Logo
আজঃ Wednesday ২৬ January ২০২২
শিরোনাম
অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে সহ-শিল্পীদের নগ্ন ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বিদেশের মাটিতে কৃষিপণ্য সরবরাহ বাড়াণোর লক্ষ্যে : ইরান রাজনৈতিক কঠিন চাপে রয়েছেন মেয়র আরিফুল স্বপ্নের মেট্রোরেল রওনা হলো আগারগাঁওয়ের উদ্দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণে ভারতে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ মুরাদ হাসান এমিরেটসের ফ্লাইটে কানাডা গেলেন সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন রাজশাহীর কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগামী বিশ্বকাপে ব্যাটসম্যানদের উন্নতি দেখতে চান করোনাভাইরাসে আরও ছয়জনের মৃত্যু বিশ্বের ৪৩তম ক্ষমতাধর নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বালু নদে নাব্যতা সংকটে আটকে আছে অসংখ্য বালুবাহী বালুভর্তি বাল্কহেড, কোটি কোটি টাকার লোকসান।

প্রকাশিত:Saturday ১৫ January ২০২২ | হালনাগাদ:Wednesday ২৬ January ২০২২ | ৯৪জন দেখেছেন
Image


মো. বজলুর রহমানঃ

রাজধানীর কোলঘেষা বালু নদে নাব্যতা সংকট দেখা দিয়েছে চরম আকারে। এ কারণে প্রতিনিয়ত ওই নদে আটকে যাচ্ছে বালুবাহী মাঝারি ও বড় বালুভর্তি বাল্কহেড। গত ৫ দিন ধরে ঢাকার ভাটারা থানাধীন বালু নদের বেরাইদ এলাকায় মক্কা মদিনা ৫, টিউলিপ ও অঞ্জুমান-২ নামে ২৬ হাজার ফুটের ৩ টি বড় বড় বাল্কহেড নাব্যতা সংকটে আটকে যাওয়ায় দীর্ঘ প্রায় ২ কিলোমিটার  বাল্কহেড যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।


আর শুস্ক মৌসুমে প্রায়ই এ ধরণের ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ রয়েছে। এতে শীতকালে শত শত কোটি টাকার বাল্কহেড বিনিয়োগকারীদের কোটি কোটি টাকার লোকসান গুণতে হয় বলেও অভিযোগ রয়েছে। একই সঙ্গে বাল্কহেড শ্রমিকের মজুরিতেও চরম ভাটা পড়ে বলে পারিবারিকভাবে তারা অনাহারে অর্ধাহারে দিন কাটায়। এদিকে আটকে পড়া বাল্কহেডের লাখো শ্রমিকরা বিগত করোনাকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলায় এখনো ঋণের বোঝা বইছেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।


সরজমিন দেখা গেছে,শুক্রবার বিকেলেও বেরাইদ বাজার এলকায় নাব্যতা সংকটে বালু নদের পানি কম থাকায় ৪ দিন ধরে আটকে আছে বালুভর্তি ৩ টি বড় বাল্কহেড। এতে করে অন্যান্য শতাধিক বাল্কহেড ওই নদে আটকে গিয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে শ্রমিকরা নদের পঁচা পানির মধ্যেই বন্ধ বাল্কহেডে দিনাতিপাত করছেন। খাওয়া দাওয়া ও নামাজ পড়ছেন বাল্কহেডেই। জটে আটকা পড়ে শ্রমিকরা অলস সময় পাড় করছেন।


এ বিষয়ে রমজান আলী নামে সাদিয়া ২ নামের এক বাল্কহেড শ্রমিক বলেন, গত ৫ দিন ধরে বালু নদের পঁচা পানিতে আটকে মশার কামড় খাচ্ছি। খোরাকির টাকাও নাই হাতে।মালিক বিকাশে টাকা পাঠাচ্ছে আর খাচ্ছি কিন্তু টাকার অভাবে বাড়ির লোকেরা খাওয়ায় কষ্ট করছে। নদিটা গভীর থাকলে সমস্যায় পড়তামনা।


সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, খনন বা ড্রেজিংয়ের অভাবে গত কয়েক বছর ধরে বালু নদে ফকিরখালি, বেরাইদ, নাওড়া ও নগরপাড়া এলাকায় নাব্যতা সংকট দেখা দিয়েছে। এ সব এলাকায় অন্তত ১২ হাত পানির প্রয়োজন হয় বাল্কহেড চলাচল করতে। এক্ষেত্রে এসব এলাকায় এখন ৭ হাত পানি পাওয়া যাচ্ছে। তবে এ নদের ৩১ টি মৌজায় বিআইডাব্লিউটিএ কর্তৃক ২০১৩-১৪ সালে রক্ষণাবেক্ষণ (মেইনট্যানেন্স) ড্রেজিং করা হয়েছে। তারপর আর কোন খনন বা ড্রেজিং করা হয়নি বলে নদের তলদেশ অনেক ভরাট হয়ে গেছে। আর এ নদ দিয়ে বাল্কহেডের মাধ্যমে বালু বহন করে শহরের নি¤œাঞ্চলগুলো ভরাট করে আধুনিক নগরে রূপান্তর করা হচ্ছে। অথচ নাব্যতা সংকটে তা ব্যহত হচ্ছে চরমভাবে। তবে শুস্ক মৌসুমে নাব্যতা সংকটে এ নদ দিয়ে ১২শ’ থেকে ১৬শ’ ফুটের বেশি বড় বাল্কহেড চলাচল করতে পারেনা।  

 

সরেজমিন দেখা গেছে, ঢাকার ক্ষিলগাঁও থানাধীন বালু নদের ইটাখোলা থেকে ইদারকান্দি, ফকিরখালি ও ভাটারা থানাধীন বেরাইদ বাজার এলাকা পর্যন্ত বালুভর্তি বাল্কহেডের দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। আর নাব্যতা সংকটেই গত ৪ দিন ধরে এ যানজট সৃষ্টি হয়েছে বলে তা অপসারণ করা যাচ্ছেনা। এক্ষেত্রে জোয়ারের পানির অপেক্ষায় রয়েছে দীর্ঘ প্রায় দুই মাইলের বাল্কহেড যানজট। তাছাড়া প্রতিবছরই ঢাকার বালুরপাড়, ফকিরখালি, ইদারকান্দি, বেরাইদসহ বালু নদের অধিকাংশ এলাকায় নাব্যতা সংকট দেখা দেয়। নদের তলদেশ ইতিমধ্যে ভরাট হয়ে গেছে।


এ বিষয়ে বেরাইদ বাজার এলাকার বাল্কহেড ব্যবসায়ী আকবর হোসেন বলেন, বড় ৩ টি বাল্কহেড বালু নদে প্রবেশ করায় এ দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তারা জানা সত্বেও কেন এত বড় লোড জাহাজ এ নদ দিয়ে আনল বুঝলামনা। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন।


এ বিষয়ে বেসরকারি সংগঠন বাংলাদেশ পরিবেশ ও নদী রক্ষা উন্নয়ন ফাউন্ডেশন (ইআরপিডিএফ) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান  এইচ এম সুমন বলেন, বালু নদে নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে বৃহৎপরিকল্পনা প্রয়োজন যা নিয়ে আমরা কাজ শুরু করেছি। একই সঙ্গে নদী বাঁচাতে জলাবায়ু ঝুঁকি রাশের লক্ষ্যেও কাজ করছি। সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয় বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষদের নিয়ে দ্রুত জরুরী এসব কাজ সমাধানে সবার এগিয়ে আসতে হবে।


এ বিষয়ে ঘটনাস্থলে টঙ্গী নদী বন্দরের সহকারী সমন্বয় কর্মকর্তা সমর কৃষ্ণ সরকার বলেন, নাব্যতা সংকট বালু নদে চরম। জরুরী ভিত্তিতে খনন প্রয়োজন, প্রয়োজন বৃহৎ পরিকল্পনারও। এত বড় বাল্কহেড যানজট লাগার একমাত্র কারণই হচ্ছে নাব্যতা সংকট।

আর জোয়ারের পানি না আসা পর্যন্ত এ যানজট নিরসন সম্ভব নয়। রোইদ এলাকায় অনেকভাবে চেষ্টা করা হচ্ছে যানজট নিরসনে। এখানে ১২ হাত গভীর পানির প্রয়োজন,অথচ পাওয়া যাচ্ছে ৭ হাত।


আরও খবর



পদ্মা সেতুতে হাঁটলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:Friday ৩১ December ২০২১ | হালনাগাদ:Monday ২৪ January ২০২২ | ১১৮জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: হঠাৎ করেই স্বপ্নের পদ্মা সেতু ঘুরে গেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ শুক্রবার সড়কপথে সকাল ৭টা ২৩ মিনিটে শ্রীনগর উপজেলার দোগাছী পদ্মা সেতু সার্ভিস এরিয়া-১-এ পৌঁছান তিনি। সার্ভিস এরিয়া পরিদর্শন শেষে তিনি গাড়িতে করে পদ্মা সেতু পরিদর্শনে যান। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন ছোট বোন শেখ রেহানা।

পদ্মা সেতুর ওপরে ৭ নম্বর পিলারের কাছ থেকে পায়ে হেঁটে দুটি মডিউল ঘুরে দেখেন প্রধানমন্ত্রী। অর্থাৎ, ৭ নম্বর পিলার হতে তিনি পায়ে হেঁটে ১৮ নম্বর পিলার পর্যন্ত যান। এরপর আবার গাড়িতে করে তিনি পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে ওপারে জাজিরার পদ্মা সেতু সার্ভিস এরিয়া-২ এ যান। সেখানে তিনি তার সঙ্গে থাকা বোন শেখ রেহানাকে নিয়ে নাস্তা করেন। এরপর সেখানে ঘুরে দেখে সকাল ১০টার পর তিনি ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। এসময় তিনি আবারো পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে গাড়ি নিয়ে ঢাকায় ফেরেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছে সেতু সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র।

এসময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আরও ছিলেন কেবিনেট সেক্রেটারি খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক কানী নাহিদ রসুল ও পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের।

চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া থেকে ঢাকায় ফেরার সময় আকাশ পথে পদ্মা সেতু দেখেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তখন হেলিকপ্টার থেকে বঙ্গবন্ধু কন্যার সেতু দর্শনের ভিডিও ধারণ হয়েছিল মোবাইল ক্যামেরায়।


আরও খবর



বাণিজ্যমেলা এবার স্থায়ী ঠিকানায় বসতে যাচ্ছে

প্রকাশিত:Monday ২৭ December ২০২১ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১১৭জন দেখেছেন
Image

শেরেবাংলা নগরের পরিবর্তে প্রথমবারের মতো রাজধানীর পূর্বাচলে বসতে যাচ্ছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা (ডিআইটিএফ)। শেরেবাংলা নগর থেকে পূর্বাচলের দূরত্ব প্রায় ২৫ কিলোমিটার। পূর্বাচলে নবনির্মিত ‘বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে’ বসবে এবারের মেলা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি আগামী ১ জানুয়ারি মেলা উদ্বোধন করবেন।

মেলায় নগরবাসীকে আনা-নেওয়ার জন্য থাকবে বিআরটিসির ৩০টি বাস। খাবারের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রথমবারের মতো ক্যাটারিং সার্ভিস চালু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন। মেলায় পছন্দের পণ্য অগ্রিম ক্রয়াদেশ (অর্ডার) দিলে তা কোম্পানির নিজস্ব উদ্যোগে ক্রেতার ঠিকানায় পৌঁছে দেওয়া হবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ‘প্রথমবারের মতো বাণিজ্যমেলা স্থায়ী ভেন্যুতে হতে যাচ্ছে- এটিই সবচেয়ে বড় বিষয়। দীর্ঘ এক যুগের বেশি সময় ধরে চেষ্টা চলছিল একটি স্থায়ী কমপ্লেক্স নির্মাণের। সেই লক্ষ্য পূরণ হয়েছে।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৯ সালে দায়িত্ব গ্রহণের পরই ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা স্থায়ী কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন। পরে এ প্রকল্পে সহযোগিতার হাত বাড়ায় চীন। বাংলাদেশ ও চীনের যৌথ উদ্যোগে অবশেষে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের পূর্বাচল নতুন শহরে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে ‘বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার’। পূর্বাচল ৪ নম্বর সেক্টরে ২০ একর জমির ওপর ২০১৭ সালের ১৭ অক্টোবর মেলার অবকাঠামো নির্মাণ শুরু করে ‘চায়না স্টেট কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন’। গত বছরের ৩০ নভেম্বর নির্মাণকাজ সম্পন্ন করার ঘোষণা দেয় তারা। ‘চায়না-বাংলাদেশ ফ্রেডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার’ নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ১ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। এর মধ্যে চীনের অনুদান প্রায় ৬২৫ কোটি টাকা। ৩৩ হাজার বর্গমিটারের ‘ফ্লোর স্পেসের’ মধ্যে ভবন নির্মাণ করা হয়েছে ২৪ হাজার ৩৭০ বর্গমিটার জায়গা নিয়ে। এক্সিবিশন হলের আয়তন ১৫ হাজার ৪১৮ বর্গমিটার। এতে ৮০০টি স্টল রয়েছে।


আরও খবর



নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে

প্রকাশিত:Sunday ১৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১১২জন দেখেছেন
Image

নিজস্ব প্রতিবেদক: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। আজ রোববার সকাল ৮টা থেকে শুরু হওয়া এই ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন গঠিত হওয়ার পর এটি তৃতীয় নির্বাচন।

এবার নির্বাচনে মেয়র পদে সাত এবং সাধারণ ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৮২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মোট ভোটার রয়েছেন পাঁচ লাখ ১৭ হাজার ৩৫৭ জন। প্রচার-প্রচারণায় একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেও এ নির্বাচনকে ঘিরে এখন পর্যন্ত কোনো সহিংসতার ঘটনা ঘটেনি।

এই নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাত প্রার্থী। তারা হলেন-আওয়ামী লীগের সেলিনা হায়াৎ আইভী (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার (হাতি), খেলাফত মজলিশের এ বি এম সিরাজুল মামুন (দেয়াল ঘড়ি), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মাও. মো. মাসুম বিল্লাহ (হাতপাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. কামরুল ইসলাম (ঘোড়া), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো. জসীম উদ্দিন (বটগাছ) ও বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মো. রাশেদ ফেরদৌস (হাত ঘড়ি)। এ ছাড়া সিটির ২৭ ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৪৮ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ভোটাররা মনে করছেন, মেয়র পদে মূল লড়াইটা হবে আইভী ও তৈমুরের মধ্যে।

জানা গেছে, মোট ভোটারের দুই লাখ ৫৯ হাজার ৮৪৬ জন পুরুষ ও দুই লাখ ৫৭ হাজার ৫১১ জন নারী। এ ছাড়া তৃতীয় লিঙ্গের চার জন ভোটার রয়েছেন। নগরীর ২৭ ওয়ার্ডের ১৯২ কেন্দ্রের এক হাজার ৩৩৩ কক্ষে ভোটগ্রহণ চলবে। এ জন্য নারায়ণগঞ্জে দুই হাজার ৯১২টি ইভিএম মেশিন আনা হয়েছে। প্রতিটি কেন্দ্রে প্রয়োজনের তুলনায় দেড়গুণ ইভিএম রাখা হবে বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার। শনিবার দুপুর থেকে কেন্দ্রগুলোতে নির্বাচনি সরঞ্জাম পাঠানো শুরু হয়।

স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ১৯২ কেন্দ্রের মধ্যে ৩০টি ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তবে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, ‘সবগুলো কেন্দ্রকেই গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচনায় রেখে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।’

জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বলেন, ‘অবাধ, সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন পরিচালনা করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন পরিচালনায় রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্বে রয়েছেন ঢাকা আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার। সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে রয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাসহ ৯ জন।

তারা হলেন, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মতিয়ুর রহমান, রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান, বন্দর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল কাদির, সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আফরোজা খাতুন, সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ইউসুফ উর রহমান, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ের নির্বাচন কর্মকর্তা প্রতিভা বিশ্বাস, আড়াইহাজার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সুলতানা এলিন, কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল আজিজ ও ডেমরা থানা নির্বাচন কর্মকর্তা আল-আমিন।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে ১৯২ কেন্দ্রের ভেতরে ও বাইরে নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ৫ হাজারেরও বেশি সদস্য নিয়োজিত আছেন। প্রতি কেন্দ্রে আছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ২৬ জন সদস্য। পুলিশের ২৭ ইউনিট স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে আছেন। এ ছাড়া পুলিশের ৬৪টি মোবাইল টিম; প্রতি টিমে একজন এসআইয়ের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্য আছেন। নির্বাচনি মাঠে র‌্যাবের স্ট্রাইকিং ফোর্স ৩, চেকপোস্টে ছয়, টহলে সাত ও দুটি স্ট্যাটিক টিম আছে। এ ছাড়া এই নির্বাচনে আছে বিজিবির ২০ প্লাটুন সদস্য।

নির্বাচনে দায়িত্ব পালনের জন্য ১৪ জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়। পেনাল কোডের অধীনে তারা মামলা নিয়ে সংক্ষিপ্ত বিচারকাজ পরিচালনা করবেন। গত ১৪ জানুয়ারি থেকে আগামী ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত মোট পাঁচদিন নির্বাচনি এলাকায় কাজ করবেন তারা। এ ছাড়া ২৭টি ওয়ার্ডে থাকবেন ২৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) রাত থেকে নির্বাচনি এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ভোটের দিন নির্বাচন কমিশনের অনুমোদন ছাড়া কোনও যান্ত্রিক বাহন চলাচলও নিষিদ্ধ। এ ছাড়া নির্বাচনি এলাকায় সব ধরনের আগ্নেয়াস্ত্র বহন নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

নির্বাচন পর্যবেক্ষণে ৯ সংস্থার ৪২ পর্যবেক্ষককে অনুমোদন দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সংস্থাগুলো হলো-জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরিষদ (জানিপপ), সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন, আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন, সমাজ উন্নয়ন প্রয়াস, তৃণমূল উন্নয়ন সংস্থা, তালতলা যুব উন্নয়ন সংগঠন, রিহাব ফাউন্ডেশন, বিবি আছিয়া ফাউন্ডেশন এবং মানবাধিকার ও সমাজ উন্নয়ন সংস্থা (মওসুস)।


আরও খবর



সকলের অবগতির জন্য,বিশেষ সর্তকিকরণ বিজ্ঞপ্তি

প্রকাশিত:Friday ৩১ December ২০২১ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১৮০জন দেখেছেন
Image


সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে আমার Abdul Hannan নামের ফেসবুক আইডি -টি  গত ২২ অক্টোবর ২০২১ থেকে কে বা কাহারা হ্যাক বা ব্লক করে রেখেছে।দীর্ঘদিন অনেক চেষ্টা করেও আইডিটি উদ্ধার করতে না পেরে অবশেষে আজ নাসিরনগর থানায় সাধারণ ডায়েরী নং ১৮৭৩ দায়ের করিতে বাধ্য হলাম।


আইডির সাথে দুটি পেজ ও ছিল,সেগুলোও উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।কেউ যদি উক্ত আইডি থেকে কাউকে কোন ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাটায়,অথবা কোনরুপ টাকা পয়সা দাবী করে কেউ তাদের কথায় কান দিবেন না অথবা শুনবেন না।যদি কেউ করেন তাহলে নিজ দায়িত্বে  করবেন।

এখন থেকে এই আইডির সাথে আমার কোন সংশ্লিষ্টতা নেই।প্রয়োজনে আমার সাথে এই নাম্ভারে যোগাযোগ করুন,,,০১৭১৭৩৫০৮৭৬। পোষ্টটিকে বেশী করে শেয়ার ও কপি করে পোষ্ট করার জন্য অনুরোধ করছি।


আরও খবর



সরিষায় সতেজ স্বপ্ন কৃষকের

প্রকাশিত:Thursday ০৬ January ২০২২ | হালনাগাদ:Tuesday ২৫ January ২০২২ | ১০৯জন দেখেছেন
Image


মোঃআবুর হোসেন আকাশ

ধনবাড়ী (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি : পৌষের হিমেল বাতাসে দোল খাচ্ছে সারা মাঠজুড়ে হলুদ সরিষার ফুল। প্রকৃতির সাথে হলুদে মাঠ সেঁজেসে রঙিন সমারহে। ফুল থেকে মধু সংগ্রহে ব্যস্ত মৌমাছিরা।


এমন দৃশ্য দেখা যাচ্ছে টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলায়। দুই ফসলি জমিতে সরিষাকে যোগ করে করা হচ্ছে তিন ফসলি জমি। লাভবান হওয়ার আশায় কৃষকরা দেখেছেন সতেজ স্বপ্ন। দিনদিন ভোজ্যতেলের চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় বেশি ফলনের আশায় উচ্চ ফলনশীল জাতের সরিষা আবাদ করছেন কৃষকরা।


উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এ বছর উপজেলায় ৪৩০ হেক্টর জমিতে উচ্চ ফলনশীল বারি জাতের ১৪, ১৫, ১৭ এর পাশাপাশি স্থানীয় জাতের সরিষা আবাদ করেছেন কৃষকরা। যা গত বছরের তুলনায় বেশি। কৃষকদের সরকারিভাবে নানা ধরনের সাহায্য, পরামর্শ এবং প্রদর্শনী প্লট দিয়ে সহযোগিতা করা হচ্ছে। যাতে করে কৃষকরা সরিষা চাষে আগ্রহী হয়ে উঠে।


গতকাল উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, মাঠের পর মাঠ সরিষা। মাঠে হলুদ রঙের সরিষা খেতে হলুদের হাতছানি। ফুলে ফুলে ভরে গেছে খেতগুলো। ফুল থেকে মধু সংগ্রহ করছে মৌমাছিরা। কথা হয় উপজেলা মুশুদ্দি ইউনিয়নের কৃষক মিজানুর রহমানের সাথে। তিনি বলেন, এবার আমি স্থানীয় কৃষি অফিসের পরামর্শে এক একর জমিতে বারি ১৪ জাতের সরিষা আবাদ করেছি। যদি আবহাওয়া অনুকূলে থাকে তাহলে ভালো ফলন পাবো। অপর কৃষক মো. নিয়ামত আলী বলেন, আমন ধান ঘরে তুলেই ৬০ শতাংশ জমিতে উচ্চ ফলনশীল জাতের সরিষা অবাদ করেছি।


ফালনও ভালো। আশা করছি লাভবান হতে পারবো। কয়ড়া এলাকার কৃষক সাখাওয়াত হোসেন বলেন, সরিষা আবাদে খরচ কম। ফলে অল্প খরচই ও কম পরিশ্রমেই সরিষা আবাদ করা যায়। উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মো. ফরিদ হোসেন বলেন, সরিষা অল্প সময়ের ফসল। চলতি মৌসুমে কৃষকরা আমন ধান তুলেই সরিষা আবাদ করেছেন। সরিষা উঠিয়ে কৃষকরা যথা সময়ে বোরো ধান চাষ করতে পারে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মাজেদুল ইসলাম বলেন, ‘কৃষকরা কম খরচে বেশি লাভ হওয়ায় সরিষা আবাদে ঝুঁকছে।


সরিষা আবাদ করলে ওই খেতে বোরো ধান চাষে সারের পরিমাণ কম লাগে। আমাদের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তারা মাঠে গিয়ে কৃষদের পরামর্শ দিচ্ছে। কৃষকদের প্রণোদনার মাধ্যমে সহযোগিতা করা হচ্ছে।’

 


আরও খবর