Logo
আজঃ সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
শিরোনাম

২৪ ঘণ্টায় ২১ জনের করোনা শনাক্ত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৩১৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক ;করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় কারও মৃত্যু হয়নি। একই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২১ জনের।

আজ মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, করোনায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২৯ হাজার ৪৪০ জন। আর মোট শনাক্ত হয়েছে ২০ লাখ ৩৭ হাজার ৩০৫ জনের।  

গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৩৭৪টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ৩ হাজার ৭৬৩টি নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৫৬ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৩২ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৮৮ হাজার ৮৪৬ জন।

প্রসঙ্গত, দেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে ২০২০ সালের ৮ মার্চ। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে করোনায় প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।


আরও খবর



গণিতের বৈশ্বিক আসর ‘ইনফিনিটি ২০২৪’ -এ আইএসডি শিক্ষার্থীদের সাফল্য

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১৫২জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:[ঢাকা, ০৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪] ভারতের মুম্বাইয়ে অনুষ্ঠিত আন্তঃস্কুল গণিত চ্যাম্পিয়নশিপ প্রতিযোগিতা ‘ইনফিনিটি ২০২৪’-এর কুইজিচ রাউন্ডে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ঢাকা-আইএসডি’র একটি দল। প্রতিযোগিতায় স্কুলটির হাইস্কুল শিক্ষার্থীদের দুইটি দল অংশ নেয়। বিশ্বের ৫৪০টি দল থেকে বিজয়ী ৫৪টি ফাইনালিস্ট দলের মধ্য থেকে স্কুলটির দুটি দলই কুইজিচ রাউন্ডে জায়গা করে নেয়। গ্রেড ১০ ও ১১ এর শিক্ষার্থীদের অসামান্য অর্জন উদযাপন করেছে আইএসডি। পুরস্কার হিসেবে শিক্ষার্থীদের এই দুইটি দলই ট্রফি ও সিলভার সার্টিফিকেট পেয়েছে।

অ্যাডভান্সড ক্যাটাগরিতে আইএসডি’র বিজয়ী দলের সদস্যদের মধ্যে রয়েছে- সুভানি, ভানিশা ও এশনা। আর সিনিয়র দলে রয়েছে- জাভির আনিস দৌলা, নিয়ারাহ ও সারিনা। ইনফিনিটি ২০২৪ -এ অনবদ্য পারফরমেন্সের জন্য সার্টিফিকেট অব মেরিটও অর্জন করে নিয়ারাহ।

সারাবিশ্বের গণিত নিয়ে মেধাবীদের আসর- ইনফিনিটিতে শিক্ষার্থীদের শেখার সুযোগ করে দিয়েছে। শিক্ষার্থীরা জালাজ ও রাজনির মতো বিশেষজ্ঞদের তত্ত্বাবধানে প্রতিযোগিতায় প্রতিযোগীরা একটি সমন্বিত শিক্ষাপ্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যায়। বিটস পিলানির সহযোগিতায় আদিত্য বিরলা ওয়ার্ল্ড অ্যাকাডেমি ২০১৪ সাল থেকে এই বার্ষিক আন্তঃস্কুল গণিত প্রতিযোগিতাটির আয়োজন করছে।


আরও খবর

বিনামূল্যে বই পেল ২৬৬ কলেজ শিক্ষার্থী

শনিবার ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা প্রায় ৩০ হাজার মেগাওয়াট

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৯৯জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু জানিয়েছেন বর্তমানে দেশে গ্রিডভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৬ হাজার ৫০৪ মেগাওয়াট; যা ক্যাপটিভ ও অফগ্রিড নবায়নযোগ্য জ্বালানিসহ ২৯ হাজার ৭২৭ মেগাওয়াট বলে  ।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদ অধিবেশনে আওয়ামী লীগের সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান তিনি। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

অধিবেশনে নসরুল হামিদ বলেন, ক্যাপটিভ ও অফগ্রিড নবায়নযোগ্য জ্বালানিসহ বর্তমানে মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ২৯ হাজার ৭২৭ মেগাওয়াট। আর গ্রিডভিত্তিক উৎপাদন ক্ষমতা ২৬ হাজার ৫০৪ মেগাওয়াট।

এর মধ্যে প্রাকৃতিক গ্যাসভিত্তিক উৎপাদন ক্ষমতা ১১ হাজার ৩৫০ মেগাওয়াট (৪৩ শতাংশ), ফার্নেস অয়েলভিত্তিক ছয় হাজার ৪৯২ মেগাওয়াট (২৪ শতাংশ), ডিজেলভিত্তিক ৮২৬ মেগাওয়াট (৩ শতাংশ), কয়লাভিত্তিক চার হাজার ৪৯১ মেগাওয়াট (১৭ শতাংশ), হাইড্রো ২৩০ মেগাওয়াট (এক শতাংশ), অনগ্রিড সৌর বিদ্যুৎ ৪৫৯ মেগাওয়াট (দুই শতাংশ), বিদ্যুৎ আমদানি দুই ২ হাজার ৬৫৬ মেগাওয়াট (১০ শতাংশ)।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী জানান, চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রাপ্যতা অনুযায়ী উৎপাদন করা হয়ে থাকে। ২০২২-২৩ অর্থবছরে গ্রীষ্মকালে বিদ্যুতের সর্বোচ্চ চাহিদার বিপরীতে ১৯ এপ্রিল সর্বোচ্চ উৎপাদনের পরিমাণ ছিল ১৫ হাজার ৬৪৮ মেগাওয়াট।

শীতকালে বিদ্যুতের চাহিদা কমে যাওয়ায় এ বছর শীতকালে বিদ্যুতের সর্বোচ্চ উৎপাদন ১০ হাজার থেকে ১২ হাজার মেগাওয়াটে নেমে আসে। আসন্ন গ্রীষ্মকালে বিদ্যুতের সম্ভাব্য চাহিদার পরিমাণ প্রায় ১৭ হাজার ৫০০ মেগাওয়াটে উন্নীত হবে।


আরও খবর



সরাইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী আ'লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা এড. আব্দুর রাশেদ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারী 2০২4 | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | ১২৬জন দেখেছেন

Image

মো. রুবেল মিয়া:-

আসন্ন উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে জনসমর্থন নিয়ে সরাইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হয়েছেন এড. আব্দুর রাশেদ  তিনি উপজেলা আওয়ামী সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এড.  আব্দুর রাশেদ। তিনি সরাইল সদর ইউনিয়নের কুট্টাপাড়া গ্রামের প্রয়াত আব্দুল আলীর ছেলে৷তিনি একজন জনবান্ধব নেতা ও  যোগ্য ব্যক্তি।


সকল শ্রেণি পেশার মানুষ এড. আব্দুর রাশেদ কে  উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায়।মানব সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করার লক্ষ্যে তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। তিনি পেশায় একজন সিনিয়র আইজীবী ও প্রবীণ রাজনীতিবিদ। ইতিমধ্যে উপজেলার বিশিষ্টজনেরা উনাকে সমর্থন দিয়েছেন।


গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী এড. আব্দুর রাশেদ বলেন, মানুষের জীবন মানের উন্নতি ও আধুনিক সরাইল উপজেলা গড়তে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছি।আমি জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত মানুষের কল্যাণে কাজ করতে চাই।তিনি আরও বলেন, আমি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে গরীব-দুঃখী ও অসহায়  মানুষের কল্যাণে কাজ করব। সমাজে ন্যায় বিচার ও শান্তি প্রতিষ্ঠা করব।

-খবর প্রতিদিন/ সি.ব


আরও খবর



কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে ‘অল-আউট অ্যাকশনে’ যাবে র‌্যাব

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারী ২০24 | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৭জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:র‌্যাবের মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেন কিশোর গ্যাং ও মাদকের বিরুদ্ধে ‘অল-আউট অ্যাকশনে’ যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাতীয় শহীদ মিনারে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের নিরাপত্তা সংক্রান্ত মতবিনিময় শেষে এ প্রসঙ্গে কথা বলেন তিনি।

এ সময় র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈনের লেখা ‘মাদকের সাতসতেরো: বাংলাদেশের বাস্তবতা ও সমাধানসূত্র’ এবং ‘কিশোর গ্যাং: কীভাবে এলো, কীভাবে রুখব’ শীর্ষক দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন র‌্যাব ডিজি।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ হচ্ছে মাদকের একটি ট্রানজিট রোড। এর থেকে যদি বাঁচতে হয়, তবে আমাদের সম্মিলিতভাবে মাদকের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে হবে। এ ছাড়া মাদক-কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে ‘অল-আউট অ্যাকশনে’ যাবে র‌্যাব।

তিনি বলেন, আপনারা জানেন রাজধানীর মোহাম্মদপুর ও মিরপুরে এই কিশোর গ্যাংয়ের বিস্তার খুব বেড়ে গিয়েছিল, যেখানে র‌্যাব অভিযান পরিচালনা করে তা নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে।

র‌্যাব ডিজি বলেন, এসব কিশোর গ্যাংকে কেউ না কেউ আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়। এরা সব সময় থাকে, অতীতেও ছিল এখনও আছে ভবিষ্যতেও থাকবে। আমরা চেষ্টা করছি কিশোর গ্যাং সমূলে কিভাবে বিনাশ করা যায়, পাশাপাশি যারা এদের পরিচালনা করছে আমরা তাদেরকেও আইনের আওতায় আনবো।

এম খুরশীদ হোসেন আরও বলেন, মাদকের বিষয়টি এমন হয়েছে যে শুধু পুলিশ-র‌্যাব ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর দিয়ে কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলো মাদক নিয়ন্ত্রণে অনেক বেআইনি পদক্ষেপও নিয়েছে। কিন্তু আমরা সেই পথে যাচ্ছি না, আইনের মধ্যে থেকেই মাদক নিয়ন্ত্রণে কাজ করছি।

র‌্যাব প্রধান বলেন, দেশে যখন জঙ্গী উত্থান হয়েছিল, আমরা তখন দল মত নির্বিশেষে সামাজিকভাবে এর মোকাবিলা করলাম তখন কিন্তু জঙ্গি নির্মূল করা সম্ভব হয়েছে। সেভাবে মাদকও নিয়ন্ত্রণ সম্ভব।


আরও খবর



সংসদে প্রধানমন্ত্রী

পদ্মা সেতুতে দিনে সোয়া ২ কোটি টাকা আয়

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ১২৬জন দেখেছেন

Image

নিজস্ব প্রতিবেদক:প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুতে টোল আদায়ে দৈনিক গড় আয় দুই কোটি ১৮ লাখ টাকা। বহুমুখী এ সেতু উদ্বোধনের পর থেকে গত ১৯ মাসে মোট টোল আদায় হয়েছে এক হাজার ২৭০ কোটি ৮১ লাখ টাকা।

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দ্বাদশ জাতীয় সংসদের অধিবেশনে সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরীর এক প্রশ্নের লিখিত উত্তরে তিনি এ তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির গর্ব ও সক্ষমতার প্রতীক পদ্মা বহুমুখী সেতু। যা ২০২২ সালের ২৫ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয় এবং একই বছরের ২৬ জুন থেকে যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, উদ্বোধনের পর থেকে সেতু পারাপারকারী যানবাহন থেকে চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত মোট এক হাজার ২৭০ কোটি ৮১ লাখ ৩৪ হাজার ৩৫০ টাকা টোল আদায় হয়েছে। উদ্বোধনের পরে এক বছরেই আয় হয়েছে প্রায় ৭৯৮ কোটি ২৩ লাখ ১৬ হাজার টাকা এবং দৈনিক গড় আয় প্রায় দুই কোটি ১৮ লাখ টাকা।

শেখ হাসিনা বলেন, পদ্মা বহুমুখী সেতু দেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক অবদান রেখেছে। দক্ষিণাঞ্চলের ১৯টি জেলার সঙ্গে ঢাকাসহ পূর্বাঞ্চলের নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ স্থাপিত হয়েছে। এছাড়া বছরে শ্রমশক্তির প্রায় ১ দশমিক ৪ শতাংশের কর্মসংস্থান ঘটেছে। এই সেতু নির্মাণের ফলে সারাদেশে দশমিক ৮৪ শতাংশ দারিদ্র্য হ্রাস পেয়েছে, জিডিপি প্রবৃদ্ধি- দক্ষিণাঞ্চলে ২ দশমিক ৫ শতাংশ এবং সামগ্রিকভাবে ১ দশমিক ২৩ শতাংশ।

তিনি বলেন, এছাড়া ট্রান্স এশিয়ান রেল ও সড়ক এ সেতুর মাধ্যমেই যুক্ত হবে। বাণিজ্য, শিল্পায়ন ও পর্যটন ত্বরান্বিত হবে। এরই মধ্যে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের আর্থসামাজিক জীবনচিত্র পাল্টে গিয়ে ব্যাপক কর্মচাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।


আরও খবর