Logo
আজঃ Monday ০৮ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ডিজিটাল সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ কাউন্সিলর সামসুদ্দিন ভুইয়া সেন্টু ৬৫ নং ওয়ার্ডে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কর্মসুচীতে অংশগ্রহন করেন চান্দিনা থানায় আট কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নাসিরনগরে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ নাসিরনগর বাজারে থানা সংলগ্ন আব্দুল্লাহ মার্কেটে দুই কাপড় দোকানে দুর্ধষ চুরি। ই প্রেস ক্লাব চট্রগ্রাম বিভাগীয় কমিটির মতবিনিময় সম্পন্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৬ কেজি গাঁজাসহ হাইওয়ে পুলিশের হাতে আটক এক। সোনারগাঁয়ে পুলিশ সোর্স নাম করে ডাকাত শাহ আলমের কান্ড নিখোঁজ সংবাদ প্রধানমন্ত্রীর এপিএসের আত্মীয় পরিচয়ে বদলীর নামে ঘুষ বানিজ্য

বাইডেনের স্ত্রী-কন্যাসহ ২৫ মার্কিনির বিরুদ্ধে রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত:Tuesday ২৮ June ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
Image

এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের স্ত্রী এবং কন্যাসহ ২৫ মার্কিন নাগরিকের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে রাশিয়া। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। খবর এএফপির।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, রুশ রাজনৈতিক ও জনসাধারণের বিরুদ্ধে ক্রমাগত বিস্তৃত মার্কিন নিষেধাজ্ঞার প্রতিক্রিয়ার জবাব হিসেবে ২৫ মার্কিন নাগরিককে নিষেধাজ্ঞার তালিকায় রাখা হয়েছে।

এই তালিকায় মেইনের সুসান কলিন্স, কেনটাকির মিচ ম্যাককনেল, আইওয়ার চার্লস গ্রাসলি, নিউইয়র্কের কিরস্টেন গিলিব্র্যান্ডসহ বেশ কয়েকজন মার্কিন সিনেটরের নাম রয়েছে। এছাড়া  বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন অধ্যাপক ও গবেষক এবং যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক সরকারি কর্মকর্তারাও এই তালিকায় রয়েছেন।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, কানাডা, ব্রিটেনসহ বেশ কিছু দেশ রাশিয়ার স্বর্ণ আমদানি নিষিদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে। ইউক্রেন যুদ্ধকে কেন্দ্র করে দেশটির ওপর এর আগেও একের পর এক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে আকস্মিক হামলা চালায় রাশিয়া। তারপর থেকে সংঘাত এখনও চলছে। এর মধ্যেই বেশ কিছু অঞ্চল দখল করে নিয়েছে রুশ বাহিনী। ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যেই আন্তর্জাতিক চাপের মধ্যে রয়েছে মস্কো।


আরও খবর



প্যারিসে ‘প্রবাসীদের প্রত্যাশা’ শীর্ষক সেমিনার

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
Image

তাইজুল ফয়েজ, ফ্রান্স

ইউরো-বাংলা প্রেস ক্লাব কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে ‘প্রবাসীদের প্রত্যাশা’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (২৪ জুলাই) ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে আয়োজিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, বাংলাদেশ বিজনেস কনসাল্টিং ফ্রান্সের সেক্রেটারি কাজী এনায়েত উল্লাহ, আয়ারল্যান্ডে কর্মরত চিকিৎসক ও কলামিস্ট ডা. জিন্নুরাইন জায়গীরদার, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের ইউরোপ ব্যুরো প্রধান আ স ম মাসুম, গ্রেটার সিলেট ডেভেলপমেন্ট ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল ইন ইউকে, নর্থ রিজিওনের সভাপতি হাজী ফয়জুল ইসলাম।

২০১৯ সালে আদি সভ্যতার দেশ গ্রিসের রাজধানী এথেন্সে আন্তর্জাতিক সেমিনারের মাধ্যমে প্রবর্তন করে ‘প্রবাসবন্ধু’ পদক তারই ধারাবাহিকতায় ২০২২ শিল্প-সাহিত্যে সমৃদ্ধশালী দেশ ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে অনুষ্ঠিত সেমিনারে ইউরো-বাংলা প্রেস ক্লাবের’ প্রবাসবন্ধু’ পদকে ভূষিত হন ফ্রান্সের তুলুজে প্রথম স্থায়ী শহীদ মিনার স্থাপনের জন্য।

এছাড়া বাংলাদেশ কমিউনিটি অ্যাসোসিয়েশন তুলুজ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফকরুল আকম সেলিম, সাংবাদিকতা ও কারি শিল্পে বিশেষ অবদান রাখার জন্য, কমনওয়েলথ জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন ইউকের সহ-সভাপতি সৈয়দ নাহাস পাশা, সাংবাদিকতা ও ইস্টহ্যাডস চ্যারিটি সংস্থা প্রতিষ্ঠা করে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অবদান রাখার জন্য লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি নবাব উদ্দিনকে সম্মানন দেওয়া হয়।

সেমিনারে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল এসের সিনিয়র সাংবাদিক নুরে আলম রব্বানী, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের ইউরোপের জয়েন্ট ব্যুরো প্রধান আফজাল হোসেন, অস্ট্রিয়া প্রবাসী দৈনিক জনতার কণ্ঠের সম্পাদক মাইদুল মিয়া, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের কোষাধক্ষ্য সালেহ আহমদ ছাড়াও লন্ডনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে কবি-সাহিত্যিক সাংবাদিকরা অংশ নেন সেমিনারে।

প্রধান অতিথি ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ৪০ বছর ধরে জিডিপির প্রবৃদ্ধি, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ বৃদ্ধি, গ্রামীণ অর্থনীতিকে গতিশীল করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন প্রবাসীরা। ২০৪১ সালে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে এর বড় কৃতিত্ব হচ্ছে প্রবাসী-আয়।

‘প্রবাসীদের প্রত্যাশা’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সেমিনারে নানা সমস্যা সম্ভাবনা বিভিন্ন দাবি তোলা হয়। সরকারের পাশাপাশি প্রবাসীদের হিসেবে নৈতিক দায়িত্ব পালন করে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার সময় এখন।

ইউরো-বাংলা প্রেস ক্লাবের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাংবাদিক, কলামিস্ট, ওসমানী স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত তাইজুল ফয়েজের সভাপতিত্বে সিনিয়র সহ-সভাপতি এম আলী চৌধুরী, বাংলা টিভি ফ্রান্স প্রতিনিধি রাসেল আহমদের পরিচালনায় ২৫ দফা দাবি আন্তর্জাতিক সেমিনারে উপস্থাপন করেন আলতাফুর রহমান, সুজাউদ্দৌলাহ, সৈয়দা তৌফিকা শাহেদ, আলী আজম খান।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন- সুব্রত ভট্টাচার্য শুভ, শাহিন আরমান চৌধুরী, জাকির হোসেন, নাসির আহমদ, আকিল ইব্রাহিম, গোলাম মাহমুদ আজম, সাংবাদিক এনায়েত সোহেল, ইমরান মোহাম্মদ, আলী হোসেন, সাংবাদিক অধ্যাপক অপু আলম, সেমিনারের মূল প্রবন্ধ রচনা করেছেন ইউরো-বাংলা প্রেস ক্লাবের কেন্দ্রীয় সভাপতি তাইজুল ফয়েজ। সেমিনারের পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মো. নাজমুল হক।

এ সময় শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন- ইউরো-বাংলা প্রেস ক্লাব ফ্রান্স শাখার সভাপতি তাজ উদ্দীন, কবিতা পাঠ করেন সাধারণ সম্পাদক কবি সোহেল আহমদ। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক দেবেশ বড়ুয়া, শাহ সোহেল, সোহেল আহমদ, জুয়েল আহমদ, রুবেল আহমদ, এমদাদুল হক রুবেল, এনামুল হক মুন্না, সাহেদ আহমদ, জাকির হোসেন খান, মাইদুল মোহাম্মদ, নাঈম আহমদ, তারেক আহমদ, ময়নুল হক।

অন্যান্যদের মধ্যে মরিয়ম বেগম সুরমা, মৌসুমী চক্রবর্তী, সাকেরা বেগম, রাজিব, তারেক, মিরর ব্যান্ড, অহনা উপস্থিত ছিলেন। ২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ইউরো বাংলা প্রেস ক্লাব প্রতিষ্ঠার পর থেকে সৃজনশীল কাজের মাধ্যমে ইউরোপ তথা বহির্বিশ্বে প্রবাসীদের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছে।


আরও খবর



শাবিপ্রবি ছাত্র হত্যা: আদালতে আবুলের স্বীকারোক্তি

প্রকাশিত:Wednesday ২৭ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ০৪ August ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ছাত্র বুলবুল আহমেদ হত্যার দায় স্বীকার করেছেন আটক আবুল হোসেন।

বুধবার (২৭ জুলাই) বিকেলে সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সুমন ভূঁইয়ার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন তিনি। বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) দেবাশীষ দেবু।

তিনি বলেন, আদালতে আবুল হোসেন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। জবানবন্দি নেওয়া শেষে তাকে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তবে আটক হওয়া অপর আসামি কামরুল ও মো. হাসানকে আদালতে তোলা হয়নি।

সোমবার (২৫ জুলাই) সন্ধ্যা সাতটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে গাজীকালুর টিলায় দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকেন বুলবুল আহমেদ নামে ওই শিক্ষার্থী। পরে তাকে অজ্ঞান অবস্থায় এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে আবুল হোসেনকে আটক করে পুলিশ। তার স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে পরবর্তীতে অভিযান চালিয়ে আরও দুজনকে আটক করা হয়। মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সিলেটের জালালাবাদ থানায় একটি হত্যা মামলা হয়।


আরও খবর



জয়পুরহাটে ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত যুবকের মৃত্যু

প্রকাশিত:Tuesday ২৬ July ২০২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
Image

জয়পুরহাটের ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) সকালে পুরানাপৈলের সারপুকুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর জাহান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানায়, সকালে রাস্তা পার হওয়ার সময় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতযান এক্সপ্রেসের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

ওসি আলমগীর জাহান জানান, স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সান্তাহার রেলওয়ে পুলিশকে জানানো হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে ওই ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া যায়নি বলেও জানান তিনি।


আরও খবর



স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ৫ জনের নামে মামলা

প্রকাশিত:Friday ২২ July 20২২ | হালনাগাদ:Saturday ০৬ August ২০২২ | ১৫জন দেখেছেন
Image

মানিকগঞ্জ সদরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় ৫ জনের নামে মামলা হয়েছে।

শুক্রবার (২২ জুলাই) সকালে ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদি হয়ে সদর থানায় মামলাটি করেন। এর আগে ১৬ জুলাই স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী উপজেলার এক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী।

আসামিরা হলেন, মো. সিয়াম হোসেন (১৮), মো. আকাশ হোসেনে (১৮), মো. রিয়াদ হোসেন (১৮), মো.রাজু মিয়া (১৯) ও মো. ইয়াসিন হোসেন (১৯) । তাদের বাড়ি মানিকগঞ্জ সদর উপজেলায়।

এজহার সূত্রে জানা যায়, ১৬ জুলাই দুপুরে বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে আসামি সিয়াম হোসেন ওই ছাত্রীকে পথ আটকে দাঁড়ায়। এর কিছু পর সিয়ামের সঙ্গে তার বন্ধু আকাশ এগিয়ে আসে। মেয়েটির পক্ষ নিয়ে সিয়াম আকাশকে গালমন্দ করে কৌশলে তাদের বাড়িতে নিয়ে যায়।

এরপর সিয়াম তার তিন বন্ধু রিয়াদ, মো.রাজু মিয়া, ও ইয়াসিন হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে আকাশের বাড়িতে যায়। বন্ধুদের সহযোগিতায় আকাশের ফাঁকা বাড়িতে মেয়েটিকে ধর্ষণ করে সিয়াম। পরে ধর্ষণের ঘটনা কাউকে জানালে মেরে ফেলার ভয় দেখানো হয়।

স্কুলছাত্রীর মা জানান, মেয়ের কাছে ঘটনা জানার পর স্থানীয় মাতবর মহিরউদ্দিনকে জানালে ঘটনার দুইদিন পর সোমবার মামলার কথা বলে কোর্টে নিয়ে যায় এবং কোর্টের ভেতরে মেয়েসহ আমাকে দীর্ঘ সময় বসিয়ে রাখে। এক পর্যায়ে মেডিকেল করার কথা বলে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে পালিয়ে যায়। পরে চিকিৎসা শেষে বুধবার বাড়ি ফিরে পরিবারের সঙ্গে আলোচনা করে শুক্রবার সদর থানায় মামলা করি।

মানিকগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউফ সরকার বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদি হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখ্য করে মামলা করেছেন। আসামিদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। মাতবর মহিরউদ্দিন দোষী হলে তাকেও ছাড়া দেওয়া হবে না।


আরও খবর



যেভাবে গবাদি পশু কৃমির আক্রমণ থেকে রক্ষা করবেন

প্রকাশিত:Wednesday ২০ July ২০22 | হালনাগাদ:Monday ০৮ August ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
Image

মানুষের মতো গবাধি পশুও কৃমিতে আক্রান্ত হয়। দেশের খামারিরা গবাদি পশু পালন করতে গিয়ে কৃমির আক্রমণ নিয়ে সমস্যা পড়েন। তাই জেনে নিতে হবে কৃমি থেকে কিভাবে গবাদি পশুকে রক্ষা করবেন।

কৃমি এক ধরনের পরজীবি। যা পশুর ওপর নির্ভর করে জীবন ধারণ করে। এসব পরজীবি পশুর ফুসফুসে, লিভারে, চোখে, চামড়ায় বাস করে ও পশুর হজমকৃত খাবারে বসে থাকে। অনেক কৃমি পশুর রক্ত চুষে দুর্বল করে ফেলে।

গবাদি পশুর বাসস্থানের জন্য নির্ধারিত স্থানের মাটি শুষ্ক ও আশপাশের জমি থেকে উঁচু হওয়া প্রয়োজন। সম্ভব হলে নদীনালা, খালবিল, হাওর-বাওড় থেকে দূরে করতে হবে। গবাদি পশুর খামারের আশপাশে যেন বৃষ্টির পানি এবং অন্যান্য বর্জ্য জমে না থাকে । খামারের জন্য নির্ধারিত স্থানের মাটিতে বালির ভাগ বেশি হওয়া প্রয়োজন যেন বর্ষাকালে খামারের মেঝে কর্দমাক্ত না হয়।

পশুর মলমূত্র ও আবর্জনা অল্প সময় পরপর পরিষ্কার করতে হবে। লক্ষ্য রাখতে হবে যেন ঘরে মলমূত্র ও আবর্জনা জমা না থাকে। গবাদিপশুর বাসস্থান প্রতিদিন আদর্শ ডিটারজেন্ট দিয়ে ধুয়ে এবং জীবাণুনাশক মেশানো পানি দিয়ে জীবাণুমুক্ত করতে হবে। প্রতি চার মাস পর পর কৃমির ওষুধ নিয়মিত খাওয়াতে হবে। সকালে খালি পেটে কৃমির ওষুধ খাওয়ালে সবচেয়ে ভালো হয়। সকালে কৃমির ওষুধ খাওয়ালে বেশি কার্যকর হয়।

গরুকে কৃমির ঔষধ খাওয়ানোর সময় কিছু নিয়ম জানা খুবই জরুরি। গরুর কৃমির ট্যাবলেট খাওয়ানোর সময় ট্যাবলেটটি গুঁড়া করে চিটাগুড়ের সঙ্গে মাখিয়ে অথবা কলা পাতাতে করে খাওয়ানো যায়। গরুকে কৃমির ট্যাবলেট খাওয়ানোর পর কমপক্ষে এক ঘণ্টা কোনো ধরনের খাদ্য দেওয়া যাবে না।

যেভাবে গবাদি পশু কৃমির আক্রমণ থেকে রক্ষা করবেন

কোনোভাবেই দানাদার খাদ্যের সঙ্গে কৃমির ওষুধ খাওয়ানো যাবে না। গরুকে দানাদার খাদ্যের সঙ্গে মিশালে কীটনাশক ট্যাবলেটে তেমন কোনো কাজ করে না।

গর্ভবতী গাভীর ঔষধ প্রদানের কমপক্ষে ৪৫ দিন পর কীটনাশক ট্যাবলেট খাওয়াতে হবে। তবে গর্ভবতী গাভীকে খাওয়ালে সমস্যা নেই। কোনোভাবে মাত্রার চেয়ে কম পরিমাণে খাওয়ানো যাবে না। মাত্রার চেয়ে কম খাওয়ালে কৃমি না মরে গিয়ে আরও বেশি আক্রমণ করবে। গর্ভবতী গাভীকে ট্যাবলেট খাওয়ানোর সময় অবশ্যই সর্তকতা অবলম্বন করতে হবে।

গরু যখন ঘাস খায় তখন মুখের মাধ্যমে একটা গরু থেকে অন্য গরুতে কৃমি ছড়াতে পারে। গরুর কৃমি রোগের আক্রান্তের লক্ষণ বেশ কিছু লক্ষণ রয়েছে। যেমন গরুর খাবারে অরুচি হয়ে দেখা দেয়। পাশাপশি ঘনঘন পেট ফাঁপা দেখা দিবে। শক্ত না হয়ে নরম পায়খানা বের হবে, গরুর শরীরে রক্ত কমে গরু দুর্বল হয়ে পড়বে। গরুর স্বাস্থ্যের উন্নতি হবে না। লোম বিবর্ণ হয়ে যায়। দুর্গন্ধযুক্ত পাতলা পায়খানা হয়। মাঝে মাঝে কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দেয়। কোনো কোনো সময় গলার নিচে পানি জমে ফুলে ওঠে রক্তস্বল্পতা দেখা যায়।

কৃমি হলে গবাদি পশুকে অ্যালবেনডাজল বা প্যারাজল অথবা ফেনভিক ঔষধ খাওয়াতে হবে। এছাড়া ইঞ্জেকশন নাইট্রোকসিনিল আইভারমেকটিন সঙ্গে লিভার মিসল। এগুলো গরম পানির সঙ্গে খাওয়ানো যায়। এগুলো ৪ মাস পর পর দিতে হবে।


আরও খবর