English Version

বিশ্বজিতের মৃত্যু: ওসিসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিতঃ জানুয়ারি ১১, ২০১৮, ৭:১৫ অপরাহ্ণ | শেষ আপডেটঃ জানুয়ারি ১১, ২০১৮্‌, ৭:১৭ অপরাহ্ণ


বিশ্বজিৎ সরকার নামের এক তরুণকে পুলিশ আটক করে ছেড়ে দেওয়ার পর মৃত্যুর ঘটনায় শেরপুরের নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও দুই উপপরিদর্শকসহ (এসআই) ১২ জনের বিরুদ্ধে আদালতে একটি হত্যা মামলা করা হয়েছে।

মামলার আসামিরা হলেন নালিতাবাড়ী থানার ওসি এ কে এম ফসিহুর রহমান, এসআই আতিয়ার রহমান ও সুমন মিয়া, স্থানীয় সুদীপ ডালু, আবুল কালাম শামসুদ্দিন চঞ্চল, রফিকুল ইসলাম, সুদেন সূত্রধর, প্রদীপ সূত্রধর, বিকাশ সূত্রধর, কৃষ্ণ মণ্ডল, অরুণ সরকার এবং জাহাঙ্গীর আলম জন।

ঘটনার প্রায় আড়াই মাস পর আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে নালিতাবাড়ী উপজেলার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম-২ এর আদালতে নিহতের ভাই নিত্যানন্দ সরকার সুব্রত বাদী হয়ে এই মামলাটি করেন। আদালতের বিচারক মো. হুমায়ুন কবীর মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআই ময়মনসিংহকে (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মমতাজ উদ্দিন মুন্না বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পিবিআই ময়মনসিংহকে ঘটনাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। মামলা দায়েরের সময় আদালতে বাদীপক্ষকে আইনগত সহায়তা করেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, ময়মনসিংহ বিভাগের আঞ্চলিক সমন্বয়কারী আইনজীবী নজরুল ইসলাম।

গত বছরের ১ অক্টোবর রাত ৭টার দিকে পুলিশ নালিতাবাড়ী শহরের তারাগঞ্জ উত্তরবাজার থেকে কাচারি পাড়া এলাকার কাঠমিস্ত্রি বিশ্বজিৎ সরকারকে (২০) গাঁজা রাখার অভিযোগে আটক করে পুলিশ। পরে রাত ১০টার দিকে তাঁর দুলাভাইয়ের জিম্মায় থানা হাজত থেকে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। থানা থেকে বাড়ি ফিরে রাত ১টার দিকে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ সময় তাঁকে নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসা কর্মকর্তা বিশ্বজিৎকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশের পিটুনির কারণে বিশ্বজিতের মৃত্যু হয়েছে দাবি করে পরদিন লাশ নিয়ে এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল করে। সে সময় পুলিশের নালিতাবাড়ী সার্কেলের কার্যালয়ে ক্ষুব্ধ জনতার ছোড়া ইট-পাটকেলের আঘাতে ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটে।

সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আদালতে পুলিশসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে শুনেছি। বিশ্বজিতের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে মৃত্যুর নির্দিষ্ট কোনো কারণ পাওয়া যায়নি। তবে হার্ট অ্যাটাকে তাঁর মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে।’ তিনি বলেন, বিশ্বজিতের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। পুলিশের বিরুদ্ধে এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ।

প্রকাশকঃ
মোঃ মামুনুর হাসান (টিপু)

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক:
খন্দকার আমিনুর রহমান

৫০/এফ, ইনার সার্কুলার, (ভি আই পি) রোড- নয়া পল্টন ,ঢাকা- ১০০০।
ফোন: ০২-৯৩৩১৩৯৪, ৯৩৩১৩৯৫, নিউজ রুমঃ ০১৫৩৫৭৭৩৩১৪
ই-মেইল: khoborprotidin24.com@gmail.com, khoborprotidin24news@gmail.com

.::Developed by::.
Great IT