English Version

‘সালোয়ারের ওপর গেঞ্জি’

প্রকাশিতঃ আগস্ট ২৮, ২০১৭, ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হলের একটি নোটিশকে কেন্দ্র দুদিন আগে তোলপাড় ছিল সামাজিক মাধ্যমে। সে ঢেউ লেগেছিল গণমাধ্যমেও। পরে হল কর্তৃপক্ষ, স্বাক্ষর ও সিল ছাড়া নোটিশটিকে ‘বিকৃত ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ হিসেবে অভিহিত করে দাবি করেছে, এটি তাদের দেয়া নয়। ঘটনা তদন্তে হল কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের একটি কমিটিও গঠন করেছে। তবে হলের ছাত্রীদের কেউ কেউ বলছেন, হলের সাধারণ নোটিশ বরাবরই এমন সিল-স্বাক্ষর ছাড়া নোটিশ বোর্ডে ঝুলানো হয়। এখন বিতর্কের কারণে তারা নোটিশটি অস্বীকার করছেন।

আবার কেউ কেউ বলছেন, হল কর্তৃপক্ষ সিল-স্বাক্ষর ছাড়া একটি নোটিশ দিয়েছিল বটে, যাতে যথাযথ পোশাক পরে হল অফিসে আসতে বলা হয়েছিল। কিন্তু তাতে নির্দিষ্ট কোনো পোশাকের কথা বলা হয়নি। কিন্তু যে নোটিশ নিয়ে তোলপাড়, তাতে লেখা ছিল ‘হলের অভ্যন্তরে দিনের বেলা অথবা রাতের বেলা কখনোই অশালীন পোশাক (সালোয়ার এর ওপর গেঞ্জি) পরে ঘোরা ফেরা অথবা হল অফিসে কোন কাজের জন্য প্রবেশ করা যাবে না। অন্যথায় শৃঙ্খলা ভঙ্গের জন্য হল কর্তৃপক্ষ বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’
হলের ছাত্রীদের কেউ কেউ বলছেন, পোশাক সংক্রান্ত প্রথম নোটিশটি হল কর্তৃপক্ষ দিলেও ক্ষুব্ধ ছাত্রীরা তাকে ব্যঙ্গ করে পরে আলোচিত হওয়া নোটিশটি ছড়িয়েছে। আর ছাত্রীদের আরেকটি অংশ হল কর্তৃপক্ষের সাথে সুর মিলিয়ে বলছে, নোটিশের পুরো বিষয়টিই ভুয়া। হল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেজ নষ্ট করতে একটি মহল সুকৌশলে এই নোটিশটি অনলাইনে ছড়িয়েছে। ছোট্ট একটা নোটিশ নিয়ে কতটা বিভ্রান্তি ছড়ানো সম্ভব, তার একটি উদাহরণ এই ঘটনা। এমনকি সামাজিক মাধ্যমের বিতর্ক পৌঁছে গিয়েছিল গণমাধ্যমেও। তবে নোটিশটি সত্য না ভুয়া, তা নিয়ে এই লেখা নয়। আজকের লেখা মানুষের পোশাক নিয়ে।
সালোয়ারের ওপর গেঞ্জি পরলে কেমন দেখা যায় জানি না, আমি এই পোশাক পরা কাউকে দেখিনি। মেয়েরা যদি এই গরমে হলের ভেতরে সালোয়ারের ওপর গেঞ্জি পরে স্বাচ্ছন্দ্য পায়, আমার আপত্তি নেই। কেউ যদি বোরখা বা হিজাব পরে থাকে তাতেও আমার আপত্তি নেই। আমার আপত্তি খালি বাধা দেয়ায়, চাপিয়ে দেয়ায়।

সামাজিক মাধ্যমে বিতর্কের পয়েন্টও ছিল এটাই। পোশাক হলো একজন ব্যক্তির রুচি, স্বাচ্ছন্দ্য ও শালীনতার ব্যাপার। আমার পরিচিত নারীদের মধ্যে যারা বোরকা বা হিজাব পরেন, তাদেরকেও আমার ভালো লাগে, আবার যারা জিনস-টি শার্ট পরেন তাদের পছন্দকেও আমি সম্মান করি।

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: khoborprotidin24.com@gmail.com, khoborprotidin24news@gmail.com

.::Developed by::.
Great IT