Logo
আজঃ Monday ২৯ November ২০২১
শিরোনাম
নৌকা পরাজিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান হলো তৃতীয় লিঙ্গের ঋতু! তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা কুমিল্লায় নৌকা পেয়েও সরে দাড়ালেন বাহালুল, প্রাথমিক সদস্য না হয়েও মনোনীত নূরুল! মাতুয়াইলে সড়ক উন্নয়ন কাজের উদ্ধোধন করলেন সংসদ সদস্য কাজী মনু পলো উৎসবে মাছ ধরায় মেতেছে মানুষ, চির চেনা বাংলা গাজীপুরে ৩০ সেকেন্ডেই মা-মেয়ের জীবন শেষ করল দুই খুনি হয়নি হাফ পাসের সিদ্ধান্ত,টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব আলেম-ওলামাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা-ভক্তি রয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রংপুরের তারাগঞ্জে ট্রাকচাপায় তিন নারী শ্রমিক নিহত কুমিল্লার তিতাস ও মেঘনা উপজেলায় ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী যারা !

বাংলাদেশের স্বপ্নভঙ্গ, সঙ্গে লজ্জার হার

প্রকাশিত:Tuesday ০২ November 2০২1 | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ১৫১জন দেখেছেন
স্পোর্টস ডেস্ক

Image


 

আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ পর্বে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নামার আগে বাংলাদেশের সেমিফাইনালের ক্ষীণ স্বপ্ন বেঁচে ছিল। তবে মাঠের লড়াইয়ে তা উবে যেতে সময় লাগেনি। ব্যাটে বলে হতাশাজনক পারফরম্যান্সে লজ্জার হার হেরেছে টাইগাররা।বাংলাদেশের দেওয়া ৮৫ রানের লক্ষ্য ৪ উইকেট হারিয়েই পেরিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। বাকি ছিল আরো ৩৯ বল।

 

আগে ব্যাট করে প্রোটিয়া বোলারদের তোপে ২০ ওভারও টিকতে পারেনি বাংলাদেশ। ১৮.২ ওভারে অল আউট হওয়ার আগে টাইগাররা করতে পারে মাত্র ৮৪ রান। নিজেদের বিশ্বকাপ ইতিহাসে এটি তৃতীয় সর্বনিম্ন স্কোর। এ ম্যাচে বাংলাদেশের পাঁচজন ব্যাটসম্যান কোনো রানই করতে পারেননি।

 

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ৭০ রান। ২০১৬ টি-২০ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে লজ্জার এই রেকর্ড গড়েছিল টাইগাররা। এছাড়া ২০০৭ বিশ্বকাপে শ্রীলংকার বিপক্ষে ৮৩ রানে অল আউট হয়েছিল লাল-সবুজরা।

 

বাংলাদেশের দেওয়া মামুলি লক্ষ্য তাড়া করতে নামেন কুইন্টন ডি কক ও রেজা হেন্ড্রিক্স। প্রথম ওভারেই তাসকিনের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন ৪ রান করা হেন্ড্রিক্স। এরপর নিজের প্রথম ওভারে আঘাত হানেন মাহেদী হাসান। তার বলে বোল্ড হওয়ার আগে কুইন্টন ডি কক করেন ১৬ রান।

 

ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে তাসকিনের বলে ০ রানে এইডেন মার্করাম আউট হলে ম্যাচে ফেরার ইঙ্গিত দেয় বাংলাদেশ। তবে সেই পর্যন্তই। রাসি ফন ডার ডুসেন ও টেম্বা বাভুমা মিলে দলকে জয়ের বন্দরের কাছে নিয়ে যান।

২২ রান করে ডুসেন যখন আউট হন, জয় থেকে মাত্র ৫ রান দূরে ছিল প্রোটিয়ারা। বাভুমা ও ডেভিড মিলার সহজেই এটুকু পথ বাকী দেন। দুজন অপরাজিত ছিলেন যথাক্রমে ৩১ ও ৫ রানে।

 

বাংলাদেশের হয়ে ২ উইকেট শিকার করেন তাসকিন আহমেদ। এছাড়া নাসুম আহমেদ ও মাহেদী একটি করে উইকেট নেন।

আবু ধাবির জাইয়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা। বাংলাদেশের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন লিটন দাস ও নাইম শেখ। প্রথম ৩ ওভার দেখে খেললেও চতুর্থ ওভারে আর উইকেট পতন ঠেকাতে পারেনি টাইগাররা।

কাগিসো রাবাদা পরপর দুই বলে সাজঘরে ফেরান নাইম ও সৌম্য সরকারকে। নাইম ৯ রান করলেও সৌম্য গোল্ডেন ডাক মারেন। নিজের পরের ওভারে আবারো আঘাত হানেন রাবাদা। এবার মুশফিকুর রহিম রানের খাতা খোলার আগেই সাজঘরে ফেরেন।

সৌম্যের মতো প্রথম বলেই সাজঘরে ফেরেন আফিফ হোসেন। এর আগে ৩ রানে আউট হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। একপ্রান্ত আগলে রেখে ইনিংস এগিয়ে নিচ্ছিলেন লিটন দাস। তবে তার প্রতিরোধ ভেঙে দেন তাবরাইজ শামসি। টাইগার ওপেনার ফেরার আগে করেন ২৪ রান।

বাকী পথে একাই লড়াই করেন মাহেদী হাসান। নবম উইকেট হিসেবে সাজঘরে ফেরার আগে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ২৭ রান করেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে কাগিসো রাবাদা ও আনরিখ নর্টজে তিনটি করে উইকেট শিকার করেন। এছাড়া তাবরাইজ শামসি দুটি ও ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস একটি উইকেট নেন।

 

-খবর প্রতিদিন /সি.বা 

নিউজ ট্যাগ: টি-২০ বিশ্বকাপ

আরও খবর



একসঙ্গে পাঁচ ছেলে-মেয়ের জন্ম

৬ মাসেই একসঙ্গে পাঁচ ছেলে-মেয়ের জন্ম দিলেন সাদিয়া

প্রকাশিত:Tuesday ০২ November 2০২1 | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ৪১৩জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image

 


কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে একসঙ্গে পাঁচ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন সাদিয়া খাতুন নামে এক প্রসূতি। তাদের মধ্যে চারজন মেয়ে ও একজন ছেলে। গর্ভধারণের মাত্র ছয় মাসের মাথায় শিশুগুলোর জন্ম হয়েছে।

 

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, নির্দিষ্ট সময়ের আগে প্রসব হওয়ায় বাচ্চাগুলোর ওজন কম হয়েছে। মা সুস্থ থাকলেও বাচ্চাগুলো ঝুঁকিতে রয়েছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে একসঙ্গে পাঁচ শিশুর জন্ম হয়। প্রসূতি সাদিয়া কুমারখালী উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের পান্টি গ্রামের কলেজপাড়া এলাকার সোহেল রানার স্ত্রী।

 

হাসপাতাল সূত্র জানায়, ৬ মাসের মাথায় সাদিয়া বাচ্চা প্রসব করেছেন। একসঙ্গে পাঁচ বাচ্চা প্রসবে অনেক ঝুঁকি ছিল। তবে মা সুস্থ থাকলেও ওজন কম হওয়ায় ঝুঁকিতে রয়েছে বাচ্চাগুলো।সাদিয়ার ননদ রাবেয়া বলেন, সোমবার রাত ১০টায় হাসপাতালে আসি। ৬ মাস ১০ দিনের মাথায় নরমাল ডেলিভারিতে বাচ্চাগুলোর জন্ম হয়েছে। আমার ভাবি সুস্থ আছেন। আমরা খুবই খুশি।

 

শিশুদের বাবা সোহেল রানা বলেন, ২০১৬ সালের ৩০ জুলাই সাদিয়া খাতুনকে বিয়ে করি। পাঁচ বছর পর আমাদের একসঙ্গে পাঁচ সন্তান হলো। আমরা খুবই খুশি। আমার স্ত্রী সুস্থ আছে, বাচ্চারা শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন।

 

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক শাহীন আক্তার সুমন বলেন, বাচ্চাদের সুস্থ করে তোলার চেষ্টা চলছে। তবে ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। তাদের ওজন কম হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজের শিশু বিভাগে অথবা শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। বাচ্চাগুলোর ওজন ৫০০ থেকে ৬০০ গ্রাম। তবে মা সুস্থ রয়েছেন।

 

-খবর প্রতিদিন / সি.বা 


আরও খবর



কুমিল্লায় প্রকাশ্যে শিয়াল জবাই করে মাংস বিক্রি

প্রকাশিত:Thursday ১১ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ৩৬২জন দেখেছেন
Image


 

কুমিল্লার লাকসামে প্রকাশ্যে শিয়ালের মাংস বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। বুধবার (১০ নভেম্বর) বিকেলে শহরের রাজঘাট এলাকায় এমন দৃশ্য দেখা যায়। এরপর থেকে এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ফেসবুকে ঘুরপাক খাচ্ছে।

 

স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার সকালে লাকসাম রেললাইন এলাকায় একটি শিয়াল বিক্রি করার জন্য চট্টগ্রাম থেকে আসেন দুই যুবক। খবর পেয়ে পৌরশহরের রাজঘাট এলাকার বাসিন্দা সাইফুল, মরণ ও লিটনসহ কয়েক যুবক মিলে তাদের কাছ থেকে দেড় হাজার টাকা দিয়ে শিয়ালটি কিনে নেন। বিকেলে রাজঘাট ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় নিয়ে শিয়ালটি জবাই করা হয়। এজন্য স্থানীয় কসাই জিয়াকে ১৫০ টাকা দেওয়া হয়। শিয়ালটি জবাই করার দৃশ্য কেউ একজন মোবাইলে ভিডিও করে। পরে সেই ভিডিও ভাইরাল হয়।

 

ভিডিওতে দেখা যায়, সাইফুল, মরণ ও লিটনসহ কয়েকজন যুবক শিয়াল জবাই করে মাংস বিক্রির স্থানের বর্ণনা দেন। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে শিয়ালের মাংসের নানা উপকারিতার কথা উল্লেখ করেন। প্রতি কেজি মাংসের দাম ১০০০ টাকা বলে জানানো হয় ভিডিওতে। খবর পেয়ে কয়েকজন সেই মাংস কিনে নেন। এরপরই শিয়ালের মাংস বিক্রেতারা সটকে পড়েন।

 

লাকসামের ইউএনও এ কে এম সাইফুল আলম বলেন, বন্যপ্রাণী জবাই করে মাংস বিক্রি করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  খবর প্রতিদিন- সি/বা

নিউজ ট্যাগ: শিয়াল জবাই

আরও খবর



কুমিল্লায় তরুণীসহ চারজনের প্রাণ ঝরল সড়কে

কুমিল্লায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তরুণীসহ নিহত ৪

প্রকাশিত:Tuesday ০২ November 2০২1 | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ১৬৭জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image


কুমিল্লায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তরুণীসহ চারজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের মনোহরগঞ্জের বিপুলাসার বিহড়া এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পদুয়ার বাজার এলাকায় এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

 

নিহতরা হলেন- মনোহরগঞ্জ উপজেলার সাইকচাইল গ্রামের রুহুল আমিন, তার স্ত্রী শেফালী আক্তার, একই গ্রামের মাসুদ আলমের মেয়ে সায়মা মুনতাহা এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার ডুবাচাইল গ্রামের কবিরুল ইসলামের ছেলে মো. লিটন ইসলাম।

 

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সকাল ১০টার দিকে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের মনোহরগঞ্জের বিপুলাসার বিহড়ায় অটোরিকশায় বাসের ধাক্কায় স্বামী-স্ত্রীসহ তিনজন নিহত হন। তারা অটোরিকশার যাত্রী ছিলেন।

এর আগে, সকালে পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড এলাকায় কাভার্ডভানের চাপায় সংবাদপত্রবাহী মাইক্রোবাস দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এ সময় চালক লিটন নিহত হন।

 

লাকসাম হাইওয়ে ক্রসিং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মাসুদুর রহমান জানান, নোয়াখালী থেকে ঢাকাগামী একুশে পরিবহনের একটি বাস একই অভিমুখী হিমাচল পরিবহনের বাসকে অতিক্রম করতে গিয়ে অটোরিকশাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে অটোরিকশায় থাকা রুহুল আমিন, তার স্ত্রী শেফালী আক্তার নিহত ও সায়মা মুনতাহা আহত হন। দ্রুত উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

 

এছাড়া দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অটোচালক। তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। হাইওয়ে পুলিশ দুর্ঘটনাকবলিত বাস ও লাশ উদ্ধার করেছে বলে জানান মাসুদুর রহমান।

 

খবর প্রতিদিন / সি.বা  


আরও খবর



গাজীপুরে ৩০ সেকেন্ডেই মা-মেয়ের জীবন শেষ করল দুই খুনি

প্রকাশিত:Saturday ২৭ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ২৫৫জন দেখেছেন
ডেস্ক এডিটর

Image

 

 

 গাজীপুরে মা-মেয়েকে গলা কেটে হত্যার রহস্য ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে উদঘাটন করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে দুই খুনিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মাত্র ৩০-৪০ সেকেন্ডেই মা-মেয়েকে হত্যা করা হয় বলে জানিয়েছেন তারা।

 

জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার সালদিয়া গ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা হলেন- একই গ্রামের সাত্তার খানের ছেলে জাহিদুল ইসলাম ও মনির হোসেনের ছেলে মহিউদ্দিন ওরফে বাবু।

শনিবার দুপুরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর দফতরে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) মো. জাকির হাসান।

তিনি জানান, ১২ বছর আগে রাজশাহী জেলার বাসিন্দা জয়নাল আবেদীনের সঙ্গে ফেরদৌসীর বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ১১ বছরের মেয়ে হাফসা ও চার বছরের তাসমিয়া রয়েছে। কিন্তু বনিবনা না হওয়ায় স্বামীকে তালাক দিয়ে বাবার বাড়িতে চলে আসেন ফেরদৌসী। এরপর মোবাইল ফোনে পরিচয়ের মাধ্যমে তিন বছর আগে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রবিউল ইসলামের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। রবিউলেরও আরেক সংসার ছিল। কিন্তু দুই বছর আগে তার সঙ্গেও ফেরদৌসীর ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

 

এরপর দুই মেয়েকে নিয়ে হাড়িনাল এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে গার্ডিয়ান লাইফ ইনস্যুরেন্স লিমিটেডে চাকরি করেন। এছাড়া তিন মাস আগে স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয় বাবুর। পরে ফেরদৌসীর সহায়তায় একই কোম্পানিতে চাকরি নেন বাবু। কিন্তু বিচ্ছেদের ঘটনায় ফেরদৌসীকেই দায়ী মনে করেন তিনি। আর এ প্রতিশোধ নিতেই হত্যার পরিকল্পনা।

 

পরিকল্পনা অনুযায়ী বুধবার সন্ধ্যায় ইনস্যুরেন্সের টাকা দেওয়ার কথা বলে মোবাইল ফোনে ফেরদৌসীকে ডাকেন বাবুর বন্ধু জাহিদুল। ফোন পেয়ে মেয়ে তাসমিয়াকে নিয়ে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের দেশীপাড়া এলাকায় যান ফেরদৌসী। সেখানে যেতেই তাকে ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কাটেন জাহিদুল ও বাবু। মাকে রক্তাক্ত দেখে চিৎকার করলে মেয়েকেও গলা কেটে হত্যা করেন তারা। দুটি খুন করতে তারা সময় নেন মাত্র ৩০-৪০ সেকেন্ড। এরপর তারা মোটরসাইকেলে পালিয়ে যান।

বুধবার রাতে দেশীপাড়া এলাকায় সড়কের পাশে মা-মেয়ের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন এক কেয়ারটেকার। পরে লাশ দুটি উদ্ধার করে পুলিশ।

 

নিহতরা হলেন- গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার জাঙ্গালীয়া ইউনিয়নের বড়াইয়া গ্রামের বাছির উদ্দিন বছুর মেয়ে ফেরদৌসী আক্তার ও তার চার বছর বয়সী মেয়ে তাসমিয়া আক্তার। ফেরদৌসী স্থানীয় চান্দনা চৌরাস্তার এলাকার গার্ডিয়ান লাইফ ইনস্যুরেন্স লিমিটেডের মাঠকর্মী হিসেবে কাজ করতেন।

-খবর প্রতিদিন/ সি.বা


আরও খবর



বিয়ের পর দিন ধর্ষণ মামলায় বর গ্রেপ্তার

পরোকিয়া প্রেমিকের ধর্ষণ মামলায় বিয়ের পর দিন বর গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:Monday ০১ November ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৯ November ২০২১ | ৩১৫জন দেখেছেন
Image



আমিরুল হক, নীলফামারী :

 

নীলফামারীর সৈয়দপুরে বিয়ের পরের দিনেই ধর্ষণ মামলায় বরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার (১ নভেম্বর) দুপুরে নিজ বাসা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার বর শাহীন বাবু (৪০) শহরের গোলাহাট এলাকার মৃত আসগার আলীর ছেলে। মামলার বাদী দিনাজপুরের খানসামার খলিপা পাড়ার কাশেম আলীর মেয়ে গার্মেন্টস কর্মী মিনু আক্তার (৩৫)।

পুলিশ জানায়, মিনু আক্তারের সাথে শাহীন বাবুরর দীর্ঘদিনের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। বিয়ের প্রলোভনে তাঁকে একাধিবার ধর্ষণ করে বাবু। গত রবিবার রাতে মিনু থানায় এসে তাঁর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেন। পরের দিন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তারেক মাহমুদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

মামলার বাদী মিনু আক্তার বলেন, শাহীন বাবুর সাথে আমার দশ বছর ধরে সম্পর্ক চলে আসছে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয়ায় আমি স্বামী সংসার ছেড়েছি। স্বামী- স্ত্রী পরিচয় দিয়ে ঢাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন একসাথে থেকেছি। কিন্তু সে আমার সাথে প্রতারণা করে অন্য একজনকে বিয়ে করেছে।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে তাঁকে ওইদিনেই জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

 

খবর প্রতিদিন /সি.বা 


আরও খবর