Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

বগুড়ায় কারাবন্দী পরিবারের পাশে সাবেকএমপি লালু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১৬জন দেখেছেন

Image

(বগুড়া) প্রতিনিধিঃশুক্রবার বগুড়ার গাবতলীতে কারাবন্দী আট পরিবারের সদস্যদের শান্তনা ও খোঁজখবর নিতে ছুটে যান বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও কেন্দ্রীয় কৃষকদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং সাবেক এমপি হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু। এসময় সাবেক এমপি লালু কারাবন্দী পরিবারের সদস্যদের মাঝে নগদ অর্থ (আর্থিক সহায়তা) প্রদান করেন। কারাবন্দীরা হলেন গাবতলীর মহিষাবান ইউনিয়ন শ্রমিকদলের সহ সভাপতি মড়িয়া পশ্চিমপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলাম শফিক, বগুড়া সদরের নামুজা ইউনিয়ন শ্রমিকদল নেতা ঠাকুরপাড়া গ্রামের আইযুব আলী, মোবারক আলী, বজলুর রহমান বাটু, কারাবন্দী গোকুল ইউনিয়ন যুবদলের সদস্য সচিব সরলপুর গ্রামের শফিকুল ইসলাম জুয়েল, সাবগ্রাম দক্ষিনপাড়ার যুবদল নেতা মিখন মিয়া, সাবগ্রাম ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক চকঝুপি গ্রামের আশরাফুল ইসলাম এবং পলাতক নামুজা ইউনিয়ন যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক রাসেল আহম্মদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন গাবতলী উপজেলা যুবদলের আহবায়ক আরিফুর রহমান মজনু, বগুড়া সদর উপজেলা যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক তৌহিদুর রহমান তৌহিদ, কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন শ্রমিকদলের সহ-সভাপতি ও বগুড়া জেলা শ্রমিকদলের সহ-সভাপতি মোশারফ হোসেন স্বপন, সাংগঠনিক সম্পাদক লিটন শেখ বাঘা, পৌর শ্রমিকদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক বেলাল হোসেন, বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল ও অঙ্গদলসহ কারাবন্দী পরিবারের সদস্যদের মধ্যে শহিদুল ইসলাম রুবেল, হাসানুর রহমান, আল আমিন, খোকন মিয়া, মাহমুদুল হাসান মোহন, শিরিন আক্তার, জিয়াউর রহমান, শিমুল, শহিদুল, রশিদ, হাসান, সুমন, মান্নান, রুহুল, রকেট, শ্রমিকদল নেতা শফিকুল ইসলাম, গোলাম রব্বানী, আরিফুল ইসলাম প্রমূখ।


আরও খবর



মেহেরপুরে বেড়েছে গমের আবাদ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৯৭জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃগত কয়েক বছর ধরে ব্লাস্ট রোগের কারণে গমের আবাদ কমেছিল মেহেরপুরে। চলতি বছরে ব্লাস্ট প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল গমের নতুন নতুন জাত কৃষকদের হাতে আসায় এবার গমের আবাদ অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। অনুকুল আবহাওয়া ও গেল বছর গমের মুল্য বৃদ্ধির কারনে চাষিরা গম আবাদে আগ্রহী হয়েছেন বলে জানিয়েন তারা।তবে কৃষি অফিসের তদারকী একেবারই নেই বলে অভিযোগ চাষিদের। আর কৃষি বিভাগ বলছে- চাষিদেরকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

মেহেরপুর অঞ্চলের মাটি ও আবহাওয়া গম চাষের জন্য উপযোগি। গত কয়েক বছর ব্লাস্ট রোগ দেখা দেয়ায় কৃষি বিভাগ থেকে চাষিদেরকে গম চাষে নিরুৎসাহিত করা হয়। গেল বছর ব্লাস্ট প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল গমের নতুন নতুন জাত আবাদ করে কৃষকরা শংকামুক্ত হয়েছেন। গমের মূল্য বৃদ্ধি আর অনুকুল আবহাওয়ার কারণে চলতি মৌসুমে ১৩ হাজার ৬৫ একর জমিতে গম চাষ হয়েছে। বারি ৩০, ৩৩ ও বিডব্লিউ -৩ জাতের গম চাষ করছেন চাষিরা। বাজার দর ভালো থাকলে আগামীতে এ অঞ্চলে গমের আবাদ আরো বাড়বে। তবে কৃষি অফিসের কোন পরামর্শ পাওয়া যায় না বলে অভিযোগ করেছেন চাষিরা। গম ক্ষেতে রোগ বালাই দেখা দিলে কীটনাশক বিক্রেতা চাষিদের একমাত্র ভরসা।

গাংনীর পলাশীপাড়া গ্রামের গম চাষি ইমারুল ইসলাম জানান, তিনি চলতি মৌসুমে ৫ বিঘা জমিতে বারি-৩০ ও ৩৩ জাতের গম আবাদ করেছেন। এখন বুকে থোড় নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে গম গাছ। গেল বছর তিনি ৪ বিঘা জমিতে গম চাষ করেছিলেন।

গম চাষ বেশ লাভজনক। এক বিঘা গম আবাদে খরচ হয় মাত্র ৬ হাজার টাকা। আর পাওয়া যায় ২০ মন গম। তিনি আশা করছেন কোন প্রাকৃতিক দুূর্যোগ না হলে ভালো ফলন হবে এবং গমচাষীরা লাভবান হবে। তবে মাঠে কোন কৃষি অফিসের লোকজনের পরামর্শ পাননা বলে অভিযোগ করেছেন তেঁতুলবাড়িয়া গ্রামের চাষি সিরাজুল ইসলাম জানান, এবার তিনি ৮ বিঘা জমিতে গম চাষ করেছেন। গেল বছর আবাদ করেছিলেন ৬ বিঘা। ফলন ভাল ও দাম ভাল পাওয়ায় এবার বেশি করে গম চাষ করেছেন। তিনি আরো জানান, গমক্ষেতে কোন রোগ বালাই দেখা দিলে কীটনাশক বিক্রেতারা যা বলে তাই শুনতে হয়। কোন কৃষি অফিসের লোকজনকে পাওয়া যায় না। স্থানীয় ইউপি ভবনে কৃষি অফিসের লোকজনের বসা কথা থাকলেও তাদের দেখা মেলেনা।

মেহেরপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপ-পরিচালক বিজয়কৃষ্ণ হালদার জানান, তাপ, ক্ষরাসহিষ্ণু জমি গম আবাদের জন্য উপযোগী। ব্লাস্ট প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল গমের নতুন নতুন জাত চাষীদের গম চাষে আগ্রহ বাড়াচ্ছে। এ বিষয়ে মাঠ পর্যায়ে পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রয়েছে। দেশে গমের উৎপাদন বাড়াতে রোগ প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল নতুন নতুন জাতের গম আবাদের চাষিদেরকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। কৃষি অফিসের পরামর্শ পাওয়া যাচ্ছে না এ অভিযোগ সঠিক নয় বলেও দাবী করেন এই কৃষিবীদ।


আরও খবর

গাংনীতে বালাইনাশক ব্যবহারে উদাসিন কৃষকরা

শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ডোমারে জমি দখল করতে গিয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ-৪ যুবক আটক

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২৯জন দেখেছেন

Image

ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি:নীলফামারীর ডোমারে জমি দখল করতে গিয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ ৪ জন যুবককে আটক করেছে এলাকাবাসী, পরে জরুরী সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে ডোমার থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয় তাদের।

ঘটনাটি ঘটেছে, ডোমার উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের মিরজাগঞ্জ ময়দান পাড়া গ্রামে। মামলা সুত্রে জানাযায়, উক্ত এলাকার মৃত আব্দুল্লাহ মামুদের ছেলে ওমর ফারুক ও আশিকুল ইসলামের সাথে এলাকার নুর ইসলামের ছেলে গোলাপ রাব্বানীর ৩ একর ৪৫ শতক জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিজ্ঞ আাদালতে মামলা চলে আসছে এবং তা বিচারাধীন রয়েছে।ঘটনার দিন ২২ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার বিকালে ফারুক, আশিকুল তারা তাদের দলবল নিয়ে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে উক্ত জমিটি দখল করতে যায়। এ সময় গোলাম রাব্বানীর লোকজন বাঁধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীরা তাদের বেধরক মারপিট করে। এ সময় এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে বহিরাগত ৪ ব্যাক্তিকে দেশীয় ধারালো অস্ত্রসহ আটক করে। আটককৃতর হলেন, পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত শ্যামল দাসের ছেলে তপু দাস (২১), দুলাল হেসেনের ছেলে শাহীন ইসলাম জয় (২৪), সামসুদ্দিনের ছেলে হাবিবুর রহমান হাবিব (২২) এবং থানাপাড়া এলাকার মোশারফ হোসেন সাজুর ছেলে আসাদুজ্জামান সবুজ ( ২৭)। পরে জরুরী সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিলে ডোমার থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আটককৃত ৪ যুবককে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। এ বিষয়ে গোলাপ রাব্বানী বাদী হয়ে ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৬/৭ জনের বিরুদ্ধে ডোমার থনায় মামলা নং-১৪, তারিখ- ২৩/০২/২৪ দায়ের করে। ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ আবু সাঈদ চৌধুরী গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মামলা মোতাবেক গ্রেফতারকৃতদের নীলফামারী জেলার বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়।


আরও খবর

ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২৬

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




ফুলবাড়ীতে কৃষি বিপণন আইনে ৩ ব্যবসায়ীকে জরিমানা

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৬জন দেখেছেন

Image

ফুলবাড়ী,দিনাজপুর প্রতিনিধি:দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা প্রশাসনের নিয়মিত বাজার মনিটরিং এর অংশ হিসাবে পৌর বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৩ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৮ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

গত রবিবার বিকাল ৫ টা ফুলবাড়ী পৌর বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ জাফর আরিফ চৌধুরী।

এসময় উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. মঈন উদ্দীন সহ পুলিশের একটি টিম উপস্থিত ছিলেন। অভিযান চলাকালে চঞ্চলকে ৩ হাজার, শফিকুল ইসলামকে ৩ হাজার এবং সাগরকে ২ হাজার টাকা জরিমান করা হয়েছে।

ফুলবাড়ী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ জাফর আরিফ চৌধুরী জানান, বাজার মনিটরিং এর অংশ হিসাবে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। লাইসেন্স ছাড়া কৃষি সংশ্লিষ্ট পণ্য বিক্র‍য় করায় কৃষি বিপণন আইন, ২০১৮ অনুযায়ী ৩ জন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৮ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।


আরও খবর



হাসপাতালে শয্যা সংকট,মেঝেতেও হচ্ছে না ঠাঁই

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮২জন দেখেছেন

Image

আব্দুল হান্নান, নাসিরসগর,ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে দেখা দিয়েছে শয্যা সংকট,মেঝেতেও হচ্ছেনা ঠাঁই।সরেজমিন হাসপতালে গিয়ে দেখা গেছে এমনই চিত্র।

হাসপাতালে সীট না পেয়ে রােগীদের মেঝেতে শুয়ে চিকিৎসা নিতে দেখা যাচ্ছে।হাতপাতাল সুত্রে জানা গেছে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল হলেও এখানে প্রতিদিন ৮০ থেকে ৯০ জন রোগীকে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

অতিরিক্ত রোগীর চাপ সামলাতে ডাক্তার আর নার্সদের খেতে হচ্ছে হিমশিম।এমন হওয়ার কারন কি জানতে চাইলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়,এখানে ডাক্তারদের ব্যবহার,পর্যাপ্ত ঔষধ পত্র আর সেবার মান ভাল হওয়া পার্শ্ববর্তী সরাইল,লাখাই,মাধবপুর,অষ্টগ্রাম থেকেও চিকিৎসা নেয়ার জন্য রোগীরা আসেন।

আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আর,এম,ও) ডাঃ সাইফুল ইসলাম জানান উক্ত হাসপাতালে আউটডোরে প্রতিদিন প্রায় ৫ থেকে ৬ শ রোগী দেখতে ডাক্তারদেন হিমশিম খেতে হচ্ছে। নাসিরনগর হাসপাতালের চিকিৎসকদের  মাঝে ডাক্তার অভিজিৎ রায়,ডাক্তার মোঃ সাইফুল ইসলাম,ডাক্তার জীবণ চন্দ্র দাস,ডাক্তার মৌমিতা বসাকের চিকিৎসা ব্যবস্থা অন্যতম।তাই হাসপাতালের শয্যা সংকট দুর করতে স্থানীয়রা মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সৈয়দ একে একরামুজ্জামজন এমপি সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু দৃষ্টি কামনা করছেন।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




খাগড়াছড়িতে সম্প্রীতি টাওয়ার এর ভিত্তিপ্রস্ত্রর উদ্বোধন করেন-রিজিয়ন কমান্ডার মো.আমান হাসান

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯২জন দেখেছেন

Image

জসীম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:শান্তি-সমপ্রীতি উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসা সাবেক শান্তি বাহিনীর ৯২জন সদস্যদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য খাগড়াছড়ি ২০৩পদাতিক ব্রিগেড খাগড়াছড়ি রিজিয়ন এর উদ্যােগে ও পার্বত্য জেলা পরিষদের বাস্তবায়নে  খাগড়াছড়ি চাউল বাজার সংলগ্ন সম্প্রীতি টাওয়ার এর ভিত্তি প্রস্ত্রর উদ্বোধন করা হয়েছে।

রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন এর  উদ্যােগে সম্প্রীতি টাওয়ার এর ভিত্তিপ্রস্ত্রর স্থাপন অনুষ্টানে খাগড়াছড়ি ২০৩পদাতিক ব্রিগেড খাগড়াছড়ি রিজিয়নের স্টাফ অফিসার (জিটু-আই) মেজর মো.জাহিদ হাসান এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে  সম্প্রীতি টাওয়ার এর ভিত্তিপ্রস্ত্রর উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ি ২০৩পদাতিক ব্রিগেড খাগড়াছড়ি রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শরীফ  মো.আমান হাসান এসপিপি,এনডিসি, পিএসসি। 

সাবেক শান্তি বাহিনীর কমান্ডার ও বর্তমান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য  শুভ মঙ্গল চাকমা বলেন, আমরা  শান্তিবাহিনী ১৯৮৫সালে বাংলাদেশ সরকারের সাথে চুক্তি মোতাবেক অস্ত্র সমর্থন করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসি। পরে জেলার ৯২ জন সাবেক শান্তি বাহিনী সদস্যদের জন্য  খাগড়াছড়ি রিজিয়ন আমাদের কে খাগড়াছড়ি চাউল বাজারে  (প্রীতি গ্রুপ) এর একটি ভবন করে  দেন। পুরাতন ভবনটিকে ভেঙ্গে নতুন করে  সম্প্রীতি টাওয়ার এর ভিত্তিপ্রস্ত্রর উদ্বোধন করা হয়েছে আমাদের কল্যাণের জন্য। আমি খাগড়াছড়ি রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শরীফ  মো.আমান হাসান এসপিপি,এনডিসি, পিএসসি ও পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুই প্রু চৌধুরী,র  প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের জনসংযোগ কর্মকর্তা চিংলামং চৌধুরীর সঞ্চালনায়, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী, খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ সুপার মুক্তা ধর পিপিএম (বার), খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী,বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

অন্যান্যের মাঝে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের মূখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা সুমন চৌধুরী, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী তৃপ্তি শংকর চাকমা, শুভ মঙ্গল চাকমা, রবি শংকর চাকমা সহ অস্ত্র সমর্থনকারি শান্তি বাহিনী সদস্য,বাজার ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

৯২জনকে সাবেক শান্তি বাহিনীর সদস্যদের  আর্থ- সামাজিক উন্নয়নের জন্য খাগড়াছড়ি রিজিয়ন এর  উদ্যােগে ২০০১সাল থেকে পরিকল্পনা করা হয়।বর্তমানে পার্বত্য জেলা পরিষদের বাস্তবায়নে ৫তলা বিশিষ্ট ভবন খাগড়াছড়ি সদর চাউল বাজার সংলগ্ন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর করা হয়।

প্রধান অতিথি,র বক্তব্যে খাগড়াছড়ি রিজিয়ন এর রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শরীফ  মো.আমান হাসান  এসপিপি,এনডিসি, পিএসসি বলেন,পার্বত্যাঞ্চলে সকল সম্প্রদায় সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ। আমরা পাহাড়ের  সকল ধর্মের বর্ণের জাতিগোষ্টিদের  সকলে এক সাথে মিলেমিশে বসবাস করতে চাই। জানিয়ে তিনি আরো বলেন, যারা এখন পাহাড়ে অস্ত্রদিয়ে  সংঘাত করছেন   সংঘাত না করার আহবান জানিয়ে বলেন, আমাদের সদিচ্ছা আছে, আন্তরিকতা আছে।  সংঘাত পরিত্যাগ করে অস্ত্র সমর্পন করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসলে আমরা সাধ্য ও সামর্থ্য মতো সহযোগিতা করবো।


আরও খবর

বিনামূল্যে বই পেল ২৬৬ কলেজ শিক্ষার্থী

শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪