Logo
আজঃ বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হলেন নারী উদ্যোক্তা নীলা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ নভেম্বর ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৫১জন দেখেছেন

Image
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ- বাংলাদেশের সিনেমা হল মালিকদের সংগঠন "বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি" এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মনোনীত হয়েছেন সিরাজগঞ্জের সন্তান, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও সিরাজগঞ্জের সিনেমা হল রুটস সিনে ক্লাবের স্বত্বাধিকারী সামিনা ইসলাম নীলা।

সোমবার সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নবনির্বাচিত কমিটির সদস্যদের নাম ঘোষণা করে তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নবনির্বাচিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, ‘চলচ্চিত্রের সুদিন ফিরে এসেছে এবং চলচ্চিত্র শিল্প ঘুরে দাঁড়িয়েছে। সিনেমা হলের সংখ্যা ৬০ থেকে এখন সিনেপ্লেক্সসহ ২শতে দাঁড়িয়েছে। আরও অনেকগুলো সিনেমা হল যেগুলো বন্ধ হয়ে গিয়েছিল সেগুলোর সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে এবং বহুজন সিনেপ্লেক্স করার জন্য উদ্যোগ নিচ্ছে, চিন্তাভাবনা করছে, পরিকল্পনা করছে। চলচ্চিত্র হল মালিকরা এ বিষয়ে আরও এগিয়ে আসবেন এ আমার প্রত্যাশা।’

চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস, নবনির্বাচিত সহসভাপতি আমীর হামজা, সহসম্পাদকদ্বয় ফারুক আহম্মদ ও সামিনা ইসলাম নীলা, আইন সম্পাদক আব্দুল মতিন প্রধান এবং সদস্যদের মধ্যে মো. ঈশা খান, মো. বিল্লাল হোসেন, মো. চাঁন মিয়া, মীর্জা আব্দুল খালেক, ডা. আতিকুর রহমান প্রমুখ সভায় যোগ দেন।

এ বিষয়ে নীলা জানান, বাংলাদেশের একমাত্র নারী উদ্যোক্তা হিসেবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হওয়ায় তিনি গর্বিত। সেই সাথে তিনি বলেন, তার প্রতিষ্ঠান সিরাজগঞ্জের একমাত্র সিনেমা হল 'রুটস সিনেক্লাব' এর মাধ্যমে সিরাজগঞ্জের বিনোদন প্রেমী মানুষের মাঝে সুষ্ঠ বিনোদন পৌছে দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে এবং ভবিষ্যতে এর পরিধি আরও বৃদ্ধি করার পরিকল্পনা রয়েছে। পাশাপাশি তার এই নতুন দায়িত্ব গ্রহণে সকলের ভালবাসায় কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।

আরও খবর



মোরেলগঞ্জে ফিল্মি স্টাইলে শিশু অপহরণ; ৫ জনকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ জানুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৮৯জন দেখেছেন

Image

শেফালী আক্তার রাখি,মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি:বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে প্রকাশ্য দিবালোকে বসতবাড়িতে ঢুকে ফিল্মি স্টাইলে এক শিশু অপহরণ ও ৫ জনকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় শিশুটির খালা জেসমিন আক্তার বাদি হয়ে বুধবার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

অভিযোগে জানাগেছে, হোগলাবুনিয়া ইউনিয়নের হোগলাবুনিয়া গ্রামে মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে মোস্তাফিজুর রহমান হাওলাদারের বসতবাড়িতে জোরপূর্বক জানালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে মালামাল তছনছ ও ভাংচুর চালিয়ে নগদ ৪৫ হাজার টাকা, স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়। সিমান্তবর্তী ইন্দুরকানি উপজেলার বালিপাড়া গ্রামের কামরুল ইসলামের নের্তৃত্বে ২০/২৫ জনের একটি বাহিনী গৃহমালিক মোস্তাফিজুর রহমানের নাতি শিশু কণ্যা মুনতাহার (৫)কে ফিল্মি স্টাইলে অপহরণ করে মোটরসাইকেল যোগে বীরদর্পে চলে যায় দুর্বত্তরা।

এ সময় বাঁধা দিলে হামলাকারিদের এলোপাতাড়ি মারপিট ও কুপিয়ে জখম করে। জখমীরা হলেন মোস্তাফিজুর রহমান হাওলাদারের স্ত্রী হাসিনা বেগম (৬৫), আসাদুজ্জামান হাওলাদার (৪৫), সাইফুল ইসলাম হাওলাদার (৩৫), কলেজ শিক্ষার্থী মারজানা আক্তার (১৮), হিজবুল্লাহ (২৪)কে রক্তাক্ত জখম করে। আহতদের মধ্যে গুরুত্বর জখমী সাই আসাদুজ্জামান হাওলাদার, সাইফুল ইসলাম হাওলাদারকে মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

গৃহকর্তী বৃদ্ধা হাসিনা বেগম বলেন, তার মেয়ে ও জামাতার সাথে বিবাহের পর থেকেই পারিবারিক কলহ লেগে থাকে। মেয়েকে নির্যাতন করে। গতবছর রমজান মাসে মেয়ে জাকিয়া বেগম মারা যায়। তারপর থেকেই তার দুটি শিশু মুনতাহার (৫) ও মুসফিকা (৮)।

আমার কাছেই বড় হয়। এ নিয়ে তার পিতা আদালতে মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞ আদালত শিশুদেরকে আমি (নানী)’র নিকট থাকার নির্দেশনা দেয়। এ ঘটনার জের ধরে বসতবাড়িতে ঢুকে বিভিন্ন মালামাল লুট করে শিশু মুনতাহারকে তুলে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় মোরেলগঞ্জ থানায় কামরুল ইসলামসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দিয়েছে।

এদিকে এ ঘটনায় স্থানীয় গ্রামবাসি জহিরুল ইসলাম হাওলাদার, জেসমিন আক্তার ভূক্তভোগীরা বলেন, প্রকাশ্য দিবালোকে এ ধরনের হামলার কারনে আমরা আতংকে রয়েছি।

প্রশাসনের প্রতি হামলাকারিদের দৃষ্টান্ত মূলক বিচার দাবি করছি।এ বিষয়ে মোরেলগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ সামসুদ্দীন বলেন, শিশুকে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আরও খবর



মির্জাপুরে মোবাইল এর মাধ্যমে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা আত্মসাৎ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর উপজেলায় সরকার প্রদত্ত বয়স্ক ভাতা বিধবা ভাতা এবং প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা একটি প্রতারক চক্র মোবাইলের মাধ্যমে কৌশলে আত্মসাৎ করছে।জানা যায়, যাদের নামে বয়স্ক ভাতা বিধবা ভাতা এবং প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড রয়েছে। সমাজকল্যাণ অফিসের কথা বলে তাদের কাছে ফোন দেওয়া হচ্ছে। তাদের আইডি কার্ড সংশোধন, ডিজিটাল করা, পুরাতন বই নতুন করণ অথবা ভাতার টাকা বৃদ্ধি করার কথা বলে তাদের মোবাইলে একটি মেসেজ পাঠানো হচ্ছে এবং মেসেজে প্রদত্ত ৬ ডিজিটের সংখ্যা জানতে চাওয়া হচ্ছে। ভাতাগ্ৰহি যে সমস্ত লোক তাদের কথায় প্রলুব্ধ হয়ে সাড়া দিচ্ছে তাদের মোবাইলে থাকা নগদ একাউন্টের সব টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ইতিমধ্যে, আনাই তারা ইউনিয়নের বাসিন্দা মোহাম্মদ একাব্বর হোসেনের প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা এবং একই ইউনিয়নের মশা জান গ্রামের মনোয়ারা বেগমের বয়স্ক ভাতার টাকা এই কৌশলে প্রতারক চক্র হাতিয়ে নিয়েছে। আরো বিভিন্ন এলাকার একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে মির্জাপুর উপজেলার সমাজ কল্যাণ কর্মকর্তা মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম সাহেবের কাছে জানতে চাওয়া হলে হলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমাদের কাছে অনেক অভিযোগ জমা পড়েছে। আমরা মাইকিং পোস্টারিং এবং ভাতা গ্রহীতাদের সাথে যোগাযোগ করে সতর্ক করে দিচ্ছি। এই প্রতারক চক্র অনলাইন থেকে ভাতা গ্রোহিতাদের মোবাইল নাম্বার এবং নাম ঠিকানা সংগ্রহ করে থাকে। গণমাধ্যম কর্মীদের উচিত বিষয়টি ব্যাপকভাবে প্রচার করা। যাতে করে সকল ভাতা গ্রহিতারা সতর্ক হয়।


আরও খবর

সন্দ্বীপ থানার ওসি কবীর পিপিএম পদকে ভূষিত

মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




পাকিস্তানে চলছে ভোট/ ইমরান কারাগারে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০৫জন দেখেছেন

Image

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনের ভোট চলছে বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি)। স্থানীয় সময় সকাল ৮টা (বাংলাদেশ সময় ৯টা) থেকে শুরু হয়ে দিনভর চলবে এ ভোটগ্রহণ নতুন সরকার নির্বাচনে।

জানা গেছে, নির্বাচন কমিশনের হিসাব অনুযায়ী, এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৭ হাজার ৮১৬ জনপ্রতিনিধি। আর দেশটিতে মোট ভোটারের সংখ্যা ১২ লাখ ৮০ হাজার। বিপুল সংখ্যক জনগণের ভোটগ্রহণে পাকিস্তানজুড়ে ৯০ হাজার ৬৭৫টি ভোটকেন্দ্র স্থাপিত হয়েছে। এর মধ্যে সাড়ে ২৭ হাজারের বেশি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ এবং প্রায় সাড়ে ১৮ হাজার কেন্দ্রকে অতিঝুঁকিপূর্ণ চিহ্নিত করা হয়েছে।

ভোট চলাকালে নিরাপত্তা নিশ্চিতে মোতায়েন থাকবে সেনাবাহিনী, আধা সামরিক বাহিনী এবং পুলিশের ৫০ হাজার সদস্য। সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে ভোটকেন্দ্রের ৪০০ মিটারের মধ্যে প্রার্থী এবং রাজনৈতিক কর্মীদের অবস্থান না করার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

পাকিস্তানে এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন, বিলাওয়াল ভুট্টোর পিপিপিসহ ছোট-বড় প্রায় ১৪টি রাজনৈতিক দল। তবে নির্বাচনের মাঠে নামতে দেওয়া হয়নি ইমারন খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফকে (পিটিআই)। কয়েকটি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে কারাগারে বন্দি ইমরান। আর এসব মামলার কারণে তাকে নির্বাচনে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কেড়ে নেওয়া হয়েছে তার দলের প্রতীক ব্যাটও। তবে পিটিআই-এর প্রতীক কেড়ে নেওয়ায় দলটির প্রার্থীরা সবাই স্বতন্ত্র হিসেবেই লড়ছেন। দেশটির নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বেশিরভাগই ইমরান খানের দলের। প্রায় ২৩৬ জন প্রার্থী বিভিন্ন প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র হিসেবে লড়ছেন বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।


আরও খবর



আজ থেকে বন্ধ থাকবে দেশের সব কোচিং সেন্টার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:আজ (১৩ ফেব্রুয়ারি) থেকে ১২ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়,আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাওয়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা সুষ্ঠু, সুন্দর ও প্রশ্নফাঁসের গুজবমুক্তভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে ।

সম্প্রতি জাতীয় মনিটরিং ও আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এসএসসি পরীক্ষা গুজবমুক্ত ও ইতিবাচক পরিবেশে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, কেন্দ্র সচিব ছবি তোলা ও ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধাবিহীন একটি সাধারণ (ফিচার) ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। অননুমোদিত ফোন বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ট্রেজারি-থানা থেকে প্রশ্নপত্র গ্রহণ ও পরিবহন কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা, শিক্ষক, কর্মচারীরা কোনো ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না এবং প্রশ্নপত্র বহন কাজে কালো কাচযুক্ত মাইক্রোবাস বা এমন কোনো যানবাহন ব্যবহার করা যাবে না।

তাছাড়া প্রত্যেক কেন্দ্রের জন্য একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও একজন ট্যাগ অফিসার নিয়োগ প্রদান করা হবে। ট্যাগ অফিসার ট্রেজারি, থানা হেফাজত থেকে কেন্দ্র সচিবসহ প্রশ্ন বের করে পুলিশ প্রহরায় সব সেটের প্রশ্ন কেন্দ্রে নিয়ে যাবেন। পরীক্ষা শুরু হওয়ার ২৫ মিনিট আগে প্রশ্নের সেট কোড ঘোষণা করা হবে। সে অনুযায়ী কেন্দ্র সচিব, ট্যাগ অফিসার ও পুলিশ কর্মকর্তার স্বাক্ষরে প্রশ্নপত্রের প্যাকেট বিধি অনুযায়ী খুলবেন।

এ বছর এসএসসি, দাখিল, এসএসসি-ভোকেশনাল ও দাখিল-ভোকেশনাল পরীক্ষায় মোট ২০ লাখ ২৪ হাজার ১৯২ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে।


আরও খবর



দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা প্রায় ৩০ হাজার মেগাওয়াট

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু জানিয়েছেন বর্তমানে দেশে গ্রিডভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৬ হাজার ৫০৪ মেগাওয়াট; যা ক্যাপটিভ ও অফগ্রিড নবায়নযোগ্য জ্বালানিসহ ২৯ হাজার ৭২৭ মেগাওয়াট বলে  ।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদ অধিবেশনে আওয়ামী লীগের সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান তিনি। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

অধিবেশনে নসরুল হামিদ বলেন, ক্যাপটিভ ও অফগ্রিড নবায়নযোগ্য জ্বালানিসহ বর্তমানে মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৯ হাজার ৭২৭ মেগাওয়াট। আর গ্রিডভিত্তিক উৎপাদন ক্ষমতা ২৬ হাজার ৫০৪ মেগাওয়াট।

এর মধ্যে প্রাকৃতিক গ্যাসভিত্তিক উৎপাদন ক্ষমতা ১১ হাজার ৩৫০ মেগাওয়াট (৪৩ শতাংশ), ফার্নেস অয়েলভিত্তিক ছয় হাজার ৪৯২ মেগাওয়াট (২৪ শতাংশ), ডিজেলভিত্তিক ৮২৬ মেগাওয়াট (৩ শতাংশ), কয়লাভিত্তিক চার হাজার ৪৯১ মেগাওয়াট (১৭ শতাংশ), হাইড্রো ২৩০ মেগাওয়াট (এক শতাংশ), অনগ্রিড সৌর বিদ্যুৎ ৪৫৯ মেগাওয়াট (দুই শতাংশ), বিদ্যুৎ আমদানি দুই ২ হাজার ৬৫৬ মেগাওয়াট (১০ শতাংশ)।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী জানান, চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রাপ্যতা অনুযায়ী উৎপাদন করা হয়ে থাকে। ২০২২-২৩ অর্থবছরে গ্রীষ্মকালে বিদ্যুতের সর্বোচ্চ চাহিদার বিপরীতে ১৯ এপ্রিল সর্বোচ্চ উৎপাদনের পরিমাণ ছিল ১৫ হাজার ৬৪৮ মেগাওয়াট।

শীতকালে বিদ্যুতের চাহিদা কমে যাওয়ায় এ বছর শীতকালে বিদ্যুতের সর্বোচ্চ উৎপাদন ১০ হাজার থেকে ১২ হাজার মেগাওয়াটে নেমে আসে। আসন্ন গ্রীষ্মকালে বিদ্যুতের সম্ভাব্য চাহিদার পরিমাণ প্রায় ১৭ হাজার ৫০০ মেগাওয়াটে উন্নীত হবে।


আরও খবর