Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

বাংলাদেশিদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ফুলব্রাইট বৃত্তি বন্ধ হয়নি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ২৮২জন দেখেছেন

Image

যুক্তরাষ্ট্রের ফুলব্রাইট স্কলারশিপ থেকে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশের আবেদনকারি বা শিক্ষার্থীদের বাদ দেয়া হয়েছে বলে একটি তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে। আদতে তথ্যটি সঠিক নয়।  যুক্তরাষ্ট্রের ব্যুরো অব এডুকেশনাল অ্যান্ড কালচারাল অ্যাফেয়ার্স-এর ওয়েবসাইটে আজ মঙ্গলবার দুপুর একটায় ঢুকে দেখা গেছে বাংলাদেশিরা ফুলব্রাত বৃত্তির জন্য আবেদনের যোগ্য (স্ক্রিনশট সংযুক্ত) তবে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশে ফুলব্রাইটের কার্যক্রম ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে বন্ধ রয়েছে। ওয়েবসাইটে স্পষ্টভাবে বৃত্তি চালুর বিষয়টি লেখা রয়েছে

যে গুজব ও ভুল তথ্যটি ছড়িয়ে পড়েছিল, তাতে বলা হচ্ছিল বাংলাদেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতির কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ফুলব্রাইট স্কলারশিপ থেকে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশের আবেদনকারি বা শিক্ষার্থীদের বাদ দেয়া হয়েছে। যা আসলে একদম অসত্য। 

ওই গুজবে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যুরো অব এডুকেশনাল অ্যান্ড কালচারাল অ্যাফেয়ার্স-এর বরাত দিয়ে তথ্যটি হলেও তাদের ওয়েবসাইটে এমন কোনো কথাই নেই। বরং স্পষ্টভাবে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের আবেদনের কথা উল্লেখ রয়েছে। তবে নিরাপত্তা পরিস্থিতির বিষয়ে কোনো ব্যাখ্যা দেয়া হয়নি। 

ওই ভুয়া সংবাদে বলা হয়  ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের জন্য ইউএস স্কলার প্রোগ্রাম থেকে বাংলাদেশ সাময়িকভাবে স্থগিত রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ফুলব্রাইট স্কলারশিপ থেকে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশের আবেদনকারি বা শিক্ষার্থীদের বাদ দেয়া হয়েছে। 

যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষার সবচেয়ে সম্মানজনক স্কলারশিপ ‘ফুলব্রাইট ফরেন স্টুডেন্ট প্রোগ্রাম’ এ প্রতি বছর স্নাতকোত্তর বা পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করতে ইচ্ছুক ১৫৫টি দেশের ১ হাজার ৮০০ জন বিদেশি শিক্ষার্থীর জন্য ফুলব্রাইট বৃত্তি প্রদান করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণ ফ্যাকাল্টি মেম্বার, গবেষণা প্রতিষ্ঠানের জুনিয়র থেকে মিড লেভেলের কর্মকর্তা, এনজিওসহ সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আবেদনকারীরা সাধারণত এ স্কলারশিপ পেয়ে থাকে।  

মেডিক্যাল সায়েন্স, শিক্ষানীতি, জনস্বাস্থ্য, জীববিজ্ঞান, পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, সামাজিক বিজ্ঞান, ইতিহাস, সাহিত্য, ফার্মাসি, এমবিএ, অর্থনীতিসহ নানা বিষয়ে আবেদন করা যায়। হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি, স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটি, কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটি, এমআইটি, জর্জিয়া টেক, ইউনিভার্সিটি অব মিশিগানসহ অনেক বিশ্ববিদ্যালয় এই স্কলারশিপ দিয়ে থাকে। এই স্কলারশিপ প্রাপ্তদের মধ্যে ৫৩ জন নোবেল পুরস্কার আর ৭৮ জন পুলিৎজার পুরস্কার বিজয়ী রয়েছেন।


আরও খবর



রাশিয়ার বিরোধীনেতা নাভালনি কারাগারে মারা গেলেন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮১জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:রাশিয়ার কারাগারে মারা গেলেন পুতিন বিরোধী নেতা নাভালানি । ৪৭ বছর বয়সে ইয়ামালো-নেনেটস প্রদেশের কারাগারেই তিনি মারা গেছেন বলে জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। ১৯ বছরের সাজার বিপরীতে কারাগারটিতে ছিলেন নাভালনি। খবর আল-জাজিরার।

এক বিবৃতিতে রুশ কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, ‘হাঁটার পর নাভালনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। স্বল্প সময়ের মধ্যেই জ্ঞান হারান তিনি। দ্রুত সেখানে চিকিৎসা কর্মীরা উপস্থিত হন ও অ্যাম্বুলেন্স ডাকেন। চিকিৎসকরা চেষ্টা করলেও তিনি সাড়া দেননি।

তবে, কি কারণে নাভালনি মারা গেছেন সে বিষয়ে ওই বিবৃতিতে কিছু জানানো হয়নি। সেখানে বলা হয়, বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

নাভালানির মৃত্যুর বিষয়টি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছে ক্রেমলিন।

পুতিনবিরোধী নাভালনিকে যে কারাগারে রাখা হয়েছিল সেটি মস্কো থেকে এক হাজার ৯০০ কিলোমিটার (এক হাজার ২০০ মাইল) উত্তর-পূর্বে খার্পে অবস্থিত। আলাস্কার পার্শ্ববর্তী এই কারগারটি রাশিয়ার অন্যতম মারাত্মক জেল। গুরুত্বর অভিযোগে সাজাপ্রাপ্তদের এই কারাগারে রাখা হতো।

নাভালানির সহযোগী লেওনিড ভোলকোভ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এক্সে (সাবেক টুইটার) এক পোস্টে লেখেন, ‘রাশিয়ান কর্তৃপক্ষ একটি স্বীকারোক্তি প্রকাশ করেছে যে তারা কারাগারে নাভালনিকে হত্যা করেছে। এটি সত্য নয় তা নিশ্চিত করার বা প্রমাণ করার কোনো উপায় আমাদের কাছে নেই।’

২০২১ সালের জানুয়ারিতে জার্মানি থেকে নাভালানিকে রাশিয়ায় ফেরত আনা হয়। এর আগে তাকে বিষপ্রয়োগ করা হয়। এর জন্য রাশিয়ার গুপ্তচরদের দিকেই আঙুল তুলেন তিনি। দেশে ফেরার পর থেকেই কারাগারে বন্দি ছিলেন তিনি।

গ্রেপ্তার হওয়ার আগে নোভালানি দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রচারাভিযানের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। ক্রেমলিন বিরোধী বড় বড় বিক্ষোভের আয়োজন করেছিলেন। এমনকি, ইউক্রেন আগ্রাসনের বিপক্ষে সরব ছিলেন পুতিনের এই কট্টর সমালোচক।


আরও খবর



রাজধানী ঢাকার বাতাসে ভয়াবহ স্বাস্থ্যঝুঁকি

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১১২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:দিন দিন বেড়েই চলছে বায়ুদূষণের মাত্রা। অন্যান্য দেশের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মেগাসিটি রাজধানী ঢাকার বায়ুদূষণও।

সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে শহরটির বাতাস গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরির পর্যায়ে রয়েছে।

এদিন সকাল ৮টার দিকে আন্তর্জাতিক বায়ুমান প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আইকিউএয়ারের মানদণ্ড অনুযায়ী, ৪৮৯ স্কোর নিয়ে দূষিত শহরের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে রাজধানী ঢাকা, যা জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে বিবেচিত। তালিকায় ৩৩০ স্কোর নিয়ে বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ঘানার আক্রা শহর।

এছাড়া ১৭৬ স্কোর নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারতের মুম্বাই শহর। আর চতুর্থ স্থানে থাকা চীনের বেইজিং শহরের স্কোর ১৭৩ এবং পঞ্চম স্থানে থাকা নেপালের কাঠমান্ডু শহরের স্কোর ১৭২।

একিউআই স্কোর শূন্য থেকে ৫০ ভালো হিসেবে বিবেচিত হয়। ৫১ থেকে ১০০ মাঝারি হিসেবে গণ্য করা হয়; আর সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর বিবেচিত হয় ১০১ থেকে ১৫০ স্কোর। স্কোর ১৫১ থেকে ২০০ হলে তাকে অস্বাস্থ্যকর বায়ু বলে মনে করা হয়।

২০১ থেকে ৩০০-এর মধ্যে থাকা একিউআই স্কোরকে খুব অস্বাস্থ্যকর বলা হয়। ৩০১ থেকে ৪০০-এর মধ্যে থাকা একিউআই ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়, যা নগরের বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।


আরও খবর



হিলিতে জিরার দাম কমেছে কেজিতে ৪০০ টাকা

প্রকাশিত:সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ৮৬জন দেখেছেন

Image

মাসুদুল হক রুবেল,হিলি (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে নতুন জিরার আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে।আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ায় খুচরা বাজারে কেজিপ্রতি দাম কমছে ৪০০ টাকা। দুই মাস আগে ১১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। সেই জিরা এখন ৭২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। হিলি বাজারের মসলা ব্যবসায়ীরা বলছেন,ভারতে নতুন জিরা উঠায় বন্দর দিয়ে আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে। একারণে দাম কমে যাচ্ছে। পণ্যটির দাম কমায় খুশি নিম্মআয়ের মানুষেরা।

আজ সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে হিলি মসলা বাজার ঘুরে দেখা গেছে,গত বছরে প্রতিকেজি জিরা বিক্রি হয়েছে ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা দরে। ডলার সংকট ও ভারতে জিরার ফলন কম এবং আমদানি কমে যাওয়ার অজুহাতে দাম বাড়তে থাকে। সর্বশেষ দুই মাস আগে ১১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। চলতি বছরে ভারতে নতুন জিরার ফলন ভালো হয়েছে। সেই সাথে বিভিন্ন বন্দর দিয়ে আমদামি বৃদ্ধি পাওয়া গত দুই মাস পর্যায়ক্রমে জিরার দাম কমেছে কেজিপ্রতি ৪০০ টাকা।

এর মধ্যে ভারত থেকে আমদানিকৃত ভালো মানের কাকা জিরা ৭২০,বাবা জিরা ৭২০,মধু জিরা ৭২০,অমরিত জিরা ৭২০ টাকা,সোনা জিরা ৭৩০ টাকা ও ডিবিগোল্ড জিরা ৭৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

হিলি বাজারে জিরা কিনতে আসা ফরহাদ হোসেন বলেন,দুই মাস আগেও জিরার আকাশছোঁয়া দাম ছিল।এর আগেও ১০০ গ্রাম জিরা ৪০ টাকায় কিনেছি। সেই জিরা কিনতে হয়েছে ১০০ টাকায়। আজকে মসলা কিনতে এসে শুনলাম কেজিপ্রতি ৪০০ টাকা কমেছে। তাই এক কেজি জিরা নিলাম ৭২০ টাকায়। বর্তমানে দাম অনেক কমে এসেছে।

বগুড়া থেকে আসা জিরা ক্রেতা আনিছুর রহমান বলেন,আমি স্বপ্নপূরীতে ঘুরতে এসেছিলাম। সেখানে ঘুরে হিলি স্থলবন্দর ঘুরেও দেখলাম। হিলিতে কম দামে মসলা পাওয়া যায়। তাই মসলা কিনতে আসলাম। আমি বগুড়াতে প্রায় তিন মাস আগে ১২ শত টাকা কেজি দরে জিরা কিনেছি। হিলিতে এসে এক কেজি জিরা নিলাম ৭২০ টাকা দিয়ে।দাম কমায় আমাদের মত মানুষের অনেক ভালো হলো।

হিলি বাজারে বিসমিল্লাহ্ধসঢ়; মসলা ঘর এর ব্যবসায়ী আওলাদ হোসেন বলেন,গত বছরে ভারতে জিরার ফলন কম হওয়ায় বন্দর দিয়ে আমদানিও কমে যায়। সেকারণে জিরার দাম বাড়তে

বাড়তে ১১৫০ টাকা কেজি দরে উঠে। বর্তমান ভারতে নতুন জিরা উঠায় আমদানি বেড়েছে। তাই দামও কেজিপ্রতি কমেছে ৪০০ টাকা। আমরা ৭১০ টাকা কেজি দরে কিনে ৭২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি। আশা করছি আগামীতে দাম আরও কমে আসবে। আগে তো দাম বেশির কারণে বেচাকেনা কম হচ্ছিলো। আগে ক্রেতারা ১০০ গ্রাম জিরা কিনতো এখন এক কেজি করে ক্রয় করেছে। আগের চেয়ে বেচাকেনা অনেক ভালো হচ্ছে। তিনি আরও বলেন,সাদা এলাচ ও কালো ফলের দাম একটু বেশি। তবে অন্যান্য মসলার দাম স্বাভাবিক আছে।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পরীমণির মাদক মামলা চলবে কি না, রায় ২২ ফেব্রুয়ারি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজধানীর বনানী থানায় চিত্রনায়িকা পরীমণির বিরুদ্ধে দায়ের করা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলা চলবে কি না এ বিষয়ে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি রায়ের দিন ধার্য করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলামের হাইকোর্ট বেঞ্চ এদিন ধার্য করেন। যা সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

এর আগে, গত ২৮ জানুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-১০ এর বিচারক মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের আদালতে মামলাটি সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য নির্ধারিত থাকলেও তা পিছিয়ে আজকের দিন ধার্য করা হয়। গত ৯ জানুয়ারি পরীমণির মাদক মামলার কার্যক্রম ছয় মাস স্থগিত থাকবে বলে আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচাপতি মো. নুরুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ৪ আগস্ট বিকেলে রাজধানীর বনানীর ১২ নম্বর সড়কে পরীমনির বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় ওই বাসা থেকে বিপুল মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয়। পরে তাকে গ্রেপ্তার করে কয়েক দফা রিমান্ডে নেওয়া হয়। ৩১ আগস্ট জামিন পান পরীমণি। পরদিন তিনি কারামুক্ত হন। এদিকে ২০২১ সালের ৪ অক্টোবর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডি পুলিশের পরিদর্শক কাজী গোলাম মোস্তফা পরীমণিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেন। গত বছর ৫ জানুয়ারি পরীমণিসহ তিন জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত।


আরও খবর

ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের ৭ম বর্ষপূর্তি

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪




‘দরদ’র টিজার দেখানো হবে বুর্জ খলিফায়

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

বিনোদন প্রতিনিধি:সদ্য প্রকাশ পেয়েছে শাকিব খানের প্যান ইন্ডিয়ান সিনেমা ‘দরদ’র প্রথম পোস্টার। অনলাইনে রীতিমতো ঝড় তুলেছে এটি। বিশেষ করে এই সুপারস্টারের অনুরাগীদের মধ্যে বইছে খুশির বন্যা।

এবার জানা গেল, সিনেমার প্রথম টিজার প্রকাশ হবে বুর্জ খলিফায়। যা এর আগে কোনো বাংলাদেশি সিনেমার ক্ষেত্রে হয়নি। বিষয়টি ঘোষণা দিয়েছেন নির্মাতা অনন্য মামুন।

তিনি জানান, ‘দরদ’ সিনেমার প্রথম টিজার প্রকাশ হবে বুর্জ খলিফায়। এক ভিডিও বার্তায় মামুন বললেন, “আমি স্বপ্ন দেখি, দুবাইয়ের বুর্জ খলিফার সামনে আমি, শাকিব ভাই, সোনাল চৌহানসহ অন্যান্য আর্টিস্ট দাঁড়িয়ে আছি। আর বুর্জ খলিফার আকাশছোঁয়া ভবনের গায়ে ‘দরদ’র টিজার ভাসছে। হ্যাঁ, এটা কিন্তু আর স্বপ্ন না। এটা হলো আরেকটা সারপ্রাইজ! ‘দরদ’র প্রথম ২০ সেকেন্ডের প্রমো দেখানো হবে বুর্জ খলিফায়।”

সাইকো থ্রিলার ও রোমান্টিক অ্যাকশন ধাঁচের ছবি ‘দরদ’। বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি। এতে শাকিবের নায়িকা বলিউডের সোনাল চৌহান। আরও আছেন পায়েল সরকার, রাজেশ শর্মা, রাহুল দেব, অলোক জৈন, সাফা মারুয়া, এলিনা শাম্মী।

বাংলার পাশাপাশি সিনেমাটি মুক্তি পাবে হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মালায়লাম, কন্নড় ভাষায়। ফেব্রুয়ারিতে ‘দরদ’ মুক্তির কথা থাকলেও সেটি হচ্ছে না। তবে পরিচালক অনন্য মামুন এক ভিডিও বার্তায় জানান, দুই ঈদ ছাড়া যেকোনো সময় সিনেমাটি বিশ্বব্যাপী মুক্তি পাবে।


আরও খবর

ধ্রুব মিউজিক স্টেশনের ৭ম বর্ষপূর্তি

শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪