Logo
আজঃ Monday ২৭ June ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা নাসিরনগরে মুক্তিযোদ্বাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন পদ্মা সেতু দেখানোর কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ জুরাইনে পাশের বাড়ির উপড় ধসে পড়েছে সেই ঝুকিপুর্ন ভবনটি
আমরা আজকে ফেসবুকে যা নিয়ে কথা বার্তা বলছি সেটাই বুঝি বাংলাদেশ

বাংলাদেশের প্রায় ১২ কোটি মানুষের কোন আগ্রহই নেই ফেসবুকে

প্রকাশিত:Sunday ১০ October ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৬৫৩জন দেখেছেন
Image


 

Solaiman Shukhon  এর পেইজ থেকে নেয়া

 

 

আমরা ঢাকা বা কিছু বিভাগীয় শহরে বাস করা মানুষজন নিজেদেরকে বেশ খানিকটা পন্ডিত মনে করি |আমরা ভাবি আমরা আজকে ফেসবুকে যা নিয়ে কথা বার্তা বলছি সেটাই বুঝি বাংলাদেশ |

 

বাংলাদেশের প্রায় ১২ কোটি মানুষের কোনো অংশগ্রহণ এবং আগ্রহই নেই এসবে |

অধিকাংশ বাংলাদেশিদের মনোযোগ তার গ্রাম তার ধানক্ষেত তার মাছ ধরার নৌকা কিংবা বিদেশে কাজ করতে যাওয়া ছেলেকে নিয়ে |

 

শহরের কিছু মানুষ ফোনের স্ক্রিনে কি দেখে হাহা হিহি করছে সেটা এখনো বাংলাদেশকে রিপ্রেসেন্ট করে না | শহরের আমরা নিজেদের যতটা পন্ডিত মনে করি আমরা আসলে ততটা পন্ডিত না 🙂|

 

 

 

 


আরও খবর



টানা দুই সেঞ্চুরিতে র‌্যাংকিংয়ে সিংহাসন পুনরুদ্ধার রুটের

প্রকাশিত:Wednesday ১৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
Image

লর্ডস এবং ট্রেন্টব্রিজ- দুই টেস্টে টানা দুই সেঞ্চুরি। এর ফলও হাতেনাতে পেয়ে গেলেন ইংলিশ ব্যাটার জো রুট। আইসিসি টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে ব্যাটারদের তালিকায় শীর্ষে উঠে এলেন তিনি। অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটার মার্নাস ল্যাবুশেনকে নামিয়ে দিলেন দ্বিতীয় স্থানে।

জো রুট লর্ডসে খেলেছেন ম্যাচজয়ী অপরাজিত ১১৫ রানের ইনিংস। ট্রেন্টব্রিজ টেস্টের প্রথম ইনিংসে খেলেছেন অনবদ্য ১৭৬ রানের ইনিংস। লর্ডস টেস্টের ১১৫ রান দিয়েই চতুর্থ স্থান থেকে একলাফে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছিলেন তিনি। এবার চলে এলেন শীর্ষে।

গত ডিসেম্বরেই মার্নাস ল্যাবুশেনের কাছে শীর্ষস্থান হারিয়েছিলেন জো রুট। ৬ মাস পর আবারও তিনি হারানো সিংহাসন ফিরে পেলেন। নেতৃত্ব ছেড়ে আসার পর যেন খোলস ছেড়ে বেরিয়ে এসেছেন ইংল্যান্ডের সাবেক এই অধিনায়ক।

লর্ডস টেস্টের পর প্রকাশিত র‌্যাংকিংয়ে রুট ছিলেন দ্বিতীয় স্থানে। অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটার মার্নাস ল্যাবুশেনের চেয়ে পিছিয়ে ছিলেন ১০ রেটিং পয়েন্ট। ট্রেন্টব্রিজ টেস্টে ১৭৬ রান করে রুটের রেটিং পয়েন্ট গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৮৯৭-এ। অর্থ্যাৎ ল্যাবুশেনের চেয়ে ৫ পয়েন্ট বেশি।

babor Azam

সম্প্রতি তিনি দ্বিতীয় ইংলিশ ব্যাটার হিসেবে টেস্টে ১০ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন। হোম সিরিজে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে যে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছে তা তার ব্যাটিং দেখেই বোঝা যাচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ রয়েছেন তৃতীয় স্থানে এবং পাকিস্তানের বাবর আজম রয়েছেন চতুর্থ স্থানে। এছাড়া নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেনে উইলিয়ামসন রয়েছেন পঞ্চম স্থানে।

তবে, মার্নাস ল্যাবুশেনের সামনে সুযোগ থাকছে জো রুটকে আবারও পেছনে ফেলে শীর্ষস্থান দখল করার জন্য। কারণ, এই মাসের শেষেই শ্রীলঙ্কার মাটিতে স্বাগতিকদের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে নামবে অস্ট্রেলিয়া।

রুটের সামনেও সুযোগ আছে। কারণ, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় টেস্ট ম্যাচটি এখনও বাকি রয়েছে। এরপর রয়েছে ভারতের বিপক্ষে এক ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ইংলিশরা খেলবে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ।

নিউজিল্যান্ডের ড্যারিল মিচেল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ট্রেন্টব্রিজ টেস্টে ১৯০ এবং ৬৯ রানের দুটি ইনিংস খেলে একলাফে ৩৩ ধাপ এগিয়েছেন। এখন তিনি অবস্থান করছেন ১৭তম স্থানে।

ট্রেন্টব্রিজ টেস্টে ৫ উইকেট নিয়ে র‌্যাংকিংয়ে লাফ দিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের পেসার ট্রেন্ট বোল্টও। চারধাপ এগিয়ে তিনি এখন অবস্থান করছেন ৯ম স্থানে। কাইল জেমিসন এবং টিম সাউধি নেমে গেছে ৬ষ্ঠ এবং ১৩তম স্থানে।

ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে বিরাট কোহলিকে পেছনে ফেলে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছেন পাকিস্তানের ইমাম-উল হক। ক্যারিয়ারের সেরা রেটিং ৮১৫ পয়েন্ট অর্জন করেছেন তিনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে তিনটি হাফ সেঞ্চুরিতে ১৯৯ রান করেন তিনি। যার সুবাধে জিতেছেন ম্যান অব দ্য সিরিজের পুরস্কারও।

পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম একই সঙ্গে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টির ব্যাটারদের র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষস্থান দখল করে রয়েছেন।


আরও খবর



দেশে দেশে বাড়ছে মূল্যস্ফীতির হার, কঠিন হবে নিয়ন্ত্রণ

প্রকাশিত:Saturday ২৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
Image

বার্ষিকভিত্তিতে ধনী দেশগুলোতে ভোক্তা মূল্যসূচক বেড়েছে নয় শতাংশের বেশি। এটি ১৯৮০ সালের পর সর্বোচ্চ। চলমান উচ্চ মূল্যস্ফীতি নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে উদ্বেগ বিরাজ করছে। মূল্যস্ফীতি আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের মূল্যস্ফীতি এরই মধ্যে প্রত্যাশাকে ছাড়িয়ে গেছে। এতে দেশটির বাজারে চরম অস্থিরতা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে সুদের হার বাড়িয়েছে ফেডারেল রিজার্ভ। মানুষকে বোঝানোর চেষ্টা করা হচ্ছে যে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নিচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। তবে বিদ্যমান নানা কারণে মনে হচ্ছে মানুষের মনে পরিবর্তন আনা খুব বেশি কঠিন হবে।

বিশেষজ্ঞ ও সাধারণ গোষ্ঠীর দৃষ্টিভঙ্গির মধ্যে পার্থক্য দেখা যাচ্ছে। অর্থনীতিবিদ বার্নার্দো ক্যান্ডিয়া, অলিভিয়ার কোইবিওন ও ইউরি গোরোদনিচেঙ্কো আমেরিকার চারটি গ্রুপের মুদ্রাস্ফীতির প্রত্যাশার দিকে নজর দিয়েছেন। অর্থনীতিবিদ ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পূর্বাভাস ও লক্ষ্য হলো মূল্যস্ফীতি দুই শতাংশের মধ্যে রাখা। কিন্তু ভোক্তাদের বিশ্বাস মূল্যস্ফীতি আগামী বছরও পাঁচ শতাংশ থাকবে। তাছাড়া এরই মধ্যে পণ্যের মূল্য ও মজুরি বেড়েছে।

শুধু যুক্তরাষ্ট্র নয় বিশ্বজুড়ে মূল্যস্ফীতির প্রকোপ দেখা যাচ্ছে। ক্লিভল্যান্ড ফেড, মর্নিং কনসাল্ট, একটি কনসালটেন্সি ও ব্র্যান্ডেস ইউনিভার্সিটির রাফেল শোয়েনল বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের মূল্যস্ফীতির প্রত্যাশা নিয়ে তথ্য সংগ্রহ করছে। ২০২১ সালের মে মাসে উত্তর দাতারা জানায়, মধ্যম আয়ের দেশগুলোতে মূল্যস্ফীতি আগামী বছরও দুই দশমিক তিন শতাংশ থাকতে পারে। এখন তাদের প্রত্যাশা এই হার চার দশমিক দুই শতাংশ হতে পারে।

বর্তমান প্রত্যাশিত মূল্যস্ফীতিকে কমিয়ে আনাটাই এখন কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর প্রধান চ্যালেঞ্জ। কারণ অর্থনৈতিক সাংবাদিক ও বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি অনেক মানুষ তাদের দিকে তাকিয়ে রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের দুই-পাঁচ শতাংশ মানুষ মনে করে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মূল্যস্ফীতির লক্ষ্যমাত্রা বহু গুণে ছাড়িয়ে গেছে।

মহামারির আগের বছরগুলোতে আর্থিক নীতির প্রতি জনগণের উদাসীনতা খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছিল না। তবে সে সময় মূল্যস্ফীতি কম ও স্থিতিশীল ছিল। এখন এটি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। পণ্যের মূল্য আকাশচুম্বী হওয়ায় মূল্যস্ফীতি এখন শিরোনাম হচ্ছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকারদের পদক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নাও আসতে পারে। সুদের হার বাড়ানো হলেও তার প্রভাব বাজারে পড়ছে না। অনেক আমেরিকানরা বিশ্বাস করেন যে ব্যাংকগুলোর পদক্ষেপে মূল্যস্ফীতি কমবে না বরং বাড়বে।

এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠেছে তাহলে অন্য আর কী পদক্ষেপ নেওয়া যাবে। এক্ষেত্রে অনেক বিকল্প রয়েছে। প্রথমটি হলো অপ্রত্যাশিত ঘোষণা। এটি নির্ধারিত বৈঠকের বাইরে সুদের হার বাড়ানোকে ফলপ্রসূ করতে পারে। চলতি বছরের মে মাসে ভারতের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়। ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকও একই কৌশল অবলম্বন করছে। এক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনাও ভূমিকা পালন করতে পারে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাজনীতিবিদের এগিয়ে আসতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের ৩৭ শতাংশ মানুষ মনে করে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে প্রেসিডেন্টের হাতে এখনো ক্ষমতা রয়েছে। ১৯৭৯ সালে জিমি কার্টার মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে ভোলকারকে নিয়োগ করেন। এতে মনে করা হয় তিনি মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে আগ্রহী। ব্রিটেনে মার্গারেট থ্যাচার ও তার সহযোগীরাও মূল্য স্থিতিশীলতার বিষয়ে কথা বলতেন। এখন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণকে অগ্রাধিকার দেওয়ার কথা বলছেন।

দ্য ইকোনমিস্ট থেকে অনুবাদ করেছেন শাহিন মিয়া


আরও খবর



ছাত্রলীগের প্রশংসায় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা

প্রকাশিত:Monday ১৩ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
Image

সন্তানকে ভর্তি পরীক্ষা দিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নিয়ে আসা অভিভাবকরা মুগ্ধ হয়েছেন ছাত্রলীগের কাজে। শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য এক ডজন সুবিধার ব্যবস্থা করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ। এতে খুশি অভিভাবকরা। আর নেতারা বলছেন, এসব সহায়তার মধ্য দিয়ে ছাত্রলীগ শুভ কাজের উদ্বোধন করেছে।

গত ৩ জুন থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ সেশনের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়। পরীক্ষার সময়ে সহায়তা কেন্দ্র, বাইক সার্ভিস, অভিভাবক ছাউনি, মোবাইল টয়লেট, স্বাস্থ্যসেবা ও চায়ের আপ্যায়নসহ নানান ধরনের সহায়তার ব্যবস্থা করে ছাত্রলীগ।

ছাত্রলীগের নেতাদের কাছে জানা যায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের ২২টি স্থানে শিক্ষার্থী সহায়তা ও তথ্যকেন্দ্র, ৫টি প্রবেশপথে জয় বাংলা বাইক সার্ভিস, চারটি স্থান ও সকল তথ্যকেন্দ্রে সুপেয় পানি, ৮টি স্থানে মোবাইল টয়লেট, ৪টি স্থানে অভিভাবক ছাউনি, ২ স্থানে প্রাথমিক চিকিৎসা ও মধুর ক্যান্টিনে প্রতিবন্ধীদের হুইলচেয়ার ও লজিস্টিকস সরবরাহ করে ছাত্রলীগ। এছাড়া অভিভাবক ছাউনিতে চায়ের ব্যবস্থাও করে ছাত্রলীগ।

jagonews24

ক্যাম্পাসজুড়ে ছাত্রলীগের নানা আলোচনা-সমালোচনা থাকলেও ভর্তি পরীক্ষায় ছাত্রলীগের সহায়তায় সবাই মুগ্ধ হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনও মিডিয়ায় ছাত্রলীগের এ কাজের প্রশংসা করেছেন। এছাড়া বিরোধী ছাত্রসংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরাও ছাত্রলীগের এ কাজের সাধুবাদ জানিয়েছে।

ভর্তিচ্ছু এক পরীক্ষার্থীর অভিভাবক শ্রী রাধানাথ দাশ বলেন, ছেলেকে পরীক্ষা দিতে নিয়ে এসেছি। সিট পড়েছে আইবিএ-তে। ভুল করে কার্জন হলে চলে গেছিলাম। ছাত্রলীগের বাইক সার্ভিসের মাধ্যমে পরীক্ষার হল খুঁজে পেয়েছি। বসার ব্যবস্থাও করেছে তারা।একটু পরে আবার একজন এসে চা দিয়ে গেল। কী যে ভালো লাগলো! ছেলেরা আসলেও খুব কষ্ট করছে।

নোয়াখালীর মাইজদী থেকে পরীক্ষাকেন্দ্রে আসা অভিভাবক কামরুল হুদা কামাল বলেন, সেই কতদূর থেকে এসেছি মেয়েকে নিয়ে। পরপর দুইদিন দুটো পরীক্ষা, বেশ ঝামেলা হতো আমার জন্য। কিন্তু ছাত্রলীগের সহায়তায় খুব সুবিধা হচ্ছে। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ খুঁজে দিয়েছে ছাত্ররা। প্রয়োজন হওয়ায় টয়লেটের ব্যবস্থাও করেছে দেখছি। তাদের থেকে এত বেশি আন্তরিকতা পেয়ে খুব ভালো লাগছে।

jagonews24

উত্তরা থেকে বোনকে নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে এসেছেন মুহসিনা খাতুন। ছাত্রলীগের ব্যবস্থাপনার প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করে তিনি বলেন, জ্যামের আশঙ্কায় খুব ভোরে এসে পৌঁছেছি ক্যাম্পাসে। অস্বস্তি লাগছিল খুব। কিন্তু ছাত্রলীগের ছেলেদের কর্মব্যস্ততা স্বস্তি দিয়েছে। আমার তেমন কোনো সমস্যায় পড়তে হয়নি। কিন্তু যারা সমস্যায় পড়েছে, তাদের সাহায্য করেছে ছাত্রলীগ। একজন মাথা ঘুরে পড়ে গেছিল কিছুক্ষণ আগে। তাকে ফার্স্টএইড দিতে দেখলাম। সবমিলিয়ে দারুণ কাজ হচ্ছে। অভিভাবকদের দুর্দশা লাঘব হয়েছে অনেক।

ফরিদপুর থেকে আসা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমরা এর আগেও বিইউপিতে গিয়েছিলাম। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষই এসব ব্যবস্থা করেছিল। এখানে ছাত্রলীগ করেছে। ছাত্রলীগের সব জায়গায় শুধু বদনাম। মারামারি-হানাহানি, অনেক কিছু। সবকিছুর মধ্যে এটি অবশ্যই একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। তবে এই ব্যবস্থাগুলো বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন করলে আরও বৃহৎ পরিসরে করা যেত বলে আমি মনে করি।

আয়োজনের বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কাছে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা পিতামাতা সমতুল্য। তাই বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত অভিভাবকদের সম্মান জানাতেই ছাত্রলীগ অভিভাবকদের জন্য বিভিন্ন সহায়তার উদ্যোগ নেয়। ভর্তি পরীক্ষায় শিক্ষার্থীদের আস্থার জায়গা অর্জন করেছে ছাত্রলীগ। পরীক্ষা হলে নিয়ে যাওয়ার অনুপযোগী কিন্তু প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র (মোবাইল, ঘড়ি) ছাত্রলীগের কাছে রেখে গেছে। ছাত্রলীগ তা নিরাপদে সংরক্ষণ করে পরীক্ষা শেষে ফেরত দিয়েছে।

jagonews24

এসব কাজের মাধ্যমে ছাত্রলীগ শুভ কাজের শুভ উদ্বোধন করেছে বলে মন্তব্য করেন ছাত্রলীগের এই নেতা।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ভালো কাজের প্রতিযোগিতা ও শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ানোর মতো শুভ কাজের উদ্বোধন করেছে ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে এ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে।


আরও খবর



শখের বশে মোশাররফের আঙুর চাষ

প্রকাশিত:Monday ০৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৮৮জন দেখেছেন
Image

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের মোশাররফ হোসেন শখের বশে আঙুর চাষ করেন। দ্বিতীয়বারের মতো পরীক্ষামূলক চাষ করে সফল হয়েছেন তিনি। গাছে থোকায় থোকায় আঙুর ফল আসায় আনন্দিত মোশারফ।

সরেজমিনে দেখা যায়, বসত ঘরের একপাশে খালি জমিতে সাদা জাতের আঙুর ফলের গাছ। গাছে থোকায় থোকায় ঝুলে আছে আঙুর ফল। এক একটি থোকায় প্রায় ১৫০-১৭০ গ্রামের মতো ফল ধরেছে, দেখতেও বেশ আকর্ষণীয়। তার চাষাবাদকে এলাকার সবাই বাহবা দিচ্ছে।

পাশের বাড়ির গ্রাম্য চিকিৎসক সঞ্জায় গোয়ালা জাগো নিউজকে বলেন, তার আঙুর ফলের চাষাবাদ প্রশংসার দাবি রাখে। গাছে আঙুর ফল দেখে ভালো লাগছে। রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ছাড়াই আঙুরের ফলন হয়েছে এটা অবাক হওয়ার বিষয়।

তার বন্ধু শুভ যাদব জাগো নিউজকে বলেন, এলাকার এই মাটিতে আঙুর চাষ হয় কিনা এমন চিন্তা মাথায় নিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে মোশাররফ আঙুর চাষ করেন। তিনি সফল হয়েছেন। ওই এলাকায় ব্যাপক হারে আঙুর চাষের সম্ভাবনা রয়েছে।

শখের বশে মোশাররফের আঙুর চাষ

আঙুর চাষি মোশাররফ হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, প্রচলিত অভিজাত ফলের ভেতর আঙুর ফল অন্যতম। মূলত অত্যন্ত রসালো এই ফল স্বাদের কারণে আমাদের নিকট বেশি প্রিয়। তাছাড়া এই ফল আমাদের স্বাস্থ্যের জন্যও অনেক উপকারী। বাজারে গেলেই যেন ফরমালিনযুক্ত ফল পাওয়া যায়। সেই কথা মাথায় রেখে আমার এই উদ্যোগ।

আমি কুলাউড়া শহরের আমার এক আত্মীয় বাড়ি থেকে চারা গাছ এনে চাষ করেছিলাম। তবে এই ফল চাষের প্রধান সমস্যা হচ্ছে ফল টক হয়ে যায়। প্রথমবার ফল বেশি টক ছিল, এবছর স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তার কাছ থেকে কিছু তথ্য পেয়ে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়ায় এবার অনেকটাই টক কমেছে।

বাণিজ্যিকভাবে চাষ করার ইচ্ছা আছে কিনা জানতে চাইলে মোশাররফ বলেন, যদি কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে চাষের পদ্ধতিসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায় তবে ইচ্ছে আছে বাণিজ্যিকভাবে চাষ করার।

শখের বশে মোশাররফের আঙুর চাষ

এ নিয়ে কথা হলে উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. রাকিবুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, আঙুর ফল চাষের জন্য আমাদের হাতে সরকার থেকে তেমন কিছু আসে না ।

তবে কেউ যদি চাষ করে তাহলে যতটুকু সম্ভব আমি তাকে এই ব্যাপারে সহযোগিতা করব এবং সরকার থেকে যদি কোন সাহায্য আসে, তা তিনি পাবে। তিনি আরও বলেন, আঙুর ফল দো-আঁশযুক্ত লালমাটি, পাহাড়ের পাললিক মাটি এবং জৈবিক সার সমৃদ্ধ কাঁকর জাতীয় মাটিতে ভালো জন্মে।

ফল টক বা মিষ্টি মাটি ভেদে এবং আবহাওয়ার কারণে হয়ে থাকে। তবে সঠিক পদ্ধতিতে চাষ করে টকের পরিমাণ কমিয়ে আনা সম্ভব। আঙুর ফলের চাষ করে যারা বেকার রয়েছেন তারা বেকারত্ব দূর করতে পারেন। কম খরচে সঠিকভাবে পরিচর্যা করলে ভালো ফলন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।


আরও খবর



জেলায় জেলায় বিজয় আনন্দ

প্রকাশিত:Saturday ২৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ১৩জন দেখেছেন
Image

খুলল স্বপ্নের দুয়ার। উদ্বোধন হলো সক্ষমতার পদ্মা সেতু। শনিবার (২৫ জুন) দুপুর ১২টার দিকে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সুধী সমাবেশের পর সেতুর ফলক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনকে ঘিরে সেতুর দুই প্রান্তে উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। উৎসবে মেতে ওঠে পুরো দেশ। জেলায় জেলায় র্যালি, আলোচনা সভা ও অনুষ্ঠানসহ নানা কর্মসূচি পালিত হয়।

জাগো নিউজের নিজস্ব প্রতিবেদক, বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক, জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

খুলনা: জেলা স্টেডিয়ামে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান বড় পর্দায় সরাসরি প্রদর্শিত হয়। এসময় সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় কমিশনার মো. শহিদুল ইসলাম, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান ভূঞা, রেঞ্জ ডিআইজি ড. খ. মহিদ উদ্দিন, কেডিএর চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এসএম মিরাজুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, জেলা পরিষদের প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

jagonews24

ঝিনাইদহ: পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে ঘিরে ঝিনাইদয়ে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকালে শহরের প্রেরণা একাত্তর চত্বর থেকে শোভাযাত্রাটি বের করা হয়ে বিভিন্ন সড়ক ঘুরে পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বরে এসে শেষ হয়। পরে সেখানে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় শৈলকূপা-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই, জেলা প্রশাসক মনিরা বেগম, পুলিশ সুপার মুনতাসিরুল ইসলাম, জেলা পরিষদের প্রশাসক কনক কান্তি দাস, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মকবুল হোসেনসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

গোপালগঞ্জ: পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে ঘিরে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে উপজেলা প্রশাসন। সকাল ১০টায় শোভাযাত্রাটি উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে বের হয়ে কেড়াইলকোপা অডিটরিয়ামে গিয়ে শেষ হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আল মামুনের নেতৃত্ব দেন। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।

jagonews24

যশোর: বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রাসহ নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে যশোরে। সকাল থেকে শহরের টাউন হল মাঠে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ উপস্থিত হন। পরে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান। এসময় পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, জেলা পরিষদের প্রশাসক সাইফুজ্জামান পিকুল, পৌরসভার মেয়র মুক্তিযোদ্ধা হায়দার গণি খান পলাশ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কক্সবাজার: পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে ঘিরে কক্সবাজারে নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে বড় পর্দার মধ্যদিয়ে সেতুর উদ্বোধনের অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার দেখানো হয়। এসময় সেতুর ছবি সম্বলিত টি-শার্ট, ক্যাপ মাথায় দিয়ে শত শত মানুষ সেখানে উপস্থিত হন।

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ, পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান, কক্সবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক গিয়াস উদ্দিন, সরকারি মহিলা কলেজ অধ্যক্ষ মো. সোলেমান, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) মাহবুবুল হক মুকুল, জেলা যুবলীগ সভাপতি সোহেল আহমেদ বাহাদুর, জেলা শ্রমিকলীগ সাধারণ সম্পাদক শফিউল্লাহ আনসারী ও জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মারুফ আদনান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

jagonews24

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়: সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ মিলনায়তনে বড় পর্দায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধন সরাসরি প্রদর্শনসহ র্যালি ও মিষ্টি বিতরণ করা হয়েরর্য র্যালিটি ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ থেকে শুরু হয়ে ড. এ আর মল্লিক প্রশাসনিক ভবনের সামনে শেষ হয়।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এসএম মনিরুল হাসান, উপ-উপাচার্য (অ্যাকাডেমিক) অধ্যাপক বেনু কুমার দে, প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. সেলিনা আখতার ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. সজীব কুমার ঘোষ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কলাপাড়া (পটুয়াখালী): পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিন পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় রাখাইন পাড়াগুলোতে পিঠা উৎসবসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সকালে জেলার মিশ্রিপাড়া বৌদ্ধ বিহারে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

jagonews24

মেহেরপুর: জেলায় বর্ণাঢ্য শোভযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। শোভাযাত্রাটি জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়ে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ড. শহীদ সামসুজ্জোহা পার্কে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় জেলা প্রশাসক ড. মুনছুর আলম খান পুলিশ সুপার রাফিউল আলম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক, সহ-সভাপতি অ্যাডভোটেট ইয়ারুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নরসিংদী: শোভাযাত্রা, বড় পর্দায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধন প্রদর্শনসহ দিনভর নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে। জেলা প্রশাসন প্রাঙ্গণ থেকে শোভাযাত্রাটি শুরু হয়ে মুসলেহ উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় জেলা প্রশাসক আবু নঈম মোহাম্মদ মারুফ খান, পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজিম, সিভিল সার্জন নুরুল ইসলাম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোতালিব পাঠান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নড়াইল: র‌্যালি, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আতশবাজির মধ্যদিয়ে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের দিন পালিত হয়। র‌্যালিটি জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্বর থেকে শুরু হয়ে বীরশ্রেষ্ঠ নুর মোহম্মদ স্টেডিয়ামে গিয়ে শেষ হয়। এসময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায়, আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

jagonews24

পঞ্চগড়: পদ্মা সেতুর প্রতিকৃতি ও শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উৎসবে অংশ নেয় মানুষ। জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সামনে থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। শোভাযাত্রায় হাজার হাজার মানুষ অংশ নেয়। পরে শেরে বাংলা মুক্তমঞ্চ ও সরকারি অডিটোরিয়ামে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

রাজবাড়ী: বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উৎসবের শামিল হয় মানুষ। এর আগে বড় পর্দায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শিত হয়। এ সময় জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান, পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামান, সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইব্রাহিম টিটোন, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এসএম শহীদ নূর আকবর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। পরে সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়: বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসন ভবন থেকে শোভাযাত্রাটি শুরু হয়ে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে শেষ হয়।

jagonews24

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার, উপ-উপাচার্য চৌধুরী মো. জাকারিয়া ও অধ্যাপক মো. সুলতান-উল-ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক (অব.) মো. অবায়দুর রহমান প্রামাণিক, প্রক্টর অধ্যাপক মো. আসাবুল হক, ছাত্র উপদেষ্টা এম তারেক নূর, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাণ্ডে প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

টাঙ্গাইল: সকালে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি শোভাযাত্রা বের হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. ফরহাদ হোসেনের নেতৃত্বে শোভাযাত্রাটি প্রশাসনিক ভবনের সামনে বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর ড. মো. সিরাজুল ইসলামসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

কিশোরগঞ্জ: দিনব্যাপী নানা কর্মসূচি পালিত হয়। সকালে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শহরের গুরুত্বপূর্ণ ভবনে আলোকসজ্জা করা হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের মূল সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুরাতন স্টেডিয়ামে গিয়ে শেষ হয়।

jagonews24

এসময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামীম আলম, পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ, জেলা পরিষদের প্রশাসক অ্যাডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এম. এ আফজল, কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহমুদ পারভেজ, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মামুন আল মাসুদ খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পিরোজপুর: জেলায় আনন্দ মিছিল ও বড় পর্দায় সরাসরি পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে দেখানো হয়। মিছিলটি শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বর থেকে শুরু হয়ে স্টেডিয়ামে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে জেলা প্রশাসক মো. জাহেদুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. সাইদুর রহমান, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেবেকা খানম, জেলা যুবলীগের সভাপতি আখতারুজ্জামান ফুলু, জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল আহসান প্রমুখ অনুষ্ঠানে উপভোগ করেন।

রাঙ্গামাটি: পদ্মা সেতুর মাহেন্দ্রক্ষণ উপভোগে বর্ণিল শোভাযাত্রা বের হয়। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জিমনেশিয়াম মাঠে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে বড় পর্দায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের অনুষ্ঠান দেখেন সবাই। পরে সন্ধ্যায় আতজবাজি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।


আরও খবর