Logo
আজঃ Tuesday ২৮ June ২০২২
শিরোনাম
নাসিরনগরে বন্যার্তদের মাঝে ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ রাজধানীর মাতুয়াইলে পদ্মাসেতু উদ্ধোধন উপলক্ষে দোয়া মাহফিল রূপগঞ্জে ভূমি অফিসে চোর রূপগঞ্জে গৃহবধূর বাড়িতে হামলা ভাংচুর লুটপাট ॥ শ্লীলতাহানী নাসিরনগরে পুকুরের মালিকানা নিয়ে দু পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৪ পদ্মা সেতু উদ্ভোধন উপলক্ষে শশী আক্তার শাহীনার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল করোনা শনাক্ত বেড়েছে, মৃত্যু ২ জনের র‍্যাব-১১ অভিমান চালিয়ে ৯৬ কেজি গাঁজা,১৩৪৬০ পিস ইয়াবাসহ ৬ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে বন্যাকবলিত ভাটি অঞ্চল পরিদর্শন করেন এমপি সংগ্রাম পদ্মা সেতু উদ্বোধনে রূপগঞ্জে আনন্দ উৎসব সভা ॥ শোভাযাত্রা

বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌ রুটে ঘরমুখো মানুষের ভিড়

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ April ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৮ June ২০২২ | ২৩৭জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

ঈদকেসামনেরেখে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌ রুটে ঘরমুখো মানুষের ভিড় বাড়ছে। বুধবার (২৭ এপ্রিল) ভোর থেকে চাপ বেড়েছে শিমুলিয়া ঘাটে। এ রুটে আটটি ফেরি থাকলেও এখন পাঁচটি ফেরি চলাচল করছে। পরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে আছে যাত্রী ও যানবাহন। সকালে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ফেরি বেগম রোকেয়া সার্ভিসিং পয়েন্টে চলে যায়।


সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌ রুটে এখন পর্যন্ত পাঁচটি ফেরি চলাচল করছে। মাঝিকান্দি-শিমুলিয়া রুটে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে আরও দুটি ফেরি। ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে ততোই যাত্রীদের ভিড় বাড়ছে। ফলে এ রুটে ফেরি না বাড়ালে ভোগান্তিতে পড়তে হবে যাত্রীদের। তবে সকাল থেকে লঞ্চ ও স্পিডবোটে যাত্রীদের নদী পার হতে দেখা গেছে।



সরেজমিনে দেখা গেছে, শিমুলিয়া থেকে আসা ফেরিতে মোটরসাইকেলের সংখ্যাই বেশি। মাত্র পাঁচটি ফেরি চলাচল করায় ঘাটে আসা যানবাহনগুলোকে দীর্ঘ সময় ফেরির জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে।


বিআইডব্লিউটিসি সূত্র জানায়, এ নৌ রুটে আরও দুটি মিডিয়াম ফেরিসহ তিনটি ফেরি যুক্ত হচ্ছে। শিমুলিয়ার উদ্দেশ্যে ফেরি তিনটি রওনা দিয়েছে। এদিকে সোমবার রাতে কুঞ্জলতা ফেরি দিয়ে ট্রায়াল দেওয়া হয়েছিল। চাপ বাড়লে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া রুটে ২৪ ঘণ্টা ফেরি সার্ভিস শুরু হবে। এ নৌ রুটে কে-টাইপ ফেরি কুমিল্লা, কুঞ্জলতা, ক্যামেলিয়া, কর্ণফুলী ও রোরো ফেরি বেগম সুফিয়া কামাল চলছে। এছাড়াও মিডিয়াম ফেরি কদম, বেগম রোকেয়া ও ছোট ফেরি ফরিদপুর যুক্ত হবে ঈদের ছুটি শুরুর আগেই।



আরও খবর



নেপালের মেলায় যাচ্ছেন ২০ ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা

প্রকাশিত:Tuesday ১৪ June ২০২২ | হালনাগাদ:Sunday ২৬ June ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
Image

নেপাল চেম্বার এক্সপো ২০২২- এ অংশ নেওয়ার সুযোগ পেয়েছেন ২০ জন ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা। আগামী ১৬ থেকে ২০ জুন নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ভ্রিকুতিমন্ডপ এক্সিবিশন হলে পাঁচ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক মেলার আয়োজন করেছে নেপাল চেম্বার অব কমার্স। বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর সহায়তায় আয়োজিত মেলায় অংশ নিতে ২০ জন ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাকে সহায়তা করছে এসএমই ফাউন্ডেশন।

মেলায় অংশ নেওয়া উদ্যোক্তাদের মধ্যে ১৬ জন নারী ও চারজন পুরুষ। কোভিড-১৯ এর কারণে গত দুই বছরে কুটির, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উদ্যোক্তারা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এছাড়া এসএমই উদ্যোক্তারা তাদের পণ্যের বাজারজাতকরণেও অনেক পিছিয়ে আছেন। প্রতিকূল পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে সহায়তার অংশ হিসেবে এসএমই উদ্যোক্তাদের পণ্যের বাজার সম্প্রসারণ, পণ্যের প্রচার এবং আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে দেশী পণ্যের বাজার সৃষ্টির লক্ষ্যে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী পণ্য (তাঁত, সিল্ক, মসলিন, বিভিন্ন টাই-ডাই করা পোশাক, হোম ডেকর, জুয়েলারি, কাঁথা, চামড়াজাত পণ্য) প্রস্তুতকারী উদ্যোক্তাদের রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) মাধ্যমে নেপাল চেম্বার এক্সপো ২০২২-এ বিনামূল্যে অংশগ্রহণে সহায়তা করেছে এসএমই ফাউন্ডেশন।

এসএমই ফাউন্ডেশনের কর্মপরিকল্পনার অংশ হিসেবে এসএমই পণ্যের প্রচার, প্রসার ও বাজার সম্প্রসারণের লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক মেলায় অংশগ্রহণে সহায়তা কর্মসূচির অংশ হিসেবে উদ্যোক্তাদের এই সহায়তা দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য অনেক সম্ভাবনাময়। একক দেশ হিসেবে নেপাল বাংলাদেশের পণ্যের গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্যস্থল।

পঞ্চমবারের মতো আয়োজিত এই এক্সপোতে নেপাল ও বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের উদ্যোক্তারা ১৫০টি স্টলে তাদের পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি সুযোগ পাবেন।

এ মেলায় অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে কাঠমুন্ডুতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস নানাভাবে সহায়তা করছে। সেজন্য নেপালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছে এসএমই ফাউন্ডেশন।

এসএমই ফাউন্ডেশন বিশ্বাস করে, এই মেলায় অংশ নিয়ে এসএমই উদ্যোক্তাগণ নিজেরা যেমন উপকৃত হবেন, তেমনই নেপালের স্থানীয় বাজারে ভবিষ্যতে এসএমই পণ্য রপ্তানির বিরাট সুযোগ সৃষ্টি হবে।

এখন পর্যন্ত এসএমই ফাউন্ডেশনের সহায়তায় ২৭৩ জন ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা চীন, জাপান, কাতার, ভারত, জার্মানি ও নেপালে আন্তর্জাতিক মেলায় নিজেদের পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রয়ের সুযোগ পেয়েছেন।


আরও খবর



ইয়ামাহাকে টেক্কা দিতে হোন্ডার নতুন স্কুটার

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
Image

প্রতিযোগিতার বাজারে একের পর এক বাইক নিয়ে হাজির হচ্ছে নির্মাতা সংস্থাগুলো। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় অ্যাগ্রেসিভ এবং শার্প ডিজাইনের জন্য ব্যাপক জনপ্রিয় হোন্ডা ভেরিও। আর্ন্তজাতিক বাজারে ১২৫ সিসি ও ১৬০ সিসি ইঞ্জিন অপশনে পাওয়া যাচ্ছে স্কুটারটি।

এবার ভারতীয় বাজারে ভেরিওর সবচেয়ে পাওয়ারফুল মডেল বাজারে আনছে হোন্ডা। যা ইয়ামাহার অ্যারক্স ১৫৫-কে টেক্কা দেবে বলেই মনে করছেন বাজার বিশ্লেষকরা। হোন্ডা ভেরিও ১৬০ স্কুটারটি গারজিয়ার মতো স্পোর্টি ডিজাইন এবং তীক্ষ্ণ বডিওয়ার্ক দেওয়া হয়েছে।

অ্যাগ্রেসিভ এলইডি হেডল্যাম্প এবং শার্প লাইন একে আকর্ষণীয় করে তুলেছে স্কুটারটিকে। পারফরম্যান্সের জন্য হোন্ডা ভেরিও ১৬০-এ আছে ১৬০ সিসির সিঙ্গেল সিলিন্ডার ইঞ্জিন। এর পাওয়ার ইয়ামাহার অ্যারক্স ১৫৫-র সমান হলেও, টর্ক সামান্য বেশি।

হোন্ডা ভেরিও ১৬০ স্কুটারের ইঞ্জিন থেকে ১৫ বিএইচপি ক্ষমতা এবং ১৩.৪ এনএম টর্ক পাওয়া যায়। সাসপেনশন ডিউটির জন্য টু-হুইলারটির সামনে টেলিস্কোপিক ফর্ক এবং পিছনে মনোশক বর্তমান দু’দিকে একটি করে ডিস্ক ব্রেক দেওয়া হয়েছে। ফিচারগুলোর মধ্যে আছে ফুল-এলইডি লাইটিং, ইউএসবি চার্জিং, এবং ডিজিটাল ইনস্ট্রুমেন্ট ক্লাস্টার।


আরও খবর



সীতাকুণ্ডে বিস্ফোরণ: এখনো দাউ দাউ করে জ্বলছে আগুন

প্রকাশিত:Sunday ০৫ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
Image

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে লাগা আগুন এখনো নিয়ন্ত্রণে আসেনি। সেখানে একের পর এক কনটেইনার বিস্ফোরণ হচ্ছে। দাউ দাউ করে জ্বলছে আগুনের লেলিহান শিখা। নিরাপদ দূরত্বে থেকে আগুন নিয়ন্ত্রণের সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা। বর্তমানে কাজ করছেন চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী ও ফেনীর মোট ২৫টি ইউনিটের কর্মীরা।

রোববার (৫ জুন) সকাল পৌনে ৯টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত বিএম কনটেইনার ডিপোতে সরেজমিন এমন চিত্র দেখা গেছে।

CTG-24.jpg

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জানিয়েছেন, শনিবার রাতে আগুন লাগার পর কনটেইনারের সামনে সরাসরি পানির পাইপ ধরে আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা হতাহত হন। এজন্য ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা পাইপ হাতে না ধরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কনটেইনার ডিপোতে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে পানি দিচ্ছেন।

আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করা ফায়ার ফাইটার রাবিক হাসান জাগো নিউজকে বলেন, ‘গতকাল (শনিবার) রাত থেকে টানা কাজ করছি। কোনোভাবেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হচ্ছে না।’

তিনি বলেন, ‘প্রথমে পাইপ নিয়ে কনটেইনারের কাছে গিয়ে আমরা পানি ছিটানোর চেষ্টা করেছিলাম। তবে কাছ থেকে পানি দিতে গেলে বিস্ফোরণে ফায়ার ফাইটাররাও হতাহত হচ্ছেন। সেজন্য নিরাপদ দূরত্বে থেকে কাজ করছি। আমাদের কয়েকজন সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন।’

CTG-24.jpg

এদিকে, বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ আগুনে এ পর্যন্ত ১৮ জন নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে তিনজন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মী। অগ্নিকাণ্ডে আহত হয়েছেন আরও চার শতাধিক। হতাহতদের মধ্যে ডিপোর শ্রমিক, স্থানীয় বাসিন্দাদের পাশাপাশি পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরাও রয়েছেন।

আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের (চমেক) বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। অতিরিক্ত রোগীর চাপে অনেককে ওয়ার্ড ছাড়াও হাসপাতালের মেঝেতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া নগরীর অন্যান্য হাসপাতাল এবং কম্বাইন্ড মিলিটারি হাসপাতালেও (সিএমএইচ) চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল সূত্র জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এছাড়া চট্টগ্রামের সব চিকিৎসকের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকদেরও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ সরকারি হাসপাতালগুলোতে কাজে যোগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন জেলা সিভিল সার্জন।

CTG-24.jpg

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ডিপোতে এসময় প্রায় ৫০ হাজার কনটেইনার ছিল। সেখানে থাকা দাহ্য পদার্থ থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। শনিবার দিনগত রাতে বাতাসের কারণে আগুন বাড়তে থাকে। ডিপো এলাকায় রয়েছে পানি স্বল্পতা।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদর দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (মিডিয়া সেল) মো. শাহজাহান শিকদার জাগো নিউজকে বলেন, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে শনিবার রাত ১১টা ২৫ মিনিটে আগুন লাগার খবর পাওয়া যায়। খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ৮টি ইউনিট এবং পরবর্তীতে আরও ৮টি ইউনিট পৌঁছে কাজ শুরু করে। বর্তমানে ২৫টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রাত পৌনে ১১টার দিকে এক কনটেইনার থেকে অন্য কনটেইনারে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। একটি কনটেইনারে রাসায়নিক থাকায় বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে ঘটনাস্থল থেকে অন্তত চার কিলোমিটার এলাকা কেঁপে ওঠে। আশপাশের বাড়িঘরের জানালার কাচ ভেঙে পড়ে।


আরও খবর



যশোরে মিনারুল হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:Thursday ০২ June 2০২2 | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
Image

যশোরে মিনারুল হত্যা মামলায় ওসমানপুর গ্রামের হাফিজুর রহমানের মৃত্যুদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২ জুন) যশোরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিক এ আদেশ দেন। পিপি অ্যাডভোকেট এম. ইদ্রিস আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত হাফিজুর রহমান ওসমানপুর গ্রামের চান্দালী মোল্লার ছেলে।

আদালত সূত্র জানায়, দণ্ডপ্রাপ্ত হাফিজুর রহমান একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কৃষি বিভাগে কাজ করতেন। তার ছোট ভাই আব্দুল মান্নানের বন্ধু ছিলেন নিহত মিনারুল। স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার অভিযোগে ২০১৯ সালের ১৪ আগস্ট রাতে দা দিয়ে মিনারুলকে কুপিয়ে হত্যা করে। পরে মিনারুলের বড় ভাই আক্তারুজ্জামান বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন। মামলায় ২৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত এ রায় দেন।


আরও খবর



‘গ্যাসক্ষেত্র অনুসন্ধান করতে পারলে জ্বালানি সংকট থাকবে না’

প্রকাশিত:Sunday ২৬ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ২৭ June ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

স্থল ও সমুদ্রে গ্যাসের ব্যাপক সম্ভাবনা থাকার পরও অনুসন্ধান ও উত্তোলনে নেই সরকারি উদ্যোগ। এর ফলে বিদেশ থেকে বেশি দামে জ্বালানি কিনতে হচ্ছে। ২০২২-২৩ অর্থবছরের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বাজেট বরাদ্দ বাড়ানো হলেও তা চাহিদার তুলনায় অপ্রতুল। দুর্নীতি আর সিস্টেম লস কমানোর পাশাপাশি দক্ষতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা না গেলে আগামীতে জ্বালানি খাত ভয়াবহ সংকটের মুখে পড়বে।

রোববার (২৬ জুন) দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে জাতীয় বাজেটে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের প্রতিফলন নিয়ে আলোচনা সভায় এই অভিমত ব্যক্ত করেন বিশেষজ্ঞরা।

সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুনের সঞ্চালনায় সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সংস্থাটির গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম।

গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, ফসিল ফুয়েল থেকে ক্লিন এনার্জির দিকে ধীরে ধীরে যাওয়া উচিত। এটি একবারে করা যাবে না, ধাপে ধাপে করার জিনিস। বেসরকারি খাত এখানে এগিয়ে আসবে এটিই আমাদের প্রত্যাশা। আমরা চাই সরকার বেসরকারি খাতকে সাহায্য করবে। কিন্তু এবার বাজেটে ভোক্তা ও বেসরকারি খাতকে যে সহায়তা করার দরকার ছিল তা পর্যাপ্ত হয়নি বলে আমাদের মনে হয়েছে।

অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগের প্রফেসর ও জ্বালানি বিশেষজ্ঞ বদরুল ইমাম বলেন, শতভাগ বিদ্যুতায়ন বাংলাদেশের অনেক বড় অর্জন। ৫ হাজার থেকে ২৫ হাজার মেগাওয়াট ক্যাপাসিটি করা প্রশংসনীয়। তবে নতুন করে জ্বালানির উৎস খুঁজতে আমাদের সাফল্য নেই। আমাদের দেশীয় গ্যাস ধীরে ধীরে কমে আসছে। আদিকাল থেকে গ্যাসের উৎপাদন ক্রমাগত হারে বাড়ছিল। ২০১৫ সাল পর্যন্ত বেড়েছে। ২০১৬ সালের পর আর বাড়েনি। ২০১৭ সালের পর থেকে এটা কমছে। এটা কমতেই থাকবে। যদি আমরা নতুন গ্যাস ক্ষেত্র আবিষ্কার করতে না পারি, ২০৪০ সালে গ্যাস ব্যবহার একেবারে নগণ্য হয়ে যাবে। এর প্রভাব পড়ে বিদ্যুতে। কিন্তু এটা হওয়ার কথা না।

জ্বালানির সংকটের বিষয়টি একটি ভ্রান্তির উপর দাঁড়িয়ে আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের যে গ্যাস সম্পদ আছে সেটা যথেষ্ট অনুসন্ধান না করে, গ্যাস না তুলে, আমরা অন্যদিকে সমস্যা সমাধানে হাত পা বাড়িয়েছি। যত হাত পা বাড়াচ্ছি, সমস্যা তত বাড়ছে। আমরা গ্যাসক্ষেত্রের অনুসন্ধান করতে পারলে বাংলাদেশে জ্বালানি সংকট থাকবে না।

তিনি আরও বলেন, পেট্রোবাংলার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ইউএসজিএস যৌথ জরিপ করেছে। সেখানে তারা বলছে, বাংলাদেশে ৩২ টিসিএফ গ্যাস আমরা এখনো উত্তোলন করতে পারি। নরওয়ের একটি সংস্থা বলেছে, ৩২ টিসিএফ না ৪২ টিসিএফ গ্যাস এখনো রয়ে গেছে। সম্প্রতি আরেকটি সংস্থা বলছে, ৪০ টিসিএফ গ্যাস আছে। আমাদের জরিপ, বিদেশিদের জরিপ আছে। কেউ বলেনি বাংলাদেশে গ্যাস শেষ হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু একটা কথা উঠেছে দেশে গ্যাস শেষ হয়ে যাচ্ছে, অন্য পন্থায় যেতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পাওয়ার সেলের মহাপরিচলক মোহাম্মদ হোসাইন বলেন, কৃষি-সেচ ও অন্যান্য কিছু খাতে বিদ্যুতে আমরা ভর্তুকি দিচ্ছি। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড লোকসান করে। সেখানেই ভর্তুকি দেওয়া লাগে। বাকিদের দেওয়া লাগে না।

তিনি আরও বলেন, গ্যাসের অভাবে অন্য জ্বালানি দিয়ে আমাদের বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে হয়। যদি তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র না থাকতো তাহলে প্রচুর লোডশেডিং হতো। ভারতে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ভালো উৎস আছে, বাংলাদেশে সেটা নাই। নবায়নযোগ্য জ্বালানির জন্য আমরা সব দরজা খুলে রেখেছি। ২০৪০ সালে নবায়নযোগ্য জ্বালানি ৪০ শতাংশ করতে চাই।


আরও খবর