Logo
আজঃ Friday ১৯ August ২০২২
শিরোনাম
রূপগঞ্জে আবাসিকের অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ডেমরায় প্যাকেজিং কারখানায় ভয়বহ অগ্নিকান্ড রূপগঞ্জে পুলিশের ভুয়া সাব-ইন্সপেক্টর গ্রেফতার রূপগঞ্জে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ॥ সভা সরাইলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহে স্ত্রীকে পুতা দিয়ে আঘাত করে হত্যা,,স্বামী গ্রেপ্তার রূপগঞ্জ ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা নাসিরনগরে স্বামীর পরকিয়ার,বলি ননদ ভাবীর বুলেটপানে আত্মহত্যা নাসিরনগরে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ডেমরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসুচি পালিত

আবরার হত্যা মামলায় ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:Wednesday ০৮ December ২০২১ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৬০৩জন দেখেছেন
Image

আদালত প্রতিবেদক: বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭ তম ব্যাচ) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় ২০ আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছেন ট্রাইব্যুনাল। একই সঙ্গে রায়ে অপর পাঁচ আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে আজ সকাল ১১টা ৪০মিনিটে আসামিদের এজলাসে তোলা হয়। রায়ের সময় ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে আদালত পাড়ায় ভিড় বাড়ছে। রায় শুনতে নিহত আবরার ফাহাদের স্বজন ছাড়াও এসেছেন আসামিদের স্বজনরা।

গত ১৪ নভেম্বর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদালত এই মামলার রায়ের জন্য ২৮ নভেম্বর দিন ধার্য করেছিলেন। ওই দিন আদালত রায় প্রস্তুত হয়নি জানিয়ে রায়ের নতুন তারিখ ৮ ডিসেম্বর ধার্য করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, বুয়েট ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো. অনিক সরকার, উপ-সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক ইফতি মোশাররেফ সকাল, ক্রীড়া সম্পাদক মো. মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন, মো. মনিরুজ্জামান মনির, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভীর, শিক্ষার্থী মো. মুজাহিদুর রহমান ও এএসএম নাজমুস সাদাত, বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, আইন বিষয়ক উপ-সম্পাদক অমিত সাহা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুহতামিম ফুয়াদ, কর্মী মুনতাসির আল জেমি, গ্রন্থ ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক ইসাতিয়াক আহম্মেদ মুন্না ও শিক্ষার্থী আবরারের রুমমেট মিজানুর রহমান, শিক্ষার্থী শাসছুল আরেফিন রাফাত, বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১৬তম ব্যাচের তৃতীয় বর্ষে ছাত্র আকাশ হোসেন, শিক্ষার্থী মো. মাজেদুর রহমান মাজেদ, শামীম বিল্লাহ, হোসেন মোহাম্মাদ তোহা, মুয়াজ ওরফে আবু হুরায়রা, বুয়েটের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারং বিভাগের ১৭তম ব্যাচের ছাত্র মোর্শেদ অমত্য ইসলাম ও এস এম মাহমুদ সেতু, বুয়েটের ইলেকট্রিক এন্ড ইলেকট্রনিক্স বভাগের ১৭তম ব্যাচের ছাত্র মুহাম্মাদ মোর্শেদ-উজ-জামান মন্ডল ওরফে জিসান (২২), সিভিল ইঞ্জিনিয়ারং বিভাগের ১৭তম ব্যাচের ছাত্র এহতেশামুল রাব্বি ওরফে তানিম (২০) ও কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারং বিভাগের ১৬তম ব্যাচের ছাত্র মুজতবা রাফিদ (২১)।

২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে পরের দিন ৭ অক্টোবর চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা করেন আবরার ফাহাদের বাবা বরকত উল্লাহ। ওই বছরের ১৩ নভেম্বর ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক ওয়াহেদুজ্জামান।

২০২০ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর ট্রাইব্যুনালে উপস্থিত ২২ আসামির অব্যাহতির আবেদন নাকচ করেন এবং পলাতক তিন আসামিসহ ২৫ আসামির বিরুদ্ধে চার্জগঠনের মাধ্যমে বিচার শুরু করেন। ২০২০ সালের ৫ অক্টোবর থেকে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়ে চলতি বছর ৪ মার্চ সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। ওই সময়ের মধ্যে মামলায় রাষ্ট্রপক্ষ ৬০ জন সাক্ষীর মধ্যে ট্রাইব্যুনাল ৪৬ জনের সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করেন।


আরও খবর



সাঁতরে তিস্তা পার হতে গিয়ে কৃষকের মৃত্যু

প্রকাশিত:Tuesday ০২ August 2০২2 | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ২৯জন দেখেছেন
Image

কুড়িগ্রামের উলিপুরে তিস্তা নদী সাঁতরে পার হতে গিয়ে মহুবর রহমান (৫৬) নামের এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) সকালে দক্ষিণ দলদলিয়া এলাকার তিস্তা নদীতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত মহুবর রহমান দলদলিয়া ইউনিয়নের লাল মসজিদ পাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীরা জানান, মহুবর রহমান পাটের আঁশ ছাড়াতে তিস্তা নদীর পশ্চিম তীরের উদ্দেশ্যে রওনা হন। আশপাশে নৌকা না থাকায় তিনি সাঁতরে নদী পার হওয়ার চেষ্টা করেন। তিস্তা নদীর মাঝপথে তীব্র স্রোতের কবলে পড়ে তিনি ডুবে যান। পরে এলাকাবাসী নৌকা নিয়ে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে তীরে নিয়ে এলে পল্লিচিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

উদ্ধারকারী প্রতিবেশী আসলাম মিয়া বলেন, মহুবর রহমান পাট ধোয়ার কাজে নদী সাঁতরে পার হওয়ার সময় স্রোতের কবলে পড়ে ডুবে যান। পরে আমরা কয়েকজন নৌকা নিয়ে তাকে উদ্ধার করে তীরে নিয়ে আসি।

উলিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ কবির পানিতে ডুবে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর



যেসব নামাজ পড়লে জান্নাতে ঘর পাবেন মুমিন

প্রকাশিত:Thursday ২৮ July ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

সহজ আমলেই জান্নাতের আবাস! কত চমৎকার ঘোষণা দিয়েছেন স্বয়ং বিশ্বনবি। নামাজ পড়লেই জান্নাতে নির্মিত হবে ঘর। হাদিসে পাকে নবিজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এমন ঘোষণা দিয়েছেন। কী সেই সব নামাজ; যা পড়লে জান্নাতে ঘর পাবেন মুমিন?

হজরত উম্মে হাবিবাহ রাদিয়াল্লাহু আনহা বর্ণনা করেছেন, আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছি, তিনি বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি রাতে ও দিনে ১২ রাকাত সুন্নাত নামাজ আদায় করে, বিনিময়ে আল্লাহ তাআলা তার জন্য জান্নাতে একটি ঘর নির্মাণ করেন। হজরত উম্মে হাবিবাহ রাদিয়াল্লাহু আনহা বলেন যে, এ হাদিস শোনার পর থেকে কখনো আমি এ নামাজগুলো পরিত্যাগ করিনি। (মুসলিম)

১২ রাকাত নামাজের বিবরণ

১. ফজরের ফরজের আগে ২ রাকাত।

২. জোহরের ফরজের আগে ৪ রাকাত এবং পরে ২ রাকাত।

৩. মাগরিবের ফরজের পরে ২ রাকাত। এবং

৪. এশার ফরজের পরে ২ রাকাত।

সুতরাং মুমিন মুসলমানের উচিত, অল্প আমলেই জান্নাতের আবাস তৈরির সুযোগ গ্রহণ করা। হাদিসের ওপর যথাযথ আমল করা। জান্নাতে ঘর পাওয়ার সযোগ গ্রহণ করা।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সবাইকে উল্লেখিত ১২ রাকাত নামাজ নিয়মিত পড়ার তাওফিক দান করুন। হাদিসের ওপর আমল করে ঘোষিত ফজিলত পাওয়ার তাওফিক দান করুন। আমিন।


আরও খবর



ডলারে কারসাজি ধরতে বাংলাদেশ ব্যাংকের অভিযান

প্রকাশিত:Sunday ৩১ July ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
Image

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে ডলারের কারসাজি ধরতে অভিযান শুরু করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। রোববার (৩১ জুলাই) অনলাইনে ফরেক্স ট্রেডিং বা অনলাইন মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন হয় এমন অভিযোগের ভিত্তিতে এ অভিযান পরিচালনা করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে বৈদেশিক মুদ্রায় লেনদেন হয় এমন অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান শুরু হয়েছে। আজ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ২টি পরিদর্শন টিম অভিযানের মাধ্যমে দেখবে হুন্ডি বা অন্য কোনো ব্যবস্থায় কোনো প্রতিষ্ঠান ডলার কেনাবেচা করছে কি না। যদি কোনো অনিয়ম পাওয়া যায় তাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি বলেন, ডলারে অনিয়ম পেলেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে। এর আগেও আমরা ১০টি টিম মার্কেটে পাঠিয়েছি। আভিযানিক এ টিম ডলার মার্কেটে কিছু তথ্য পেয়েছে যা রুলস রেগুলেশন কাভার করে না। লাইসেন্স নেই এমন প্রতিষ্ঠানও ডলার কেনাবেচনার সঙ্গে জড়িত, এমন তথ্যও এসেছে। আবার একটি লাইসেন্স নিয়ে দুটি শাখায় ব্যবসা করছে। এমনটি যারা করছেন তাদের বিরুদ্ধে জরুরিভিত্তিতে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে এ বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে।


আরও খবর



চুয়াডাঙ্গায় সাপের দংশনে দুই মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু

প্রকাশিত:Monday ০১ August ২০২২ | হালনাগাদ:Thursday ১৮ August ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
Image

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় সাপের দংশনে দুই মাদরাসা ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (১ আগস্ট) সকাল ৮টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়।

দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলো- দামুড়হুদা উপজেলার নাটুদহ ইউনিয়নের চন্দ্রবাস ডাক্তার পাড়ার সাইফুল ইসলামের ছেলে আব্দুল্লাহ (১৩) এবং একই গ্রামের মাঝের পাড়ার শওকত আলীর ছেলে জুনায়েদ (১৩)। তারা দুজনেই চন্দ্রবাস দারুল উলুম কওমি মাদরাসার নাজেরা বিভাগের ছাত্র ছিলো এবং সেখানে আবাসিকে থেকে লেখাপড়া করতো।

মাদরাসার পরিচালক হাজী আক্তার ফারুক বলেন, ভোরে আব্দুল্লাহ ও জুনায়েদ বমি করছিল। তাদেরকে জিজ্ঞাসা করলে তারা বলে কিছুতে কামড় দিয়েছে। তাই বমি হচ্ছে। আব্দুল্লাহর ডান পায়ে এবং জুনায়েদের বাম হাতে সাপের কামড়ের চিহ্ন ছিল। আমার সন্দেহ হলে মাদরাসার অন্যান্য শিক্ষকদের সহযোগিতায় তাদেরকে প্রথমে গ্রাম্য চিকিৎসকের কাছে নিই। ওই গ্রাম্য চিকিৎসক তাদেরকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন। পরে দুজনকে সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. আব্দুল কাদের বলেন, সকাল ৭টার দিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় দুই মাদরাসা ছাত্রকে জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়। তাদেরকে সাপে কামড়েছে বলে পরিবারের লোকজন জানান। আমরা তাদের হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ দিই। তাদের শরীরে অ্যান্টিভেনম ইনজেকশন দেওয়া হচ্ছিল। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল ৮টার দিকে মারা যায় ওই দুই ছাত্র।


আরও খবর



আসিফের কাছে ইমোতে ছবি চাইলেন ডিম ব্যবসায়ী

প্রকাশিত:Tuesday ১৬ August ২০২২ | হালনাগাদ:Friday ১৯ August ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
Image

বাংলা গানের যুবরাজ সঙ্গীতশিল্পী আসিফ আকবর। গান গাওয়া পাশাপাশি সামাজিক মাধ্যমে গুলোতে বেশ অ্যাকটিভ থাকেন তিনি। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নিয়মিত লেখেন এই সঙ্গীতশিল্পী। বর্তমানে জ্বালানির দাম বাড়ার এর প্রভাব পড়েছে ডিমের বাজারেও। তুলনামূলক সস্তার ডিম এখন চড়া দামে কিনতে হচ্ছে।

দেশের বাজারে ডিমের দামের এই অবস্থা নিয়ে সামাজিকমাধ্যমে আলোচনার শেষ নেই। এরই মধ্যে এক ডিম ব্যবসায়ীর সঙ্গে আজ মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) সকালে রাস্তায় ছবি তুলে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন আসিফ আকবর।

সেই সঙ্গে পোস্ট আসিফ লেখেন, ‘আজ সকাল নয়টা, আমি বাসায় ফিরছি, পথে মগবাজার রেলক্রসিং। ক্রস করার আগেই দেখা পেলাম একজন বিলিওনিয়ারের। ওনার নাম কাওসার। তার ভ্যানভর্তি মুরগির ডিম। হঠাৎ করেই সেমি ব্যাচেলর ফিলে চলে গেলাম। ডিম নাকি এখন একটার দামই পনেরো টাকা! কাওসারের পেছনে কোনো প্রহরী নেই, এই সময় আমি ডিমের ব্যবসা করলে অবশ্যই গানম্যান রাখতাম। ’

তিনি আরও লেখেন, ‘কাওসারকে ইশারায় ডাকলাম, চিনে ফেলেছে আমাকে। ছবি তুলতে চাইলাম, এক পর্যায়ে বললো স্যার মাস্কটা খোলেন। একটা ফোন নম্বর দিলো, কল দিলাম। বললো, স্যার এটা আমার বউয়ের ইমো নম্বর, ছবিগুলো পাঠায় দিয়েন। যদিও ইমোর আশেপাশে আমি নেই। কাওসার বোকা ছেলে, না হলে কি আমার মতো রমনীমোহন কাউকে বউয়ের নাম্বার দেয়!’

আসিফ আকবর আরও লেখেন, ‘বাসায় এসে বেগমকে বললাম কাওসারের বউকে এই ছবিগুলো পাঠিয়ে দাও, ইমো কাস্টিংয়ে আমি নেই। সব পর্ব শেষে সুঠামদেহী এই যুবকের কায়িক শ্রম, নিষ্ঠা আর আন্তরিকতায় আমি মুগ্ধ। ভালো থাকুক খেটে খাওয়া কাওসারের দল। অদম্য কাওসারদের সরলতাই এখনও এই দেশের সেরা শক্তি। ওরা জিতবেই, ওদের জিততেই হবে। ভালোবাসা অবিরাম। ’


আরও খবর