Logo
আজঃ Wednesday ২৫ May ২০২২
শিরোনাম

বিধিনিষেধ বাড়বে কিনা পরিস্থিতি দেখে সিদ্ধান্ত : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশিত:Monday ২৪ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ২১৮জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকারের আরোপ করা বিধিনিষেধ আগামীতে বাড়বে কিনা-সে প্রসঙ্গে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, আগামী এক সপ্তাহ পর : সংক্রমণ পরিস্থিতি দেখে চলমান বিধিনিষেধের বিষয়ে পরবর্তী নির্দেশনা দেওয়া হবে।

আজ সোমবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানান।

ফরহাদ হোসেন বলেন, আগামী ৬ ফেব্রুয়ারির পর পরিস্থিতি বিবেচনা করে বিধিনিষেধ বাড়বে কিনা সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। কারণ, এখন যে ভ্যারিয়েন্টটা দেখছি ওমিক্রন, এটি সেরে উঠতে অল্প সময় নিচ্ছে। রিকভারি রেট কিন্তু খুবই ভালো।

তিনি বলেন, ‘আমাদের উদ্দেশ্য সবাই মাস্ক পরুক। এই সময়টা আমরা অতিক্রম করতে চাই। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন আগামী ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি নাগাদ এটি বাড়তে থাকবে। সবাইকে সচেতন হতে হবে। আমরা চাই, এই তৃতীয় ঢেউ থেকে যত তাড়াতাড়ি উত্তোরণ করতে পারি। সেজন্য সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলা করতে হবে।’

গণপরিবহন সরকারের বিধিনিষেধ মানছে না-এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সরকারের দেওয়া বিধিনিষেধ সবাইকে মানতে হবে। ইউরোপ সংক্রমণের ক্ষেত্রে তাদের পিক সময় পার করেছে। আমাদের একটু পরে শুরু হয়েছে। এজন্য আমাদের একটু পরে সেটা (চূড়ান্ত সংক্রমণ) হতে পারে। সেক্ষেত্রে আমরা চাইব, যাদের যেভাবে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে, নির্দেশনাগুলো সবাই মেনে চললে তা সবার জন্যই ভালো। পরিবহন সেক্টরে যারা রয়েছেন তাদেরও আমাদের সহযোগিতা করতে হবে।’

এর আগে ২১ জানুয়ারি ছয় দফা বিধিনিষেধ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এতে বলা হয়- ২১ জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্কুল, কলেজ ও সমপর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। স্কুল, কলেজের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকেও অনুরূপ ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যেকোনো সামাজিক, ধর্মীয়, রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে একশ’ জনের বেশি জনসমাগম করা যাবে না।


আরও খবর



তিন দিন ধরে স্কুলছাত্রী নিখোঁজ

কিশোরগঞ্জে তিন দিনেও নিখোঁজ স্কুল ছাত্রীর সন্ধান পাওয়া যায়নি

প্রকাশিত:Sunday ১৫ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ৫৯জন দেখেছেন
Image

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলায় স্কুলে গিয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি এক স্কুলছাত্রী (১৬)। এ নিয়ে তিন দিন ধরে তার পরিবার উৎকণ্ঠায় রয়েছেন।




ওই স্কুলছাত্রী নিখোঁজ হওয়ায় শনিবার (১৪ মে) দিনগত রাতে পরিবারের পক্ষ থেকে হোসেনপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। জিডি নং-৫২৪, তারিখ-১৪/০৫/২০২২ইং।


নিখোঁজ মেয়েটি হোসেনপুর সরকারি মডেল পাইলট স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রভাতী শাখার ১০ম শ্রেণির ছাত্রী।


জিডি ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার (১২ মে) সকালে মেয়েটি স্কুলে যাওয়ার পর আর বাড়ি ফিরে আসেনি।


পরে পরিবারের লোকজন তার খোঁজ করেও সন্ধান পায়নি। নিখোঁজের সময় তার গায়ে ছিল সাদা রঙের স্কুল ড্রেস।


তার উচ্চতা ৫ ফুট এবং গায়ে রং ফর্সা। গত তিন দিন ধরে মেয়েটিকে না পেয়ে পরিবারে চলছে কান্নার রোল। এ ব্যাপারে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। যার জিডি নং-৫২৪, তারিখ-১৪/০৫/২০২২ইং।


কোনো সহৃদয়বান ব্যক্তি মেয়েটির সন্ধান পেলে ০১৭৯১-০৯৪৪৭১ মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করতে মেয়েটির বাবা অনুরোধ জানিয়েছেন।


আরও খবর



জাতীয় ইদগাহে প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৮ টায় অনুষ্ঠিত হবে

প্রকাশিত:Tuesday ০৩ May ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৪ May ২০২২ | ১১২জন দেখেছেন
Image


নিউজ ডেস্ক 

ঢাকা: মঙ্গলবার (৩ মে) জাতীয় ইদগাহ ময়দানে সকাল সাড়ে ৮টায় ইদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এতে অংশ নেবেন মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা, কুটনীতিবিদ, প্রধান বিচারপতি ও বিচারপতিরা, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ অন্যান্য সরকারি কর্মকর্তারা।জতীয় জামাতে অংশ নেবেন দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নুর তাপস ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।


রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ করোনার দুই বছরের মতো এবারও বঙ্গভবনে সকাল সাড়ে ৯টায় ইদের নামাজ আদায় করবেন। প্রতিবার তিনি জাতীয ইদগাহ ময়দানে ইদের নামাজ আদায় করতেন।


ইদের প্রধান জামাতকে কেন্দ্র করে ঢাকা মহানগর পুলিশ ও র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র্যাব) সর্বাত্মক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে



-খবর প্রতিদিন/ সি.বা 



আরও খবর



পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করবে

রুপপুরের পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র দেশের চাহিদা মিটিয়ে অর্থনৈতিক লাভ এনে দেবে

প্রকাশিত:Friday ২০ May ২০22 | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ৭১জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

রূপপুরে চলছে দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের কাজ। ২০২৩ থেকে এখানকার প্রথম ইউনিট উৎপাদনে যেতে পারে, সেই লক্ষ্যে চলছে কার্যক্রম। সংশ্লিষ্টদের আশা এটি একদিকে দেশের বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ করবে অন্যদিকে দ্বিগুণের বেশি অভ্যন্তরীণ রিটার্ন দেবে সরকারকে।২৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষমতাসম্পন্ন এ প্রকল্পে ব্যয় হচ্ছে ১২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা এক লাখ ১৩ হাজার কোটি টাকা।

প্রকল্পটিতে ৯০ শতাংশ রাশিয়ার ঋণ, বাকি ১০ শতাংশ ব্যয় করবে বাংলাদেশ সরকার।

উৎপাদনে গেলে রাশিয়াকে প্রতি বছর ঋণ শোধ করতে হবে ৫৬৫ মিলিয়ন বা সাড়ে ৫৬ কোটি ডলার। এত বড় অংক দেখে কেউ কেউ এটিকে সাদা হাতির প্রকল্প বলছেন। কিন্তু এমন অভিযোগ নাকচ করে সরকারের সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এটা শ্বেত হস্তীর প্রকল্প নয়, বরং উন্নয়নের মাইলফলক।



বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, প্রকল্পের দুটি রিঅ্যাক্টর চালুর পর প্রতি বছর কিস্তি পরিশোধ করতে হবে (৫৬ কোটি ডলার)। প্রকল্পের রিটার্ন থেকে কিস্তির অর্থ উঠে এলে ভর্তুকির দরকার পড়বে না।

পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প প্রসঙ্গে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলমম বলেন, প্রতি বছর অভ্যন্তরীণভাবে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে রিটার্ন আসবে সাড়ে ৯ শতাংশ। প্রকল্প ঋণের সুদ ১ থেকে ২ শতাংশের বেশি হবে না। তার মানে বাংলাদেশ এই প্রকল্পের মাধ্যমে অনেক লাভবান হবে।

তাছাড়া পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন বিদ্যুতের জন্য রূপপুরের কোনো বিকল্প নেই।


প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের তথ্য মতে, প্রকল্পের দুটি রিঅ্যাক্টর থেকে বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে দুই হাজার ৪০০ মেগাওয়াট, যার সমান ২৪ লাখ কিলোওয়াট বা ইউনিট।

এক ইউনিট বিদ্যুৎ যদি পাঁচ টাকায় বিক্রি করা হয়, তাহলে এক ঘণ্টায় আয় হবে এক কোটি ২০ লাখ টাকা। একদিনে ২৪ ঘণ্টা হিসেবে দৈনিক আয় আসবে ২৮ কোটি ৮০ লাখ। বছরে ১০ হাজার ৫১২ কোটি আয় হবে। যদি ডলার হিসাব করা হয়, তাহলে বার্ষিক আয় দাঁড়াবে এক হাজার ২৩৬ মিলিয়ন ডলার, যেখানে ঋণ শোধ করতে হবে ৫৬৫ মিলিয়ন ডলার।


অন্যদিকে প্রতি মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে জ্বালানি ব্যয় হবে সাড়ে ৪ থেকে ১১ দশমিক ২ মার্কিন ডলার এবং মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড অপারেশন ব্যয় হবে প্রতি মেগাওয়াটে ৮ থেকে ১৪ ডলার। এই দুই ধরনের ব্যয় মিলিয়ে প্রতি মেগাওয়াটে গড় খরচ হবে ১৬ থেকে ১৮ ডলার।


দুই হাজার ৪০০ মেগাওয়াট উৎপাদনে না গিয়ে যদি ৯০ শতাংশও উৎপাদন হয়, তাহলে এর ব্যয় কমে দাঁড়াবে ৩৪০ মিলিয়ন ডলারে। পাশাপাশি আয়ও কমে দাঁড়াবে এক হাজার ১১২ মিলিয়ন ডলারে। এ হিসাবে বছরে প্রকল্প থেকে মোট আয় হবে এক হাজার ১১২ ডলার এবং ব্যয় হবে ৩৪০ মিলিয়ন ডলার। আয় থেকে ব্যয় বাদ দিয়ে বছরে ৭৭২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় থাকবে প্রকল্প থেকে।


কর্মকর্তারা বলছেন, প্রতি বছর কমপক্ষে ৭৭২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার লাভ হলে



আরও খবর



তৃতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পেল ৩৩ হাজার পরিবার

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ April ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৫ May ২০২২ | ১১৮জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

দেশের ৩২ হাজার ৯০৪ গৃহ ও ভূমিহীন পরিবার আসন্ন ঈদের আগে তৃতীয় ধাপে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে ঘর পেয়েছেন।গণভবন থেকে মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) ভিডিও কনফারেন্সে এসব ঘর হস্তান্তর করেন শেখ হাসিনা।


প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দাদের হাতে ঘরের চাবি তুলে দেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তারা।


তৃতীয় ধাপের এসব ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের উদ্বোধন করে শেখ হাসিনা বলেন, আমার সবচেয়ে ভালো লাগে যখন দেখি একটা মানুষ ঘর পাওয়ার পর তার মুখের হাসি। জাতির পিতা দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে চেয়েছিলেন।


সবার জন্য আবাসন নিশ্চিত করতে সরকারের কার্যক্রমের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাকি যে ঘরগুলো আছে সেগুলো আস্তে আস্তে তৈরি করে সব মানুষ যেন মানুষের মতো বাঁচতে পারে, সুন্দর জীবন পেতে পারে। সেটাই আমাদের লক্ষ্য। বাংলাদেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না, ভূমিহীন থাকবে না। এটাই আমাদের লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি।



শেখ হাসিনা মুজিববর্ষ উপলক্ষে ঘোষণা দিয়েছেন যে, বাংলাদেশের কোনো মানুষ যাতে ভূমি ও গৃহহীন না থাকে। সেজন্য তিনি দুই শতক জমির উপর দুই রুম বিশিষ্ট একটি ঘর উপহার দিচ্ছেন। এসব ঘরের ডিজাইন প্রধানমন্ত্রী নিজেই প্রণয়ন করেছেন।


তৃতীয় ধাপে এসব ঘর দেওয়ার আগে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ঘর পেয়েছে ১ লাখ ১৭ হাজার ৩২৯টি পরিবার। তৃতীয় ধাপের আরও ৩২ হাজার ৭৭০টি ঘর নির্মাণাধীন রয়েছে।


আশ্রয়ণের প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের চেয়ে তৃতীয় ধাপের ঘরগুলো অনেক বেশি টেকসই। তৃতীয় ধাপে একেকটি ঘর নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে ২ লাখ ৫৯ হাজার ৫০০ টাকা। তৃতীয় ধাপের ঘরগুলোতে আরসিসি পিলার, গ্রেড ভিম, টানা লিংকটারসহ বেশ কিছু বিষয় সংযোজন করা হয়।  



এসব ঘর হস্তান্তর অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কাইচাইল ইউনিয়নের পোড়াদিয়া বালিয়া, বরগুনা সদর উপজেলার গৌরিচন্না ইউনিয়নের খাজুরতলা, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার খোকশাবাড়ী ইউনিয়নের খোকশাবাড়ী ও চট্টগ্রামের আনোয়ারার বারখাইন ইউনিয়নের হাজিগাঁওয়ে ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত হয়ে উপকারভোগীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।


আরও খবর



চট্টগ্রামে যুবকের অর্ধ গলিত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:Monday ০৯ May ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৩ May ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রাম মহানগরীর হালিশহরে একটি বাড়ির নালা থেকে যুবকের অর্ধ গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।


সোমবার হালিশহর এইচ ব্লকের ১ নম্বর সড়কের ৪ নম্বর বাড়ির সীমানা প্রাচীরের পাশ থেকে মারুফ (২০) নামে ওই যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।


হালিশহর সবুজবাগের আনন্দধারা হাউজিং এলাকায় নানীর সঙ্গে থাকতেন মারুফ। এই এলাকায় তিনি অটোরিকশা চালাতেন। 


হালিশহর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী জানান,এইচ ব্লকের যে বাড়ির পাশ থেকে মারুফের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয় সেটা পরিত্যক্ত ছিল।




আরও খবর