Logo
আজঃ বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪
শিরোনাম

বাগেরহাটে চুরির অপবাদ দিয়ে যুবককে আটেকে রেখে নির্যাতন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ মার্চ ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২৫২জন দেখেছেন

Image

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের রামপালে ব্যাটারি চালিত ইজিবাইক চুরির অপবাদ দিয়ে শেখ আব্দুল্লাহ (২৫) নামের এক যুবককে প্রায় ২২ ঘন্টা আটকে রেখে অমানুসিক নির্যাতন করা হয়েছে। এমনকি স্থানীয় বাইনতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল্লাহর সামনে ওই যুবকের চোখ তুলে ফেলারও হুমকি দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে ফাকা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রেখে নির্যাতনের বিষয়টি কাউকে না জানানোর শর্তে ছেড়ে দেওয়া হয় আব্দুল্লাকে। ঘটনাটি ঘটেছে রামপাল উপজেলার ব্রী-চাকশ্রি এলাকায়।


জানাযায়, বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) দুপুরে ইজিবাইকযোগে বাগেরহাট আসার পথে রামপাল উপজেলার চাকশ্রি নামক স্থান থেকে জোরপূর্বক শেখ আব্দুল্লাহকে তুলে নিয়ে যায় ব্রি চাকশ্রী এলাকার শেখ হাসান আলী ও ইউপি চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল্লাহর ভাগ্নে আবু সালেহসহ কয়েকজন। চুরির অপবাদ দিয়ে প্রায় ২২ নির্যাতনের পরে শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে ছেড়ে দেওয়া হয় শেখ আব্দুল্লাহকে। এদিকে চারদিন পার হলেও এ ঘটনায় কোন মালা হয়নি। তবে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় নরেচড়ে বসেছে পুলিশ।  ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ জানিয়েছেন পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক।

ভাইরাল হওয়া ২ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়ঃ একটি ঘরের পিছনে আম গাছের সাথে বেধে এক যুবককে মারধর করছে কয়েকজন যুবক। পরে মাটিতে শোয়ায়ে এক পা পাড়ায়ে ধরে আরেক পা উপড়ে উঠিয়ে গালিগালাজ করা হচ্ছে। এক পর্যায়ে দুই পায়ের তলায় মোটা লাঠি দিয়ে পেটাতে দেখা যায় আবু সালেকে। ওই যুবক মাগো মাগো বলে চিল্লাচ্ছিল।


নির্যাতনের শিকার আব্দুল্লাহ বাগেরহাট সদর উপজেলার মুনিগঞ্জ এলাকার শেখ গফুরের ছেলে। সে বর্তমানে বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। নির্যাতনের শিকার আব্দুল্লাহ বলেন, পূর্ব পরিচিত হওয়ায় ব্রি চাকশ্রী এলাকার শেখ হাসান আলীকে আমি ১ লক্ষ ২৭ হাজার টাকা ধার প্রদান করি। কিন্তু সে আমাকে টাকা না দিয়ে ঘোরাতে থাকে। পরবর্তীতে টাকা বাবাদ শেখ হাসান আলী তার মালিকানাধীন ইজিবাইকটি আমার কাছে বিক্রি করে দেয়। প্রতিদিন দুইশ টাকা ভাড়ায় সে ইজিবাইকটি চালাতে থাকে। কিন্তু কয়েকদিন টাকা দেওয়ার পরে আর টাকা দেয় না। যার কারণে জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ে আমি ইজিবাইক নিয়ে বিক্রি করে দেই। পরবর্তীতে এই বিষয় নিয়ে আর কথা হয়নি। কিন্তু হঠাৎ করে বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) দুপুরে ইজিবাইকযোগে রামপাল থেকে বাগেরহাট আসার পথে চাকশ্রী নামক স্থান থেকে  শেখ হাসান আলী ও চেয়ারম্যানের ভাগ্নে আবু সালেহসহ কয়েকজন মিলে জোরপূর্বক আমাকে ধরে নিয়ে যায়। ব্রি চাকশ্রী এলাকায় শেখ হাসান আলী বাড়িতে নিয়ে আমাকে নির্যাতন করে। সন্ধ্যার দিকে আমার বন্ধু প্রাইভেট কার চালক আল আমিনকে চাকশ্রী আসার জন্য আমাকে দিয়ে ফোন করায়। পরে আল আমিন গেলে তাকেও বেধে রাখে হাসান ও আবু সালেহ‘রা। সারারাত আমাকে অমানুষিক নির্যাতন করেছে আবুল সালেহ ও হাসানসহ কয়েকজন। বেধরকের মারপিটের সাথে শরীরে সিগারের সেকা ও আঙ্গুলের মধ্যে খেজুরের কাটা ঢুকিয়েছে। চোখ উঠিয়ে ফেলার কথা বলেছে।


আব্দুল্লাহ আরও বলেন, সারারাত এভাবে অত্যাচারের পরে দুপুরে বাইনতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল্লাহর কাছে নিয়ে যায় আমাকে ও আমার বন্ধু আল আমিনকে। তিনি কোন কথা না শুনে আমাদের চোখ তুলে ফেলতে বলেন। পরে ফাকা স্ট্যাম্পে আমার এবং আমার মায়ের স্বাক্ষর রেখে এবং ৩ লক্ষ টাকার দেওয়ার স্বীকারোক্তি রেখে ছেড়ে দেয়। আমার উপর হামলাকারীদের কঠিন বিচার চাই।


শেখ আব্দুল্লাহ‘র মা খালেদা বেগম বলেন, আমার ছেলেকে যেভাবে নির্যাতন করেছে তা মানুষে করে না। চেয়ারম্যানের কাছে যেয়েও কোন প্রতিকার পাইনি। আমি আমার ছেলেকে নির্যাতনের বিচার চাই। প্রত্যক্ষদর্শী শেখ আব্দুল্লাহ‘র বন্ধু প্রাইভেটকার চালক আল আমিন বলেন, আল আমিনের ফোন পেয়ে চাকশ্রী বাজারে গেলে, হাসান ও আবু সালেহ আমাকে বেধে রাখে। সারারাত আব্দুল্লাহকে নির্যাতন করে। শুক্রবার দুপুরে আমাদের ছেড়ে দেয়।


এদিকে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল্লাহ বলেছেন, তার সামনে কোন নির্যাতন হয়নি। আবু সালেহ তার ভাগ্নে নয়।বাগেরহাট জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা: অসীম কুমার সমাদ্ধার বলেন, যুবক আব্দুল্লাহ‘র শরীরের বিভিন্ন স্থানে ফুলা-জখম রয়েছে। মারাক্তক ইনজুরি রয়েছে কিনা সে বিষয়ে পরিক্ষা নিরিক্ষার পর জানা যাবে।


পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক বলেন, ভিডিওটি আমরা দেখেছি। বিষয়টি তদন্ত চলছে। অপরাধীদের সনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

 


আরও খবর



যানজটের পাশাপাশি ছিনতাই, চাঁদা বাজী বন্ধে কাজ করছে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ

প্রকাশিত:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ২১৭জন দেখেছেন

Image

খবর প্রতিদিন ডেক্স:- ঢাকা মহানগরবাসী যাতে নির্বিঘ্নে এবং স্বাচ্ছন্দে চলাচল করতে পারে সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে টিম ট্রাফিক ডিএমপি। সেই ধারাকে অব্যাহত রাখতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগ।


যোগাযোগ ব্যবস্থার অভূতপূর্ব উন্নয়নের ফলে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের মধ্য দিয়ে ৩৮টি জেলার যানবাহন গমনাগমন করে থাকে। রাস্তার তুলনায় মাত্রাতিরিক্ত গাড়ি এবং আয়তনের তুলনায় জনসংখ্যা অধিক হওয়াতে ওয়ারী বিভাগের যানজট নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি অপরাধ দমনেও সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হয়। 


ডিসি (ট্রাফিক-ওয়ারী) বিভাগ মোহাম্মদ আশরাফ ইমামের নেতৃত্বে ট্রাফিক ওয়ারী বিভাগের সদস্যগণ সাহসিকতার সঙ্গে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় যানজট নিরসনের পাশাপাশি অপরাধ দমনেও উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখে চলেছেন।

 ইতোপূর্বে মহাসড়কে ছিনতাই ও চাঁদাবাজি রোধ করতে এই বিভাগের সদস্যগণ বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন।

তারা ছিনতাইকারী গ্রেপ্তারসহ ছিনতাইকারীর কবল থেকে ছিনতাইকৃত স্বর্ণের চেইন, কানের দুল ও আংটি এবং মোবাইল, মানিব্যাগ/ভ্যানিটিব্যাগ, হাত ঘড়ি উদ্ধার করেছেন। পাশাপাশি সিটি টোলের নামে চাঁদাবাজি বন্ধের লক্ষ্যে চাঁদাবাজদের গ্রেপ্তার করে আইনের কাঠগড়ায় দাঁড় করেছেন। 


অপরাধ দমনের এই ক্রমাগত প্রচেষ্টার অংশ হিসাবে অদ্য এসি (ট্রাফিক-যাত্রাবাড়ী) তত্ত্বাবধানে যাত্রাবাড়ী ট্রাফিক পুলিশ বক্সের টিআই পবিত্র বিশ্বাস, সার্জেন্ট শেখ ইমরান হোসেন, কং কামরুল ইসলামের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বুধবার (২২ মে) আনুমানিক সকাল ১০ টা ৪৫ মিনিটে যাত্রাবাড়ী ফারুক স্মরণীর মুখের সামনে থেকে রাব্বি নামের এক ছিনতাইকারীকে আটক করেন।


উক্ত ছিনতাইকারী এক পথচারী ভদ্র মহিলার স্বর্ণের কানের দুল ছিনতাই করে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে তাকে ধাওয়া করে হাতেনাতে আটক করা হয়। পরবর্তীতে যাত্রাবাড়ী থানার এএসআই রায়হানকে বুঝিয়ে দেয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে ভিকটিমের নাম অনিন্দিতা। তার বাসা যাএাবাড়ী কাজলায় (ব্রীজের ঢালে)।


ডিসি (ট্রাফিক-ওয়ারী) মোহাম্মদ আশরাফ ইমাম জানান যে, যানজট নিরসনে এবং অপরাধ নিয়ন্ত্রণে ওয়ারী অপরাধ বিভাগ এবং ওয়ারী ট্রাফিক বিভাগ একই বৃন্তে সম্মিলিতভাবে কাজ করছে।

      -খবর প্রতিদিন/ সি.ব

আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




আইএসডি’র ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জুন 2০২4 | হালনাগাদ:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | ১০৩জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:সম্প্রতি (বৃহস্পতিবার) র‍্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেন হোটেল ঢাকায় ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠান উদযাপন করেছে আইএসডি।এ বছর ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এ আইএসডি থেকে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন ২০ জন শিক্ষার্থী। অনুষ্ঠানে ভ্যালিডিক্টোরিয়ানের বক্তব্য রাখেন ডোমিনিকান রিপাবলিকের মার্সেল কারিনা লামারচে ভ্যালেনজুয়েলা। হংকং ব্যাপ্টিস্ট ইউনিভার্সিটিতে (এইচকেবিইউ) সোশ্যাল ওয়ার্কে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করবেন মার্সেল। এছাড়াও, গ্র্যাজুয়েট হওয়া শিক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, আয়ারল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, হংকং এসএআর ও স্পেনের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে অফার লেটার পেয়েছেন।

অনুষ্ঠানে আইএসডি’র ডিরেক্টর স্টিভ ক্যালান্ড-স্কোবল বলেন, “আমাদের শিক্ষার্থীরা মেধা, পরিশ্রম ও নিবেদনের মাধ্যমে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ অর্জন করে নিয়েছেন। আইএসডি -তে তাদের শিক্ষা অভিজ্ঞতা আমাদের শিক্ষার্থীদের অ্যাকাডেমিক সাফল্য অর্জনের ক্ষেত্রে এবং তাদের বৈশ্বিক নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার ক্ষেত্রে স্কুল হিসেবে আমাদের সফলতা ও সক্ষমতাকে সমৃদ্ধ করেছে। আমরা অত্যন্ত আনন্দের সাথে ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এর সাফল্য উদযাপন করছি; পাশাপাশি, আমাদের ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর বছরে তাদের আমরা আইএসডি’র এক হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থীদের বৈশ্বিক অ্যালামনাই নেটওয়ার্কে স্বাগত জানাচ্ছি।”

গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানের মাইলফলক উদযাপনে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক এবং সম্মানিত অতিথিবৃন্দ। আয়োজিত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করা শিক্ষার্থীরা তাদের স্কুলজীবনকে আনুষ্ঠানিক বিদায় জানান এবং শিক্ষকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ভ্যালেডিক্টোরিয়ান হিসেবে মার্সেল বলেন, “আগামী কয়েক বছর এইচকেবিইউ -তে আমার শিক্ষাজীবন নিয়ে আমি রোমাঞ্চিত। আমি সোশ্যাল ওয়ার্কে আমার মেজর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি; কারণ, আমি সবসময় আমার আশেপাশের মানুষদের পাশে থেকে সহায়তা করতে চেয়েছি– সেটা হোক মানসিক সঙ্কটে কিংবা সামাজিক বৈষম্যের ক্ষেত্রে। সমাজের কল্যাণে যারা কাজ করেন তারা সকলের উপকারে নিজেকে মনোনিনেবশ করেন। আমি মনে করি এটাই পরম সুন্দর। ভালো গ্রেড অর্জনে এবং আর্থিক সহায়তাসহ ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ অর্জনে আমাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছে। আর এ কারণেই আমি আইএসডি’র ‘ক্লাস অব ২০২৪’ -এর ভ্যালেডিক্টোরিয়ান হতে পেরেছি।”


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




ইসলামপুরে পৌর মেয়রের জালিয়াতির মাধ্যমে বিল উত্তোলনের অভিযোগ

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ১৪২জন দেখেছেন

Image

লিয়াকত হোসাইন লায়ন জামালপুর প্রতিনিধি:জামালপুরের ইসলামপুরে জালিয়াতির মাধ্যমে পৌর মেয়র আঃ কাদের শেখের বিরুদ্ধে বিল উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ইসলামপুর পৌর শিশু পার্কের সয়েল টেস্ট এবং টপো সার্ভে ভ’য়া বিল ভাউচার তৈরি করে, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বাক্ষর জাল করে দেড় লাখ টাকা বিল উত্তোলন করা হয়েছে।

অভিযোগে জানাগেছে, কয়েকটি সাইটের সয়েল টেস্ট ও ডিজিটাল ল্যান্ড সাভের্র কাজ প্রায় তিন বছর আগে গ্রীণ হাউজ কনসালটেন্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠান কাজটি সম্পন্ন করে যথারীতি বিল উত্তোলন করে। ওই প্রতিষ্ঠান বিগত দুই বছরের মধ্য ইসলামপুর পৌরসভার কোন কাজে অংশ গ্রহন না করলেও সাবেক পৌর মেয়র আঃ কাদের শেখ স্বাক্ষরিত গ্রীণ হাউজ কনসালটেন্ট ভ’য়া ভাওচার প্যাড তৈরি ও গ্রীণ হাউজ কনসালটেন্ট  এর উপদেষ্ট্ াএ এইচ এম মোস্তফা কামাল সুমনের স¦াক্ষর জালিয়াতির মাধ্যমে সয়েল টেস্ট ও টপো সার্ভে কাজের বিল বাবদ হিসাব নং-৮৭১৬ চেক নং ৮২৪০৭১৫ চলতি বছরের ২৫ এপ্রিল এক লক্ষ চৌত্রিশ হাজার দুইশত পঞ্চাশ টাকা উত্তোলন করে। 

এ বিষয়ে গ্রীণ হাউজ কনসালটেন্ট এর উপদেষ্ট্ াএ এইচ এম মোস্তফা কামাল সুমন বিষয়টি জানতে পেয়ে ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র বরাবর অভিযোগ করেন। তিনি বলেন- কয়েকটি সাইটের সয়েল টেস্ট ও ডিজিটাল ল্যান্ড সার্ভের কাজ প্রায় তিন বছর আগে সম্পন্ন করে বিল বুঝিয়ে পেয়েছি। বিগত দুই বছরের মধ্য ইসলামপুর পৌরসভার কোন কাজ সম্পাদক ও বিল উপস্থাপন করিনি। চলতি বছরের  প্রতিষ্ঠানের ভ’য়া প্যাড ব্যবহার করে স্বাক্ষর জাল করে বিল উত্তোলন করা হয়েছে। যাহা আমার প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে।

এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত পৌর মেয়র দেলোয়ার হোসেন লেবু বলেন- গ্রীণ হাউজ কনসালটেন্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ভ’য়া প্যাড ও স্বাক্ষর জাল করে বিল উত্তোলন মর্মে অভিযোগ রয়েছে। পৌর শিশু পার্কের সয়েল টেস্ট এবং টপো সার্ভে কাজের নামে চলতি বছরে ভ’য়া বিল উত্তোলনের অভিযোগে ব্যাংকেও সত্যতা পেয়েছি।


আরও খবর



মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ রাখাই চ্যালেঞ্জ : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ জুন ২০২৪ | ৬৮জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২৪-২৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

শুক্রবার (৭ জুন) বিকেলে তেজগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে ঐতিহাসিক ৬ দফা উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা। বিশেষ করে খাদ্য মূল্য, সেখানে উৎপাদন এবং সরবরাহ বৃদ্ধি করতে হবে। বৃষ্টির কারণে যেমন আলুর বীজ নষ্ট হয়ে গেছে, তো এই রকম অনেক কিছুই আছে। আমরা এখনও উৎপাদনমুখী হলে খাদ্যে কোনো দিন অভাব হবে না। বিশ্ব পরিস্থিতি মাথায় রেখে আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে চলতে হবে।

বাজেটে এবার মৌলিক চাহিদাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা বৃহস্পতিবার বাজেট দিয়েছি, বিএনপির আমলে সবশেষ বাজেট মাত্র ৬২ হাজার কোটি টাকার ছিল। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকার দিয়েছিল ৬৮ হাজার কোটি টাকার, সেখানে আমরা ৭ লাখ ৯৮ হাজার কোটি টাকা বাজেট প্রস্তাব করেছি।

তিনি বলেন, এই বাজেটে মানুষের মৌলিক যে অধিকার, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য তারপর দেশীয় শিল্প, সেগুলো এবং সামাজিক নিরাপত্তা, এসব বিষয়কে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। যা মানুষের জীবনকে উন্নত করবে, নিশ্চয়তা দেবে। তার কারণ হচ্ছে, আমরা এগিয়ে যাচ্ছিলাম, কোভিড ১৯ এর অতিমারি দেখা দিয়েছিল, এই অতিমারির ফলে সারা বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা হয়েছে, আমরাও সেই মন্দায় পড়ে গেলাম। সারা বিশ্বে প্রতিটি জিনিসের দাম বেড়ে গেল। এরপর আসল ইউক্রেন রাশিয়ার যুদ্ধ, এরপর স্যাংশন পাল্টা স্যাংশন, ফলে প্রত্যেকটা জিনিসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।

সরকারপ্রধান বলেন, আমাদের মানুষকে খাওয়াতে হবে আগে। রিজার্ভ কত আছে না আছে, সেটার চেয়ে বেশি দরকার আমার দেশের মানুষের চাহিদাটা পূরণ করা। সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমরা পানির মতো টাকা খরচ করেছি। বাংলাদেশ একমাত্র দেশ যেটা কোনো উন্নত দেশ করেনি, বিনা পয়সায় কোভিড ১৯ এর ভ্যাকসিন দিয়েছি, বিনা পয়সায় টেস্ট করিয়েছি। সেটা করেছি কেন? মানুষকে বাঁচাতে।

মানুষের চাহিদা পূরণের ভাবনা থেকেই এই বাজেট দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, অনেকে বসে বসে হিসাব কষে, আগে এত পার্সেন্ট বেড়েছে এবার কম পার্সেন্ট বাড়ল কেন? এখন সীমিতভাবে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। যাতে আমাদের দেশের মানুষের কষ্ট না হয়। মানুষের যে চাহিদা সেটা যেন পূরণ করতে পারি, সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমরা বাজেট করেছি।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু মূল্যস্ফীতি বেড়েছে, নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য আমরা পারিবারিক কার্ড করে দিয়েছি। যারা একেবারে হতদরিদ্র তাদের তো একেবারে বিনা পয়সায় খাবার দিচ্ছি। আর সামাজিক নিরাপত্তা তো বিনা পয়সায় দিয়ে যাচ্ছি।


আরও খবর

মেট্রোরেল ঈদের দিন বন্ধ থাকবে

বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪




তানোরে গাছের ডালে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা

প্রকাশিত:সোমবার ১০ জুন ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ | ৪৯জন দেখেছেন

Image
আব্দুস সবুর তানোর থেকে:রাজশাহীর তানোরে গাছের ডালের সাথে  গলায় ফাঁস দিয়ে আপেল নামের (১৫) এক কিশোরের  ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। তার বাড়ি উপজেলার কলমা ইউনিয়ন ইউপির গঙ্গারামপুর গ্রামে। সে আতাউর রহমানের ছেলে। রবিবার বিকেলের দিকে মুন্ডুমালা পৌর এলাকার প্রকাশনগর খালের পার্শের গাছের ডালে গলায় ফাঁস দিয়ে ঘটে  আত্মহত্যার ঘটনা । 
 
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে,নিহত কিশোর  আপেল দীর্ঘদিন ধরে মানুষিক ভারসাম্যহীন। রোববার দুপুরের পরে মুন্ডুমালা পৌরসভার প্রকাশনগর গ্রামের পানি নিষ্কাসনের খাড়ির ধারে লাগানো গাছের সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেন। স্থানীয়রা আপেল কে গাছের ডালের সাথে  ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। এসময় স্থানীয়রা থানা পুলিশ কে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন। 

এবিষয়ে  থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি আব্দুর রহিম জানান,  খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও খবর