Logo
আজঃ বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪
শিরোনাম

বেনজীরের ডুপ্লেক্স বাড়িতে দুদকের তল্লাশি

প্রকাশিত:বুধবার ১০ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৩৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের পূর্বাচলে পুলিশের সাবেক আইজিপি বেনজির আহমেদের ক্রোককৃত বাড়ির মালামালের তালিকা তৈরির কাজ শুরু করেছে দুদক ও জেলা প্রশাসন।

বুধবার (১০ জুলাই) দুপুর ১টা থেকে রূপগঞ্জের গুতিয়াবো এলাকার আনন্দ হাউজিংয়ের এই বাড়িতে থাকা মালপত্র তালিকাকরণ শুরু হয়। এটি চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। এসময় বাড়িতে থাকা বিভিন্ন জিনিসপত্র এই অভিযানে এই তল্লাশি করা হয়।

চার ঘণ্টাব্যাপী চলা অভিযান শেষে জব্দকৃত মালামাল বিবরণ সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শফিকুর আলম। তিনি জানান, এটি একটি আবাসিক ভবন। একটি পরিবার থাকতে যে রকম জিনিসপত্র প্রয়োজন এই বাড়িতে সবই পাওয়া গেছে। এসব জিনিসপত্রের তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। এসব আসবাবপত্র সাধারণ মানের। তবে কোনো উচ্চত বিলাসি জিনিসপত্র পাওয়া যায়নি। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী এই তালিকা আদালতে পেশ করা বলে হবে জানান তিনি।

সাবেক আইজিপি বেনজির আহমেদের এই বাগান বাড়ির তালিকাকরণ শেষে দুদকের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এই বাড়িতে ডিজিটাল লক থাকায় ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে তালা খোলা হয়। এই বাড়িটিতে পাওয়া জিনিসপত্রের তালিকা দুদকও জমা দেবেন বলে জানান এই কর্মকর্তা।

ক্ষমতার অপব্যবহার করে জ্ঞাত বহির্ভূত আয়ের মাধ্যমে অর্জিত সাবেক এ আইজিপির সম্পদ জব্দের নির্দেশ দেন আদালত। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী গত শনিবার বিকেলে বাড়িটিতে অভিযান চালায় জেলা প্রশাসন ও দুদকের সমন্বিত একটি দল। পরে বাড়িটির সামনে ‘ক্রোক বিজ্ঞপ্তি’ ঝুলিয়ে দেওয়া হয়।

পূর্বাচলের দক্ষিণবাগ এলাকায় গুতিয়াব মৌজায় পুলিশের আনন্দ হাউজিং সোসাইটির ছয়টি প্লটের ২৪ কাঠা জমির ওপর সাভানা ইকো রিসোর্ট প্রাইভেট লিমিটেড নামে এ বাড়িটি নির্মাণ করা হয়েছে। চারপাশে কাঁটাতারসহ সীমানা দেওয়াল দেওয়া রিসোর্টের ভেতরে একটি বিলাসবহুল ‘ডুপ্লেক্স বাড়িটি। প্রশাসনের সাঁটানো ‘ক্রোক বিজ্ঞপ্তিতে’ রিসোর্টটির মালিক হিসেবে বেনজীরের কন্যা ফারহীন রিশতা বিনতে বেনজীরের নাম উল্লেখ রয়েছে।

-খবর প্রতিদিন/ সি.


আরও খবর



পবিত্র আশুরা ১৭ জুলাই

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১১০জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আগামী (১৭ জুলাই) আশুরা পালিত হবে,দেশের আকাশে মহররম মাসের চাঁদ দেখা না যাওয়ায়। শনিবার (৬ জুলাই) সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম সভা কক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মু. আ. আউয়াল হাওলাদার।

শনিবার (৬ জুলাই) সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মুকাররম সভা কক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মু. আ. আউয়াল হাওলাদার।

সভায় অতিরিক্ত সচিব জানান, সব জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর, মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ও দূর অনুধাবন কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশের আকাশে কোথাও হিজরি ১৪৪৬ সনের মহররম মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। রোববার (৭ জুলাই) জিলহজ মাসের ৩০ দিন পূর্ণ হবে। সোমবার থেকে মহররম মাস গণনা শুরু হবে। আগামী ১৭ জুলাই (১০ মহররম) বুধবার দেশে পবিত্র আশুরা পালিত হবে।

আশুরা আরবি শব্দ। আশারা থেকে আশুরা শব্দের উৎপত্তি। এর অর্থ হচ্ছে দশ। আরবি সনের প্রথম মাস মহররমের ১০ তারিখকে পবিত্র আশুরা বলা হয়। পৃথিবীর শুরু থেকে যুগে যুগে এ দিবসে বহু স্মরণীয় ও ঐতিহাসিক ঘটনা সংঘটিত হয়েছে।


আরও খবর



মাগুরায় জমি নিয়ে দাঙ্গা যুবক খুন বাড়িঘর ভাংচুর লুটপাট

প্রকাশিত:শনিবার ২২ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ | ৮৮জন দেখেছেন

Image

স্টাফ রিপোর্টার মাগুরা থেকে:মাগুরা সদর উপজেলার বেঙ্গাবেরইল গ্রামে জমিজমা দাঙ্গায়  জাহিদ মোল্যা (৪৪) নামে এক যুবক খুন হয়েছে। নিহত জাহিদ ওই গ্রামের আবদুল কুদ্দুস মোল্যার ছেলে।

এলাকাবাসি জানায়, উপজেলার বেঙ্গাবেরইল গ্রামের আনারুল মোল্যার সাথে বড় ভাই জয়নাল মোল্যার ছেলে আশরাফ মোল্যার মধ্যে  জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। বৃহস্পতিবার বিকালে আনারুল মোল্যা বাড়ির সামনে বিরোধপূর্ণ একটি জমিতে মাটি ভরাটের কাজ করছিলো। এ সময় তার ভাতিজা আশরাফ এতে বাঁধা দিলে উভয় পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। উভয় পরিবারের সমর্থনে একই গোষ্ঠির লোকজন ঢাল সড়কি নিয়ে দাঙ্গায় লিপ্ত হয়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন কমবেশি আহত হয়। আহতদের মধ্যে আলতাফ মোল্যা (৫৩), আলমগীর (৪৫), জাহিদ বিশ্বাস (৪৪), জাহিদ মোল্যা (৪৪), মোশারফ মোল্যা (৫৬), উজ্জ্বল মোল্যা (২৪), পিকুল মোল্যা (৪২), মনিরুল (৩২), নাসিরুল রফিক মোল্যা (৩৮), রবিউল মোল্যা (৪০), শমসের মোল্যা, হাসানুর মোল্যা (৪০) ও সায়েদ মোল্যা (৩৫) কে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর আহত জাহিদ মোল্যাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মধুখালী পৌছালে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে জাহিদ মোল্যার মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তার সমর্থিতরা প্রতিপক্ষের অন্তত ১০টি বাড়িতে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মেহেদী রাসেল বলেন, খবর পেয়ে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।


আরও খবর



গলাচিপায় প্রীতি ফুটবল ম্যাচ

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১০২জন দেখেছেন

Image

রিয়াদ হোসাইন,গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:গলাচিপা ও দশমিনা উপজেলার সোনালী অতীতের কৃতি ফুটবল খেলোয়াড়দের স্মরণে পটুয়াখালীর গলাচিপায় এক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকাল ৫টায় গলাচিপা শেখ রাসেল স্টেডিয়ামে গলাচিপা সোনালী অতীত ক্লাবের আয়োজনে ও গলাচিপা উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সহযোগিতায় এটি অনুষ্ঠিত হয়।  গলাচিপা সোনালী অতীত ক্লাব ও দশমিনা সোনালী অতীত একাদশ এর মধ্যে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। 

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সেরা খেলোয়াড় ও উভয় দলের খেলোয়াড়দের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন গলাচিপা উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ওয়ানা মার্জিয়া নিতু।

গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহিউদ্দিন আল হেলালের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে খেলা উপভোগ করেন গলাচিপা পৌরসভার মেয়র আহসানুল হক তুহিণ ও গলাচিপা উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ফরিদ আহসান কচিন।

এছাড়া সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, সুশীল সমাজসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ খেলাটি উপভোগ করে। সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন গলাচিপা উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আবু বাকার শিবলী।


আরও খবর



সৈয়দপুরে অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে ভেজাল চিপস

প্রকাশিত:শনিবার ২৯ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ১৩১জন দেখেছেন

Image

জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:সৈয়দপুর শহরের প্রায় ১০/১২ স্পটে প্রায় প্রকাশ্যেই তৈরি হচ্ছে শিশুদের লোভনীয় ভেজাল চিপস।অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে কি কি উপাদান দিয়ে এসব চিপস তৈরি করা হচ্ছে তা কেউ জানে না। তবে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা তৈরিকৃত চিপসে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক রং মিশার খবর জেনেও কেন নিশ্চুপ তা অনেকের মাঝে প্রস্ন দেখা দিয়েছে। 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আবাসিক এলাকার মধ্যে পরিবেশের কোনো প্রকার অনুমোদন ছাড়াই গড়ে উঠেছে ওইসব চিপস কারখানা। দীর্ঘ দিন ধরে নোংরা পরিবেশে ও ক্ষতি কারক রং মিশিয়ে তৈরি হচ্ছে চিপস। আটা-ময়দার সঙ্গে অপরিশোধিত লবণ, কাপড়ের রং মিশিয়ে তৈরি করা হচ্ছে রিং চিপস। আবার অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খোলা মাঠে রোদে শুকিয়ে প্যাকেট জাত করে বাজারে বিক্রি করা হচ্ছে। আর শিশুরাই ওইসব চিপসের প্রধান ভোক্তা। 

স্থানীয়রা জানান,সৈয়দপুর শহরের ২/৩ টি চিপস কারখানা ছাড়া কোন কারখানায় কখন চিপস তৈরি করা হচ্ছে তা অনেকেই জানতে পারে না। কারণ মাঝ রাতেও কারখানা চলার নজির আছে । প্রশাসনের চোখের সামনেই দিনে ও রাতে চিপস বানিয়ে অন্যত্র বিক্রি করছেন কারখানার মালিকরা।

সৈয়দপুর শহরের সুলতানুল উলুম মাদরাসা সংলগ্ন একটি চিপস  কারখানায় গিয়ে দেখা যায়, এ কারখানার বিএসটিআই অনুমোদন ছাড়াই কারখানার খোলা-মাঠে নানা রঙের রিং চিপস রোদে শুকাতে দেওয়া হয়েছে। চারদিক থেকে ধুলাবালি এসে পড়ছে। শ্রমিকেরা পায়ে ঠেলে রিং চিপস রোদে সুকাচ্ছেন। সেখানে দুর্গন্ধযুক্ত পানি ব্যবহার হচ্ছে ওই চিপস তৈরিতে। শুধু তাই নয়, চিপস এর কাঁচামাল তৈরি করার সময় শ্রমিক পোশাক ছাড়াই খালি হাতে তা তৈরি করছেন। চিপস তৈরির মেশিনের নিচেই স্যাঁতস্যাঁতে অবস্থা দেখা গেছে। তার পাশে দুর্গন্ধযুক্ত একটি বালতি ময়দা মাখানো পড়ে আছে। যেখানে আটা মাখানো হচ্ছে তার পাশে পড়ে রয়েছে সিগারেটের ছাই ও প্যাকেট সহ ময়লাযুক্ত স্যান্ডেন।। 

কারখানার এক কর্মচারী জানান, এভাবেই দীর্ঘ ৫-৬ বছর ধরে আমরা চিপস তৈরি করে আসছি। এতে আমাদের কেউ কোন বাধা দেয়নি। তবে বছর খানিক আগে প্রশাসন এসে জড়িমানা করেছিলেন, কিন্তু এরপরেও মালিকের টনক নড়েনি। এছাড়া শহরের বাশবাড়ি টালি মসজিদ সংলগ্ন বাবু, বোতলাগাড়ি ইউনিয়ন যাওয়ার পথে মনছুরের ইটভাটা সংলগ্ন ইসমাইল সহ আরো ক'জন ক্ষতিকারন রং মেশানো চিপস উৎপাদন করে কোটি টাকার মালিক বনেছেন। প্রসাশনের অর্থের দরকার পড়লে বছরে একবার অভিযান চালিয়ে জড়িমানা করলেও একটিরও সিলগালা করেননি।

শহরের বেশ ক'জন ব্যবসায়ী বলেন, ওইসব চিপস কারখানার মালিকদের ২/১ জন ছাড়া অনেকেরই প্রয়োনীয় কোন কাগজ পত্র নাই। তারা মাঝে মধ্যে বিএসটিআই পরিচয় দানকারি কিছু কর্মকর্তাদের সেলামি দিয়ে প্রকাশ্যেই চুটিয়ে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। শিশুদের স্বাস্থ্য হানি করে বনে যাচ্ছেন কোটিপতি। 

সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ওয়াসিম বারি জয় ও মেডিকেল ডিপার্টমেন্ট থেকে বলা হয়,ওইসব চিপস শিশুদের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ এই চিপস খেলে ডাইরিয়া,উচ্চ-রক্তচাপ, স্টোক,আলসারের মত রোগ হতে পারে। শিশুদের ডায়রিয়া হয়ে হতে পারে স্বাস্থ্য হানি। 

শহরের ভেজাল শিশু খাদ্য ও চিপস কারখানায় অভিযান চালিয়ে আইনের আওতায় এনে কঠোর ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি অনুরোধ জানান এলাকাবাসী।


আরও খবর



কোটা সংস্কারের দাবিতে সৈয়দপুরে শিক্ষার্থীদের মানবন্ধন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ জুলাই ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১৭ জুলাই ২০২৪ | ৬৬জন দেখেছেন

Image
জহুরুল ইসলাম খোকন সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:চলমান কোটা সংস্কার ও মেধাভিত্তিক নিয়োগে সরকারি পরিপত্র বহাল রাখার দাবির প্রতি একাত্মতা ঘোষনা করে নীলফামারীর সৈয়দপুরে মানববন্ধন করেছেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার বেলা ৩ টায় শহীদ ডাক্তার জিকরুল হক সড়কের জিআরপি মোড়ে ছাত্র আন্দোলনের’ ব্যানারে এবং সাধারণ শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মানববন্ধন করেন তারা।জুম্মার নামাজ শেষে বৈষম্য বিরোধী নানা ফেস্টুন ও ব্যনার নিয়ে উল্লেখিত স্থানে জড়ো হয় হতে থাকে শিক্ষার্থীরা। চলমান আন্দোলনের সাথে একাত্বতা প্রকাশ করে, সুযোগের সমতা নিশ্চিতের দাবি জানান তারা। এই সময় বক্তব্য দেন মো: রিফাত, মো: শান্ত, সুজন ইসলাম, সিয়াম হোসেন প্রমূখ।আন্দোলনে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরে শিক্ষার্থীরা তাদের বক্তব্যে  বলেন, দেশ এখন স্মার্ট আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। দেশ থেকে প্রতিনিয়ত মেধাবীরা আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়ে আসছে। আগামীর বাংলাদেশের কাণ্ডারি হবে দেশের মেধাবীরা। সেজন্য মেধার সর্বাত্মক সুযোগ বজায় রাখা কাম্য।
শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, দেশের সর্বস্তরে কোটা সংস্কার বিষয়ক যেসব আন্দোলন হচ্ছে তা যৌক্তিক। মেধার মুল্যায়ন না হলে দেশে শিক্ষার কমে যাওয়ার আশংকা অনেক। তাই মেধার মুল্যায়ন করতে হবে।  সাধারণ শিক্ষার্থীরা কোটা সংস্কার আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করছে। মেধার মূল্যায়নকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়ার জানান আন্দোলনকারীরা।

-খবর প্রতিদিন/ সি.

আরও খবর