’

বন্যাকবলিত অঞ্চলের মানুষ-পশুপাখির সবার সুরক্ষা কামনা করে জয়া লেখেন, ‘এ পরিস্থিতিতে হৃদয়ের অন্তঃস্থল থেকে সবার জন্য প্রার্থনা করছি। শিগগির প্রকৃতির এ ভয়াবহতা কেটে যাক। সিলেট ও সুনামগঞ্জের সব মানুষ, পশুপাখি সুরক্ষিত থাকুক।’

দেশবাসীকে বন্যাকবলিতদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে এ অভিনেত্রী আরও লেখেন, ‘প্রশাসনের সঙ্গে সঙ্গে আমরাও যেন সাধ্যমতো তাদের পাশে থাকতে পারি সেই প্রচেষ্টা করতে হবে। দেশের সবাই এগিয়ে আসুন। সকলে মিলে একসাথে ভয়াবহ এ পরিস্থিতি যেন কাটিয়ে উঠতে পারি সেই প্রার্থনা করি।’

চিত্রনায়ক শাকিব খান লিখেছেন, ‘এই মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রে থাকলেও সংবাদমাধ্যম ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছ থেকে জেনেছি। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ। বন্যা কবলিত মানুষের দুর্দশা আমাকে ভীষণভাবে কষ্ট দিচ্ছে। মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়া মানুষের পাশে আছি। তাদের মৌলিক চাহিদা পূরণে আমার সামর্থ্যের মধ্যে অর্থ সহায়তা পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছি।’

‘সেই সাথে একটি তহবিল গঠনেরও কথা ভেবেছি; যা থেকে প্রাপ্ত অর্থ ও অন্যান্য সহায়তা পৌঁছে যাবে কষ্টে থাকা সেই সব বানভাসি মানুষের সাময়িক সংকট মোকাবিলায়। বন্যা কবলিতদের যে কোনো ধরনের সহায়তা দিয়ে যারা পাশে থাকতে চান, এই ই-মেইলে যোগাযোগ করতে পারবেন [email protected]।’

সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে শাকিব খান আরও লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ ও প্রবাসে থাকা আগ্রহী বিত্তবানদের কাছে আহ্বান - আপনারাও নিজেদের সামর্থ্যের মধ্য থেকে বানভাসি অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান। সৃষ্টিকর্তা আমাদের সহায় হোক। সবার জন্য প্রার্থনা।’

কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর লিখেছেন ‘৮৮, ৯৮ এর মত এবারের বন্যাও ভয়াবহ রুপ ধারন করছে। অস্থির লাগছে। সিদ্ধান্ত নিয়েছি সাধ্যানুযায়ী বন্যার্তদের পাশে থাকবো, আপনিও প্রস্তুত থাকুন। বেঁচে থাকার লড়াই চলবে। আল্লাহ ভরসা। ’

সাইমন সাদিক সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় ভক্ত-অনুরাগী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের কাছে বন্যা কবলিতদের জন্য সাহায্য আহ্বান করেছেন। তিনি বলেন, এখন প্রাকৃতিক দুর্যোগ। সিলেট-সুনামগঞ্জসহ ওই পাশের বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। যা ইতোপূর্বে দেশের বন্যপরিস্থিতিতে দেখা যায়নি। এ অবস্থায় পানিবন্দিদের উদ্ধারের জন্য সেনাবাহিনী মাঠে নেমেছে।

তিনি আরও বলেন, আমি বিশ্বাস করি, আমরা সবাই সবার তরে। আমরা সবাই সবার বিপদে পাশে দাঁড়াতে চাই। এর আগে আমরা নিজ নিজ জায়গা থেকে করোনা পরিস্থিতিতে পাশে দাঁড়িয়েছি। কিন্তু এখন সিলেটে ২০ লাখ মানুষ। তাদের সবার হয়তো সহযোগিতার প্রয়োজন হবে না। সংবাদ পড়ে জানতে পেরেছি কেউ কেউ দু-তিন দিন ধরে খেতে পারছেন না। তাদের পর্যাপ্ত পরিমাণ খাবার নেই। গবাদি পশু-পাখি সব ভেসে যাচ্ছে। এমনকি শেষ সম্বল বাড়িও ভেসে যাচ্ছে ঢলে। তাদের এখন বেঁচে থাকাই দায় হয়েছে।

বন্যা কবলিত মানুষদের এই পরিস্থিতিতে সহযোগিতা প্রয়োজন। এই বিষয়ে ‘পোড়ামন’ খ্যাত নায়ক বলেন, সিলেটের মানুষের জন্য সাধ্য অনুযায়ী অন্তত শুকনো খাবারের ব্যবস্থা করতে পারলেও তাদের সহযোগিতা করা হবে বলে মনে করি আমি। আমাদের কিশোরগঞ্জের ‘কলিজার গ্রাম’ সংগঠনের পক্ষ থেকে কয়েক দিনের মধ্যে একটি টিম নিয়ে সেখানে যাওয়া হবে। আপনাদের সাধ্য অনুযায়ী সবার কাছে সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি।

“হয়তো আমরা বন্যা কবলিতদের পাশে দাঁড়ালে ভবিষ্যতে তারা বেঁচে থাকার যে অবলম্বন, তা ফিরে পাবে”—বলেও যোগ করেন সাইমন। এরপর তিনি সহযোগিতা প্রদানের জন্য দুটো বিকাশ নম্বর (01613012496, 01614112258) জানান। এছাড়া বড় অংকের আর্থিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বরও দেন।

চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরী লিখেছেন, ‘ছবি বা ভিডিওতে আমরা যা দেখছি, সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি তারচেয়েও ভয়াবহ। তাদের দুর্দশা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। এমন মানবিক বিপর্যয়ে আমাদের সবার উচিত তাদের পাশে দাঁড়ানো। আমি বন্যাকবলিত মানুষের প্রতি সহমর্মিতা জানাচ্ছি। আমার দর্শক-বন্ধুদের যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ রইল। দেশে বা বিদেশে, যে যেখানে আছেন সামর্থ্য অনুযায়ী বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়াবেন প্লিজ। সকলের তরে সকলে আমরা, প্রত্যেকে আমরা পরের তরে।’

নিরব হোসেন লিখেছেন ‘চলুন আমরা সবাই বন্যাদুর্গত মানুষের পাশে দাড়ায়’।

সিয়াম আহমেদ লিখেছেন, ‘আমার এখনও মনে আছে টাঙ্গুয়ার হাওড়ের সেই জলরাশি, সেই ট্রলারের কথা। বন্ধুদের নিয়ে গিয়েছিলাম হাওড় দেখতে। সুনামগঞ্জের মানুষের আতিথেয়তা ও ভালোবাসা মুগ্ধ করেছিল যেন হাওড়ের চেয়েও বেশি। সেই সুনামগঞ্জ আজ কাঁদছে। বন্যায় ডুবে গেছে সুনামগঞ্জের ৯০% ঘরবাড়ি। আমরা সুউচ্চ দালানে বসে ওয়েদার ডিমান্ড ও ঝরো ঝরো মুখর বাদল দিনে যখন লিখছি তখন সুনামগঞ্জ ও সিলেটের মানুষ লড়াই করছেন বন্যার সঙ্গে।’

এ সময় এই নায়ক সিলেট ও সুনামগঞ্জবাসীর সাহায্যে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে আরও লিখেছেন, ‘সবাই মিলে চলুন এখনই পাশে দাঁড়াই, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেই সুনামগঞ্জ ও সিলেটবাসীর জন্য। সরকারের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানাই আশু পদক্ষেপ গ্রহণ করার। প্রাকৃতিক এই দুর্যোগে যেন একটি প্রাণও না হারায়। জলের স্রোতে না ভেসে যাক একটি স্বপ্নও আর...’

তানজিন তিশা ফেসবুক আইডিতে সিলেট ও সুনামগঞ্জের ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের উদ্ধারে সেনাবাহিনীর দায়িত্বপ্রাপ্ত টিম লিডারদের মোবাইল নাম্বার দিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘বানভাসি মানুষের যেকোনো প্রয়োজনে তাদেরকে কল দিতে পারেন।’

এদিকে বন্যা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারে ধারণা করে অপূর্ব লিখেছেন, ‘সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যার পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। ধারণা করা হচ্ছে এই বন্যা অতীতের সকল রেকর্ড ছাড়িয়ে যেতে পারে।’

এ সময় সিলেটবাসীর জন্য সৃষ্টিকর্তার নিকট প্রার্থনা করে তিনি আরও লিখেছেন, ‘মহান আল্লাহ আপনি সহায় হোন৷’


আরও খবর



একসঙ্গে বড় পর্দায় জ্যাকি-সঞ্জয়-সানি-মিঠুন, ছবির নাম ‘বাপ’

প্রকাশিত:Monday ১৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৮৭জন দেখেছেন
Image

প্রথমবারের মতো একসঙ্গে বড় পর্দায় আসছেন জ্যাকি শ্রফ, সঞ্জয় দত্ত, সানি দেওল, মিঠুন চক্রবর্তী। ছবির নাম ‘বাপ’। অ্যাকশন থ্রিলার ছবিটির পরিচালক বিবেক চৌহান।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর, চলতি মাসেই শুরু হতে পারে এ ছবির শুটিং। প্রথমে মুম্বাইতে কাজ শুরু হবে। যৌথ প্রযোজনায় জি স্টুডিও ও আহমেদ খান। চার মহারথীর তারিখ পেতেও অসুবিধা হয়নি প্রযোজক-পরিচালকের।

ছবির আনুষ্ঠনিক ঘোষণা না হলেও গুঞ্জন ছড়িয়েছে, ২০২৩-এ ছবি মুক্তির কথা ভেবে রেখেছেন প্রযোজক।

আশির দশকে মুম্বাইয়ের অ্যাকশনধর্মী ছবিতে একচেটিয়া ছিলেন জ্যাকি, সঞ্জয়, সানি, মিঠুন। এবার এক ছবিতে একসঙ্গে চারজনই। ভক্ত-অনুরাগীরা মনে করছেন, এ ছবি ভেঙে দেবে পুরোনো সব অ্যাকশনধর্মী ছবির রেকর্ড!

এরআগে চার অভিনেতাকে পর্দায় একসঙ্গে দেখা যায়নি। তবে জুটি বাঁধতে দেখা গেছে বেশকিছু ছবিতে। ‘যোদ্ধা’ ছবিতে সঞ্জয় দত্ত ও সানি দেওল একসঙ্গে কাজ করেছেন। জ্যাকি ও সঞ্জয় ছিলেন ‘খলনায়ক’ ছবিতে। সানি ও জ্যাকি শ্রফকে দেখা গিয়েছিল ‘বর্ডার’ ও ‘ত্রিদেব’ ছবিতে। পর্দা ভাগ করেছেন মিঠুন আর সানি দেওল।

বলিউডের এ চার সুপারস্টারের অ্যাকশন ছবির জনপ্রিয়তাই বলে দেয়, ভক্তরা তাদের সেভাবেই পর্দায় দেখতে ভালোবাসেন। ফলে বড়সড় ধমাকার অপেক্ষায় বলিপাড়া।


আরও খবর



বন্যাকবলিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান-শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি

প্রকাশিত:Thursday ২৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
Image

বন্যাকবলিত এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। বুধবার (২২ জুন) এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।

মাউশির ওই নির্দেশনায় সব আঞ্চলিক পরিচালক, উপপরিচালককে বন্যাকবলিত এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনীয় তথ্য পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) মাউশির উপপরিচালক (মানিটরিং অ্যান্ড ইভালুয়েশান) সেলিনা জামান স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, বর্তমানে বর্ষায় অতিবৃষ্টির কারণে উজান থেকে পানি আসায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বন্যার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় বন্যায় যেসব জেলা/উপজেলার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষার্থী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের তথ্য পাঠাতে বলা হয়েছে। এ তথ্যগুলো ছক অনুযায়ী মনিটরিং অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশান উইংয়ের মেইলে ([email protected]) সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের আওতাধীন উজলো ও জেলার সব তথ্য একত্রি করে কলেজ পর্যায়ের তথ্য আঞ্চলিক পরিচালক এবং স্কুল পর্যায়ের তথ্য আঞ্চলিক উপ-পরিচালক, মাধ্যমিকের ই-মেইলে পাঠাতে নির্দেশ্রকম অনুরোধ করা হয়েছে।

বলা হয়েছে বিচ্ছিন্নভাবে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান/উপজেলা বা জেলা থেকে তথ্য পাঠানো হলে গ্রহণযোগ্য হবে না। যেসব তথ্য দিতে বলা হয়েছে, তা হলো— বন্যাকবলিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (মোট সংখ্যা ও নাম, আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে এমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (মোট সংখ্যা ও নাম)। এছাড়া পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব, আংশিক সম্ভব, সম্ভব নয়, বন্যাকবলিত এলাকার মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা।


আরও খবর



ইসরায়েল-পাকিস্তান সম্পর্ক: পর্দার আড়ালে ‘প্রেম’ অস্বীকার

প্রকাশিত:Saturday ১১ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

ইসরায়েল ইস্যুতে পাকিস্তানের রাজনীতির মাঠ গরমের চেষ্টা করছেন দেশটির সদ্য পদচ্যুত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। গত মে মাসে প্রবাসী পাকিস্তানিদের ১৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলের ইসরায়েল সফরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিতর্ক তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছেন তিনি।

প্রতিনিধি দলটি ইসরায়েলের রাষ্ট্রপতি আইজ্যাক হারজোগের সাথে বৈঠক করে। এসময় আইজ্যাক হারজোগ তাদেরকে ‘গর্বিত’ পাকিস্তানি' বলে আখ্যা দেন। এদিকে সাধারণ পাকিস্তানিদের মধ্যে ইসরায়েল বিরোধী মনোভাবকে অস্ত্র বানিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা নিতে চেয়েছেন ইমরান খান। গত ২৮ মে খাইবার পাখতুনখোয়ার চরসাদ্দায় পিটিআই-এর একটি কনভেনশনে তিনি সরকারের সমালোচনা করে দাবি করেন, ‘পাক সরকার ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিতে যাচ্ছে।’

যদিও পাকিস্তানের পরিকল্পনা বিষয়ক ফেডারেল মন্ত্রী আহসান ইকবাল বলেন, ‘পাকিস্তানের কোনও সরকারী বা আধা-সরকারি প্রতিনিধি দল ইসরায়েলি রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করেনি।’এর আগে পাকিস্তানি আমেরিকান আনিলা আলী নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে একটি ছবি শেয়ার করে ইসরায়েল সফরের কথা জানান। তিনি তেহরিক-ই-পাকিস্তান ও কায়েদ-ই-আজম মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর উপর তার বাবা কুতুবউদ্দিন আহমেদের লেখা একটি বই উপহার দিতে গত ১২ মে ইসরায়েলি রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করেছিলেন। ওই সফরে যোগ দিয়েছিলেন পাকিস্তান টেলিভিশন (পিটিভি) উপস্থাপক ওয়াকার কুরেশিও।

এর জেরে কুরেশিকে বরখাস্ত করে পাকিস্তান সরকার। এরপরেও পিটিআই সরকারের সাবেক মানবাধিকার মন্ত্রী শিরিন মাজারি কুরেশির ওই সফরে যোগ দেওয়ার সমালোচনা করেন। মাজারি বলেন, কুরেশি রাষ্ট্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানে কাজ করেন। ফলে তার সফর অগ্রহণযোগ্য। পিটিআই সদস্য আরসলান খালিদও পাকিস্তান ও ইসরায়েলি প্রতিনিধিদলের মধ্যে বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে টুইটারে ওয়াকার বলেন, প্রতিউত্তরে মাজারির সাবেক কর্মকর্তা সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাজা কাসুরি ২০০৫ সালে তুরস্কে পাকিস্তান-ইসরায়েলের প্রথম আনুষ্ঠানিক বৈঠকে অংশ নিয়েছিলেন। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে অপসারণের পর থেকে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান সরকারের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করে আসছেন।

তার দাবি, সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে মার্কিনীদের সঙ্গে যোগ দিয়েছিল ভারত ও ইসরায়েল। তার এই কথায় এটি প্রমাণিত হয়েছে যে তিনি ইসরায়েলের সঙ্গে পর্দার আড়ালে 'ট্র্যাক-২ কূটনীতি' চালু করেছিলেন। গত ২১ মে জিও টিভির এক প্রতিবেদনে ইসরায়েল সফরের প্রতিনিধি দলের অন্যতম সদস্য আমেরিকান মুসলিম এবং মাল্টিফেইথ উইমেনস এমপাওয়ারমেন্ট কাউন্সিলের নেতা আনিলা আলি ব্রিটিশ ও আমেরিকান পাকিস্তানিদের সাথে দুজন পাকিস্তানিকে ইসরায়েল সফরের অনুমতি দেওয়ায় ধন্যবাদ জানান।

এতে তিনি পাকিস্তানের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো পাকিস্তানি পাসপোর্টে বেনখাল্ড নামে এক পাকিস্তানি ইহুদিকে ধর্মের জায়গায় ইহুদি ধর্ম লেখার অনুমতি দেওয়ার জন্য ইমরানের সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

জমিয়ত উলেমা ইসলাম- (ফজলুর) ও পাকিস্তান ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট (পিডিএম) এর প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমান আগেও দাবি করেছিলেন পাকিস্তানে ইমরান খানের সরকার চক্রান্তের জন্যে ইসরায়েলসহ আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়দের ডেকে এনেছেন।

১৯৯৫ সালের মার্চ মাসে স্যার জেমস গোল্ডস্মিথের মেয়েকে প্রথম বিয়ে করার জেরে রাজনৈতিক কর্মজীবন জুড়ে ইমরান খানের সমালোচকরা তাকে ইসরায়েলি/ইহুদি দালাল হিসেবে অভিযুক্ত করেছেন। এছাড়াও তিনি ইসলামী শিক্ষার বাইরে অতীতে আন্তর্জাতিক প্লেবয় হিসেবে চিহ্নিত হতেন।

২০২১ সালে করাচিতে একটি ইসরায়েল-বিরোধী সমাবেশের নেতৃত্ব দিয়ে ফজলুর রহমান দাবি করেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ইসরায়েলের সাথে সম্পর্ক স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এমনকি বিরোধীদলীয় নেত্রী মরিয়ম নওয়াজ শরীফও ইমরান খানের বিরুদ্ধে একই তোপ দেগেছেন।

এক সমাবেশে তিনি বলেন, আমেরিকান ইহুদি আইনজীবী ব্যারি সি. স্নেপস ইমরান খানের পিটিআইকে আর্থিক সহায়তা দেন। তিনি ইসরায়েলের কাছ থেকে অর্থায়ন পান। যদিও ইমরান খানের দাবি তাকে অনাস্থা প্রস্তাবে ক্ষমতা থেকে অপসারণের ঘটনা আসলে বিদেশী শক্তি ষড়যন্ত্র। ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের নিন্দা করতে ইসলামাবাদের ব্যর্থতা ও ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দিতে ইমরান উদ্যোগ না নেওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এই ঘটনা ঘটিয়েছে। এমনকি রাজনৈতিক বিরোধীদের তিনি আমেরিকার দাস হিসেবেও অভিহিত করেন।

৯০'র দশকে রাজনীতিতে প্রবেশের পর থেকে ইমরান খান নিজেকে ধর্মপ্রাণ মুসলমান হিসেবে দাবি করে পাকিস্তান ও মুসলিম উম্মাহর স্বার্থের জন্য যেকোন কিছু ত্যাগ করতে ইচ্ছুক বলে নিজেকে প্রমাণ করতে চেয়েছেন। সবশেষ তিনি দাবি করলেন, যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েল ও ভারত তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।

গত বছর সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে পাকিস্তানের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি অভিযোগ করে বলেন, বিভিন্ন স্তরে ইসরায়েলের গভীর জাল বিছানো রয়েছে। তারা মিডিয়া নিয়ন্ত্রণ করেন। খাইবার পাখতুনখাওয়ার চরসাদ্দায় পিটিআই কর্মীদের কনভেনশনে ভাষণ দেওয়ার সময় ইমরান খান বলেন, এই সরকার কাশ্মীরের জনগণকে বিক্রি করার জন্য ভারতের সাথে একটি চুক্তি করবে।

তিনি বলেন, এই সরকারের কারো সঙ্গে কোন অংশীদারিত্বের যোগাযোগ নেই। একারণে তারা তারা আন্তর্জাতিক অর্থ ঋণদাতার দাবি মেনে নিতে বাধ্য হয়েছে। এছাড়া তারা বিদেশ থেকে নির্দেশ নেয় ও বিদেশী নির্দেশের সাথে সঙ্গতি রেখে সমস্ত সিদ্ধান্ত নেয়।

তিনি বলেন, অনাস্থা পদক্ষেপের মাধ্যমে পিটিআই সরকারকে অপসারণের পর সারা ভারতে আনন্দের পরিবেশ ছিল। পাকিস্তানে সরকার পরিবর্তনে ভারতীয়রা এত খুশি হয়েছিল যেন শেহবাজ শরিফ নয়, শেহবাজ সিং দেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন।

পাকিস্তানে ইহুদি-বিদ্বেষকে গভীরভাবে চাষ করা হয়েছে। ষড়যন্ত্রের কথা দাবি করে জনগণের মধ্যে অতিরঞ্জিত মিথ্যা তথ্য ছড়ানো হয়েছে। ইসরায়েল বা ইহুদিরা পাকিস্তানকে অস্থিতিশীল বা ভাঙ্গার দীর্ঘমেয়াদী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে এমন দাবির ভিত্তি নেই বলেই বিভিন্ন সময় প্রমাণ মিলেছে। তবুও রাজনৈতিক কারণে সাধারণ মানুষের মধ্যে ইহুদি ও ইসরায়েলের বিরোধিতাকে পুঁজি করেছেন ইমরান খান।

ইমরান খান নিজে যেখানে রাজনৈতিক জীবনে তথাকথিত ইহুদি ষড়যন্ত্র তত্ত্বের শিকার ছিলেন তিনিও রাজনীতিতে পিছিয়ে পড়া পরিস্থিতি সামাল দিতে মার্কিন-ইসরায়েল এবং ভারতকে জড়িয়ে বক্তব্য দিয়ে একই পথ ধরেছেন।

ফজলুর রহমানের জেইউআইসহ (এফ) পাকিস্তানের অন্যান্য রাজনৈতিক দলের আচরণ একই রকম। তারা তৃতীয় দেশে ইসরায়েলিদের সাথে গোপনে বৈঠক করা সত্ত্বেও তেল আবিবের সঙ্গে নিজেদের সম্পর্ক অস্বীকার করে থাকে। পর্দার আড়ালে তারা গভীর সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা চালিয়ে গেলেও তা প্রকাশ্যে অস্বীকার করেন।

যেখানে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ অনেক বিশিষ্ট সুন্নি সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ অর্থনৈতিক বিবেচনার কারণে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা করছে, সেখানে পাকিস্তান সম্পর্কের জায়গায় নয়-ছয় অবস্থান বজায় রাখছে।

লেখক: সিনিয়র সাংবাদিক, কলামিস্ট।


আরও খবর



জয়ের লক্ষ্যে পাঁচ দিন খেলতে চায় বাংলাদেশ

প্রকাশিত:Saturday ১৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
Image

অ্যান্টিগা টেস্টের দুই দিন শেষে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ পুরোপুরি স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজের হাতে। প্রথম ইনিংসে ১৬২ রানের লিড নিয়েছে তারা। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসে এরই মধ্যে ৫০ রানের মধ্যে তুলে নিয়েছে দুইটি উইকেট।

আজ (শনিবার) ১১২ রানে পিছিয়ে থেকে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করবে সফরকারীরা। হাতে আছে ৮টি উইকেট। এই ৮ উইকেট নিয়েই আরও ১১২ রান করতে তারপরই লক্ষ্য ছুড়ে দিতে হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। যা বেশ কঠিন কাজই বটে।

প্রথম ইনিংসে মাত্র ১০৩ রানে অলআউট হওয়ায় বাংলাদেশের পক্ষে বাজি ধরার লোকও পাওয়া যাবে না তেমন একটা। তবু হাল ছাড়তে রাজি নয় সাকিব আল হাসানের দল। ব্যাটারদের দিকে তাকিয়ে পুরো পাঁচ দিনেই ম্যাচটি নিতে চায় টাইগাররা।

দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে দলের পেসার খালেদ আহমেদ বলেছেন, ‘আমরা জেতার জন্যই খেলবো। চেষ্টা থাকবে ব্যাটাররা স্কোরবোর্ডে যত রান তুলতে পারে। খেলাটা যেন পাঁচ দিনে শেষ হয়। উইকেট খুবই ভালো। বোলারদের জন্য অত সাহায্যও নেই। আমাদের ব্যাটাররা ইনশাআল্লাহ ভালো খেলবে।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ইনিংসে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নিয়েছেন মেহেদি হাসান মিরাজ। এছাড়া সমান দুই উইকেট খালেদ আহমেদ ও এবাদত হোসেন। এর মধ্যে খালেদই ফিরিয়েছেন ইনিংসের দুই হাফসেঞ্চুরিয়ান ক্রেইগ ব্রাথওয়েট ও জার্মেইন ব্ল্যাকউডকে।

নিজের বোলিং সম্পর্কে স্বস্তি প্রকাশ করে খালেদ বলেছেন, ‘প্রথমত আলহামদুলিল্লাহ। চেষ্টা করেছি নিজের সেরাটা দেওয়ার। শেষ দুইটা টেস্টে যেহেতু ভালো করিনি, ইচ্ছে ছিল যেন সুযোগ পেলে নিজেকে মেলে ধরতে পারি। যেমনটা দক্ষিণ আফ্রিকায় করেছি।’


আরও খবর



সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার নিয়ে যা বললেন বিশেষজ্ঞরা

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
Image

জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ করেছেন কাজী হাবিবুল আউয়াল নেতৃত্বাধীন কমিশন। সেই বৈঠকে ইভিএম নিয়ে বিভিন্ন জন বিভিন্ন ধরনের মতামত দিয়েছেন। এবার সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার, নির্বাচন কমিশনার, সচিব ও অতিরিক্ত সচিবদের সঙ্গে সংলাপ করেছে কমিশন। সংলাপে সাবেক দুই সচিব ইভিএম ব্যবহার নিয়ে দুই ধরনের মতামত দিয়েছেন।

রোববার (১২ জুন) সকাল ১১টায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়ালের সভাপতিত্বে এ সংলাপ শুরু হয়।

ইভিএম প্রসঙ্গে সাবেক ইসির সচিব মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বলেন, ইভিএমে আমাদের শতভাগ সক্ষমতা অর্জিত হয়নি, সম্ভবও না। আমার পরামর্শ থাকবে শতভাগ সক্ষমতা অর্জনের পূর্বে একটা পদ্ধতিতেই যাওয়া উচিত। সনাতন পদ্ধতি শত সীমাবদ্ধতা থাকলেও গ্রহণযোগ্যতা আছে।

ইভিএম নিয়ে নানান প্রশ্ন আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, পৃথিবীর অনেক দেশ কিন্তু ইভিএম নিষিদ্ধ করেছে। আমাদের প্রতিবেশী দেশও শতভাগ না করে পাইলটিং হিসেবে ইভিএম ব্যবহার করে থাকে। ইভিএম সম্পর্কে আমাদের পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে, আমি ব্যক্তিগতভাবে আইটি সম্পর্কিত যতটুকু পড়াশুনা করেছি। আমি বলতে পারি এটার নির্ভরযোগ্যতা শতভাগ গ্যারান্টেড না। এখানে প্রশ্ন থেকেই যাবে।

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় দায়িত্ব পালন করা ইসির সাবেক সচিব ড. মোহাম্মদ সাদিক বলেন, ইভিএম নিয়ে ১২ বছর যাবত পরীক্ষা-নিরীক্ষা হচ্ছে। রাজনৈতিক দলের এক্সপার্টদের নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। এতে দেখা গেছে, ইভিএম দিয়ে নির্বাচন করা সম্ভব। বাংলাদেশে এই পর্যন্ত আপনারাসহ চারটি কমিশন ইভিএম ব্যবহার করেছেন। ইভিএম ব্যবহার করে ফলাফল দিয়েছেন এবং ইলেকশন সফল হয়েছে। সুতরাং ইভিএম নিয়ে আর কত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবেন সেটি চিন্তার বিষয়। আমার কাছে তথ্য যতটুকু আছে তাতে আপনাদের কাছে প্রায় দেড় লক্ষ ইভিএম আছে। এগুলো ব্যবহার করবেন কী করবেন না, সেটি আপনারাই সিদ্ধান্ত নেবেন।

তিনি বলেন, নির্বাচনে লাঞ্চের সময় ও ভোট গণনা করার সময় সমস্যা হয়। সুতরাং ইভিএম আপনাদের এই সমস্যা থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি দিতে পারবে। আমরা মনে করি এই যন্ত্রটি আপনারা ব্যবহার করতে পারেন। যেহেতু আপনারা পরীক্ষা করছেন অলরেডি, অন্যান্য প্রকৌশলীরাও করেছেন।

ইসির সাবেক অতিরিক্ত সচিব জেসমিন টুলী ঢালাওভাবে ইভিএম ব্যবহার না করার পক্ষে মত দেন।

তিনি বলেন, যেসব এলাকার মানুষ অন্যের সাহায্য ছাড়া ইভিএম ব্যবহারে সক্ষম শুধু সেসব এলাকায় ইভিএম ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে দুর্গম এলাকা বা যেসব এলাকার মানুষ এটি ব্যবহারে অভ্যস্ত নয়। সেসব এলাকায় ইভিএম ব্যবহার করা ঠিক হবে না।

সংলাপে আরও উপস্থিত ছিলেন- সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার বিচারপতি মো. আব্দুর রউফ, ড. এটিএম শামসুল হুদা ও কে এম নূরুল হুদা। সাবেক নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মাদ আবু হাফিজ, মো. শাহনেওয়াজ ও মাহবুব তালুকদার এবং সাবেক অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেছুর রহমান।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আহসান হাবিব খান (অব.), বেগম রাশেদা সুলতানা, মো. আনিছুর রহমান, মো. আলমগীর, ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার, অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথসহ ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।


আরও খবর