English Version

ভ্যাটের চাপে পড়বে সাধারণ মানুষ

প্রকাশিতঃ জুন ১০, ২০১৭, ১০:২৩ পূর্বাহ্ণ


 

দেশে গ্যাসের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। অন্যদিকে সরকার চাইছে পাইপলাইনের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে আনতে। দেশে প্রাকৃতিক গ্যাসের মজুদ কমে যাওয়ায় আবাসিক খাতে নতুন সংযোগ দেওয়া বন্ধ রাখা হয়েছে। শিল্প খাতে গ্যাসের সংযোগ সীমিত করা হয়েছে। পরিবহন খাতেও রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহারে নিরুৎসাহ করা হচ্ছে। এ অবস্থায় বিকল্প হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে এলপি গ্যাস। ফলে দেশজুড়েই এলপি গ্যাসের চাহিদা বাড়ছে। তা ছাড়া ২০১৯ সালের মধ্যে গৃহস্থালির কাজে চাহিদার ৭০ শতাংশ এলপি গ্যাস দিয়ে মেটানোর পরিকল্পনাও সরকারের রয়েছে। এলপির সরবরাহ বাড়াতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোগে এলপিজি প্লান্ট স্থাপন প্রক্রিয়া সহজ করা হয়েছে।

এ খাতে বিনিয়োগে উৎসাহিত করতে বিভিন্ন উপকরণ আমদানিতে কর অব্যাহতি ও রেয়াতি হারে শুল্ক সুবিধা দিয়েছে সরকার। বিপিসির পাশাপাশি দেশি-বিদেশি ১০টির মতো প্রতিষ্ঠান এলপিজি প্লান্ট স্থাপন করে উৎপাদন শুরু করেছে। দেশে বর্তমানে এলপি গ্যাসের চাহিদা প্রায় ১০ লাখ টন। এর বিপরীতে পাঁচ লাখ টন ব্যবহার করা হচ্ছে বলে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের এক হিসাবে বলা হয়েছে। অন্যদিকে দেশে স্থাপিত প্লান্টগুলো উৎপাদনক্ষমতার ৪০ শতাংশ কাজে লাগাতে পারছে।

বর্তমানে শুধু রান্নার কাজে নয়, গাড়ি চালানো, ক্ষুদ্রশিল্পের জ্বালানি এবং অনেক রাসায়নিক ও প্রসেসিং কারখানার কাঁচামাল হিসেবেও এলপি গ্যাস ব্যবহৃত হচ্ছে। পাইপলাইনের চেয়ে দাম বেশি পড়ে বলে আবাসিক ও বাণিজ্যিক খাতে এলপির ব্যবহার প্রত্যাশামাফিক না বাড়লেও বড় ও মাঝারি অনেক শিল্পেই এলপি গ্যাস ব্যবহৃত হচ্ছে। দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠীকে এলপি গ্যাসের আওতায় আনতে গেলে এই গ্যাস ব্যবহারে তাদের আগ্রহী করে তুলতে হবে। এলপি গ্যাস সহজলভ্য করে তোলার চেষ্টা করতে হবে। কিন্তু এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে এলপি গ্যাসের ওপর যে হারে ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে, তা কোনোভাবেই গ্রাহকবান্ধব নয়। নতুন ভ্যাট কার্যকর হলে গ্রাহক পর্যায়ে এলপি গ্যাসের দাম বাড়বে। ফলে গৃহস্থালি থেকে শুরু করে বাণিজ্যিক পর্যায়ে গ্রাহকরা এলপি গ্যাস ব্যবহারে উৎসাহ হারাবে। অথচ প্রাকৃতিক গ্যাসের ওপর থেকে নির্ভরতা কমাতে এলপিজিতে উৎসাহিত করা দরকার। নতুন করে বাড়তি ভ্যাট যুক্ত হলে এলপির ব্যবহার নিরুৎসাহ হবে। কাজেই বাজেটে এলপি গ্যাসের ওপর প্রস্তাবিত ভ্যাটের বিষয়টি নতুন করে ভাবতে হবে।

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: khoborprotidin24.com@gmail.com, khoborprotidin24news@gmail.com

.::Developed by::.
Great IT