Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

বিসিবির পরিচালক গোলাম মর্তুজা পাপ্পাকে ফুলেল শুভেচ্ছাজ্ঞাপন

প্রকাশিত:Monday ২০ June ২০22 | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৩১জন দেখেছেন
Image

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি: মোঃ আবু কাওছার মিঠু 


নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, যমুনা ব্যাংক ও গাজী গ্রুপের পরিচালক গোলাম মর্তুজা পাপ্পাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করা হয়েছে।


গতকাল ১৯ জুন রবিবার ভুলতা স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ, শিক্ষক, শিক্ষিকা ও কর্মচারীবৃন্দ এ ফুলেল শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন। এসময়  ভুলতা স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ড. আব্দুল আউয়াল মোল্লা, পরিচালনা কমিটির  সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির হোসেন, হাজী মোঃ মনির হোসেন, আলহাজ¦ মোজাম্মেল হক মিলন ভুঁইয়া, শামীমা সুলতানা উমা, শিক্ষানুরাগী আতাউর রহমানসহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।


এসময় ভুলতা স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির নবনির্বাচিত সভাপতি গোলাম মর্তুজা পাপ্পা বলেন, শিক্ষার বিকল্প নেই। দেশের সকল শ্রেণির মানুষকে শিক্ষিত করে তুলতে হবে। শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে শিক্ষার মান উন্নয়ন করতে হবে।


ফলাফল সন্তোষজনক করতে হবে। শিক্ষার্থীদের পাঠ গ্রহণে ও শিক্ষকদের  পাঠ প্রদানে মনোযোগ দিতে হবে। তবেই শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড হিসেবে পরিণত হবে। 


আরও খবর



রাজধানীতে বাসায় বৃদ্ধার মরদেহ, অচেতন অবস্থায় দুজন উদ্ধার

প্রকাশিত:Thursday ২৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর হাজারীবাগের একটি বাসা থেকে মোছা. আকলিমা বেগম (৬৬) নামের এক বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এছাড়া একই বাসা থেকে বশিরুল হক (৫২) ও মোছা. শামীমা বেগম (৪৮) নামের দুই ভাই-বোনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (২২ জুন) রাত সাড়ে আটটার দিকে তাদের উদ্ধার করা হয়। আকলিমা বেগম অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা শামীমা ও বশিরুলের খালা বলে জানায় পুলিশ। তিন দিনে আগে পুরান ঢাকার নিজ বাড়ি থেকে ভাগনির বাড়িতে বেড়াতে যান আকলিমা।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শামীমা ও বশিরুল একই বাসার দোতলা ও তিনতলায় থাকতেন। ওই বাসার পাশেই তাদের চাচা সিরাজুলের বাসা। বুধবার সিরাজুলের জামাই বাদল শশুর বাড়িতে আসেন।

জামাইয়ের আগমন উপলক্ষে বুধবার রাতে আকলিমা, শামীমা ও বশিরুলকে দাওয়াত দেন সিরাজুল। আপ্যায়নের জন্য তিনি স্থানীয় একটি দোকান থেকে খাবার কিনে আনেন।

দাওয়াত খাওয়া শেষে বাড়িতে ফিরে আসেন শামীমা ও বশিরুল। এর কিছুক্ষণ পর শামীমার বাসায় যান ভাতিজি জেসমিন আক্তার। বাসায় ঢুকতেই তিনি নিচতলায় আকলিমাকে মুখে কসটেপ ও হাত-পা বাঁধা অবস্থায় দেখতে পান। একপর্যায়ে শামীমা ও বশিরুলের ঘরে গিয়ে অচেতন অবস্থায় দেখেন জেসমিন। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে দুজনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে যান।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে বশিরুল ও শামীমার পাকস্থলি ওয়াশ করে মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

হাজারীবাগ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. সাইদুল ইসলাম বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই ভাই-বোনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যাই। তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের হাসপাতালের নতুন ভবনের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

‘আকলিমার মরেদেহ ঘটনাস্থলেই রয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি ঢামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।’


আরও খবর



ফুসফুসের ক্যানসারের যে লক্ষণ ফুটে ওঠে মুখে

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
Image

প্রতিবছর ক্যনসারে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বের লাখ লাখ মৃত্যুবরণ করছেন। বিভিন্ন ক্যানসারের মধ্যে ফুসফুসের ক্যানসারে আক্রান্তের সংখ্যাই বেশি।

এটি খুব বেশি ছড়িয়ে না যাওয়া পর্যন্ত কোনো উপসর্গ সৃষ্টি করে না, তবে প্রাথমিক পর্যায়ে ফুসফুসের ক্যানসারে আক্রান্ত কিছু লোকের লক্ষণ থাকে।

এই লক্ষণগুলোর মধ্যে একটি হলো মুখের ৩টি অংশে অবিরাম ব্যথা। বিশেষজ্ঞদের মতে, ক্যানসার রোগীদের ২০-৫০ শতাংশের মধ্যেই মুখের কয়েকটি স্থানে ব্যথা হয়।

মুখের কোথায় ব্যথা হয়?

ফুসফুসের ক্যানসারে ক্যানসারে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে দেখা গেছে, এই ব্যথা সাধারণত কান ও এর আশপাশের অঞ্চলে ও মাঝে মাঝে চোয়ালেও হয়।

কিছু প্রতিবেদেনে জানা যায়, এ ধরনের ব্যথা এতোটাই তীব্র যে রোগীরা যখন শুয়ে থাকে বা উভয় হাত উঁচু করে তখন এটি আরও খারাপ হয়।

jagonews24

২০১৮ সালের এক কেস স্টাডি অনুশীলন করে গবেষকরা উল্লেখ করেছেন, আক্রান্ত ব্যক্তি চোখের চারপাশে ফোলাভাব, মুখ ও গলায় ফোলা উপসর্গ নিয়ে একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে গিয়েছিলেন। ডায়াগনস্টিক পরীক্ষায় দেখা যায়, ওই ব্যক্তির ফুসফুসের কোষে ক্যানসারের উপস্থিতি।

কেন ক্যানসার মুখের ব্যথা কারণ?

গবেষকদের মতে, ফুসফুসের ক্যানসারে মুখের ব্যথা হওয়ার কারণ হলো যখন অ্যান্টিবডিগুলো ক্যানসারের বিরুদ্ধে লড়াই করে তখন ভুলভাবে স্নায়ুতন্ত্রের স্বাভাবিক কোষগুলোতে আক্রমণ করে।

ফলে মুখের চোয়েলে ব্যথা এমনকি ফুলতেও পারে মুখ। আবার মাথা ও ঘাড়ের ক্যানসারে আক্রান্ত প্রায় ৮০ শতাংশ রোগীরও মুখে ব্যথা হতে পারে।

ফুসফুসের ক্যানসারের লক্ষণ কী কী?

ফুসফুসের ক্যানসারের বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে মুখের ব্যথা ও ফোলা ছাড়াও বিভিন্ন জটিলতা দেখা দিতে পারে। এর মধ্যে আছে ফুসফুসের চারপাশে তরল, সংক্রমণ, রক্ত জমাট বাধা, উচ্চ ক্যালসিয়ামের মাত্রা, স্নায়ুতন্ত্রের সমস্যা যেমন মেরুদন্ডের কম্প্রেশন, শ্বাসনালি বা খাবারের পাইপে বাধা, শরীরের অন্যান্য অংশে টিউমার, মেটাস্ট্যাসিস ও মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা ইত্যাদি।

এসব লক্ষণ দেখলেই দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। ক্যানসার প্রাথমিক পর্যায়ে নির্ণয় করা গেলে সঠিক চিকিৎসায় সুস্থ হওয়া সম্ভব।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া


আরও খবর



চরাঞ্চলে গরু-মহিষের চারণভূমি রক্ষার দাবিতে বিক্ষোভ

প্রকাশিত:Saturday ১১ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
Image

চরাঞ্চলে গরু-মহিষের চারণভূমি রক্ষার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে তিন শতাধিক খামারি। শনিবার (১১ জুন) দুপুরে বঙ্গবন্ধু শিল্পাঞ্চলের বেজা অফিসের সামনে বিক্ষোভ করেন তারা।

খামারি সাইফুল ইসলাম, রবি বলি, বাবুল সওদাগর জানান, ইছাখালী, মিঠানালা, মঘাদিয়া, ওঢ়মানপুর, সাহেরখালী ইউনিয়নের খামারিদের পালিত গরু-মহিষসহ গবাধি পশু বছরের পর বছর চরাঞ্চলের বেড়ে উঠেছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর হওয়ার পর জমি অধিগ্রহণের ফলে পশুর চারণভূমি নেই বললে চলে। এতে করে গবাধি পশু নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন এখানকার খামারিরা।

তারা আরও বলেন, আমদের বাপ-দাদার আমল থেকে পশু পালন করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছি। এখন যদি পশু পালনের স্থান না থাকে তাহলে আমাদের না খেয়ে মরতে হবে।

জানা গেছে, মিরসরাইয়ের উপকূলীয় চরাঞ্চল ছিল গবাদি পশুর উর্বর চারণভূমি। উপযুক্ত চারণভূমি থাকায় অন্যতম অর্থকরী সম্পদের মধ্যে মহিষ ছিল অন্যতম। চরাঞ্চলের জমি অধিগ্রহণের কারণে চরমভাবে হুমকির মুখে গবাদিপশুর চারণভূমি। এতে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন স্থানীয় গরু-মহিষ পালনকারীরা।

jagonews24

এলাকার বাসিন্দা মো. সালাহ উদ্দিন বলেন, চরাঞ্চলের মহিষের দুধ থেকে উৎপাদিত দইয়ের জনপ্রিয়তা সমগ্র চট্টগ্রামজুড়ে। মহিষের দুধ ও দই বিক্রি করে সংসার চালায় চরাঞ্চলের শত শত মানুষ।

পরে সেখানে গিয়ে খামারিদের সঙ্গে কথা বলেন, মিরসরাই উপজেলা চেয়ারম্যান জসীম উদ্দিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মিনহাজুর রহমান, ইছাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তাফা প্রমুখ।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিনহাজুর রহমান বলেন, সরেজমিনে তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। বনবিভাগ যদি তাদের জায়গায় পশু বিচরণের বাধা দেয় তাহলে কিছু করার নেই। আমি খামারিদের সরকারি খাস জমি দেখতে বলেছি। সেখানে পশু চারণের ব্যবস্থা করা হবে।


আরও খবর



আগুন নিয়ন্ত্রণে প্রাণ গেলো ফায়ার সার্ভিসের ৫ কর্মীর

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৮৫জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করার সময় ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের পাঁচ কর্মী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ২১ জন ফায়ার ফাইটার।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার মো. মাইন উদ্দিন এ তথ্য জানিয়েছেন। রোববার (৫ জুন) সকাল ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘শনিবার রাত ১১টা ২৫ মিনিটে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। এসময়ে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ফায়ার ফাইটাররাও হতাহত হয়েছেন। এরমধ্যে এখন পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন আরও ২১ জন।’


আরও খবর



‘বন্যায় মানুষের দুর্ভোগেও পদ্মা সেতু নিয়ে ফুর্তিতে সরকার’

প্রকাশিত:Friday ২৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২৫জন দেখেছেন
Image

বাংলাদেশ গণ অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক ড. রেজা কিবরিয়া বলেছেন, দেশে যখন ভয়াবহ বন্যার কারণে মানুষ কষ্ট পাচ্ছে সরকার তখন পদ্মা সেতু উদ্বোধন নিয়ে আমোদ-ফুর্তিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। পদ্মা সেতু নির্মাণে সরকার অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করেছে। পাশের দেশ ভারতে পদ্মার চেয়ে গভীর ও লম্বা সেতু নির্মাণ হয়েছে ১০ ভাগের এক ভাগ খরচে।

শুক্রবার (১৪ জুন) হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র ও বান্দের বাজারে বন্যার্ত চার শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য বিতরণ শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এ সময় গণ অধিকার পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুর বলেন, সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জসহ বেশ কয়েকটি স্থানে বন্যায় মানুষ মানবেতর জীবনযাপন করছে। তখন এক পদ্মা সেতু উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে সরকার সব রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে বদ্ধ করে রেখেছে।

এ সময় গণ অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক শহিদুল ইসলাম ফাহিম, মাহফুজুর রহমান, চৌধুরী আশরাফুল বারী নোমান, সহকারী সদস্য সচিব শেখ খায়রুল কবির, শাহ আজাদ আলী সুমন, কেন্দ্রীয় সদস্য আবু হোসেন জীবন, যুব অধিকার পরিষদের সভাপতি মনজুর মোরশেদ মামুন, শ্রমিক অধিকার পরিষদের সভাপতি আব্দুর রহমান, ছাত্র অধিকার পরিষদের সাধারণ আরিফুল ইসলাম আদিব, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া জাবেদ মায়া, তামান্না ফেরদৌস শিখা, গণ অধিকার পরিষদের নবীগঞ্জ উপজেলা সমন্বয়ক নুরুল আমিন পাঠান, শাহাবুদ্দিন শুভ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর