English Version

এমপিওভুক্তরাও যাচ্ছেন আমরণ অনশনে

প্রকাশিতঃ জানুয়ারি ১২, ২০১৮, ১:০৫ অপরাহ্ণ


শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গতকাল বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনের মতো লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন এমপিওভুক্ত বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষকেরা। বেসরকারি শিক্ষা জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরামের ডাকে এই কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। সংগঠনটির নেতারা বলেছেন, শনিবারের মধ্যে দাবি না মানা হলে পরদিন রোববার থেকে তাঁরা আমরণ অনশন শুরু করবেন।

এদিকে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের নিবন্ধন পাওয়া সব স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবিতে ওই সব মাদ্রাসার শিক্ষকদের আমরণ অনশনের গতকাল ছিল তৃতীয় দিন। তাঁরা বলেন, গতকাল আরও ৪৫ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে তিন দিনে ৮৯ জন শিক্ষক অসুস্থ হয়েছেন।

গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দেখা গেছে, মূল ফটকের পূর্ব পাশে এমপিওভুক্ত বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষকেরা জাতীয়করণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। তাঁরা মাইকে বক্তৃতার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিচ্ছেন। দুপুরের দিকে পুলিশ মাইক বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়।

লিয়াজোঁ ফোরামের নেতা সাইদুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ হলে প্রান্তিক জনগোষ্ঠী সুবিধা পাবে। ছাত্রছাত্রীদের বেতন লাগবে না, শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বাড়বে। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে দাবি পূরণের ঘোষণা না আসা পর্যন্ত তাঁরা কর্মসূচি চালিয়ে যাবেন। আরেক শিক্ষক নেতা নজরুল ইসলাম বলেন, ফোরামের নেতারা সভা করে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ১৩ জানুয়ারির মধ্যে দাবি পূরণ না হলে পরদিন থেকে আমরণ অনশন করবেন।

আমরণ অনশন চলছে

জাতীয় প্রেসক্লাবের মূল ফটকের পশ্চিম পাশে ফুটপাত ও সামনের সড়কের একাংশে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসার শিক্ষকেরা আমরণ অনশন করছেন। স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতির মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে দাবি পূরণের বিষয়ে তাঁরা কোনো আশ্বাস পাচ্ছেন না। তাই অনশন চালিয়ে যাবেন।

অনশনস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, শীতের মধ্যে খোলা আকাশের নিচে শিক্ষকদের অনেকেই শুয়ে আছেন। এর মধ্যে বেশ কয়েকজন শিক্ষককে স্যালাইন দেওয়া হয়েছে। বেশি কষ্ট হচ্ছে নারী শিক্ষকদের। তবে তাঁরা বলছেন, যতই কষ্ট হোক, এবার দাবি পূরণ ছাড়া বাড়ি যাবেন না।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা-সংক্রান্ত তথ্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব এবং প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিবকে গত বুধবার সন্ধ্যায় দেওয়া হয়েছে। মুখ্য সচিবকে দেওয়া তথ্যে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসার সংখ্যা ৩ হাজার ৪৩৩টি উল্লেখ করা হয়েছে। এগুলোতে শিক্ষক আছেন ১৫ হাজার ২৪৩ জন। অবশ্য আন্দোলনকারী শিক্ষকেরা বলছেন, মাদ্রাসা বোর্ড থেকে নিবন্ধিত স্বতন্ত্র ইবতেদায়ি মাদ্রাসা ১৮ হাজার ১৯৪টি হলেও চালু আছে ১০ হাজারের মতো।

নতুন জোটের কর্মসূচি ঘোষণা

এদিকে শিক্ষা জাতীয়করণসহ কয়েকটি দাবিতে ১৬টি শিক্ষক-কর্মচারী সংগঠন মিলে ‘স্বাধীনতা শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশন’ নামে নতুন একটি জোটের আত্মপ্রকাশ হয়েছে। একই সঙ্গে জোটের পক্ষ থেকে কিছু কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে কর্মসূচি ঘোষণা করেন নতুন জোটের প্রধান সমন্বয়কারী মো. শাহজাহান আলম। সংবাদ সম্মেলনে ফেডারেশনের কো-চেয়ারম্যান আবদুর রশীদসহ জোটভুক্ত বিভিন্ন শিক্ষক সমিতির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জোটের ঘোষিত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ১৪ থেকে ১৮ জানুয়ারি সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গণসংযোগ, ২১ জানুয়ারি উপজেলায় মানববন্ধন ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি, ২৫ জানুয়ারি জেলায় মানববন্ধন ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি এবং ২৭ জানুয়ারি ঢাকায় গোলটেবিল বৈঠক। এরপর আগামী ৩ মার্চ ঢাকায় প্রতিনিধি সভা ডেকে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্রমতে, শিক্ষা জাতীয়করণের সম্ভাবনা আপাতত নেই। সরকারের সিদ্ধান্ত, যেসব উপজেলায় সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ নেই, সেগুলোতে একটি করে বিদ্যালয় ও কলেজকে সরকারি করা। এখন সেই কাজ করছেন তাঁরা।

এমপিওভুক্তির সুসংবাদ শিগগিরই

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির বিষয়ে তিনি শিগগির সুসংবাদ নিয়ে আসতে পারবেন। তবে কৌশলগত কারণে তিনি বিস্তারিত কিছু বলতে চান না। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে একটি সিদ্ধান্ত প্রস্তাবের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী এ কথা বলেন।

এমপিওভুক্তির দাবিতে শিক্ষকদের আন্দোলনের দিকে ইঙ্গিত করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, তিনি অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছেন। অর্থমন্ত্রী এমপিওভুক্তির বিষয়ে মত দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী অনুশাসন দিয়েছেন। এমপিওভুক্তির বিষয়টি সক্রিয় বিবেচনায় রয়েছে। মন্ত্রণালয় কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: khoborprotidin24.com@gmail.com, khoborprotidin24news@gmail.com

.::Developed by::.
Great IT