English Version

ক্রিকেটের ‘শর্ট স্পেলের’ মতো ক্ষণিক ঝড়ের তাণ্ডব চলছে এখন

প্রকাশিতঃ এপ্রিল ২১, ২০১৮, ৯:১৭ অপরাহ্ণ


আকাশে এই রোদের হাসি, আবার এই ঘোর ঘন মেঘ। আচমকা ধূলি ওড়ানো বাউলা বাতাস। পাগলা হাওয়ার নাচন। নিমেষে হাওয়ার বেগ বেড়ে কালবৈশাখীর ঝাপটা। নতুন বছরে বৈশাখের শুরুটাই হয়েছে এভাবে।

এ যেন ক্রিকেটের সেই ‘শর্ট স্পেলের’ ঝড়। ব্যাট হাতে নিয়ে অনবরত চার-ছক্কা মেরে শাসিয়ে যাচ্ছেন ব্যাটসম্যান। উত্তাপ মাঠজুড়ে। ঠিক এমন সময় বোলার পরিবর্তন। এক থেকে দুই, বড়জোড় তিন ওভার বোলিং করিয়ে একটি উইকেট তুলে নিতে পারলেই প্রতিপক্ষ ঠান্ডা। ক্রিকেট ম্যাচে এই ধরনের বোলিংকে ‘শর্ট স্পেল’ বলা হয়।

ঠিক তেমনি গ্রীষ্মকালে মার্চ থেকে মে মাসের দিকে সূর্য তাপে উষ্ণ হয়ে যায় ভূপৃষ্ঠ। তখন আরব সাগর থেকে আসা পশ্চিমা বাতাসের সঙ্গে দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরের বাতাস মিশে পশ্চিম আকাশে জমে কালো মেঘ। এই কালো মেঘ থেকে বয়ে যায় কালবৈশাখী। ঘণ্টা দুই বা তিনেকের ঝড় বয়ে যাওয়ার পর প্রকৃতি শীতল। এই কালবৈশাখীকে আবহাওয়াবিদেরা বলে থাকেন ‘শর্ট স্পেলের ঝড়’।
পয়লা বৈশাখে বর্ষবরণের দিন বিকেলে এ ধরনের ‘শর্ট স্পেলের ঝড়’ বয়ে যায় সারা দেশের ওপর দিয়ে। এর ধারাবাহিকতা রয়েছে এখনো। এই তো আজ শনিবার সকালে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্ব ও মধ্যাঞ্চলে বয়ে যায় ‘শর্ট স্পেলের’ ঝড়। রাজধানী ঢাকাতেও আজ সকাল আটটার দিকে কালো মেঘ জমে আকাশ থেকে ছড়িয়ে যায় অন্ধকার।

আধা ঘণ্টা থেকে পৌনে এক ঘণ্টা সময় বয়ে যায় দমকা হাওয়া। সঙ্গে কিছুটা বৃষ্টি। আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে জানা গেছে, ঢাকায় বৃষ্টি হয়েছে সামান্য। তবে এ সময় বেশ কয়েকটি জেলায় কালবৈশাখীর সঙ্গে প্রচুর বৃষ্টি হয়েছে। সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে বগুড়ায় ৫৮ মিলিমিটার। এ ছাড়া মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ৩৪, সিলেটে ২১, সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ১৫ ও টাঙ্গাইলে ১৫ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক প্রথম আলোকে বলেন, বাংলাদেশে এ সময় জলীয় বাষ্প আসে আবর সাগর ও বঙ্গোপসাগর থেকে। আরব সাগরের বাতাস শুষ্ক ও গরম থাকে এবং বঙ্গোপসাগর থেকে আসা বাতাস আর্দ্র ও উষ্ণ থাকে। এই দুই বাতাস মিলে বজ্রঝড় হয়। মৌসুমি বায়ু আসার আগে দেশে এ ধরনের ঝড় হয়। ১৯৫১ থেকে ২০১৭ সালের তথ্য পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, এই ঝড়ের স্থায়িত্ব কম সময়ের জন্য হয়। এটি ‘শর্ট স্পেল’ বলা হয়।

শর্ট স্পেলের ঝড়ের চরিত্র দুধরনের উল্লেখ করে আবুল কালাম মল্লিক বলেন, সাধারণত দেখা যায়, বিকেল চারটা থেকে রাত আট কিংবা দশটা পর্যন্ত ঝড় হয়। আবার ভোররাত চারটা থেকে সকাল আটটার সময়ও কালবৈশাখী বয়ে যায়। উত্তরাঞ্চল থেকে মধ্যাঞ্চলের দিকে চলে আসে। একটি এলাকায় এক ঘণ্টা থেকে বড়জোড় তিন ঘণ্টার বেশি ঝড় স্থায়ী হয় না।

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: khoborprotidin24.com@gmail.com, khoborprotidin24news@gmail.com

.::Developed by::.
Great IT