Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা
কর্তৃপক্ষের দাবি লাফিয়ে আত্মহত্যা

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাদ থেকে পড়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

প্রকাশিত:Thursday ১৯ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১২৯জন দেখেছেন
Image

নাজমুল হাসানঃ

রাজধানীর গ্রিনরোডে এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটির সাততলা থেকে পড়ে ইমাম হোসেন (২৩) নামে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। 


সে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।


বৃহস্পতিবার (১৯ মে) সকাল আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।  


মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইমাম হোসেনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সকাল দশটায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


নিহত শিক্ষার্থীর বাড়ি ভোলা লালমোহন উপজেলায়। নিহতের বাবার নাম আক্তার হোসেন।


কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে ৯৮নং পূর্ব রাজাবাজারে একটি মেসে থাকতেন। ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন তিনি।


 বৃহস্পতিবার সকালে তার তৃতীয় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষা ছিল।


বিশ্ববিদ্যালয়টির এ্যাসিস্টেন্ট অ্যাডমিন অফিসার ফয়সেলুজ্জামান জানান, সকালে তিনি যখন ভার্সিটিতে ঢুকছিলেন তখন শুনতে পান ভবন থেকে এক শিক্ষার্থী নিচে পড়ে গেছেন। সঙ্গে সঙ্গে তিনি তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল, পরে দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল নিয়ে যান। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।


তিনি দাবি করেন, ভার্সিটির সিসিটিভি ক্যামেরায় দেখা গেছে ওই শিক্ষার্থী নয়তলা ভবনটির সাত তলা থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছেন।


 ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) মো. বাচ্চু মিয়ার মৃত্যু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।



আরও খবর



৬৩ জনকে চাকরি দেবে মেঘনা স্টার ক্যাবলস

প্রকাশিত:Sunday ১২ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
Image

শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান মেঘনা স্টার ক্যাবলসে ০৭টি পদে ৬৩ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহীরা আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিষ্ঠানের নাম: মেঘনা স্টার ক্যাবলস

পদের বিবরণ
jagonews24

চাকরির ধরন: ফুল টাইম
প্রার্থীর ধরন: নারী-পুরুষ
কর্মস্থল: যে কোনো স্থান

আবেদনের ঠিকানা: আগ্রহীরা [email protected] এই ঠিকানায় সিভি পাঠাতে পারবেন অথবা উদয় টাওয়ার (সেকেন্ড ফ্লোর), ৫৭ অ্যান্ড ৫৭/এ, গুলশান এভিনিউ, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২, বাংলাদেশ।

আবেদনের শেষ সময়: ৩০ জুন ২০২২

সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন, ১২ জুন ২০২২


আরও খবর



চিরনিদ্রায় শায়িত ফায়ার ফাইটার শাকিল

প্রকাশিত:Wednesday ০৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৩০জন দেখেছেন
Image

সীতাকুণ্ডের বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুনে নিহত ফায়ারম্যান শাকিল তরফদারের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ জুন) সন্ধ্যা ৭টায় খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার সুরখালী ইউনিয়নে সুখদাড়ায় নিজ গ্রামে তার দাফন সম্পন্ন হয়।

এর আগে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স খুলনা বিভাগের উপ-পরিচালক সালেহ উদ্দিন নেতৃত্বে তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

জানা যায়, বিকেলে শাকিলের মরদেহ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছালে একনজর দেখার জন্য ভিড় করেন হাজার হাজার মানুষ। এসময় কান্নায় ভেঙে পড়েন তার পরিবারের সদস্যরা।

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরে শাকিলের জানাজা হয়। জানাজা শেষে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় গ্রামের বাড়ি খুলনায়।

পরিবারের পক্ষ থেকে শাকিলের বড় ভাই মনিরুজ্জামান ও তার চাচা আবুল কালাম মরদেহ নিতে আসেন।

এসময় মনিরুজ্জামান জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমরা তিন ভাই। পরিবারের সবার ছোট শাকিল। তার মৃত্যুর সংবাদ শুনে বাবা-মা পাগলের মতো প্রলাপ বকছে। কীভাবে এই শোক তারা কাটিয়ে ওঠবে তা জানি না। ওতো সবার ছোট, সবাই ওকে আদর করতো।’


আরও খবর



হজে যাওয়ার আগে যেসব অসিয়ত ও নসিহত জরুরি

প্রকাশিত:Saturday ০৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ২৪ June ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
Image

শারীরিক সক্ষমতা ও আর্থিক ক্ষমতাবান ব্যক্তির ইবাদাত হজ। যাদের সামর্থ্য আছে, তাদের জন্য জীবনে একবার হজ সম্পাদন করা ফরজ। তাই যখনই কোনো মুমিন মুসলমান হজে যাওয়ার ইচ্ছাপোষণ করেন, তখন তাঁর উচিত, হজে যাওয়ার আগে নিজ পরিবার-পরিজন এবং সঙ্গী-সাথীসহ প্রয়োজনীয় ব্যক্তিদের গুরুত্বপূর্ণ উপদেশ, পরামর্শ ও সঠিক পথে চলার কথা বলা। হজযাত্রীর জন্য এ বিষয়গুলো যেমন জরুরি, তেমনি যারা দেশে-বাড়িতে দায়িত্বে থাকবেন তাদের জন্য জরুরি।

হজে যাওয়ার আগে উপদেশ

হজ-ওমরাহ পালনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার আগেই পরিবার-পরিজন, আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবদের তাকওয়া অবলম্বন তথা আল্লাহর ভয়ের ব্যাপারে উপদেশ দেওয়া জরুরি। আল্লাহর নির্দেশ পালন এবং তাঁর নিষিদ্ধ কার্যাবলী থেকে বিরত থাকার উপদেশ দেওয়া। দ্বীন ও ইসলামের ওপর জীবন পরিচালনার উপদেশ দেওয়া। যার যার দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন থাকার নসিহত করাও জরুরি।

হজের যাওয়ার আগে অসিয়ত বা পরামর্শ

হজ-ওমরায় যাওয়ার আগে হজযাত্রী একান্ত করণীয় হলো- নিজের লেনদেন, পাওনা-দেনা পরিশোধ করে যাওয়া। কোনো কারণে কারো সঙ্গে যদি দেনা-পাওনা থাকে এবং তা তাৎক্ষনিক পরিশোধ করার কোনো সুযোগ না থাকে; তবে সে ক্ষেত্রে তাঁর সম্পদের ওয়ারিশদের এ বিষয়ে ডেকে বা লিখিতভাবে জানিয়ে যাওয়া। ঋণ বা যে কোনো বিষয়ের অসিয়তের ব্যাপারে সাক্ষী রাখাও বেশি জরুরি কাজ। যা হজে যাওয়ার আগেই সম্পন্ন করা আবশ্যক।

হজে যাওয়ার আগেই তাওবা করা

হজ-ওমরার যাত্রীদের জন্য আবশ্যক কাজ হলো- সব ধরনের অন্যায় কাজ থেকে পরিপূর্ণ তাওবা করা। জীবনের ঘটে যাওয়া সব অন্যায়-অপরাধের কথা স্মরণ করে, জীবনে আর কোনো অন্যায় না করার নিয়ত করে, আল্লাহর কাছে পরিপূর্ণ তাওবা করা একান্ত জরুরি। এ প্রসঙ্গে আল্লাহ তাআলা বলেন-

‘হে মুমিনগণ! তোমরা সকলেই আল্লাহর কাছে তাওবা কর; সম্ভবত তোমরা কামিয়াব হবে। (সুরা নুর : আয়াত ৩১)

বিশেষ করে হজ ও ওমরা পালনে ইচ্ছুক ব্যক্তি নিজে তাওবা করবে এবং তার পরিবার-পরিজন, আত্মীয়-স্বজন এবং সঙ্গী-সাথীদেরকেও তাওবার উপদেশ দেবে। উল্লেখিত উপদেশ-পরামর্শ ও তাওবা উভয়ের দুনিয়া ও পরকালের সফলতার জন্য খুবই জরুরি।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সব হজযাত্রীকে হজে যাওয়ার আগে উল্লেখিত বিষয়গুলো যথাযথ গুরুত্বের সঙ্গে নেওয়ার তাওফিক দান করুন। নিজ নিজ পরিবার-প্রতিবেশিকে নসিহত, অসিয়ত ও তাওবার দিকে উদ্বুদ্ধ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



আরও নিম্নমুখী রিজার্ভ

প্রকাশিত:Tuesday ১৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
Image

মুদ্রাবাজার স্বাভাবিক রাখতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রি করছে। গতকাল সোমবার রিজার্ভ থেকে ১০ কোটি ৫০ লাখ ডলার বিক্রি করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর ফলে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪১ দশমিক ৫৩ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়ায়।

এর একদিন পর মঙ্গলবার (১৪ জুন) বিভিন্ন ব্যাংকের কাছে ছয় কোটি ৪০ লাখ ডলার বিক্রি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর ফলে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার সঞ্চয় (রিজার্ভ) এখন ৪১ দশমিক ৪৪ বিলিয়ন ডলারে নেমে এসেছে। যা দেড় বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। গত ২০২০ সালের নভেম্বরের পর এটিই সর্বনিম্ন। ওই বছরের (২০২০ সালের) নভেম্বরে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ছিল ৪১ দশমিক ২৬ বিলিয়ন ডলার।

এদিকে, ব্যাংকগুলোর হাতে দাম ছেড়ে দেওয়ার পর বেড়েই চলেছে ডলারের দাম, বিপরীতে মান হারাচ্ছে দেশীয় মুদ্রা টাকা। গত এক মাসে ডলারের বিপরীতে টাকার মান প্রায় ৫ টাকা ৮০ পয়সা কমেছে। আর চলতি বছরে শুধু ডলারের বিপরীতে অন্তত ১২ বার মান হারিয়েছে টাকা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, করোনার পরে আমদানি ব্যয় অধিক হারে বেড়ে গেছে। রপ্তানির তুলনায় আমদানি বাড়ায় বাজারে ডলারের চাহিদা বেড়েছে। বাড়তি চাহিদা সামালাতে ডলার বিক্রি করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তাছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংক ডলারের দাম নির্ধারণ করছে না। ব্যাংকগুলো যে দামে লেনদেন করে, তার মধ্যে একটি দর বিবেচনায় নেওয়া হয়। বাজারের চাহিদা মেটাতে সোমবার ১০ কোটি ৫০ লাখ ডলার এবং আজ (মঙ্গলবার) ছয় কোটি ৪০ লাখ ডলার বিক্রি করা হয়েছে। এর ফলে রিজার্ভ কিছুটা কমে এসেছে। তবে রপ্তানি আয় ও রেমিট্যান্সপ্রবাহ বাড়লে রিজার্ভ আবারও বাড়বে বলে জানান তিনি।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য মতে, গতকাল সোমবার ডলারের বিপরীতে টাকার দাম আরও ৫০ পয়সা কমিয়ে ৯২ টাকা ৫০ পয়সা করেছিলো বাংলাদেশ ব্যাংক। আজ মঙ্গলবার দিনের শুরুতে ডলারের বিপরীতে টাকার দাম ১৩ পয়সা বেড়ে আন্তঃব্যাংকে প্রতি এক ডলার ৯২ টাকা ৩৭ পয়সা বিক্রি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর পর আবারও আন্তঃব্যাংকে ডলারের দাম ৪৩ পয়সা বেড়ে ৯২ টাকা ৮০ পয়সা দরে ডলার বিক্রি করা হয়।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২০২০ সালের জুলাই থেকে গত বছরের (২০২১ সালের) আগস্ট পর্যন্ত আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে ডলারের দাম ৮৪ টাকা ৮০ পয়সায় স্থিতিশীল ছিল। কিন্তু এরপর থেকে বড় ধরনের আমদানি ব্যয় পরিশোধ করতে গিয়ে ডলার সংকট শুরু হয়, যা এখন পর্যন্ত অব্যাহত আছে।

২০২১ সালের আগস্টের শুরুতেও আন্তঃব্যাংকে প্রতি ডলারের মূল্য একই ছিল। ৩ আগস্ট থেকে দু-এক পয়সা করে বাড়তে বাড়তে গত বছরের ২২ আগস্ট প্রথমবারের মতো ৮৫ টাকা ছাড়িয়ে যায়। এ বছরের ৯ জানুয়ারিতে এটি বেড়ে ৮৬ টাকায় পৌঁছে। এরপর ২২ মার্চ পর্যন্ত এ দরেই স্থির ছিল।

পরে গত ২৩ মার্চ আন্তঃব্যাংকে আরও ২০ পয়সা বেড়ে ৮৬ টাকা ২০ পয়সায় দাঁড়ায়। ২৭ এপ্রিল আরও ২৫ পয়সা বেড়ে দাঁড়ায় ৮৬ টাকা ৪৫ পয়সায়। ১০ মে বাড়ে আরও ২৫ পয়সা। ১৬ মে বাড়ে ৮০ পয়সা। ২৩ মে বাড়ে ৪০ পয়সা।

২৯ মে আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে প্রতি ডলারে ৮৯ টাকা নির্ধারণ করা হয়। এরপরও বাজার স্থিতিশীল হয়নি। পরে সংকট নিরসনে বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ ডিলারস অ্যাসোসিয়েশন (বাফেদা) এবং ব্যাংকের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকারস, বাংলাদেশের (এবিবি) দাবির পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৯ মে বাংলাদেশ ব্যাংক আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে ডলার ৮৯ টাকা বেঁধে দেয়।

আমদানিকারকদের কাছে বিক্রির জন্য সেলিং রেট নির্ধারণ করা হয় ৮৯ টাকা ১৫ পয়সা। যদিও ব্যাংকগুলো আন্তঃব্যাংক লেনদেনে প্রতি ডলারের বিনিময়মূল্য ৮৯ টাকা ৮০ পয়সার প্রস্তাব করেছিল।

সোমবার বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো ৯৪ থেকে ৯৫ টাকার মধ্যে কেনা-বেচা করছে। আর খোলা বাজারে প্রতি ডলারের মূল্য রাখা হয় ৯৯ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত। আর মঙ্গলবার (১৪ জুন) আন্তঃব্যাংক ডলার বিক্রি হচ্ছে ৯২ টাকা ৮০ পয়সা।


আরও খবর



চট্টগ্রাম কাস্টমসে সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের কর্মবিরতি

প্রকাশিত:Tuesday ০৭ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

শুল্ক মূল্যায়ন বিধিমালা-২০২০ এর যথাযথ বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন দাবিতে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে কর্মবিরতি পালন করছে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস সিঅ্যান্ডএফফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশন।

কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে মঙ্গলবার (৭ জুন) সকাল থেকে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসে পূর্ণদিবস কর্মবিরতি শুরু করে কাস্টমস কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

এদিন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ কাস্টমস সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের ডাকে সারাদেশের শুল্ক স্টেশনগুলোতে কর্মবিরতি পালিত হচ্ছে।

সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের উত্থাপিত দাবিসমূহের মধ্যে রয়েছে, শুল্ক মূল্যায়ন বিধিমালা-২০২০ যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করা, এইচএস কোড ও সিপিসি ভুলের কারণে জরিমানা আরোপ ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের আদেশ ও বিধিবিধান বাতিল করা, লাইসেন্সিং বিধিমালা-২০২০ ও কাস্টমস অ্যাক্ট ১৯৬৯ এর ধারা ২০৯ মোতাবেক কার্যক্রম গ্রহণ না করে এবং সিএন্ডএফ এজেন্টদের আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ বা শুনানি প্রদানের সুযোগ না দিয়েই এআইএন লক করা বা লাইসেন্সিং সাময়িক বাতিল করা, কোনো দোষ প্রমাণিত না হলেও জরিমানা আরোপের মতো কার্যক্রম বন্ধ করাসহ ব্যবসায়ীদের স্বার্থবিরোধী বিধি-উপবিধি বাতিলের দাবি জানানো হয়।

কাস্টমস হাউস খোলা থাকা পর্যন্ত এ কর্মবিরতি চলবে বলে জাগো নিউজকে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম কাস্টমস এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহমুদ ইমাম বিলু।

তিনি বলেন, সারাদেশের সব শুল্ক ভবন ও স্টেশনে আজ পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন করছি আমরা। এরই অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের প্রধান ফটকে আমাদের অবস্থান চলছে। আমরা আজ বিল অ্যান্ট্রি দাখিল, শুল্কায়ন, ব্যাংক ড্রাফট, পে-অর্ডার জমাসহ সব কাজ বন্ধ রেখেছি।

গত ১৮ মে সিঅ্যান্ডএফ লাইসেন্স রুলের অপব্যাখ্যা করে প্রায় দুই শতাধিক লাইসেন্স নবায়ন না করার অভিযোগ এনে চট্টগ্রাম কাস্টমসে বিকেল ৪টা পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করে চট্টগ্রাম কাস্টমস সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা। পরে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে কর্মবিরতি প্রত্যাহার করা হয়।


আরও খবর