English Version

পরিবার ভয়ে, ‘বন্ধু’র মামলা নিয়ে প্রশ্ন

প্রকাশিতঃ জানুয়ারি ১৩, ২০১৮, ১১:০৮ পূর্বাহ্ণ


সিলেটে অভ্যন্তরীণ কোন্দলে ছাত্রলীগের কর্মী তানিম খান (২২) হত্যার ঘটনায় তাঁর পরিবার ভয়ে মামলা পর্যন্ত করেনি। পুলিশের পক্ষ থেকেও মামলা হয়নি। মামলা করেছেন তাঁর এক কথিত বন্ধু ছাত্রলীগের আরেক কর্মী দেলোয়ার হোসেন। হত্যাকাণ্ডের তিন দিন পর (১০ জানুয়ারি মধ্যরাত) মহানগর পুলিশের শাহপরান থানায় মামলাটি করা হয়।

গতকাল শুক্রবার রাতে তানিমের বাবা ইসরাইল খান মুঠোফোনে বলেছেন, তিনি ভয়ে মামলা করেননি। কিসের ভয়, কারা ভয় দেখাল? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমি ২০ বছর আমার ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব দিয়েছি। আমার পরিবার আওয়ামী লীগের পরিবার। কিন্তু আমি ভরসা পাচ্ছি না। ভয়ে আছি। যে ছুরি ছেলের গলায় চালিয়ে হত্যা করা হয়েছে, সেই ছুরি এখন আমার কলিজায় বিদ্ধ হয়ে আছে। মামলা করে বিচার পাওয়ার কোনো ভরসা পাইছি না। এ কারণে মামলা করিনি। আমি আল্লাহর কাছে বিচার চাই।’ কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা গ্রামের মানুষ। গ্রামে থাকি। শহরের পলিটিকসের লগে পাল্লা দিতাম পারতাম না।’

শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন বলেছেন, পরিবার মামলা করতে রাজি হয়নি। তানিমের বন্ধু বাদী হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করায় এভাবে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে ছাত্রলীগের এমসি কলেজ ও সরকারি কলেজের তিনজন নেতা বলেছেন, আওয়ামী লীগের একটি প্রভাবশালী মহলের প্রভাবে পরিবারের সদস্যরা কেউ মামলা করার সাহস পাননি।

এদিকে ছাত্রলীগের কর্মী দেলোয়ারের করা মামলা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশ যে চারজনকে আটক করেছিল, তাঁদের তিনজনকেই এ মামলায় আসামি করা হয়নি। এ মামলার পেছনে অন্য কোনো উদ্দেশ্য আছে কি না, জানতে চাইলে বাদী দেলোয়ার বলেন, ‘আমিও ভয়ের মধ্যে আছি। আমি তানিমের বন্ধু। আমার ওপরও আক্রমণ হতে পারত।’

পুলিশ সূত্র জানায়, তানিম হত্যা মামলায় ২৯ জনকে এজাহারভুক্ত আসামি করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রধান আসামি করা হয়েছে নগর আওয়ামী লীগের শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক ও সিটি করপোরেশনের ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজাদুর রহমানের ভাতিজা সিদ্দিকুর রহমান ওরফে আজলাকে। বাকি ২৮ আসামিদের মধ্যে হত্যাকাণ্ডের পরপরই সন্দেহভাজন হিসেবে আটক জেলা ছাত্রলীগের সাবেক বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক জয়নাল আবেদীন ওরফে ডায়মন্ডও আছেন। ২৯ জনের নাম উল্লেখ ছাড়াও অজ্ঞাতনামা ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: khoborprotidin24.com@gmail.com, khoborprotidin24news@gmail.com

.::Developed by::.
Great IT