সোহাগ আহম্মেদ:যাত্রাবাড়ী

 

বৃহস্পতিবার বেলা তিনটায় রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ধলপুর মেথরপট্রি বাসায় ফেরার পথে ভুক্তভোগী ১০ বছরের একটি মেয়েকে  প্রতিবেশী মোঃ লিটন খাবারের কথা বলে একটি বাসায় নিয়ে গিয়ে শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিলে তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে অভিযুক্ত লিটন পালিয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মেয়েটিকে উদ্ধার করে যাত্রাবাড়ী থানায় নিয়ে যায়। যাত্রাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মাজহারুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার বিকালে ১০ বছরের একটি মেয়েকে ধর্ষনের চেষ্টার খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে, তবে মেয়েটি ধর্ষন হয়নি। এ বিষয় শ্রীলতাহানির একটি মামলা দায়ের করেছে তার পরিবার। ভুক্তভুগীর দাদা জানায়, প্রায় তিন বছর আগে মেয়েটির বাবা শাহ আলম ক্যাসারে মারা যায়। সে মায়ের সাথে মাদারীপুর জেলার পানিসাত্তর গ্রামে বসবাস করে। ঢাকায় দাদা দাদী থাকেন, দাদীর স্ট্রোক করার কথা শুনে ভুক্তভুগী তার মায়ের সাথে চারদিন আগে দাদীকে দেখতে ঢাকায় আসে। দাদা ও দাদি অসহায়ত্ব দেখে তার মা ইয়াসমিন দাদা দাদীকে খেলভাল করার জন্য তাকে রেখে যায় কিন্তু পরিবেশী লিটনের কু-দৃষ্টিতে আজ তার নাতি অল্পের জন্য বেচে যায় ধর্ষন থেকে। তিনি এই নাবালক বাবা হারা মেয়ে সাথে যে আচরন হয়েছে তার বিচার চান।

এলাকাবাসী এই ঘটনায় অভিযুক্ত লিটকে আটক করে বিচারের আওতায় আনার জন্য মিছিল করে। তারা বলেন, লিটন একজন প্রতারক মিথ্যা বয়স দেখিয়ে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মশকে সরকারী চাকরী নিয়েছে। অথচ সরকারী চাকরীর বয়স তার পার হয়েছে। লিটনের মেয়ের বয়স প্রায় ১৪ তাহলে এই বয়সে কি করে সরকারী চাকরী পায়। অভিযুক্ত লিটনের বাবা জানান,লিটন মাদকাসক্ত তার দুই মেয়ে ও একটি ছেলে রয়েছে। তার গ্রামের বাড়ী নড়াইল জেলার লোহাগড়া থানার ইতানা গ্রামে।