Logo
আজঃ বুধবার ২২ মে ২০২৪
শিরোনাম

আবার ও আলমের নাটকে নিলয়-মাহি

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১৭২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:ছোটপর্দার জনপ্রিয় দুই তারকা নিলয় আলমগীর ও সামিরা খান মাহি। দুজনেই আসছে ঈদের নাটকের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তারই ধারাবাহিকতায় এ জুটি ঈদের জন্য এরইমধ্যে শেষ করেছেন ‘তোমার সাথে আড়ি’ শিরোনামের একটি নাটক। অনামিকা মণ্ডলের রচনায় এটি পরিচালনা করেছেন সময়ের ব্যস্ত পরিচালক জিয়াউদ্দিন আলম।

মাহবুব আলম এর প্রযোজনা নাটকটি নির্মান হয়েছে সিডি ভিশন এর ব্যানারে। নির্মাতা জিয়াউদ্দিন আলম জানান, বিয়ে বাড়ির ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ নাটকের গল্প শুরু হয়। সেখানে দেখা যাবে, বরপক্ষের রাফি ও কনে পক্ষের কনার মধ্যে বিয়ে বাড়ির গেটের টাকা পয়সা নিয়ে নানা রকম মজার কাণ্ড ঘটতে থাকে। সম্পর্কে তারা দুজনেই বেয়াই ও বেয়াইন। কিন্তু একটা সময় তাদের দুজের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর গল্প নতুন মোড় নেয়। নির্মাতা জিয়াউদ্দিন আলম বলেন আরো বলেন, প্রথমবার অভিনেত্রী মাহিকে নিয়ে কাজ করেছি। দারুণ একটি কাজ হয়েছে। দর্শক ঈদে যে ধরনের কাজ পছন্দ করেন এটি তেমনই বলতে পারি। আশা করি আমার অন্য নাটকগুলোর মতো এটিও দর্শকের ভালো লাগবে। নাটকটিকে আরো অভিনয় করেছেন , চিত্রলেখা গুহ, রকি খান, বাপ্পি আশরাফ, সেলজুক তারিক, সেজুতি খন্দকার সহ ২৫ জন ছেলে ও মেয়ে কাজ করেছেন। নাটকটি শুটিং হয়েছে উত্তরার একটি শুটিং হাউজে।

নাটকটির চিত্রগ্রহনে ছিলেন সাখাওয়াত হোসাইন সাকিব , সম্পাদনা ও কালার করছেন, আরেফিন সরকার , সঙ্গীত আয়োজন করেছেন সজীব দাস।


আরও খবর



গাংনী; এক সফল জননী নুরজাহান

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ৬১জন দেখেছেন

Image

মজনুর রহমান আকাশ, মেহেরপুরঃপঞ্চম শ্রেণিতে পড়ালেখার সময় পরিবারের চাপে মাত্র ১২ বছর বয়সেই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে হয়েছিল নুরজাহান খাতুনকে। বিয়ের পর আর বিদ্যালয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি তার। লেখাপড়া শিখতে না পারার কষ্ট বুকে নিয়ে শপথ করেছিলেন ছেলেমেয়েদের উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করবেন। আর সেটাই হয়েছে। নুরজাহান খাতুনের ১০ সন্তান আজ উচ্চ শিক্ষিত ও সকলেই কর্মরত। 

অশিতীপর সংগ্রামী এই মায়ের বাড়ি মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার গাঁড়াডোব গ্রামে। তিনি মরহুম কোবাদ আলী শেখের স্ত্রী।

জানা গেছে, ১৯৯৬ সালে এক মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় নুরজাহান খাতুনের স্বামী কোবাদ আলী মারা যান। ১০ ছেলেমেয়ে নিয়ে তখন কিছুটা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়লেও তিনি ভেঙে পড়িনি। স্বামীর রেখে যাওয়া অল্প কিছু অর্থ দিয়ে প্রথমে বাড়িতেই কয়েকটি ছাগল পালন শুরু করেন। এরপর ধীরে ধীরে হাঁস-মুরগি ও গরুর খামার করেন তিনি। জীবনের সাথে সংগ্রাম করেই ১০ সন্তানকেই উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করেছেন। সবাই এখন চাকরিজীবী।

নুরজাহান খাতুনের বড় ছেলে আনিসুর রহমান কুষ্টিয়া জেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা, মেজো ছেলে আনছারুল হক ইসলামিক ফাউন্ডেশন পরিচালিত মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের পরিদর্শক, তৃতীয় ছেলে এসএম আইনুল হক বাংলাদেশ টেলিভিশনের সাবেক মেহেরপুর জেলা প্রতিনিধি ও বর্তমানে সুইডেনে নাগরিকত্ব অর্জন করে সেখানকার একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন, চতুর্থ ছেলে মাসুদুজ্জামান সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক, পঞ্চম মেয়ে নাছিমা খাতুন গাংনী উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত। 

এছাড়াও ষষ্ঠ ছেলে শাহাজাহান আলী গাংনী উপজেলা হিসাব রক্ষণ অফিসে সিনিয়র অডিটর, সপ্তম ছেলে আলমগীর হোসেন একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকার বার্তা সম্পাদক হিসেবে কর্মরত, অষ্টম মেয়ে নাজমা খাতুন মেহেরপুর জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে প্রশিক্ষক হিসেবে কর্মরত, নবম ছেলে জিল্লুর রহমান বেসরকারি প্রাইম ইউনিভার্সিটিতে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত। কনিষ্ঠ মেয়ে তাসলিমা আক্তার বিসিএস নন ক্যাডারে কুষ্টিয়া ভূমি অফিসে কর্মরত রয়েছেন।

‘সফল জননী’ হিসেবে নুরজাহান খাতুন গাংনী উপজেলা পর্যায় ও মেহেরপুর জেলা পর্যায় থেকে স্বীকৃতি সরুপ ২০২৩ সালে পেয়েছেন জয়িতা ও রতœগর্ভা পুরস্কার।

নুরজাহান খাতুন জানান, জীবনের সব ক্ষেত্রে তিনি সফলতা পেয়েছেন। ছেলেমেয়েদের সফলতায় তিনি গর্বিত। তিনি আরো জানান, জীবনে অবহেলিত ও নির্যাতিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে কাজ করতে এবং সমাজের কল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দিতে সন্তানদেরকে সব সময় পরামর্শ দেন। কঠিন সময়ে ভেঙে না পড়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘যেকোনো কাজে সদিচ্ছা, সততা, স্বচ্ছতা ও চেষ্টা থাকলে মানুষ সফল হবেই। কারো ওপর নির্ভর না করে নিজের জীবন নিজেকেই গোছাতে হবে। সফল হওয়ার পেছনে এটাই হচ্ছে মূলমন্ত্র’।

প্রতিবেশিরা জানান, স্বামী মারা যাবার পর নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে দিনপাত করেছেন তবুও সন্তানদেরকে পড়ালেখা থেকে বিরত রাখেন নি। নিজেই জিবন সংগ্রাম করেছেন আর সন্তানদেরকে মানুষের মত মানুষ করে গড়ে তোলার চেষ্টায় তিনি সফল। তার সন্তানরাও অত্যন্ত ভদ্র ও মার্জিত স্বভাবের। সকলকে এমন মায়ের মত হবার আহবান জানান প্রতিবেশিরা।

তার মেয়ে গাংনী উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসার নাছিমা খাতুন বলেন, আমার মা খুব ভালো মানুষ। তিনি সব বাধা পেরিয়ে একজন সফল নারী। আমার বাবা মারা যাবার পর পরিবারে হাল ধরার মতো কেউ ছিল না। মা একাই ১০ ভাইবোনকে লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষ করেছেন। বাবা যখন মারা যান আমরা কেউ তখন বিশ্ববিদ্যালয়ে, কেউ কলেজে, কেউ মাধ্যমিক নয়তো প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ি। আমাদের উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করতে গিয়ে গ্রামের মানুষের কাছেও তাকে শুনতে হয়েছে নানা ধরনের কটু কথা। তারপরেও তিনি থেমে যাননি। সবকিছু উপেক্ষা করে আমাদের মানুষ করেছেন।


আরও খবর



পোরশায় বীজ সংরক্ষণ বিষয়ক প্রশিক্ষন ও কৃষি উপকরণ বিতরণ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১৭৫জন দেখেছেন

Image

ডিএম রাশেদ,পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধি:নওগাঁর পোরশায় বীজ সংরক্ষণ বিষয়ক প্রশিক্ষন ও কৃষকদের মাঝে কৃষি উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার বিকালে উপজেলার ছাওড় ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা খ্রীস্টিয়ান কমিশন ফর ডেভেলপমেন্ট ইন বাংলাদেশ (সিসিডিবি -পিসিআরসিবি-২) প্রকল্পের বাস্তবায়নে  বীজ সংরক্ষণ বিষয়ক প্রশিক্ষন ও কৃষি উপকরণ বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংস্থার উপজেলা সমন্বয়কারী স্টিভ রায় রুপন। এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মামুনুর রশিদ। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ছাওড় ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান।

এসময় ছাওড় ইউপির সকল সদস্য ও সিসিআরসির সদস্যসহ প্রকল্পের কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন। প্রশিক্ষণ শেষে প্রকল্পের উপকারভোগী ৩০জন কৃষকদের মাঝে বীজ সংরক্ষণের জন্য ১২০ কেজির ১টি করে প্লাস্টিক ড্রাম ও ৬টি বিভিন্ন সাইজের প্লাস্টিকের কৌটা উপকরণ হিসেবে বিতরন করা হয়।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বৃহস্পতিবার

প্রকাশিত:বুধবার ০১ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ১০১জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা থাইল্যান্ড সফর নিয়ে আগামী বৃহস্পতিবার (২ মে) সংবাদ সম্মেলন করবেন। এদিন সকাল ১০টায় গণভবনে সংবাদ সম্মেলন শুরু হবে।

মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) রাতে গণমাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব এম এম ইমরুল কায়েস রানা।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় গণভবনে থাইল্যান্ড সফর পরবর্তী প্রেস কনফারেন্স করবেন।

ছয় দিনের থাইল্যান্ড সফর শেষে ২৯ এপ্রিল বেলা সাড়ে ১১টায় দেশে ফেরেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ১০ মিনিটে দেশটির ডন মুয়াং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যাত্রা করে বিমানটি।

থাই প্রধানমন্ত্রী স্রেথা থাভিসিনের আমন্ত্রণে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক উভয় সফরে গত ২৪ এপ্রিল বিকেলে ব্যাংককে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। থাইল্যান্ডের ডন মুয়াং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে লালগালিচা উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়। সেখানে তাকে গার্ড অব অনার ও গান স্যালুট জানানো হয়।

শেখ হাসিনা এই সফরকে ‘প্রতিবেশী’ নীতির ওপর বৃহত্তর ফোকাসের অংশ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। কারণ, এটি দুই দেশের জন্য দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের গতিকে আরও নবায়নের চমৎকার সুযোগ করে দিয়েছে। তিনি বলেন, এই সফর দুই দেশের সম্পর্ককে আরও গভীর করার ক্ষেত্রে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাবে।প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বৃহস্পতিবার

থাইল্যান্ড সফর নিয়ে আগামী বৃহস্পতিবার (২ মে) সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এদিন সকাল ১০টায় গণভবনে সংবাদ সম্মেলন শুরু হবে।

মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) রাতে গণমাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব এম এম ইমরুল কায়েস রানা।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় গণভবনে থাইল্যান্ড সফর পরবর্তী প্রেস কনফারেন্স করবেন।

ছয় দিনের থাইল্যান্ড সফর শেষে ২৯ এপ্রিল বেলা সাড়ে ১১টায় দেশে ফেরেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ১০ মিনিটে দেশটির ডন মুয়াং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যাত্রা করে বিমানটি।

থাই প্রধানমন্ত্রী স্রেথা থাভিসিনের আমন্ত্রণে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে দ্বিপাক্ষিক ও বহুপাক্ষিক উভয় সফরে গত ২৪ এপ্রিল বিকেলে ব্যাংককে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। থাইল্যান্ডের ডন মুয়াং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে লালগালিচা উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়। সেখানে তাকে গার্ড অব অনার ও গান স্যালুট জানানো হয়।

শেখ হাসিনা এই সফরকে ‘প্রতিবেশী’ নীতির ওপর বৃহত্তর ফোকাসের অংশ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। কারণ, এটি দুই দেশের জন্য দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের গতিকে আরও নবায়নের চমৎকার সুযোগ করে দিয়েছে। তিনি বলেন, এই সফর দুই দেশের সম্পর্ককে আরও গভীর করার ক্ষেত্রে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যাবে।


আরও খবর



ঢাকায় আসছেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২১ মে ২০২৪ | ৫৪জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী পেনি ওং ২১-২২ মে বাংলাদেশ সফরে আসছেন । তার এই সফরের মূল লক্ষ্য থাকবে- বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদার করা এবং আঞ্চলিক শান্তি, সমৃদ্ধি ও নিরাপত্তার জন্য সহযোগিতা জোরদারের উপায় খুঁজে বের করা।

রোববার (১৯ মে) সরকারি কর্মকর্তারা বলেন, তার সফরে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎপাদন, রোহিঙ্গা সংকট, সামুদ্রিক নিরাপত্তা, প্রযুক্তি হস্তান্তর এবং অবাধ ও উন্মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চল নিয়ে আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, পেনি ওং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। এছাড়া তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাছান মাহমুদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন।

তিনি বলেন, অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে থাকবেন দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া গ্রুপের ডেপুটি সেক্রেটারি এবং পররাষ্ট্র ও বাণিজ্য বিভাগের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অফিসের প্রধান মিশেল চ্যানসহ একটি ছোট প্রতিনিধি দল। রোহিঙ্গা শিবিরের পরিস্থিতি দেখতে সেখানে যাওয়ার কথা রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর।

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিকদের চূড়ান্ত প্রত্যাবাসনের লক্ষ্যে বিশ্বব্যাপী রোহিঙ্গা ইস্যুকে আলোচনায় রাখতে অস্ট্রেলিয়ার সহায়তা চেয়েছে বাংলাদেশ।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৯ সালে তৎকালীন অস্ট্রেলিয়ান পররাষ্ট্রমন্ত্রী মরিস পেন অর্থনীতিবিষয়ক একটি বহুপক্ষীয় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশে এসেছিলেন, তবে সেটি দ্বিপক্ষীয় সফর ছিল না।


আরও খবর



নওগাঁ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি জহুরুল তদন্ত ওসি হলেন লুৎফর রহমান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ মে ২০২৪ | হালনাগাদ:বুধবার ২২ মে ২০২৪ | ৪৩জন দেখেছেন

Image

নাজমুল হক নাহিদ, আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধি:কর্মক্ষেত্রে সাফল্যের জন্য নওগাঁ জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন আত্রাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জহুরুল ইসলাম। ও নওগাঁ জেলার শ্রেষ্ঠ (তদন্ত) ওসি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন একই থানার ভারপ্রাপ্ত তদন্ত কর্মকর্তা মো. লুৎফর রহমান। 

জেলা পুলিশের মাসিক কল্যাণ সভায় এই ঘোষণা প্রদান করা হয়। 

সভাশেষে জেলার পুলিশ লাইনে শ্রেষ্ঠ ওসি ও শ্রেষ্ঠ তদন্ত ওসি‘র হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হক। 

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান, ফৌজিয়া হাবিব খান, জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, জেলার সকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রমুখ। এমন শ্রেষ্ঠত্ব প্রদান করায় জেলার পুলিশ প্রধানসহ জেলা পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন ওসি সেলিম রেজা ও ওসি (তদন্ত) লুৎফর রহমান।  

এ সময় পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হক বলেন, যেকোনো পুরস্কারই একজন মানুষকে শ্রেষ্ঠ কর্মদক্ষতা প্রদর্শনের মাধ্যমে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিতে পাথেয় হিসেবে কাজ করে। তাই পুলিশি সেবাকে প্রতিটি মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে নিজেদের দায়িত্ব ও কর্তব্য সঠিকভাবে সম্পন্ন করার নিমিত্তে কাজের শ্রেষ্ঠত্ব হিসেবে প্রতি মাসে আমরা বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে জেলা পুলিশে কর্মরত সদস্যদের অনুপ্রেরণা প্রদান হিসেবে এই সম্মাননা প্রদান করে আসছি। আমি আশাবাদী এমন পুরস্কার পুলিশ সদস্যদের মাঝে নিপুণভাবে নিজেদের দায়িত্ব সম্পাদন করার ক্ষেত্রে মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে। আগামীতেও জেলা পুলিশের এই ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত রাখা হবে বলে তিনি জানান।


আরও খবর